• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯

 

গ্যাসের দাম না বাড়িয়ে চুরি-দুর্নীতি বন্ধ করুন

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৪ মার্চ ২০১৯

আবাসিকসহ সব ধরনের গ্যাসের দাম গড়ে প্রায় ১০৩ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে তিতাস গ্যাস কোম্পানি। বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিটিআরসি) গণশুনানিতে দর বৃদ্ধির এ প্রস্তাব দেয়া হয়। গ্যাসের দাম বৃদ্ধির উদ্যোগকে অবৈধ বলে আখ্যায়িত করেছেন জ্বালানি বিশেষজ্ঞ ও ব্যবসায়ীরা। প্রস্তাবে দর বৃদ্ধির হারকে তারা অযৌক্তিক বলেছেন। বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ গণমাধ্যমকে বলেছেন, সরকার ধীরে ধীরে গ্যাস খাতে ভর্তুকি কমিয়ে আনতে চাচ্ছে।

চলতি অর্থবছরে দ্বিতীয়বারের মতো গ্যাসের দাম বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়া হলো। এর আগে গত বছর অক্টোবরে এক দফা গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী, এক অর্থবছরে একবারের বেশি দাম বাড়ানোর সুযোগ নেই। সেই হিসেবে গ্যাসের দাম বৃদ্ধির উদ্যোগটিই চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে। সরকার গ্যাস খাতে ভর্তুকি কমাতে চাচ্ছে। আমরা বলতে চাই, আগে গ্যাস নিয়ে অনিয়ম-দুর্নীতি দূর করতে হবে। সিস্টেম লসের নামে কোটি কোটি টাকার অপচয় হচ্ছে। হাজার হাজার অবৈধ লাইন দিয়ে এক শ্রেণীর কর্মকর্তা-কর্মচারী নিজেদের পকেট ভারি করছে। জনস্বার্থে ব্যয় হওয়া অর্থ সাশ্রয় করার চেয়ে রাষ্ট্রীয় সম্পদের অপচয় এবং লুটপাট বন্ধ করা বেশি জরুরি।

গ্যাসের দাম বাড়লে বিনিয়োগ ব্যাহত হতে পারে। বিদ্যমান শিল্প কল-কারখানায় ব্যয়ের বোঝা চাপবে। এর ফলে কর্মসংস্থান বিঘ্নিত হবে। সাধারণ মানুষের জীবন যাত্রার ব্যয়ও বাড়বে। এর ফলে মূল্যস্ফীতি দেখা দিতে পারে। ইতোমধ্যে জীবনযাত্রার ব্যয় এবং শিল্পোৎপাদন ব্যয় বেড়েছে। এ বিষয়ে গণশুনানিতে হাজির সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা তাদের বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন। সরকারকে তাদের বক্তব্য আমলে নিতে হবে। শুধু সঞ্চালন কোম্পানি বা বিতরণ কোম্পানির প্রস্তাবের ভিত্তিতে দাম বাড়ালে চলবে না। বাস্তবতা হচ্ছে, গণশুনানি এক তামাশায় পরিণত হয়েছে। গণশুনানি করে নাগরিকদের বক্তব্য শোনা হলেও কোম্পানিগুলোর চাহিদা মতোই দাম বাড়ানো হয়। এবার আশা করি এর পুনরাবৃত্তি ঘটবে না।

দেশে গ্যাস সংকট চরম আকার ধারণ করেছে। শিল্পকারখানায় যেমন, আবাসিক কাজেও তেমন চাহিদা অনুযায়ী গ্যাস মেলে না। তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) আমদানি করে সংকট মোকাবিলা করতে চাচ্ছে সরকার। এলএনজি আমদানির খরচ উঠাতে হলে গ্যাসের দাম বাড়াতে হবে বলে সরকার মনে করছে। আমরা জানতে চাই, দেশে গ্যাস সংকট হলো কেন। নতুন গ্যাস ক্ষেত্র আবিষ্কারে সংশ্লিষ্টদের গাফিলতি হয়েছে। সমুদ্ধে ২৬টি ব্লকে গ্যাস অনুসন্ধানে কাঙ্ক্ষিত গতি নেই। সরকার এলএনজি আমদানিতে যতটা আগ্রহী, গ্যাস অনুসন্ধানে ততটা আগ্রহী নয়। এখনও সময় আছে, গ্যাস অনুসন্ধানে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাতে হবে। বিশেষ করে সমুদ্রে বড় গ্যাস ক্ষেত্র আছে কিনা সেটা দেখতে হবে। বড় গ্যাস ক্ষেত্র আবিষ্কার ও উত্তোলনের কাজ করা না গেলে বিদ্যমান গ্যাস দিয়ে বা আমদানি করে দেশের অর্থনীতিকে টেকসই ভাবে উন্নত করা যাবে না।

দৈনিক সংবাদ : ১৪ মার্চ ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৬ এর পাতায় প্রকাশিত

সমাজ ও ব্যক্তির জন্য সৃষ্টি হচ্ছে ভয়াবহ সংকট

দেশে সংস্কৃতিচর্চার সুযোগ দিন দিন কমছে। সরকারি সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে পেশাদারি, জবাবদিহি ও আন্তরিকতার অভাব। সংস্কৃতি

দেশের বাঁধগুলোর সক্ষমতা বাড়াতে হবে সংস্কারের লক্ষ্যে মনিটরিং করুন

ঘূর্ণিঝড় ফণী বাংলাদেশ অতিক্রম করে গেছে। ভারতের ওড়িশা উপকূলে আঘাত হানার পর পশ্চিমবঙ্গ হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে ঘূর্ণিঝড়।

পরিবহন সেক্টরকে মাফিয়ামুক্ত করুন

সাত দফা দাবিতে পরিবহন শ্রমিকদের ডাকা ধর্মঘটে গত সোমবার দিনভর দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত

sangbad ad

জঙ্গিবাদের হুমকি মোকাবিলায় ঐক্য গড়ে তুলুন

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গে হামলার পরিকল্পনা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার

গণধর্ষণ মামলার চার্জশিট প্রশ্নবিদ্ধ পুলিশের ভূমিকা

সুবর্ণচরে গণধর্ষণের শিকার নারীর অভিযোগ ছিল একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজের পছন্দের প্রতীকে ভোট দেয়ায় তার ওপর নির্যাতন হয়েছে

বিদ্যুৎ সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যবস্থা ত্রুটিমুক্ত করতে হবে

চাহিদার চেয়ে বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা থাকলেও বিদ্যুৎ বিভাগ মানসম্মত বিতরণ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে না পারায়

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে চাই কঠোর মনিটরিং

আসন্ন রমজানে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে থাকবে বলে আশ্বস্ত করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু

ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় রিসাইক্লিংয়ে পরিকল্পিত ও স্থায়ী উদ্যোগ নিন

ইলেকট্রনিক পণ্যের ব্যবহার বাড়ছে। একই সঙ্গে বাড়ছে ইলেকট্রনিক বা ই-বর্জ্যরে পরিমাণও। এসব ই-বর্জ্যরে দূষণ থেকে প্রাণ ও প্রকৃতিকে রক্ষা

বর্ষার আগেই ঢাকাডুবি কেন নগর কর্তৃপক্ষ কী করছে

চৈত্র মাসেই বৃষ্টির পানি জমে সয়লাব হয়ে যাচ্ছে রাজধানী ঢাকার বেশিরভাগ এলাকার রাস্তা

sangbad ad