• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০

 

চিঠিপত্র

নিউজ আপলোড : ঢাকা , সোমবার, ২৭ জুলাই ২০২০

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়

নিয়ম মেনে কোরবানির বর্জ্য অপসারণ করতে হবে

কোরবানি ঈদে প্রতিটি সামর্থ্যবান পরিবার একটি করে পশু মহান আল্লাহকে রাজি খুশি করার উদ্দেশ্যে জবাহ করে। কিন্তু এই কোরবানির পর পরই আমাদের প্রধান ইস্যু হয়ে দাঁড়ায় কোরবানির বর্জ্য। কোরবানির পশুর বর্জ্য যেখানে সেখানে ফেলার কারণে তা পচে চারিদিকে দুর্গন্ধ ছড়ায়, পরিবেশ দূষিত করে। শুধু তাই নয়, নালা বা নর্দমাতে ফেলা বর্জ্য থেকে ছড়ায় নানা ধরনের রোগের জীবাণু। অতিরিক্ত বর্জ্যরে চাপে নালা বা নর্দমা বন্ধ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনাও থাকে। তখন অল্প বৃষ্টিতেই নর্দমার পানি আটকে সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা।

গ্রাম অঞ্চলের থেকে বেশি সমস্যা দেখা দেয় শহর অঞ্চলে। সেখানে থাকে না পর্যাপ্ত জায়গা যেখানে বর্জ্য মাটি চাপা দেওয়া হবে। অনেক শহর অঞ্চলে যেখানে সেখানে বর্জ্য ফেলে রাখি তখন সিটি করপোরেশন বা পৌরসভা এসব বর্জ্য অপসারন করতেও হিমশিম খেয়ে যায়। অনেক সময় আমরা কোরবানির পশুর বর্জ্য নির্দিষ্ট স্থানে না করার কারণে নগর কর্তৃপক্ষের দৃষ্টিগোচর না হলে সেসব বর্জ্য পচে উৎকট ও বাজে ধরণের দুর্গন্ধ ছড়ায়, যা শ্বসনের সঙ্গে আমাদের দেহাভ্যন্তরে প্রবেশ করে নানা রোগ সৃষ্টি করে।

প্রতি কোরবানি ঈদের পূর্বেই বর্জ্য অপসারণ সম্পর্কে নির্দেশনা, জনসচেতনতামূলক প্রচার-প্রচারণা চালানো হয়। তাছাড়া টেলিভিশন, রেডিও, পত্রিকাসহ প্রায় সকল গণমাধ্যমেই কম-বেশি প্রচারণা চালানো হয়। দুঃখজনক হলেও সত্য, আমরা সেসব বিষয় ততটা আমলে নিই না। যার দরুণ আমরাই সম্মুখীন হই নানা সমস্যার। তবে যদি কোরবানির বর্জ্যকে সঠিক ব্যবস্থাপনায় আনা যায় তাহলে পরিবেশও থাকবে দূষণমুক্ত, জনস্বাস্থ্যও থাকবে নিরাপদ। এজন্য কোরবানির জন্য নির্দিষ্ট স্থান নির্বাচন করার জরুরি।

গ্রাম্য অঞ্চলে আগেই বাড়ির পাশে কোনো মাঠে কিংবা পরিত্যক্ত জায়গায় একটা গর্ত তৈরি করে রাখা যেতে পারে, কোরবানির পর সকল পরিত্যক্ত বর্জ্য সেখানে ফেলে মাটিচাপা দিতে হবে। তবে শহরাঞ্চলে গর্ত খুঁড়ার মাঝে একটা সমস্যা দেখা দিতে পারে সেই বিষয়ে সচেতন হতে হবে। শহরাঞ্চলে গর্ত খুঁড়ার সময় একটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে যাতে পানি ও গ্যাসের পাইপ, বিদ্যুৎ ও টেলিফোনের তার ইত্যাদি কোনোভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত না হয়। বর্জ্যকে সম্পদে রূপান্তরে কার্যকরী উদ্যোগ গ্রহণ করার একটি উপায় হলো, গ্রামাঞ্চলের লোকেরা যদি বর্জ্য একটা গর্তে মাটি চাপা দিয়ে রাখি তা হলে পরবর্তী বছর কোরবানির আগেই উঠিয়ে জৈব সার হিসেবে শষ্যক্ষেত্রে ব্যবহার করা যায়।

