• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১

 

চিঠিপত্র : রাস্তাটির সংস্কার হচ্ছে না কেন?

নিউজ আপলোড : ঢাকা , শনিবার, ০৭ নভেম্বর ২০২০

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়

রাস্তাটির সংস্কার হচ্ছে না কেন?

১৯৮৮ সালের বন্যাতেও যে রংপুর মহানগরী পানিতে ডুবে যায়নি, সেই রংপুর নগরী এবারের বন্যায় পানিতে তালিয়ে ছিল বেশ কয়েকদিন। এবারের বন্যায় ফসলের পাশাপাশি রংপুর নগরীর রাস্তাঘাটগুলো মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাগুলো যাতায়াতে অসহনীয় দুর্ভোগ সৃষ্টি করেছে। তেমনি একটি রাস্তা রংপুর সিটি করপোরেশন, ১৪ নং ওয়ার্ডের অন্তর্ভুক্ত মরিচটারি দক্ষিণ পাড়া থেকে হিন্দুটারি পর্যন্ত রাস্তাটি। রাস্তার ওপর দিয়ে প্রবল বেগে গ্রোত যাওয়ায় রাস্তার পার্শ্বে, মধ্যে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। রাস্তায় গভীর ভাবে খানাখন্দ সৃষ্টি হওয়ায় রাস্তা দিয়ে স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা করা সম্ভব হচ্ছে না। ফলশ্রুতিতে এই রাস্তা ব্যবহারকারী প্রত্যেক পথচারী বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন।

বন্যা হওয়ার প্রায় ১ মাসেরও বেশি সময় পার হয়েছে তবুও এখন পর্যন্ত রাস্তাটি সংস্কারের কোনো ধরনের উদ্যোগ নেয়া হয়নি। অথচ রাস্তা সংস্কার করা খুব জরুরি হয়ে পড়েছে। স্থানীয় জনসাধারণের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারি তারা রাস্তাটি সংস্কারের জন্য সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলরকে কয়েকবার অনুরোধ জানিয়েছেন কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। আর রাস্তাটি যে খুব অচিরেই সংস্কার হবে তার কোনো লক্ষণ এখন পর্যন্ত দৃশ্যমান নয়। এমতাবস্থায় রাস্তা যাতে জরুরি ভিত্তিতে সংস্কার করা হয় সেলক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

মো. জাহানুর ইসলাম

পূর্ব বড়বাড়ী মরিচটারি,

রংপুর সিটি করপোরেশন

খুলনা-গোপালগঞ্জ-মাদারীপুর-চাঁদপুর রেললাইন চাই

বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর রেলপথ সম্প্রসারণে গুরুত্ব দিয়েছে। কয়েকটি রেলপথ নির্মাণের কাজ চলমান রয়েছে। এর মধ্যে যশোর-ভাঙ্গা-পদ্মা সেতু-ঢাকা রেলপথ উল্লেখযোগ্য। ফরিদপুর-বরিশাল রেললাইন নির্মাণ প্রকল্পও বাস্তবায়নের পথে। এ রেলপথে মাদাঁরীপুর থেকে ১টি রেললাইন পূর্বদিকে শরীয়তপুর হয়ে মেঘনার পশ্চিমপাড় এবং পশ্চিম দিকে গোপালগঞ্জ হয়ে খুলনা পর্যন্ত সম্প্রসারণ করা যায়। এ রেললাইন নির্মাণ করা হলে ঢাকা ও চট্টগ্রাম থেকে খুলনার রেলপথের দূরত্ব উল্লেখযোগ্য হারে হ্রাস পাবে। ঢাকা থেকে ট্রেনে অতি সহজে ভাঙ্গা-মাদাঁরীপুর হয়ে গোপালগঞ্জ ও খুলনা পৌঁছা যাবে।

উল্লেখ্য যে, ১৯৭৪ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান চাঁদপুরের মেঘনার পশ্চিমপাড় থেকে মাদাঁরীপুর-গোপালগঞ্জ পর্যন্ত রেললাইন নির্মাণের নির্দেশ দেন। ঐ সময় ভূমি জরিপ এবং প্রকল্প ম্যাপও তৈরি হয়। ১৯৭৫ সালের পরে এ উদ্যোগ থেমে যায়। আগামীতে চাঁদপুর ও শরীয়তপুরের মধ্যে পদ্মা-মেঘনা বহুমুখী সেতু নির্মাণ করা হলে খুলনা, যশোর, বরিশাল ও ফরিদপুর থেকে বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রাম ও পর্যটন নগরী কক্সবাজারে সরাসরি ট্রেন সার্ভিস চালু হবে।

এম. এ. শাহেনশাহ

সাবেক পরিচালক

শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আই.ই.আর)

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়।

চিঠিপত্র : সম্ভাবনাময় কৃষি পর্যটন

সম্ভাবনাময় কৃষি পর্যটন কৃষি পর্যটন হলো অবকাশযাপনের এমন এক ধরন যেখানে খামারগুলোতে আতিথেয়তার

চিঠিপত্র :করোনায় শিক্ষার ক্ষতি

করোনায় শিক্ষার ক্ষতি পুরো একটি শিক্ষাবর্ষ শিক্ষার্থীরা সশরীরে স্কুল, কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের

চিঠিপত্র : নদী রক্ষায় চাই সচেতনতা

নদী রক্ষায় চাই সচেতনতা সুদূর অতীতকাল থেকে বর্তমান পর্যন্ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে

sangbad ad

চিঠিপত্র : উদাসীন বাঙালি

উদাসীন বাঙালি বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে আধুনিকতার ছোঁয়া লেগেছে বাংলাদেশও। তার সাথে বেড়েছে

চিঠিপত্র : অসহায় শিক্ষার্থীরা

অসহায় শিক্ষার্থীরা গত মার্চ মাস থেকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে আছে। অথচ

চিঠিপত্র : স্বপ্নের বাংলাদেশ

স্বপ্নের বাংলাদেশ স্বপ্ন দেখি দারিদ্র্যমুক্ত এক বাংলাদেশের। যেখানে অনাহারে-অর্ধাহারে দিন কাটাতে হবে

চিঠিপত্র : শীতার্ত মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসুন

শীতার্ত মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসুন তীব্র শীতে ফুটপাতে রাত কাটানো মানুষগুলো

চিঠিপত্র : খুলনায় বাড়ছে যানজট

খুলনায় বাড়ছে যানজট ঢাকা, চট্টগ্রামের মতো বর্তমানে খুলনাতেও তীব্র যানজটের সৃষ্টি

চিঠিপত্র : পদ্মা সেতু যেন ঐক্যের প্রতীক

যে কোন দেশের উন্নয়নের পূর্বশর্ত যোগাযোগ কাঠামোর উন্নতি। যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি হলেই একটি দেশ উন্নয়নের পরবর্তী ধাপগুলোতে প্রবেশ করতে পারে।

sangbad ad