• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০

 

জঙ্গিবাদ দমনে আদর্শিক লড়াই চালাতে হবে

নিউজ আপলোড : ঢাকা , শনিবার, ২১ নভেম্বর ২০২০

গত শুক্রবার ভোরে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে একটি বাড়িতে র‌্যাব অভিযান চালিয়ে জঙ্গিবাদে সম্পৃক্ততার অভিযোগে চারজনকে আটক করেছে। র‌্যাবের অভিযানে বিদেশি পিস্তল, গান পাউডার, ফিউজ, ডেটোনেটর, চাপাতি প্রভৃতি উদ্ধার করা হয়েছে। র‌্যাব বলছে, উল্লিখিত বাড়িটিতে জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ দেয়া হতো। এর আগে গত বৃহস্পতিবার রাজশাহীতে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবির মাসিক সভা থেকে আঞ্চলিক কমান্ডারসহ চার জঙ্গিকে আটক করা হয়। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে সিরাজগঞ্জে অভিযান চালানো হয়। র‌্যাব বলছে, জেএমবি নতুনভাবে সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে।

জেএমবি বা জঙ্গিবাদী আদর্শে বিশ্বাসীদের সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা নতুন নয়। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অব্যাহত অভিযানের মধ্যেও তারা সংগঠিত হচ্ছে। নিয়মিত মাসিক সভা করা, প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গড়ে তোলা, নতুন নতুন সদস্য সংগ্রহ করা, অস্ত্র ও অর্থ সংগ্রহ করা- এসবই জঙ্গিদের সংগঠিত হওয়ার প্রমাণ। জঙ্গিবাদে বিশ্বাসীরা নিছক সংগঠিত হওয়ার চেষ্টার গন্ডিতে আটক নেই। তারা রীতিমতো সংগঠিত হয়ে পড়েছে। জঙ্গিদের নতুন নতুন নেতৃত্বের সন্ধান মিলছে। এটা ঠিক যে, হলি আর্টিজানের ঘটনার পর দেশে জঙ্গি হামলার বড় কোন ঘটনা ঘটেনি। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দাবি করছে, জঙ্গিদের বড় হামলার সক্ষমতা নেই। আমরা বলতে চাই, জঙ্গিবাদ যে কোন সময় ভয়াবহ রূপ ধারণ করতে পারে। নৃশংসতা প্রকাশের জন্য তাদের তেমন কোন সক্ষমতার প্রয়োজন আদতে পড়ে না। দেশে-বিদেশে এর বহু নজির রয়েছে। কাজেই জঙ্গিদের সক্ষমতা নেই বলে নিশ্চিন্ত হওয়ার সুযোগ নেই।

সরকার জঙ্গিবিরোধী অভিযান অব্যাহত রেখেছে। জঙ্গি দমনে বিশেষায়িত ইউনিট করেছে। তবে জঙ্গিবাদকে দেশ থেকে নির্মূল করা যায়নি। জঙ্গিবাদকে কার্যকরভাবে নির্মূল করতে হলে আদর্শিক লড়াই চালাতে হবে। জঙ্গিদের আদর্শিকভাবে পরাস্ত করতে হবে। দেশের মানুষ বিশেষ করে তরুণ সমাজ যেন জঙ্গিবাদী আদর্শে উদ্বুদ্ধ না হয় সেজন্য এটা অত্যন্ত জরুরি। বাস্তবতা হচ্ছে, সরকার দেশে জঙ্গিবিরোধী কার্যকর সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে পারেনি। শুধু জঙ্গিবিরোধী প্রচার চালানোই যথেষ্ট নয়। সরকারকে অনতিবিলম্বে জঙ্গিবিরোধী আন্দোলনের সূচনা করতে হবে। এ আন্দোলনে জনসম্পৃক্ততার পাশাপাশি সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে।

গণঅভ্যুত্থান, জাতীয় স্বাস্থ্যনীতি এবং বিএমএ

image

আজ যে সময়ে আমরা শহীদ ডা. মিলনকে স্মরণ করছি তখন গোটা বিশ্ব করোনাভাইরাসের ভয়াল থাবায় অনেকটা পর্যুদস্ত, বিপর্যস্ত অর্থনীতি, অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ।

আদিয়স ‘দিয়োস ভিভো’ ম্যারাডোনা

বিশ্ব ফুটবলের অবিসংবাদিত তারকা আর্জেন্টিনার ফুটবলার দিয়েগো ম্যারাডোনা (৬০) গতকাল বুধবার নিজ বাসায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

এসএমই খাতে ঋণপ্রবাহ বাড়ান নারী উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করুন

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলো (এসএমই) দেশের কর্মসংস্থানের বড় ক্ষেত্রে পরিণত হচ্ছে।

sangbad ad

করোনা বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় গুরুত্ব দিন

আত্মঘাতী হয়ে উঠছে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ রোধে ব্যবহৃত স্বাস্থ্য সুরক্ষাসামগ্রী।

কাগজের দাম নিয়ে কারসাজি কাম্য নয়

হঠাৎ করেই বই ছাপার কাগজের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে দেশীয় কাগজ কলগুলো।

সড়ক স্থায়ীভাবে দখলমুক্ত করুন

গত কয়েক বছরে চট্টগ্রামের বিভিন্ন সড়ক সম্প্রসারণ করা হয়েছে। কোনো কোনো সড়ক ছয় লেন, কোনো কোনোটি চার লেন হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসে জনবল ও আধুনিক সরঞ্জামাদি সংকট দূর করুন

‘প্রশিক্ষণ পরিকল্পনা প্রস্তুতি; দুর্যোগ মোকাবিলায় আনবে গতি’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে এ বছর ১৯-২১ নভেম্বর সারাদেশে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ ২০২০ উদযাপিত হয়েছে।

বন্যহাতি নিধন বন্ধ করুন

কক্সবাজারে মানুষের নির্মমতায় একের পর এক মারা যাচ্ছে বন্যহাতি।

ধর্ষণ প্রতিরোধে আইনের কঠোর বাস্তবায়ন চাই

ধর্ষণ সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডের বিধান রেখে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন (সংশোধন) বিল-২০০০’ জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে।

sangbad ad