• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০

 

নির্বাচনকে গণতান্ত্রিক ধারায় ফিরিয়ে আনতে হবে

মোহাম্মদ শাহজাহান

নিউজ আপলোড : ঢাকা , সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০

করোনা মহামারীর মধ্যেই ২০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত স্থানীয় সরকার জেলা-উপজেলা পরিষদের দুই শতাধিক নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি ছিল একেবারেই কম। তবে নিরুত্তাপ এই ভোটের মধ্যেও কেন্দ্র দখল, হামলা, সংঘর্ষ, জালভোট, ভাঙচুর এবং প্রতিপক্ষের এজেন্টকে মারধর ও কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। সবচেয়ে লক্ষণীয় বিষয় ছিল ভোটারের অভাবে ভোট কেন্দ্রগুলো যেন খা-খা করছিল। চট্টগ্রামে ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়িতে ককটেল হামলা এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জালভোটের অভিযোগে ৩ তরুণীকে কারাদ- দিয়েছেন ম্যাজিস্ট্রেট। ওই দিন রাতে বিবিসির খবরের প্রথম শিরোনাম ছিল স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ভোটার অনুপস্থিতির বিষয়টি। সাধারণত সংসদ নির্বাচনের তুলনায় স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি বেশি হয়ে থাকে। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা ভোটারদের নিজের প্রয়োজনে ও চেষ্টায় বেশি থেকে বেশি সংখ্যায় ভোটকেন্দ্রে নিয়ে আসেন। পাইকগাছার একজন সাংবাদিক বিবিসিকে বলেন, ভোট গ্রহণ শুরুর ৩ ঘণ্টা পর কয়েকটি ভোটকেন্দ্রে গিয়ে দেখেন, কয়েকটি কেন্দ্রে ভোটারের সংখ্যা যেখানে প্রায় ৩ হাজার সেখানে ভোট পড়েছে ১৬টি, ১৭টি বা ২০টি করে। বিবিসি একজন সাবেক নির্বাচন কমিশনারসহ নির্বাচন পর্যবেক্ষণকারী সংগঠনের সঙ্গে ভোটারদের কেন্দ্রে না আসার বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছে। নির্বাচন পর্যবেক্ষণকারী ব্রতীর শারমিন মুরশিদ জানান, দেশের নির্বাচনী ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে না আসা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ভোটার কেন্দ্রে এসে দেখেন তার ভোট দেয়া হয়ে গেছে অথবা সেখানে গোপনে স্বাধীনভাবে ভোট প্রদানের কোন পরিবেশ নেই। আর এ জন্যই এমনটি হচ্ছে। সাবেক নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার সাখাওয়াত হোসেন বলেন, ধারাবাহিক খারাপ নির্বাচনের কারণে এই অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। পরপর কয়েকটি নির্বাচন খারাপভাবে অনুষ্ঠিত হলে এমন পরিস্থিতির উদ্ভব হয়। তিনি আরও বলেন, নির্বাচন কমিশনের ওপর ভোটাররা আস্থা হারিয়ে ফেলেছে এবং ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের স্বাধীনভাবে মত প্রকাশের স্বাধীনতা থাকে না। তাছাড়া নির্বাচন কমিশন কারও অভিযোগ ভালোভাবে আমলেও নেয় না এবং দোষীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থাও নেয় না। ২০ অক্টোবর ১৫টি ইউনিয়নের সাধারণ, ১৭৭টি ইউনিয়নে বিভিন্ন শূন্যপদে উপনির্বাচন, একটি উপজেলায় সাধারণ, ৮টি উপজেলায় বিভিন্ন পদে উপনির্বাচন এবং ৭টি জেলা পরিষদে বিভিন্ন পদে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের আয়োজন সম্পন্ন করলেও অবাধ, সুষ্ঠু এবং সুশৃঙ্খল পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠান করতে পারেনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, চট্টগ্রামের লোহাগাড়া ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের নজিবুন্নেসা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে জালভোট এবং কেন্দ্র দখলের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিলুফা ইয়াসমিন চৌধুরী। এ সময় তার গাড়ি লক্ষ্য করে পরপর দুটি ককটেল নিক্ষেপ করে দুর্বৃত্তরা। ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, হামলায় আমি অক্ষত থাকলেও আমার গাড়ির চালক আহত হয়েছেন। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার আদ্রা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে কাকৈরতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের চারদিকে সকালে ভোট শুরুর পর থেকেই কয়েকশ যুবক হেলমেট পরে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ঘুরাঘুরি করতে থাকে। তারা ভোটারদের কেন্দ্রে আসতে বাধা দিচ্ছিল। ভোট শুরুর ঘণ্টাখানেক আগে হেলমেটধারী অস্ত্রবাজদের হামলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী (আনারস প্রতীক) মাহফুজুর রহমান সেলিমের কমপক্ষে ১০ জন কর্মী আহত হন। সকাল ১০টার দিকে একবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ। একটু পর পরই কেন্দ্রের অদূরে ককটেল বিস্ফোরণের শব্দ আসছিল। পেরপোট প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে প্রবেশের পথে সকালের দিকে ধানের শীষের এজেন্ট মনির হোসেনকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে জখম করা হয়। পরদিন ২১ অক্টোবর একটি জাতীয় দৈনিকে পিঠে-হাতে ব্যান্ডেজসহ মনিরের ছবি প্রকাশিত হয়েছে। খুলনার পাইকগাছা উপজেলা চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে একদল যুবক টাউন মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে জোর করে ঢুকে ব্যালটে সিল মারা শুরু করে। এ সময় পুলিশ ২ জনকে আটক করে। কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার জানান, নৌকা প্রতীকে সিল দেয়া ২১টি ব্যালট পেপার বাতিল করা হয়েছে। পাইকগাছা থানার ওসি শফি জামান জানান, বেলা ২টার দিকে শলুয়া রামনাথপুর ভোটকেন্দ্রে ব্যালটে সিল দেয়ার সময় ২ পোলিং এজেন্টকে আটক করেছে পুলিশ। নেত্রকোনার পূর্বধরা উপজেলার ধলামূলগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে দেবকান্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকা ও স্বতন্ত্র আনারস প্রতীকের প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ৩ জন আহত হন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলায় চুন্টা ইউনিয়নে জাল ভোট দেয়ার সময় তিন তরুণীকে ৬ মাসের কারাদ- দিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফিরোজা পারভীন। যশোর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে দেড় শতাধিক কেন্দ্র থেকে ধানের শীষের পোলিং এজেন্টদের বের করে দেয়ার অভিযোগ করেছে বিএনপি। সিরাজদহ গ্রামে ধানের শীষ ও নৌকার সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ধানের শীষের তিনজন আহত হয়েছেন। ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন উপনির্বাচনে রায়পুরা উপজেলার কেরোয়া ইউনিয়নে, নওগাঁরও মান্দা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে এবং মাদারীপুরের শিবচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচন বিএনপি প্রার্থীরা নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেয়।

