• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , বুধবার, ২৭ মার্চ ২০১৯

 

মামলার জট বাড়ছে

বিলম্বিত বিচার কাম্য নয়

নিউজ আপলোড : ঢাকা , রবিবার, ১০ মার্চ ২০১৯

বিলম্বিত হচ্ছে ফৌজদারি মামলার বিচার প্রক্রিয়া। সাক্ষ্য গ্রহণে বিলম্ব, নিজ হাতে বিচারককে ঘণ্টার পর ঘণ্টা সাক্ষ্য লিপিবদ্ধ করা, বিচারক ও এজলাস সংকট, দীর্ঘ সময় নিয়ে শুনানি মুলতবি করাসহ নানা কারণে মামলার দ্রুত নিষ্পত্তি সম্ভব হচ্ছে না। সুপ্রিমকোর্টের প্রকাশিত সর্বশেষ বিবরণীতে দেখা যায়, গত বছর শেষে দেশের অধস্তন আদালতে বিচারাধীন ফৌজদারি মামলা ১৭ লাখ ১১ হাজার ৬১৮টি। এর মধ্যে ৫ বছরের অধিক সময় ধরে বিচারাধীন রয়েছে ২ লাখ ২৯ হাজার ৭৭৪টি। সাক্ষী হাজির করে এসব মামলার বিচার কবে শেষ হবে তা নিশ্চিত করে বলতে পারছে না কোন পক্ষ। এমনকি বিশেষ আইনের মামলাও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করা যাচ্ছে না। আইনে কয়েক মাসের মধ্যে মামলা নিষ্পত্তির কথা থাকলেও বছরের পর বছর পেরিয়ে যাচ্ছে কিন্তু নিষ্পত্তি হচ্ছে না। বছরের পর বছর মামলার বিচার ঝুলে যাওয়ায় হতাশ বিচারপ্রার্থীরাও।

কথায় আছে, জাস্টিস ডিলেইড, জাস্টিস ডিনায়েড। অর্থাৎ বিচার বিলম্বিত হওয়া বিচার না পাওয়ারই শামিল। বিচার বিভাগের আসল উদ্দেশ্য হলো বিচারপ্রার্থী জনগণের কাছে দ্রুত বিচার পৌঁছে দেয়া। সেটা যদি না করা হয় কিংবা কোন অভিযোগের সুষ্ঠু বিচার যদি বিলম্বিত হয়; তা হলে সেটা হবে বিচার বিভাগের ব্যর্থতা।

গণতান্ত্রিক বা কল্যাণ রাষ্ট্রে তো নয়ই, কোন সভ্য সমাজেও বিচারহীনতা কাম্য নয়। এতে অপরাধীরা উৎসাহিত হয়, সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ বাড়ে। মামলার জট বাড়লে আদালতের প্রতি বিচার প্রার্থী মানুষের বিশ্বাস ও আস্থায় নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

যে করেই হোক বিলম্বিত বিচারের কারণগুলো দূর করতে হবে। অধিকাংশ ক্ষেত্রে প্রধান অভিযোগ, আদালতে সাক্ষীদের সময়মতো হাজির করা হয় না। সে ক্ষেত্রে যথাসময়ে ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার দায়দায়িত্ব বর্তায় আদালতের ওপর। কারাগার কর্তৃপক্ষ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সর্বোপরি বিজ্ঞ আদালতসহ সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ করলে উপযুক্ত সময়ে ন্যায়বিচার নিশ্চিত হতে পারে।

সনাতনী পদ্ধতিতে বিচার প্রক্রিয়াও বিচারিক প্রক্রিয়া বিলম্বিত হওয়ার আরেকটি কারণ। বিচার ব্যবস্থাকে আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির আওতায় আনা বাঞ্ছনীয়। ডিজিটাল যুগে সাক্ষীদের হাজির করা বা তাদের জবানবন্দি সংরক্ষণে কোন ডিজিটাল পথ বের করা যায় কিনা তা অবশ্যই খতিয়ে দেখা উচিত। আসামিদের আনা-নেয়ার ঝক্কি, যানজট থেকে রক্ষা পেতে আদালতে সাক্ষ্য প্রদানের কোন যুগোপযোগী পদ্ধতির কথা ভাবতে হবে। আপস-মীমাংসা আইনগত বিধানকে বাধ্যতামূলক করে তা কার্যকর করা উচিত। যেসব কারণে সমাজে অপরাধের সংখ্যা বাড়ছে এর কারণ অনুসন্ধান করে সমাধানের চেষ্টা করলে তাও মামলা জট কমাতে ফলপ্রসূ ভূমিকা রাখতে পারে।

দৈনিক সংবাদ : ১০ মার্চ ২০১৯, রোববার, ৬ এর পাতায় প্রকাশিত

স্বাধীনতা দিবস- আটচল্লিশ বছর পর

চল্লিশ বছর আগে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছিল একটি সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে। এর আগে

গণতান্ত্রিক রাজনীতির নতুন সূচনা হোক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের পর প্রথম সভা হয়েছে গত শনিবার। বৈঠকে নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নূরসহ বাকি

নিরাপদ সড়কের প্রশ্নে গণমুখী ভূমিকা পালন করুন

রাজধানীর প্রগতি সরণিতে গত মঙ্গলবার সকালে বাসচাপায় মারা গেছেন বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ চৌধুরী।

sangbad ad

পাহাড়ে হত্যার রাজনীতির অবসান চাই

রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়িতে গত সোমবার সশস্ত্র হামলায় সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার, আনসার-ভিডিপির

উপজেলা নির্বাচনে সহিংসতা রোধে কঠোর হোন

উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে জয়পুরহাটের কালাইয়ে গত শনিবার দু’জন মারা গেছে। নিহতদের

রাজধানীর বায়ুদূষণ রোধে কার্যকর পদক্ষেপ নিন

ঢাকায় বায়ুদূষণের সময় দীর্ঘ হচ্ছে। গত বছর ১৯৭ দিন রাজধানীবাসী দূষিত বাতাসে

গ্যাসের দাম না বাড়িয়ে চুরি-দুর্নীতি বন্ধ করুন

আবাসিকসহ সব ধরনের গ্যাসের দাম গড়ে প্রায় ১০৩ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে

এগিয়ে যাওয়াই সব সংগঠনের কর্তব্য

অনিয়মের অভিযোগ ও বর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ

আদিবাসী ও দলিত সম্প্রদায়ের সব নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করতে হবে

দেশের আদিবাসী ও দলিত জনগোষ্ঠীর নাগরিক অধিকার ও সেবা পাওয়ার ক্ষেত্রে বৈষম্যের

sangbad ad