• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯

 

মামলার জট বাড়ছে

বিলম্বিত বিচার কাম্য নয়

নিউজ আপলোড : ঢাকা , রোববার, ১০ মার্চ ২০১৯

বিলম্বিত হচ্ছে ফৌজদারি মামলার বিচার প্রক্রিয়া। সাক্ষ্য গ্রহণে বিলম্ব, নিজ হাতে বিচারককে ঘণ্টার পর ঘণ্টা সাক্ষ্য লিপিবদ্ধ করা, বিচারক ও এজলাস সংকট, দীর্ঘ সময় নিয়ে শুনানি মুলতবি করাসহ নানা কারণে মামলার দ্রুত নিষ্পত্তি সম্ভব হচ্ছে না। সুপ্রিমকোর্টের প্রকাশিত সর্বশেষ বিবরণীতে দেখা যায়, গত বছর শেষে দেশের অধস্তন আদালতে বিচারাধীন ফৌজদারি মামলা ১৭ লাখ ১১ হাজার ৬১৮টি। এর মধ্যে ৫ বছরের অধিক সময় ধরে বিচারাধীন রয়েছে ২ লাখ ২৯ হাজার ৭৭৪টি। সাক্ষী হাজির করে এসব মামলার বিচার কবে শেষ হবে তা নিশ্চিত করে বলতে পারছে না কোন পক্ষ। এমনকি বিশেষ আইনের মামলাও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করা যাচ্ছে না। আইনে কয়েক মাসের মধ্যে মামলা নিষ্পত্তির কথা থাকলেও বছরের পর বছর পেরিয়ে যাচ্ছে কিন্তু নিষ্পত্তি হচ্ছে না। বছরের পর বছর মামলার বিচার ঝুলে যাওয়ায় হতাশ বিচারপ্রার্থীরাও।

কথায় আছে, জাস্টিস ডিলেইড, জাস্টিস ডিনায়েড। অর্থাৎ বিচার বিলম্বিত হওয়া বিচার না পাওয়ারই শামিল। বিচার বিভাগের আসল উদ্দেশ্য হলো বিচারপ্রার্থী জনগণের কাছে দ্রুত বিচার পৌঁছে দেয়া। সেটা যদি না করা হয় কিংবা কোন অভিযোগের সুষ্ঠু বিচার যদি বিলম্বিত হয়; তা হলে সেটা হবে বিচার বিভাগের ব্যর্থতা।

গণতান্ত্রিক বা কল্যাণ রাষ্ট্রে তো নয়ই, কোন সভ্য সমাজেও বিচারহীনতা কাম্য নয়। এতে অপরাধীরা উৎসাহিত হয়, সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ বাড়ে। মামলার জট বাড়লে আদালতের প্রতি বিচার প্রার্থী মানুষের বিশ্বাস ও আস্থায় নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

যে করেই হোক বিলম্বিত বিচারের কারণগুলো দূর করতে হবে। অধিকাংশ ক্ষেত্রে প্রধান অভিযোগ, আদালতে সাক্ষীদের সময়মতো হাজির করা হয় না। সে ক্ষেত্রে যথাসময়ে ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার দায়দায়িত্ব বর্তায় আদালতের ওপর। কারাগার কর্তৃপক্ষ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সর্বোপরি বিজ্ঞ আদালতসহ সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ করলে উপযুক্ত সময়ে ন্যায়বিচার নিশ্চিত হতে পারে।

সনাতনী পদ্ধতিতে বিচার প্রক্রিয়াও বিচারিক প্রক্রিয়া বিলম্বিত হওয়ার আরেকটি কারণ। বিচার ব্যবস্থাকে আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির আওতায় আনা বাঞ্ছনীয়। ডিজিটাল যুগে সাক্ষীদের হাজির করা বা তাদের জবানবন্দি সংরক্ষণে কোন ডিজিটাল পথ বের করা যায় কিনা তা অবশ্যই খতিয়ে দেখা উচিত। আসামিদের আনা-নেয়ার ঝক্কি, যানজট থেকে রক্ষা পেতে আদালতে সাক্ষ্য প্রদানের কোন যুগোপযোগী পদ্ধতির কথা ভাবতে হবে। আপস-মীমাংসা আইনগত বিধানকে বাধ্যতামূলক করে তা কার্যকর করা উচিত। যেসব কারণে সমাজে অপরাধের সংখ্যা বাড়ছে এর কারণ অনুসন্ধান করে সমাধানের চেষ্টা করলে তাও মামলা জট কমাতে ফলপ্রসূ ভূমিকা রাখতে পারে।

দৈনিক সংবাদ : ১০ মার্চ ২০১৯, রোববার, ৬ এর পাতায় প্রকাশিত

সমাজ ও ব্যক্তির জন্য সৃষ্টি হচ্ছে ভয়াবহ সংকট

দেশে সংস্কৃতিচর্চার সুযোগ দিন দিন কমছে। সরকারি সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে পেশাদারি, জবাবদিহি ও আন্তরিকতার অভাব। সংস্কৃতি

দেশের বাঁধগুলোর সক্ষমতা বাড়াতে হবে সংস্কারের লক্ষ্যে মনিটরিং করুন

ঘূর্ণিঝড় ফণী বাংলাদেশ অতিক্রম করে গেছে। ভারতের ওড়িশা উপকূলে আঘাত হানার পর পশ্চিমবঙ্গ হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে ঘূর্ণিঝড়।

পরিবহন সেক্টরকে মাফিয়ামুক্ত করুন

সাত দফা দাবিতে পরিবহন শ্রমিকদের ডাকা ধর্মঘটে গত সোমবার দিনভর দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত

sangbad ad

জঙ্গিবাদের হুমকি মোকাবিলায় ঐক্য গড়ে তুলুন

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গে হামলার পরিকল্পনা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার

গণধর্ষণ মামলার চার্জশিট প্রশ্নবিদ্ধ পুলিশের ভূমিকা

সুবর্ণচরে গণধর্ষণের শিকার নারীর অভিযোগ ছিল একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজের পছন্দের প্রতীকে ভোট দেয়ায় তার ওপর নির্যাতন হয়েছে

বিদ্যুৎ সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যবস্থা ত্রুটিমুক্ত করতে হবে

চাহিদার চেয়ে বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা থাকলেও বিদ্যুৎ বিভাগ মানসম্মত বিতরণ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে না পারায়

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে চাই কঠোর মনিটরিং

আসন্ন রমজানে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে থাকবে বলে আশ্বস্ত করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু

ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় রিসাইক্লিংয়ে পরিকল্পিত ও স্থায়ী উদ্যোগ নিন

ইলেকট্রনিক পণ্যের ব্যবহার বাড়ছে। একই সঙ্গে বাড়ছে ইলেকট্রনিক বা ই-বর্জ্যরে পরিমাণও। এসব ই-বর্জ্যরে দূষণ থেকে প্রাণ ও প্রকৃতিকে রক্ষা

বর্ষার আগেই ঢাকাডুবি কেন নগর কর্তৃপক্ষ কী করছে

চৈত্র মাসেই বৃষ্টির পানি জমে সয়লাব হয়ে যাচ্ছে রাজধানী ঢাকার বেশিরভাগ এলাকার রাস্তা

sangbad ad