• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , রোববার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০

 

পণ্যবাহী নৌযান ধর্মঘট

মালিক-শ্রমিককে আলোচনায় বসতে হবে

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০

এগারো দফা দাবিতে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে সারা দেশে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট কর্মসূচি পালন করছেন নৌযান শ্রমিককরা। তারা বলছেন, দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত ধর্মঘট চলবে। তাদের দাবিগুলো হচ্ছে- নৌযান শ্রমিকদের পরিচয়পত্র, নিয়োগপত্র এবং সার্ভিসবুক দেয়া, শ্রমিকদের সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, নৌপথে চাঁদাবাজি-সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বন্ধ করা, শ্রমিক নির্যাতন বন্ধ করা, প্রভিডেন্ড ফান্ড চালু করা, জাহাজে কর্মরত অবস্থায় কোন শ্রমিক মারা গেলে ১০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়া প্রভৃতি। এদিকে তাদের দাবিকে অযৌক্তিক আখ্যা দিয়ে মালিকরা পাল্টা ছয় দফা দাবি তুলে ধরেছেন। ধর্মঘটের কারণে নৌপথে পণ্য পরিবহন বিঘ্নিত হচ্ছে। এ নিয়ে গণমাধ্যমগুলো বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

ধর্মঘটে যাওয়ার আগে নৌ পরিবহন শ্রমিকরা তাদের দাবিদাওয়া তুলে ধরে আলটিমেটাম দিয়েছিলেন। মালিকদের সঙ্গে তারা আলোচনাও করতে চেয়েছেন। কিন্তু মালিকরা অংশ না নেয়ায় বিআইডব্লিউটিএতে আয়োজিত আলোচনা ফলপ্রসূ হয়নি। তাদের দাবি পূরণের কোন নিশ্চয়তা মেলেনি। ধর্মঘট কর্মসূচি দেয়ায় যে তাদের দাবি পূরণের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে সেটাও বলা যাবে না। বরং মালিকরা পাল্টা দাবিদাওয়া তুলে ধরেছেন। মালিকরা ধর্মঘটের কোন যুক্তি খুঁজে পাচ্ছেন না। এর পেছনে ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছেন মালিকরা। শ্রমিকরা তাদের অধিকার নিয়ে সোচ্চার হলেই তার মধ্যে মালিকরা ষড়যন্ত্রের গন্ধ খুঁজে পান। নিয়োগপত্র, পরিচয়পত্র চাওয়া বা ভবিষ্যতের যৌক্তিক সুবিধাদির কথা বলার মধ্যে অন্যায় কিছু নেই। ধর্মঘটে কার কী লাভ বা ক্ষতি সেটা ভিন্ন বিতর্ক। আমরা শুধু জানতে চাইব যে, মালিকরা বছরের পর বছর যৌক্তিক দাবি-দাওয়া উপেক্ষা করলে শ্রমিকরা নিয়মতান্ত্রিক উপায়ে আর কী পদক্ষেপ নিতে পারেন। শ্রমিকদের ধর্মঘটের পথে বেছে নেয়ার পেছনে মালিকদের উদাসীনতা-অবহেলারও দায় রয়েছে।

শ্রমিকদের দাবিদাওয়ার পেছনে ষড়যন্ত্র না খুঁজে তার যৌক্তিকতা মালিকদের অনুধাবন করতে হবে। মালিকদের সবার সামর্থ্য হয়তো সমান নয়। তবে নৌযান শ্রমিকদের অনেক দাবিই আর্থিক সামর্থ্য না থাকলেও পূরণ করা যায়। পরিচয়পত্র, নিয়োগপত্র দেয়ার জন্য সদিচ্ছা থাকাই যথেষ্ট। নৌপথে চাঁদাবাজি বন্ধের দাবি মালিক-শ্রমিক উভয়েরই। এ বিষয়ে দু’পক্ষ এক হয়ে সরকারের সঙ্গে আলোচনা করতে পারে। শ্রমিকদের অন্যান্য যৌক্তিক দাবি নিয়ে আলোচনা চালিয়ে যেতে হবে। উভয়পক্ষকেই ইতিবাচক সমঝোতাপূর্ণ মনোভাব রেখে আলোচনা করতে হবে।

পণ্য পরিবহনে নৌপথ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ধর্মঘটের কারণে পণ্য পরিবহন বিঘিœত হচ্ছে। শেষ পর্যন্ত এর খেসারত দিতে হবে সাধারণ মানুষকে। কাজেই ধর্মঘটের যত দ্রুত অবসান হবে ততই সেটা সবার জন্য মঙ্গল বয়ে আনবে।

মহামারীর সময়ে অনলাইনে রিটার্ন জমা দেয়ার সুযোগ কেন নেই

image

এ বছর অনলাইনে আয়কর বিবরণী বা রিটার্ন জমা দেয়ার সুযোগ রহিত করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

সড়ক দুর্ঘটনা বন্ধে পরিবহন খাতে শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা করতে হবে

সড়ক দুর্ঘটনায় গতকাল শুক্রবার দেশের বিভিন্ন স্থানে অন্তত ২২ জন প্রাণ হারিয়েছেন এবং আহত হয়েছেন ১০ জন।

এইচআইভি কর্মসূচি জোরদার করতে হবে

গত এক বছরে দেশে এইচআইভি-এইডসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৪১ জন।

sangbad ad

ফ্লাইওভারকেন্দ্রিক যানজট দূর করার উপায় বের করুন

অব্যবস্থাপনার কারণে যাত্রাবাড়ী-গুলিস্তান মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারে প্রতিদিন ২ কিলোমিটার যানজট সৃষ্টি হচ্ছে।

প্রত্যাবাসনই রোহিঙ্গা সমস্যার কার্যকর সমাধান

কক্সবাজারের উখিয়ার শরণার্থী ক্যাম্প থেকে রোহিঙ্গাদের নোয়াখালীর ভাসানচরে নেয়ার কাজ শুরু হয়েছে।

পুলিশকে উদ্যোগী হয়ে আইনি ব্যবস্থা নিতে হবে দ্রুত

বরগুনার আমতলীতে গত ২৪ নভেম্বর চতুর্থ শ্রেণীর এক ছেলে স্কুল শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ করা হয়েছে।

ভ্রাতৃঘাতি সংঘাতের অবসান চাই

পার্বত্য শান্তিচুক্তির ২৩ বছর পূর্তি হয়েছে আজ। ১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর স্বাক্ষরিত শান্তিচুক্তির মধ্য দিয়ে পার্বত্যাঞ্চলে দুই দশকের বেশি সময় ধরে চলা সশস্ত্র আন্দোলনের অবসান ঘটে।

দখল হওয়া বনভূমি স্থায়ীভাবে পুনরুদ্ধার করুন

সারাদেশে দখল হওয়া ২ লাখ ৮৭ হাজার ৪৫২ একর বনভূমির মধ্যে ১ লাখ ৩৮ হাজার ৬১৩ একর সংরক্ষিত বনভূমি উদ্ধারে অভিযান পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পরিবেশ বন ও জনবায়ু বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

যথাসময়ে বিনামূল্যের বই ছাপা ও সরবরাহ নিশ্চিত করুন

২০২১ শিক্ষাবর্ষে বিভিন্ন মাধ্যমের প্রাক-প্রাথমিক থেকে নবম শ্রেণী পর্যন্ত পাঠ্যবই ছাপাতে হবে প্রায় ৩৬ কোটি।

sangbad ad