• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০

 

জনগণের সঙ্গে ব্যবসা নয়

জনস্বার্থেই জ্বালানি তেলের দাম কমান

নিউজ আপলোড : ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের রেকর্ড দরপতন সত্ত্বেও দেশে তেলের দাম কমছে না। গত পাঁচ বছর বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম নিম্নমুখী থাকায়, কম দামে তেল কিনে বেশি দামে বিক্রি করে প্রায় ৩০ হাজার কোটি টাকা লাভ করেছে রাষ্ট্রীয় সংস্থা বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি)। ২০১৬ সালে একবার দেশে তেলের দাম কিছুটা কমানো হলেও এরপর আর দাম কমানো হয়নি।

করোনাকালে বিশ্ববাজারে অব্যাহত জ্বালানির দরপতনের মধ্যে দেশে দাম কমায়নি সরকার। অর্থাৎ বিশ্ববাজার থেকে কম দামে তেল কিনে সরকার সাধারণ জনগণের কাছে অতি উচ্চমূল্যে বিক্রি করছে। বিষয়টা এমন যে, সরকার জনগণের সঙ্গে ব্যবসা করছে। যেন সরকারের মূল লক্ষ্যই মুনাফা অর্জন। অথচ কোন সভ্য, গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র কখনোই জনগণের সঙ্গে ব্যবসা করে না। জনগণকে চাপে ফেলে মুনাফা অর্জন করে না।

পৃথিবীর অন্যান্য দেশে যেহেতু জ্বালানি তেলের নিম্নদরটি সমন্বয় হচ্ছে ফলে সেসব দেশের উৎপাদকরা এখন আরও কমমূল্যে তাদের পণ্য উৎপাদন করতে পারছেন। ফলে সেখানে একটি বাড়তি প্রতিদ্বন্দ্বিতা সক্ষমতার সুযোগ পাচ্ছেন সেসব দেশের উৎপাদকরা বাংলাদেশের উৎপাদকদের তুলনায়। সেটি কিন্তু এদেশের উদ্যোক্তাদের জন্য একটি বাড়তি চাপ। আবার ভোক্তা পর্যায়েও অন্যান্য দেশের যারা ভোক্তা রয়েছেন তারাও বিভিন্নভাবে সুবিধা পাচ্ছেন যেটা বাংলাদেশের ভোক্তারা পাচ্ছেন না। ফলে এক ধরনের অসম পরিস্থিতি বিরাজ করছে সর্বত্র।

জনকল্যাণ এবং জনস্বার্থের পক্ষে কাজ করাই গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের দায়িত্ব। বাংলাদেশের ক্ষেত্রে সেটি দৃশ্যমান হচ্ছে না। সাধারণ ব্যবসার একটি স্বতঃসিদ্ধ নিয়ম হলো, পণ্যের দাম কমে গেলে বা কম দামে পণ্য কেনা হলে ব্যবসায়ী সেটা হ্রাসকৃত মূল্যে বিক্রি করবেন। কিন্তু জ্বালানি তেলের অভ্যন্তরীণ বাজারে সেটিও করা হচ্ছে না। সরকার নীতিহীনভাবে মুনাফার পাহাড় গড়ে তুলছে এবং এক্ষেত্রে জনগণের স্বার্থ বিন্দুমাত্র বিবেচিত হচ্ছে না। এরপরও বিষয়টা গ্রহণযোগ্য হতে পারত, যদি অতি মুনাফার বিপুল অঙ্কের টাকা জনস্বার্থে ব্যবহৃত হতো। কিন্তু সেটিও হচ্ছে না। সরকারের অর্জিত অর্থ ঋণ কেলেঙ্কারির মাধ্যমে হরিলুট করা হচ্ছে। বিষয়টা দুর্ভাগ্যজনক।

বিশ্ববাজার পর্যালোচনা করে সরকার চাইলে ডিজেলের দাম অনেকটাই কমাতে পারে। এছাড়া দেশে উৎপাদিত কেরোসিন, অকটেন, পেট্রোলের দামও হ্রাস করতে পারে। জ্বালানি তেলের মূল্য কমানো হলে পরিবহন ব্যয় কমে যাবে। কৃষি, বিদ্যুৎ, শিল্পসহ সব খাতেই উৎপাদন খরচ কমবে। সুফল পাবে সাধারণ মানুষ। ফলে অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। কাজেই সরকারকে ঠিক করতে হবে যে, তারা কোন পথে হাঁটবে; কম দামে তেল কিনে উচ্চমূল্যে বিক্রি করে জনগণকে বিপদে ফেলবে নাকি জ্বালানি তেলের দাম কমিয়ে দেশের সামগ্রিক অর্থনীতিতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। এবং এটাও মনে রাখতে হবে যে, জনগণ ওই সরকারের প্রতিই আস্থাশীল হয়, যে সবার আগে জনস্বার্থ বিবেচনা করে।

চীনের প্রস্তাবকে ইতিবাচকভাবে কাজে লাগাতে হবে

নিজ দেশ মায়ানমারে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন নিয়ে সন্দেহ-সংশয় দিন দিন গভীর হচ্ছে।

সালতা নদী খনন প্রকল্পে দুর্নীতির দায়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন

সাতক্ষীরা ও খুলনা জেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত ১৮ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে সালতা নদী খনন প্রকল্পে ঠিকদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ম নদী, খননে ধীরগতি ও লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সড়ক কবে নিরাপদ হবে

নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার দেশে চতুর্থবারের মতো পালিত হলো জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস।

sangbad ad

সব থানায় অনলাইনে জিডির সুযোগ রাখতে হবে

করোনাকালে সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সেবা দিতে যেখানে অনলাইনকে প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে, ডিএমপি সেখানে ব্যতিক্রম।

প্রতিমা ভাঙচুরের সঙ্গে জড়িতদের বিচার করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করুন

ফরিদপুরের বোয়ালমারী ও নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে।

বায়ুদূষণ রোধে কার্যকর উদ্যোগ নিন

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংস্থা হেলথ ইফেক্টস ইনস্টিটিউট এবং ইনস্টিটিউট ফর হেলথ মেট্রিক্স অ্যান্ড ইভালুয়েশনের সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে দক্ষিণ এশিয়াকে বায়ুর দিক থেকে বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত অঞ্চল হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

মালিক-শ্রমিককে আলোচনায় বসতে হবে

এগারো দফা দাবিতে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে সারা দেশে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট কর্মসূচি পালন করছেন নৌযান শ্রমিককরা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার মান ও গবেষণা দুটোই উন্নত করতে হবে

প্রতি বছর নতুন বিভাগ খোলা, শিক্ষার্থী ও শিক্ষক বাড়ানো, বিপুলসংখ্যক প্রশাসনিক কর্মী নিয়োগ- সব মিলিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কলেবরের দিক দিয়ে বিশাল আকার ধারণ করলেও শিক্ষার মান ও গবেষণার দিক দিয়ে কোন উন্নতি হয়নি বলে গতকাল মঙ্গলবার গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। মূলত শিক্ষা ও সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে গুণগতমানের দিক দিয়ে প্রত্যাশিত কোন উন্নতিই হয়নি।

ধর্ষকদের বিরুদ্ধে তীব্র সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার নির্দেশ ইন্দিরার

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, বিকৃত মস্তিস্ক, কান্ডজ্ঞানহীন বিবেক বর্জিত ও মানসিক বিকার গ্রস্তরাই ধর্ষণকারী।

sangbad ad