• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯

 

মাদ্রাসাছাত্রী হত্যাচেষ্টার মামলা

পুলিশের ভূমিকা খতিয়ে দেখতে হবে

বিলু কবীর

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১১ এপ্রিল ২০১৯

ফেনীর সোনাগাজীতে মাদ্রাসাছাত্রীকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার মামলায় স্থানীয় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন ভিকটিমের স্বজনরা। অভিযোগ উঠেছে, সংশ্লিষ্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শুরু থেকেই মামলা ভিন্ন খাতে নেয়ার চেষ্টা করেছেন। মামলার এজাহারে পুলিশ ঘটনার বিবরণ লিপিবদ্ধ করার সময় ভিকটিমের জবানবন্দি বিকৃত করেছিল। সেখানে ঘটনাস্থল লেখা হয়েছিল ভুলভাবে। হাত-পা বেঁধে আগুন লাগানোর প্রসঙ্গ এজাহারে এড়িয়ে যাওয়া হয়েছিল। পরে ভিকটিমের পরিবারের দাবির মুখে এজাহার সংশোধন করা হয়। মামলার মূল অভিযুক্ত মাদ্রাসা অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে এলাকায় যেন কোন মানববন্ধন করা না হয় সেজন্য ওসি মৌখিক নির্দেশ দিয়েছিলেন। উক্ত মাদ্রাসাছাত্রীকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে নাকি সে নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে সেটা তদন্ত করে দেখতে চেয়েছিলেন থানার ওসি। হত্যাচেষ্টার কয়েকদিন আগে ভিকটিমের পরিবার শ্লীলতাহানির মামলা করলে উক্ত ওসি বলেছিলেন, মামলার অভিযোগ সাজানো। এ নিয়ে গতকাল গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

পুড়িয়ে ছাত্রী হত্যাচেষ্টার ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে যে অভিযোগ উঠেছে তা আমলযোগ্য। যে ওসি শ্লীলতাহানির অভিযোগকে ‘সাজানো’ বলে মন্তব্য করতে পারেন, যিনি হত্যাচেষ্টাকে আত্মহত্যার চেষ্টা বলে সন্দেহ করেন, মামলার এজাহার বদলানোর অপচেষ্টা করেনÑ তার ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন ওঠাই স্বাভাবিক। একজন আসামি আত্মপক্ষ সমর্থন করতে গিয়ে বলতে পারে যে, মামলা সাজানো। কিন্তু দায়িত্বশীল পুলিশ কিভাবে আসামির ভাষায় কথা বলে সেটা আমাদের বোধগম্য নয়। হত্যাচেষ্টার মূল আসামির বিরুদ্ধে এলাকাবাসীকে কোন কর্মসূচি করতে না দিয়ে পুলিশ আসামির পক্ষই নিয়েছে। তাই এ অবস্থায় মামলার তদন্ত সঠিক পথে এগোবে না বলেই আমরা মনে করি। তদন্ত বা চার্জশিট তৈরিতে পুলিশ যদি দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে না পারে বা যদি আসামির পক্ষে ভূমিকা পালন করে তবে ভিকটিম বা তার পরিবার ন্যায়বিচার পাবে না। এ অবস্থায় ন্যায়বিচারের স্বার্থে সংশ্লিষ্ট থানার ওসিসহ বিতর্কিত ভূমিকা রাখা পুলিশ সদস্যদের সরিয়ে দেয়াই উত্তম। মামলার তদন্ত যেন কোনভাবেই প্রভাবিত না হয় সেটা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে কঠোরভাবে নিশ্চিত করতে হবে।

সারা দেশের মানুষ নৃশংস এ অপরাধের বিচার চাচ্ছে সেই অপরাধের মামলা পুলিশ কেন অন্য খাতে প্রবাহিত করতে চাচ্ছে সেটা খতিয়ে দেখা দরকার। সরকার ন্যায়বিচার দেয়ার কথা বলছে, আর স্থানীয় পুলিশ করছে উল্টো কাজ। এ ধরনের পুলিশের জন্যই দেশে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হচ্ছে না। এ ধরনের পুলিশের ভরসাতেই অপরাধীরা উক্ত ছাত্রীকে পুড়িয়ে মারার দুঃসাহস পেয়েছে বলে অবস্থাদৃষ্টে মনে হয়। শ্লীলতাহানির মামলার পরপরই পুলিশ যদি কঠোর আইনি পদক্ষেপ নিত তাহলে উক্ত ছাত্রীকে এমন করুণ পরিণতি বরণ করতে হতো না। আমরা বলতে চাই, দায়িত্বশীল পদে থেকে কোন পুলিশ কর্মকর্তা বা সদস্য আইনের ব্যত্যয় ঘটাচ্ছে কিনা সেটা খতিয়ে দেখে এর কঠোর বিহিত করতে হবে।

দৈনিক সংবাদ : ১১ এপ্রিল ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৬ এর পাতায় প্রকাশিত

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে চাই কঠোর মনিটরিং

আসন্ন রমজানে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে থাকবে বলে আশ্বস্ত করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু

ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় রিসাইক্লিংয়ে পরিকল্পিত ও স্থায়ী উদ্যোগ নিন

ইলেকট্রনিক পণ্যের ব্যবহার বাড়ছে। একই সঙ্গে বাড়ছে ইলেকট্রনিক বা ই-বর্জ্যরে পরিমাণও। এসব ই-বর্জ্যরে দূষণ থেকে প্রাণ ও প্রকৃতিকে রক্ষা

বর্ষার আগেই ঢাকাডুবি কেন নগর কর্তৃপক্ষ কী করছে

চৈত্র মাসেই বৃষ্টির পানি জমে সয়লাব হয়ে যাচ্ছে রাজধানী ঢাকার বেশিরভাগ এলাকার রাস্তা

sangbad ad

স্বাভাবিক পুঁজিবাজার চাই অনৈতিক কারসাজি দমন করুন

দেশের পুঁজিবাজারে এখনও কারসাজি হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। স্বার্থান্বেষী একটি গোষ্ঠী দুই স্টক এক্সচেঞ্জের সূচক সুকৌশলে নিয়ন্ত্রণ করছে এমন

দ্রুত সম্পন্ন করা রাষ্ট্রের দায়িত্ব

অর্পিত সম্পত্তি অবমুক্তির লাখো মামলা বছরের পর বছর ধরে ঝুলে আছে। মামলা নির্ধারিত সময়ে নিষ্পত্তি হচ্ছে কিনা তা মনিটর করার কেউ

রোজার মাসে ভোগ্যপণ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখুন

রমজান সামনে রেখে এরই মধ্যে অস্থির হয়ে উঠতে শুরু করেছে ভোগ্যপণ্যের বাজার। বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম কোন কারণ ছাড়াই

রাজধানী কি এবারও জলাবদ্ধ হয়ে পড়বে

রাজধানীর অনেক এলাকা আগামী বর্ষাতেও জলাবদ্ধ হয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়ন হতে হবে

অগ্নিকান্ড রোধ এবং এর ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৫টি নির্দেশনা দিয়েছেন। গত সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত

নববর্ষ উদযাপনে কোন বিধি-নিষেধ নয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কর্তৃপক্ষ নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে পহেলা বৈশাখের দিন বিকাল ৫টার পর ক্যাম্পাস এলাকায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি

sangbad ad