কোরবানির সব কার্যক্রম শেষে রক্তে মাখা রাস্তাঘাট ধুয়ে পরিষ্কার করে ফেলা উচিত। জীবাণু যেন ছড়াতে না পারে সেজন্য নোংরা জায়গা পরিষ্কারের সময় ব্লিচিং পাউডার বা জীবাণুনাশক ব্যবহার আবশ্যক। সুষ্ঠু বর্জ্য ব্যবস্থাপনার সুফল ও অব্যবস্থাপনার কুফল সম্পর্কে ব্যাপক জনসচেতনতা তৈরি করা খুবই প্রয়োজন। তবে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য যেসব এলাকায় গর্ত খুঁড়ার উপযুক্ত জায়গা নেই সেসব এলাকার বর্জ্য প্রচলিত উপায়ে অপসারণের ব্যবস্থা নেয়া যেতে পারে।

যত তাড়াতাড়ি সম্ভব পশুর চামড়া বিক্রি কিংবা দান করে দেয়া প্রয়োজন। যারা শহরে থাকেন তারা বিচ্ছিন্ন স্থানে কোরবানি না দিয়ে কয়েকজন মিলে এক স্থানে কোরবানি করা ভালো। এতে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের কাজ করতে সুবিধা হয়। তবে খেয়াল রাখতে হবে, যে জায়গাটি রাস্তার কাছাকাছি হলে বর্জ্যরে গাড়ি পৌঁছাতে সহজ হবে। জনসচেতনতা তৈরিতে সকলের উচিত নিজে ব্যাক্তিগত ভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সচেতনতা বার্তা প্রচার করা।

যেহেতু কোরবানির বর্জ্য পচলে জনস্বাস্থ্যের জন্য হুমকিস্বরূপ সেহেতু বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় আমাদের প্রয়োজন অনেক বেশি সচেতন হওয়া।

একটু সচেতনতা আর সঠিক পরিকল্পনাই এই সমস্যার সমাধান দিতে পারে।

মো. সোয়েব সরকার

এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষ,

বরেন্দ্র কলেজ, রাজশাহী

চিঠিপত্র : চাই নিরক্ষরমুক্ত বাংলাদেশ

মানব জীবনের কঠিন অভিশাপের নাম হলো অক্ষরজ্ঞানহীনতা বা নিরক্ষরতা। নিরক্ষরতাই মনুষ্যত্বের বিকাশ রুদ্ধ করে দেয়। আমাদের দেশ থেকে

চিঠিপত্র : বন্যাদুর্গত অঞ্চলে ত্রাণ ও পুনর্বাসন নিশ্চিত করুন

স্মার্টফোন থেকে শিশুদের দূরে রাখুন, জাল টাকা ছাপার চক্র নস্যাৎ করুন

চিঠিপত্র : বিজ্ঞাপন ও প্রকাশ্যে ধূমপান প্রসঙ্গে

ধূমপান ও বিবিধ তামাক জাতীয় দ্রব্য সেবন মানুষের স্বাস্থ্য ও অর্থ নষ্টের পাশাপাশি পরিবেশের ক্ষতিসাধন করলেও এই খাতে উল্লেখযোগ্য

sangbad ad

চিঠিপত্র

ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিল থেকে কবে রেহাই মিলবে

চিঠিপত্র

ঈদ হোক পরিচ্ছন্ন পরিবেশে

চিঠিপত্র

চট্টগ্রাম জেলার সাতকানিয়া উপজেলার ২নং খাগরিয়া ইউনিয়নের আমিরখীল গ্রামের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা বর্তমানে বেহাল অবস্থা। শহর ও উপশহরের

চিঠিপত্র

পিরানহা মাছ বিক্রি বন্ধ করুন

চিঠিপত্র

কড়িকান্দি-মজিদপুর সড়কের বেহাল অবস্থা

চিঠিপত্র

তিন বিঘা করিডোর এক্সপ্রেস ট্রেন চাই

sangbad ad