• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯

 

সরকারি ক্রয় প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা প্রতিষ্ঠা করতে হবে

নিউজ আপলোড : ঢাকা , সোমবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

আইসিটি প্রকল্পের অধীনে শিক্ষা উপকরণ কেনার প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। জানা গেছে, উন্মুক্ত দরপত্র প্রক্রিয়া ই-জিপির পরিবর্তে ডিরেক্ট প্রকিউরমেন্ট মেথড (ডিপিএম) পদ্ধতিতে শিক্ষা উপকরণ কেনার তোড়জোড় শুরু হয়েছে। এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব মন্ত্রিসভা কমিটিতে অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে। প্রকল্পের পরামর্শকের মতামত উপেক্ষা করে পছন্দের প্রতিষ্ঠানকে কাজ দিতেই এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। শিক্ষা উপকরণ কেনা নিয়ে সংশ্লিষ্ট দুটি মন্ত্রণালয়, অধিদফতর এবং প্রকল্পের কর্মকর্তাদের মধ্যে স্বার্থের দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে, মতবিরোধ চলছে। এ নিয়ে গত রোববার সংবাদ-এ বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে।

দেশের প্রায় সাড়ে ৩১ হাজার উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে একটি করে মাল্টি মিডিয়া ক্লাসরুম স্থাপনের লক্ষ্যে আইসিটি প্রকল্প গ্রহণ করেছে সরকার। সাড়ে ১৩শ’ কোটি টাকার বেশি বরাদ্দ দেয়া প্রকল্পের প্রথম পর্যায়ের কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে কেনাকাটার সময়ও অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছিল। দেশে যত ধরনের অনিয়ম-দুর্নীতি সংঘটিত হয় তার মধ্যে সরকারি ক্রয় প্রক্রিয়ার দুর্নীতি অন্যতম। প্রায়ই অভিযোগ ওঠে, প্রকল্পের কেনাকাটা পছন্দের প্রতিষ্ঠান থেকে করা হয়েছে। নিম্নমানের পণ্যের বিপরীতে উচ্চমূল্য পরিশোধের অভিযোগ পাওয়া যায়। সরকারি কেনাকাটায় স্বচ্ছতা আনতে সরকার ই-জিপি পদ্ধতি চালু করেছে। এ পদ্ধতিতে শিক্ষা উকরণ না কিনে ডিপিএস পদ্ধতি কেন অনুসরণ করা হচ্ছে সেটা একটা প্রশ্ন। আর প্রথম পর্যায়ের কেনাকাটা নিয়ে যখন অভিযোগ উঠেছে এবারও কেন বিতর্কিত প্রক্রিয়া অবলম্বন করা জরুরি হয়ে পড়ল সেটা জানতে হবে।

সরকারি কেনাকাটা নিয়ে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় বা দফতরের কর্মকর্তাদের স্বার্থের দ্বন্দ্বের খবর উদ্বেগজনক। সরকারি কেনাকাটা করতে হবে জনস্বার্থে। এখানে কোন কর্তাব্যক্তির স্বার্থের উদ্ভব ঘটার সুযোগ নেই। আমরা বলতে চাই, আইসিটি প্রকল্পের অধীনে শিক্ষা উপকরণ কেনার ক্ষেত্রে অনিয়ম-দুর্নীতি রোধ করতে হবে। এক্ষেত্রে প্রকল্প পরামর্শকের মতকে প্রাধান্য দিতে হবে। আমরা মনে করি, ই-জিপি পদ্ধতিতে শিক্ষা উপকরণ কেনা হলে একদিকে সরকারি ক্রয়ে স্বচ্ছতা প্রতিষ্ঠা পাবে অন্যদিকে বিতর্কেরও অবসান হবে।

সরকারি ক্রয়ে অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) কঠোর ভূমিকা পালন করতে হবে। প্রতিষ্ঠানটি চুনোপুঁটিদের দুর্নীতি নিয়ে যতটা সক্রিয়, রাঘববোয়ালদের দুর্নীতি নিয়ে ততটাই নিষ্ক্রিয়। যে কারণে দেশ থেকে দুর্নীতি উচ্ছেদ করা যাচ্ছে না। আইসিটি প্রকল্পসহ সব সরকারি প্রকল্পের কেনাকাটার অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ তদন্ত করে দুদককে আইনি ব্যবস্থা নিতে হবে।

দৈনিক সংবাদ : সোমবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৬ এর পাতায় প্রকাশিত

সমাজ ও ব্যক্তির জন্য সৃষ্টি হচ্ছে ভয়াবহ সংকট

দেশে সংস্কৃতিচর্চার সুযোগ দিন দিন কমছে। সরকারি সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে পেশাদারি, জবাবদিহি ও আন্তরিকতার অভাব। সংস্কৃতি

দেশের বাঁধগুলোর সক্ষমতা বাড়াতে হবে সংস্কারের লক্ষ্যে মনিটরিং করুন

ঘূর্ণিঝড় ফণী বাংলাদেশ অতিক্রম করে গেছে। ভারতের ওড়িশা উপকূলে আঘাত হানার পর পশ্চিমবঙ্গ হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে ঘূর্ণিঝড়।

পরিবহন সেক্টরকে মাফিয়ামুক্ত করুন

সাত দফা দাবিতে পরিবহন শ্রমিকদের ডাকা ধর্মঘটে গত সোমবার দিনভর দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত

sangbad ad

জঙ্গিবাদের হুমকি মোকাবিলায় ঐক্য গড়ে তুলুন

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গে হামলার পরিকল্পনা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার

গণধর্ষণ মামলার চার্জশিট প্রশ্নবিদ্ধ পুলিশের ভূমিকা

সুবর্ণচরে গণধর্ষণের শিকার নারীর অভিযোগ ছিল একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজের পছন্দের প্রতীকে ভোট দেয়ায় তার ওপর নির্যাতন হয়েছে

বিদ্যুৎ সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যবস্থা ত্রুটিমুক্ত করতে হবে

চাহিদার চেয়ে বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা থাকলেও বিদ্যুৎ বিভাগ মানসম্মত বিতরণ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে না পারায়

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে চাই কঠোর মনিটরিং

আসন্ন রমজানে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে থাকবে বলে আশ্বস্ত করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু

ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় রিসাইক্লিংয়ে পরিকল্পিত ও স্থায়ী উদ্যোগ নিন

ইলেকট্রনিক পণ্যের ব্যবহার বাড়ছে। একই সঙ্গে বাড়ছে ইলেকট্রনিক বা ই-বর্জ্যরে পরিমাণও। এসব ই-বর্জ্যরে দূষণ থেকে প্রাণ ও প্রকৃতিকে রক্ষা

বর্ষার আগেই ঢাকাডুবি কেন নগর কর্তৃপক্ষ কী করছে

চৈত্র মাসেই বৃষ্টির পানি জমে সয়লাব হয়ে যাচ্ছে রাজধানী ঢাকার বেশিরভাগ এলাকার রাস্তা

sangbad ad