বাংলাদেশের মানুষ ভোটের দিনকে উৎসবের দিন মনে করে। তাছাড়া জনগণ আগাগোড়াই গণতন্ত্রপ্রিয়। সেই মানুষগুলো ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার আগ্রহ একেবারেই হারিয়ে ফেলেছে। এই অনাগ্রহ একদিনে সৃষ্টি হয়নি। মাত্র কয়েকদিন আগে ১৭ অক্টোবর ঢাকা-৫ আসনের উপনির্বাচনে ভোট পড়েছে শতকরা ১১ ভাগের কম (১০.৪৩%)। নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী পেয়েছেন ৪৫ হাজার ৬৪২ ভোট আর ধানে শীষ প্রার্থী পেয়েছেন ১ হাজার ৯২৬ ভোট। ধানের শীষের এজেন্টদের ভোটকেন্দ্র থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ এনে বিএনপি প্রার্থী ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন। এ বছর মার্চ মাসে ঢাকায় জাতীয় সংসদের আরেকটি উপনির্বাচনে ভোট পড়েছিল মাত্র ৫%। সবশেষ নির্বাচনী অব্যবস্থা শুরু হয়েছে ২০১৪ সালে। ওয়ান-ইলেভেনের পর ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত স্মরণকালের অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে মহাজোট বিশাল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় আসে। নির্বাচনে বিএনপিকে চরমভাবে প্রত্যাখ্যান করে জনগণ। ৫ বছরের মেয়াদ শেষে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচন বর্জন করে নির্বাচন প্রতিহত করার ঘোষণা দেন বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া। জাতীয় পার্টির এরশাদও নির্বাচন বানচালের চক্রান্তে লিপ্ত হন। দুঃসাহসী ও দূরদর্শী নেত্রী শেখ হাসিনা এরশাদকে চিকিৎসার নামে সিএমএইচএ একরকম আটকে রেখে খালেদার ষড়যন্ত্র শক্তভাবে প্রতিহত করে নির্বাচনে জয়ী হয়ে পরপর দ্বিতীয়বারের মতো সরকার গঠন করেন। গণতন্ত্র রক্ষার ওই নির্বাচনে জাতীয় পার্টির রওশন এরশাদ সদলবলে অংশ নেন। ফলে তিনিই হন সংসদে বিরোধী দলীয় নেত্রী। দেশের অন্যতম বৃহত্তম দল বিএনপি বর্জন করায় নির্বাচনটি প্রকৃতপক্ষে একতরফা নির্বাচনে পরিণত হয়।

