• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

 

নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে তৎপর হোন

নিউজ আপলোড : ঢাকা , সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বৈশ্বিক মহামারী নভেল করোনাভাইরাসের প্রভাবে বাংলাদেশের কর্মপ্রত্যাশী তরুণ-বেকারদের হার দ্বিগুণ হয়েছে। ‘এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশে তরুণদের কর্মসংস্থান সংকট মোকাবিলা’ শীর্ষক প্রতিবেদনটি আইএলও প্রকাশ করেছে গত মাসে। প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, করোনার প্রভাবে বাংলাদেশে ২৪ দশমিক ৮ শতাংশ কর্মপ্রত্যাশী তরুণ বেকার হয়েছে। গত বছর তরুণদের মধ্যে বেকারত্বের হার ছিল ১১ দশমিক ৯ শতাংশ। কৃষি, খুচরা বিক্রি, হোটেল-রেস্তোরাঁ, অভ্যন্তরীণ পরিবহন, বস্ত্র ও নির্মাণ খাতে তরুণরা বেশি কাজ হারিয়েছে।

প্রতিবেশী দেশগুলোর তুলনায় বাংলাদেশে বেকারত্বের হার এমনিতেই বেশি। নভেল করোনাভাইরাসের প্রভাবে বেকারত্ব আরও বাড়ছে। কেবল তরুণদের মধ্যেই বেকারত্ব সীমাবদ্ধ নেই। মহামারীর প্রভাবে বহু কলকারখানা বন্ধ হয়ে গেছে, ব্যবসা-বাণিজ্যে ধস নেমেছে। কৃষি খাত যে করোনার প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে-সেটা বোঝা যায় এই খাতে ২২ দশমিক ৯ শতাংশ মানুষের কাজ হারানোর মধ্য দিয়ে। কৃষি খাত কেবল করোনার জন্য নয়, দফায় দফায় বন্যার জন্যও মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। প্রতিকূলতা সত্ত্বেও দেশের অর্থনীতিতে কৃষি খাত অবদান রেখে যাচ্ছে। গ্রামীণ অর্থনীতি এখনও কৃষি খাতনির্ভর। কৃষির বিপর্যয় কাটাতে যে প্রণোদনা দেয়া হয়েছে তার সুদের হার নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। গ্রামকেন্দ্রিক কৃষি অর্থনীতিতে নেই কোন বৈচিত্র্য। ফসল উৎপাদন করে মধ্যস্বত্বভোগীদের হাতে তুলে দেয়াই যেন কৃষকের কাজ। কৃষি খাতে বৈচিত্র্য আনা গেলে কর্মসংস্থান বাড়ানো যেত।

সরকার বস্ত্র খাতকে বিভিন্ন সময় নানান সুবিধা দিয়ে আসছে। মহামারীতে সাধারণ ছুটির সময়ও পোশাক কারখানা চালু ছিল। আর্থিক প্রণোদনা দেয়া হয়েছে। পোশাক শিল্প পুরনো ক্রয় আদেশ ফিরে পেয়েছে। নতুন ক্রয় আদেশও আসছে। এরপরও এই খাতে বেকারত্ব বাড়ছে। রফতানি পণ্য বহুমুখী করা না গেলে কেবল পোশাক খাত দিয়ে বেকারত্ব কমানো যাবে না। পাট, চামড়া, প্রভৃতি খাতের রফতানি বাড়াতে হবে।

দেশের কর্মসংস্থানের বড় একটি ক্ষেত্র হচ্ছে অপ্রাতিষ্ঠানিক খাত। এ খাতেই দেশের ৯০ শতাংশ কর্মসংস্থান হয়। অপ্রাতিষ্ঠানিক খাত দিয়ে দেশের অর্থনীতিকে টেকসই করা যাবে না। সরকারকে উৎপাদন খাতে পর্যাপ্ত কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে হবে। এজন্য সরকারি-বেসরকারি বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। ব্যাংকগুলোর ওপর সরকারের নির্ভরতা কমাতে হবে। পুঁজিবাজারকে শক্তিশালী করতে হবে। ব্যাংক ঋণ যেন খেলাপি না হয় সেটা নিশ্চিত করা জরুরি। প্রকৃত ব্যবসায়ী বা উদ্যোক্তাদের ঋণ বা প্রণোদনা দিতে হবে। পর্যাপ্ত কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা না গেলে প্রবৃদ্ধি বা বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ দিয়ে কোন লাভ হবে না। দেশে যে নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি হচ্ছে না তা নয়। তবে যে পরিমাণ কাজ তৈরি হচ্ছে তার তুলনায় অনেক বেশি মানুষ প্রতিদিন কর্মবাজারে হাজির হচ্ছে।

এদিকে শ্রমবাজারও সংকুচিত হয়ে আসছে। কাজেই অভ্যন্তরীণ বিনিয়োগ বাড়ানোর বিকল্প নেই। পাশাপাশি বিদেশি বিনিয়োগে আকৃষ্ট করতে হবে। ইপিজেডগুলোতে মানসম্মত বিদেশি বিনিয়োগ আনতে হবে। মহামারীর কারণে শিল্পোন্নত অনেক দেশ নতুন বিনিয়োগক্ষেত্র খুঁজছে। বাংলাদেশকে এ সুযোগের পূর্ণ সদ্ব্যবহার করতে হবে।

ব্যাংক খাতে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও সুশাসন ফিরিয়ে আনুন

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান বলেছেন, ব্যাংকগুলো যে জনগণের আমানতে

অনলাইন ক্লাস নিয়ে নৈরাজ্য বন্ধ করুন

অনলাইন শিক্ষা নিয়ে দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির উদ্ভব হয়েছে। এ নিয়ে

গ্যাং কালচারের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে

রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে কিশোর গ্যাং সদস্যদের অপরাধমূলক কর্মকান্ড আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে।

sangbad ad

কারাবন্দী প্রবাসী শ্রমিকদের অবিলম্বে মুক্তি দিন

ভিয়েতনাম ও কাতার ফেরত ৮৩ প্রবাসী শ্রমিককে বন্দীদশা থেকে মুক্তি দিতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না সেটা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

দুর্নীতির রাঘববোয়ালদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে

দেশে দুর্নীতি এবং অনিয়মের মাত্রা কোন পর্যায়ে পৌঁছেছে তার একটি স্বচ্ছ ধারণা পাওয়া যায় সাম্প্রতিক সময়ের দুটি আলোচিত খবরে

ধান-চাল সংগ্রহ প্রক্রিয়ার ব্যর্থতা দায় নেবে কে?

সময় বাড়িয়েও নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রার ধান-চাল সংগ্রহ করতে পারেনি খাদ্য মন্ত্রণালয়। এবার মোট ১৯ লাখ ৫০ হাজার টন ধান-চাল সংগ্রহের

বন্ধ করুন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অপব্যবহার

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গত দুই বছরে দেশে মামলা হয়েছে এক হাজারেরও বেশি।

মিঠাপুকুরে সংখ্যালঘুদের ওপর হামলাকারী আওয়ামী লীগ নেতা ও সহযোগীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা নিন

সম্প্রতি রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার জায়গীরহাট ঈদুলপুর এলাকায় শত বছর ধরে বসবাস করা

সড়ক দুর্ঘটনা একটি গুরুতর জাতীয় সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ কোথায়

সংবাদমাধ্যমে প্রতিদিনই দেশের কোথাও না কোথাও সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণহানির খবর প্রকাশিত হয়।

sangbad ad