• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯

 

দুদকের দায় এড়ানোর কৌশল

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ০৭ মার্চ ২০১৯

ভুল আসামি হিসেবে নিরীহ পাটকল শ্রমিক জাহালমের প্রায় ৩ বছর জেল খাটার দায়ভার ব্যাংকগুলোর ওপর চাপাতে চাচ্ছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আদালতে হলফনামা আকারে জমা দেয়া প্রতিবেদনে দুদক বলেছে, ব্যাংকগুলোই জাহালমকে আসামি হিসেবে চিহ্নিত করেছে। তার জেল খাটার দায় সংশ্লিষ্ট ব্যাংকগুলোর। নিরীহ জাহালমের জেল খাটার ঘটনাকে ‘সরল বিশ্বাসে কৃতকাজ’ বলে উল্লেখ করেছে দুদক। আইন অনুযায়ী, সরল বিশ্বাস করা কাজের দরুন কোন ব্যক্তি ক্ষতিগ্রস্ত হলে দুর্নীতি দমন কমিশন, দুদকের কোন কমিশনার অথবা কোন কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে কোন আইনগত কার্যধারা গ্রহণ করা যায় না।

জাহালমের জেল খাটার ঘটনাকে ‘সরল বিশ্বাসে করা কাজ’ হিসেবে বর্ণনা করাকে বলতে হবে একই সঙ্গে দুদকের দায় এড়ানো ও পিঠ বাঁচানোর কৌশল। দায় এড়ানো গেলে ক্ষতিগ্রস্তকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে না, আর পিঠ বাঁচানো গেলে অমার্জনীয় অপরাধের জন্য দুদকের কোন কর্তাব্যক্তির কাজের জবাবদিহির প্রয়োজন পড়বে না। বড় দুর্নীতিবাজ বা প্রকৃত অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে না পারলে কী হবে, আত্মরক্ষার কৌশল দুদকের কর্তাব্যক্তিদের ভালোই জানা আছে।

একজন অপরাধীকে শনাক্ত করে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার ক্ষেত্রে সরল বিশ্বাসে কাজ করার কোন সুযোগ আছে কিনা সেটা একটা প্রশ্ন। আইনের মূল স্পিরিট হচ্ছেÑ একজন নিরপরাধ ব্যক্তিও যেন সাজা না খাটেন সেটা সবার আগে নিশ্চিত করতে হবে। কাউকে ন্যায়বিচার দিতে গিয়ে নিরপরাধ কোন ব্যক্তির সঙ্গে অন্যায় করা আইনের লক্ষ্য নয়। এজন্য অভিযোগ তদন্ত করা, সাক্ষ্য-প্রমাণ হাজির করার বিধান রয়েছে। এতদিন আমরা জানতাম, দুদক তদন্ত করে জাহালমকে জেলে পাঠিয়েছে, এখন বলা হচ্ছেÑ ‘সরল বিশ্বাসে কাজ’ করা হয়েছে। তদন্তে ভুল হলে তার দায়ভার সংশ্লিষ্ট তদন্ত কর্মকর্তাকেই নিতে হবে। দুদক বলছে, ব্যাংকগুলো জাহালমকে আসামি হিসেবে শনাক্ত করেছে। প্রশ্ন হচ্ছে, ব্যাংকগুলো বললেই কি একজনকে আসামি হিসেবে শনাক্ত করতে হবে। জাহালম যে বারবার বলেছে, সে আবু সালেক নয় সেই কথা কেন তদন্ত কর্মকর্তা আমলে নিলেন না। কোন পক্ষের কথা আমলে না নিয়েও তদন্ত কর্মকর্তা সত্য-মিথ্যা যাচাই করে দেখতে পারতেন। মানবাধিকার কমিশন জাহালমের বাড়ি গিয়ে সত্যটা উদ্ঘাটন করতে পারলে দুদক কেন পারল না। এখানে প্রশ্ন জাগে যে, তদন্ত কর্মকর্তা গাফিলতি করেছেন নাকি কারও সঙ্গে যোগসাজশ করে জেনেবুঝেই জাহালমকে জেল খাটিয়েছেন। আদালত বলেছেন, জাহালমের ঘটনায় দুদক দায় এড়াতে পারে না। আমরা আশা করেছিলাম, দুদক দায় স্বীকার করে নিরপরাধ জাহালমকে ক্ষতিপূরণ দেবে এবং সংশ্লিষ্ট তদন্ত কর্মকর্তার জবাবদিহি আদায় করবে। কিন্তু দুদক দায় এড়ানোর কৌশল নিয়েছে বলে অবস্থাদৃষ্টে মনে হয়। আমরা আশা করতে চাই, আদালতে তাদের কূটকৌশল সফল হবে না।

দৈনিক সংবাদ : ৭ মার্চ ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৬ এর পাতায় প্রকাশিত

সমাজ ও ব্যক্তির জন্য সৃষ্টি হচ্ছে ভয়াবহ সংকট

দেশে সংস্কৃতিচর্চার সুযোগ দিন দিন কমছে। সরকারি সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে পেশাদারি, জবাবদিহি ও আন্তরিকতার অভাব। সংস্কৃতি

দেশের বাঁধগুলোর সক্ষমতা বাড়াতে হবে সংস্কারের লক্ষ্যে মনিটরিং করুন

ঘূর্ণিঝড় ফণী বাংলাদেশ অতিক্রম করে গেছে। ভারতের ওড়িশা উপকূলে আঘাত হানার পর পশ্চিমবঙ্গ হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে ঘূর্ণিঝড়।

পরিবহন সেক্টরকে মাফিয়ামুক্ত করুন

সাত দফা দাবিতে পরিবহন শ্রমিকদের ডাকা ধর্মঘটে গত সোমবার দিনভর দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত

sangbad ad

জঙ্গিবাদের হুমকি মোকাবিলায় ঐক্য গড়ে তুলুন

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গে হামলার পরিকল্পনা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার

গণধর্ষণ মামলার চার্জশিট প্রশ্নবিদ্ধ পুলিশের ভূমিকা

সুবর্ণচরে গণধর্ষণের শিকার নারীর অভিযোগ ছিল একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজের পছন্দের প্রতীকে ভোট দেয়ায় তার ওপর নির্যাতন হয়েছে

বিদ্যুৎ সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যবস্থা ত্রুটিমুক্ত করতে হবে

চাহিদার চেয়ে বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা থাকলেও বিদ্যুৎ বিভাগ মানসম্মত বিতরণ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে না পারায়

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে চাই কঠোর মনিটরিং

আসন্ন রমজানে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে থাকবে বলে আশ্বস্ত করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু

ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় রিসাইক্লিংয়ে পরিকল্পিত ও স্থায়ী উদ্যোগ নিন

ইলেকট্রনিক পণ্যের ব্যবহার বাড়ছে। একই সঙ্গে বাড়ছে ইলেকট্রনিক বা ই-বর্জ্যরে পরিমাণও। এসব ই-বর্জ্যরে দূষণ থেকে প্রাণ ও প্রকৃতিকে রক্ষা

বর্ষার আগেই ঢাকাডুবি কেন নগর কর্তৃপক্ষ কী করছে

চৈত্র মাসেই বৃষ্টির পানি জমে সয়লাব হয়ে যাচ্ছে রাজধানী ঢাকার বেশিরভাগ এলাকার রাস্তা

sangbad ad