৫ বছর পর ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বরের জাতীয় নির্বাচন নিয়ে যত কম কথা বলা যায়, ততই ভালো। ওই নির্বাচনেও জনগণ ভোট দেয়া থেকে বঞ্চিত হন। ৫ বছর আগে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে প্রথমবারের মতো দলীয় মনোনয়নে ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ‘ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন পেলে বিজয় সুনিশ্চিত’ জেনে সবাই মনোনয়নের জন্য সর্বশক্তি নিয়োগ করেন। প্রত্যেক ইউপিতে ৫/৭ জন বা তারও বেশি মনোনয়ন চাইলেও একজনকেই মনোনয়ন দেয়া হয়। বিগত ইউপি নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের বিদ্রোহী প্রার্থীর সংখ্যাও ছিল অনেক। ওই নির্বাচনে দলীয় মার্কা নৌকা ও ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মনোনীত প্রার্থীরা চেয়ারম্যান নির্বাচন করেন। বিভিন্ন স্থানে চর দখলের নির্বাচন হয়। আর দলীয় মনোনয়ন পেতে প্রার্থীদের কয়েকটি স্টেশনে অনেককে খুশি করতে হয়েছে। বিনা পুঁজির ব্যবসায় ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালীরা বেশ লাভবানও হয়েছেন। ২০১৪ ও ২০১৮ সালের একতরফা জাতীয় সংসদ নির্বাচনসহ বিগত বছরগুলোতে স্থানীয় সরকার পরিষদের মেয়র, উপজেলা পরিষদ, ইউপি নির্বাচন এবং বিভিন্ন উপনির্বাচনসহ যত নির্বাচন হয়েছে-সেখানে হাতেগোনা ২/৪টা ছাড়া অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচন খুব কমই হয়েছে। ভোটার ভোট কেন্দ্রে গিয়ে দেখেন তাঁর ভোট দেয়া হয়ে গেছে অথবা ভোটটা গোপনে স্বাধীনভাবে দেয়ার পরিবেশ নেই। ভোটকেন্দ্রে মারামারির কারণে অনেক সময় রক্ত ঝড়েছে, নিরীহ মানুষও হতাহত হয়েছেন। আর এভাবেই ভোটাররা ধীরে ধীরে ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার ব্যাপারে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন।

