• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯

 

চকবাজার ট্র্যাজেডির পুনরাবৃত্তি রোধে সুপারিশ বাস্তবায়ন করুন

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বুধবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

চকবাজারের চুড়িহাট্টার অগ্নিকান্ডের দায় কাউকে না কাউকে নিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন আদালত। উক্ত অগ্নিকান্ডের ঘটনার করা একাধিক রিট আবেদন শুনানির সময় গত সোমবার একথা বলেন আদালত। শুনানির সময় আদালত বলেন, নিমতলীর অগ্নিকান্ডের ঘটনারসংশ্লিষ্ট তদন্ত কমিটি যে ১৭ দফা সুপারিশ করেছিল তা বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলো অবহেলা করেছে। সুপারিশগুলো বাস্তবায়িত হলে চকবাজারে এত মানুষ মারা যেত না। আদালত বলেন, চকবাজারের অগ্নিকান্ডকে দুর্ঘটনা বলার সুযোগ নেই।

১৭ দফা সুপারিশ বাস্তবায়ন এবং চকবাজার অগ্নিকান্ডে হতাহতদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার জন্য আদালতের নির্দেশনা চেয়ে রিট করেছে একাধিক সংগঠন।

গত বৃহস্পতিবার চকবাজারের সংঘটিত ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মারা গেছেন ৬৯ জন। চকবাজারের এ অগ্নিকান্ডের ঘটনার পর থেকেই প্রশ্ন উঠেছে যে, এ ভয়াবহ বিপর্যয় এড়ানো যেত কিনা। নিমতলী ট্র্যাজেডির পর গত ৯ বছরে যদি ন্যূনতম পদক্ষেপও নেয়া হতো তাহলে চকবাজারে এ বিপর্যয় ঘটত না।

২০১০ সালে নিমতলীতে অগ্নিকান্ডে ১২৪ জন মারা যান। সেই ঘটনায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কর্তৃক গঠিত একটি কমিটি ১৭ দফা সুপারিশ করেছিল। জরুরি ভিত্তিতে আবাসিক এলাকা থেকে রাসায়নিকের গুদাম সরানো, অনুমোদনহীন কারখানার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া, অগ্নি প্রতিরোধ ও নির্বাপণ আইন এবং বিল্ডিং কোড মেনে ভবন নির্মাণ। অগ্নিনির্বাপণের জরুরি ব্যবস্থা হিসেবে হাইড্রেন্ট তৈরি প্রভৃতি সুপারিশ করা হয়েছিল। এসব সুপারিশ বাস্তবায়নে সরকারের বিভিন্ন সংস্থার দায়িত্ব রয়েছে। কিন্তু কোন সংস্থাই নিজ দায়িত্ব পালন করেছে বলে প্রমাণ মেলে না। চকবাজারের অগ্নিকান্ডের পর সংস্থাগুলো একে অপরের ওপর দায় চাপাচ্ছে। এমনকি সাবেক দুই মন্ত্রীকেও পরস্পরকে দোষারোপ করতে দেখা গেছে।

আদালত যথাথই বলেছেন, চকবাজারের অগ্নিকান্ডকে দুর্ঘটনা বলা যাবে না। সরকারি সংস্থাগুলোর দায়িত্বহীনতা আর কাজে গাফিলতির কারণে চকবাজারে এতগুলো মানুষ মারা গেছেন। পুরান ঢাকা থেকে রাসায়নিকের গুদাম বা কারখানা সরানো যাদের দায়িত্ব ছিল তারা সেই দায়িত্ব পালন করেনি। অভিযোগ রয়েছে, পুরান ঢাকা থেকে যেন রাসায়নিকের গুদাম সরানো না হয় সেজন্য তৎকালে শিল্প মন্ত্রণালয়ে মোটা অংকের টাকা লেনদেন হয়েছে। রাস্তাগুলোকে প্রশস্ত করার দায়িত্ব যাদের ছিল তারা সেই দায়িত্ব পালন করেনি। ভবন নির্মাণ বা সংস্কারের আগে নিয়ম মানা হয় না। পুরান ঢাকায় একটিও হাইড্রেন্ট পয়েন্ট তৈরি করা হয়নি। সংস্থাগুলোর সম্মিলিত ব্যর্থতার বলি হয়েছেন ৬৯ জন মানুষ। এ ব্যর্থতা অমার্জনীয়। এজন্য সংশ্লিষ্টদের জবাবদিহিতা আদায় করতে হবে।

১৭ দফা সুপারিশ বাস্তবায়নে সরকারকে দ্রুত উদ্যোগ নিতে হবে। সংশ্লিষ্ট সব সংস্থার কাজে সমন্বয় সাধন করতে হবে। প্রয়োজনে একটি টাস্কফোর্স গঠন করে সুপারিশগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে। নইলে নিমতলী বা চকবাজারের মতো আরেকটি ট্র্যাজেডির জন্ম হতে পারে।

দৈনিক সংবাদ : ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, বুধবার, ৬ এর পাতায় প্রকাশিত

সমাজ ও ব্যক্তির জন্য সৃষ্টি হচ্ছে ভয়াবহ সংকট

দেশে সংস্কৃতিচর্চার সুযোগ দিন দিন কমছে। সরকারি সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে পেশাদারি, জবাবদিহি ও আন্তরিকতার অভাব। সংস্কৃতি

দেশের বাঁধগুলোর সক্ষমতা বাড়াতে হবে সংস্কারের লক্ষ্যে মনিটরিং করুন

ঘূর্ণিঝড় ফণী বাংলাদেশ অতিক্রম করে গেছে। ভারতের ওড়িশা উপকূলে আঘাত হানার পর পশ্চিমবঙ্গ হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে ঘূর্ণিঝড়।

পরিবহন সেক্টরকে মাফিয়ামুক্ত করুন

সাত দফা দাবিতে পরিবহন শ্রমিকদের ডাকা ধর্মঘটে গত সোমবার দিনভর দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত

sangbad ad

জঙ্গিবাদের হুমকি মোকাবিলায় ঐক্য গড়ে তুলুন

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গে হামলার পরিকল্পনা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার

গণধর্ষণ মামলার চার্জশিট প্রশ্নবিদ্ধ পুলিশের ভূমিকা

সুবর্ণচরে গণধর্ষণের শিকার নারীর অভিযোগ ছিল একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজের পছন্দের প্রতীকে ভোট দেয়ায় তার ওপর নির্যাতন হয়েছে

বিদ্যুৎ সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যবস্থা ত্রুটিমুক্ত করতে হবে

চাহিদার চেয়ে বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা থাকলেও বিদ্যুৎ বিভাগ মানসম্মত বিতরণ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে না পারায়

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে চাই কঠোর মনিটরিং

আসন্ন রমজানে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে থাকবে বলে আশ্বস্ত করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু

ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় রিসাইক্লিংয়ে পরিকল্পিত ও স্থায়ী উদ্যোগ নিন

ইলেকট্রনিক পণ্যের ব্যবহার বাড়ছে। একই সঙ্গে বাড়ছে ইলেকট্রনিক বা ই-বর্জ্যরে পরিমাণও। এসব ই-বর্জ্যরে দূষণ থেকে প্রাণ ও প্রকৃতিকে রক্ষা

বর্ষার আগেই ঢাকাডুবি কেন নগর কর্তৃপক্ষ কী করছে

চৈত্র মাসেই বৃষ্টির পানি জমে সয়লাব হয়ে যাচ্ছে রাজধানী ঢাকার বেশিরভাগ এলাকার রাস্তা

sangbad ad