ভোট ডাকাতি, ভোট কারচুপি, মিডিয়া ক্যু এদেশে নতুন কিছু নয়। জিয়া-এরশাদ-খালেদা চক্র তাদের ২৫ বছরের শাসনামলে লাখো শহীদের রক্তে অর্জিত বাংলাদেশকে শুধু পাকিস্তানি ভাবধারায় নিয়ে যায়নি, এদেশের নির্বাচনী ব্যবস্থাকেও ধ্বংস করে দিয়ে গেছেন। জিয়া-এরশাদ অবৈধভাবে রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করে হ্যাঁ-না ভোট গ্রহণ করেন। এতে শতকরা ১০ জন ভোটার হাজির না হলেও ৯৫% বেশি লোক তাদের সমর্থন করেছে বলে ঘোষণা করা হয়। ১৯৮৮ সালে এরশাদ আমলে, ১৯৯৬-এর ১৫ ফেব্রুয়ারি খালেদার আমলে এদেশে একতরফা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ১৯৯১ সালের নির্বাচনে ক্ষমতায় আসার পর খালেদার আমলেই মাগুরা-বগুড়া সংসদীয় উপনির্বাচনে ভোট ডাকাতি হয়। বিচারপতি লতিফুর রহমান ভোট কারচুপির মাধ্যমে ২০০১ সালে স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াত-বিএনপি জোটকে ক্ষমতায় বসাতে সাহায্য করেন। ২০০৭ সালে খালেদা জিয়ারা প্রত্যাশিত নির্বাচন অনুষ্ঠান না করে ওয়ান-ইলেভেন অনিবার্য করে তোলেন। আর শেখ হাসিনা স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে এরশাদকে হটিয়ে এদেশে গণতান্ত্রিক ধারা পুনঃপ্রতিষ্ঠা করেন। ২০০৭ সালে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বিদেশ থেকে তিনি স্বদেশ ফিরে ১০ মাস কারারুদ্ধ থেকে ২০০৮-এ নির্বাচন অনুষ্ঠানে ফখরুদ্দীন গংকে বাধ্য করেন। একইভাবে জননেত্রী ২০১৪ সালে দেবর-ভাবীর চক্রান্ত প্রতিহত করে নির্বাচন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দেশে গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখেন।

দেশে কয়েক বছর ধরে নির্বাচনী ব্যবস্থাপনায় অব্যবস্থা ও বিশৃঙ্খলা বা অনিয়ম দেখা যাচ্ছে-এটা অস্বীকার করা যাবে না। যে কোনো দেশে বিরোধী দল না থাকলে অথবা যথাযথভাবে বিরোধী দলের ভূমিকা পালন না করলে সে দেশে গণতন্ত্র থাকে না। কথায় আছে, বিরোধী দল না থাকলে সরকারি দল দৈত্যে পরিণত হয়। খালেদা জিয়ার ভুল রাজনীতি, ২০১৪ সালের জাতীয় নির্বাচন বর্জন এবং বেশ কয়েকটি মামলার আসামি স্বীয় পুত্রকে দলীয় নেতৃত্বে বসিয়ে বিএনপিকে প্রায় শেষ করে দিয়েছেন। বেগম জিয়া ২০১৪ সালে নির্বাচন বর্জন না করলে, তার বিরুদ্ধে মামলাও হতো না, জেলও হতো না, তিনি জেলেও যেতেন না। ২০০৯ সাল থেকে বেগম জিয়া যদি সত্যিকার অর্থে গণতান্ত্রিক বিরোধী দলের নেত্রীর ভূমিকা পালন করতেন, অন্তত নির্বাচন বর্জন বা প্রতিহত করার অপচেষ্টা না করতেন-ক্ষমতায় না গেলেও আজো তিনি সংসদে বিরোধী দলের নেতা হিসেবে মধ্যগগনের সূর্যের মতো জ্বলজ্বল করতেন। আজকে দেশে গণতন্ত্রের দুরবস্থার জন্য সরকারি দল বেশি দায়ী হলেও বিএনপি ও খালেদা জিয়ার দায়ও কম নয়। একটি স্বাধীন দেশে গণতন্ত্রের কোন বিকল্প নেই। যে কোন মূল্যে দেশে গণতন্ত্রের ধারা বজায় রাখতে হবে। গণতন্ত্রকে স্বমহিমায় ফিরিয়ে আনতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচনকে যথাযথ মর্যাদায় ফিরিয়ে আনবেন-এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

২৫ অক্টোবর ২০২০

[লেখক : মুক্তিযোদ্ধা এবং মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে গবেষক; সম্পাদক, সাপ্তাহিক বাংলাবার্তা]

bandhu.ch77@yahoo.com

তিতুমীর : ব্রিটিশবিরোধী প্রথম বাঙালি শহীদ

image

মীর নিশার আলি, যিনি তিতুমীর নামে সবার কাছে পরিচিত। ভারতে ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে সফল কৃষকরা প্রতিরোধ গড়বার ক্ষেত্রে যাকে আদিপুরুষ বলে মর্যাদা দেয়া হয়, তার জন্ম আজকের উত্তর চব্বিশ পরগণা জেলার চাঁদপুর গ্রামে। সেটি বসিরহাট মহকুমার একটি গ্রাম।

লবণাক্ত ও খরাপ্রবণ অঞ্চলে স্বল্পমেয়াদি ডাল চাষে সাফল্য

বাংলাদেশের মোট স্থলভাগের প্রায় এক-তৃতীয়াংশই উপকূলীয়; যার আয়তন প্রায় ৮৭ হাজার ২১১ বর্গকিলোমিটার এবং এ উপকূলীয় অঞ্চলের প্রায় ৫৩ শতাংশই লবণাক্ত।

আর্মেনিয়া-আজারবাইজানের যুদ্ধ

নাগোর্নো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজানের পুরাতন দ্বন্দ্বই গত সেপ্টেম্বরের যুদ্ধে পর্যবসিত হয়।

sangbad ad

সাদা মনের মানুষ আলী জাহাঙ্গীর

সবকালে সব সমাজে কিছু ভালো মানুষ থাকেন যারা নামে-দামে খুব বিখ্যাত কেউ নন কিন্তু গুণে-মানে নীরবে-নিভৃতে সমাজের আলোকশিখা হয়ে দীপ্যমান থাকেন।

সাদা মনের মানুষ আলী জাহাঙ্গীর

সালাম জুবায়ের

সবকালে সব সমাজে কিছু ভালো মানুষ থাকেন যারা নামে দামে খুব বিখ্যাত

আশুরার বিলের বাঁধবিরোধী আন্দোলন

ফগা হাঁসদার কাছে বেশকিছু দিন সাঁওতালি বনবিদ্যা শিখতে গিয়েছিলাম।

আইনের গ্যাঁড়াকলে তিন দশক শ্রমিকের পাওনাদি

এ আর হাওলাদার জুট মিল মাদারীপুর শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত। এই মিলে প্রায় ১৪০০ শ্রমিক কাজ করতেন। এই মিলকে ঘিরে মাদারীপুর শহর তখন জমজমাট ছিল।

মার্কিন নির্বাচন : গণতন্ত্রেরই জয় হবে

image

শ্বাসরুদ্ধকর অপেক্ষা টান টান উত্তেজনা আর অচলাবস্থার অবসান ঘটিয়ে সর্বাধিক পপুলার ভোট পাওয়ার ইতিহাস গড়ে যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন।

আবুল হাসনাত : একজন নিভৃতচারীর গল্প

image

পথের শেষ নেই। তবু তাকে এই পথের আনন্দ ছেড়ে চলে যেতে হয়েছে। ১ নভেম্বর ২০২০ হাসনাত ভাই চলে গেলেন। রেখে গেলেন আদর্শবাদের প্রোজ্জ্বল আলোকবর্তিকা।

sangbad ad