• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , রোববার, ১৯ মে ২০১৯

 

অ্যান্টিবায়োটিকের যথেচ্ছ ব্যবহার রোধ করতে হবে

নিউজ আপলোড : ঢাকা , সোমবার, ০৪ মার্চ ২০১৯

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন রোগীদের ২৫ শতাংশই অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সব হাসপাতালের আইসিইউতেই একই চিত্রের দেখা মেলে। চিকিৎসাধীন অধিকাংশ রোগীর শরীরে সিংহভাগ অ্যান্টিবায়োটিক কাজ করে না। চিকিৎসকরা বলছেন, অ্যান্টিবায়েটিকের যথেচ্ছ ব্যবহারের কারণে ব্যাকটেরিয়া এক ধরনের প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে। অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধী রূপান্তরিত ব্যাকটেরিয়া মানবস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক হুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে। এ নিয়ে গত রোববার একটি জাতীয় দৈনিক বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

অ্যান্টিবায়োটিকের যথেচ্ছ ব্যবহার সারা বিশ্বেই উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা একে বিশ্বের স্বাস্থ্য খাদ্য নিরাপত্তা এবং উন্নয়নের জন্য অন্যতম প্রধান হুমকি বলে আখ্যায়িত করেছে। বিশ্বের যে কোন দেশের যে কোন ধরনের মানুষ এত আক্রান্ত হতে পারেন। শুধু মানুষ নয়, প্রাণীকুলের বাকি সদস্যদের মধ্যেও অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্টেন্সি গড়ে উঠতে পারে। বাংলাদেশের অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্টেন্সি দ্রুত বিস্তৃত হচ্ছে। এর কারণ হচ্ছেÑ চিকিৎসক, বিক্রেতা, রোগী প্রায় সবাই কমবেশি অ্যান্টিবায়োটিকের যথেচ্ছ ব্যবহার করছেন। অনেক চিকিৎসক অপ্রয়োজনে অ্যান্টিবায়োটিক দেন বলে অভিযোগ রয়েছে। আবার রোগীর মনস্তত্ত্বের কারণেও অনেক চিকিৎসক অনীহা সত্ত্বেও এটা প্রেসক্রাইব করেন। অনেক ক্ষেত্রে রোগী নিজেই ফার্মেসি থেকে ওষুধ কিনে খান। ওষুধ বিক্রিতে বিক্রেতারাও কোন নিয়মনীতির তোয়াক্কা করেন না। ওষুধের কোর্স পূর্ণ করা বা যথাযথ মাত্রার ওষুধ সেবন সম্পর্কে অনেক রোগীই সচেতন নন। যথেচ্ছ এবং অপূর্ণাঙ্গ ব্যবহারের কারণে ব্যাকটেরিয়া হয়ে উঠছে অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধী। এর ভয়ানক দিক হচ্ছে, সাধারণ ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণেই মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়ছে। তার অসুস্থতা দীর্ঘ হচ্ছে চিকিৎসা ব্যয় বাড়ছে। এ কারণে বহু রোগীর মৃত্যু ত্বরান্বিত হচ্ছে।

আশার কথা হচ্ছে, অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার সম্পর্কে ইতোমধ্যে বিশ্ব সচেতন হয়েছে দেশেও সচেতনতা তৈরি হচ্ছে। সরকার ইতোমধ্যে অ্যান্টিবায়োটিকের যথার্থ ব্যবহার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। আমরা চাইব, কাজগুলো সরকার দ্রুত বাস্তবায়ন করবে। এ সংক্রান্ত জাতীয় পরিকল্পনার পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন ঘটাতে হবে। ওষুধ উৎপাদন থেকে শুরু করে জোগান পর্যন্ত প্রতিটি স্তরে কঠোর নজরদারি চালু করতে হবে। বিনা প্রেসক্রিপশনে একটি অ্যান্টিবায়োটিকও যেন বিক্রি না হয় সেটা নিশ্চিত করা জরুরি। চিকিৎসকদেরকে প্রো-অ্যাক্টিভ হয়ে এর ব্যবহার সম্পর্কে রোগীদের সচেতন করতে হবে। বিনা প্রয়োজনে কেউ যেন ওষুধ না খান বা খেলে যেন কোর্স পূর্ণ করেন সেটা নিশ্চিত করতে হবে।

দৈনিক সংবাদ : ৪ মার্চ ২০১৯, সোমবার, ৬ এর পাতায় প্রকাশিত

দেশের বাঁধগুলোর সক্ষমতা বাড়াতে হবে সংস্কারের লক্ষ্যে মনিটরিং করুন

ঘূর্ণিঝড় ফণী বাংলাদেশ অতিক্রম করে গেছে। ভারতের ওড়িশা উপকূলে আঘাত হানার পর পশ্চিমবঙ্গ হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে ঘূর্ণিঝড়।

পরিবহন সেক্টরকে মাফিয়ামুক্ত করুন

সাত দফা দাবিতে পরিবহন শ্রমিকদের ডাকা ধর্মঘটে গত সোমবার দিনভর দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত

জঙ্গিবাদের হুমকি মোকাবিলায় ঐক্য গড়ে তুলুন

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গে হামলার পরিকল্পনা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার

sangbad ad

গণধর্ষণ মামলার চার্জশিট প্রশ্নবিদ্ধ পুলিশের ভূমিকা

সুবর্ণচরে গণধর্ষণের শিকার নারীর অভিযোগ ছিল একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজের পছন্দের প্রতীকে ভোট দেয়ায় তার ওপর নির্যাতন হয়েছে

বিদ্যুৎ সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যবস্থা ত্রুটিমুক্ত করতে হবে

চাহিদার চেয়ে বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা থাকলেও বিদ্যুৎ বিভাগ মানসম্মত বিতরণ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে না পারায়

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে চাই কঠোর মনিটরিং

আসন্ন রমজানে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে থাকবে বলে আশ্বস্ত করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু

ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় রিসাইক্লিংয়ে পরিকল্পিত ও স্থায়ী উদ্যোগ নিন

ইলেকট্রনিক পণ্যের ব্যবহার বাড়ছে। একই সঙ্গে বাড়ছে ইলেকট্রনিক বা ই-বর্জ্যরে পরিমাণও। এসব ই-বর্জ্যরে দূষণ থেকে প্রাণ ও প্রকৃতিকে রক্ষা

বর্ষার আগেই ঢাকাডুবি কেন নগর কর্তৃপক্ষ কী করছে

চৈত্র মাসেই বৃষ্টির পানি জমে সয়লাব হয়ে যাচ্ছে রাজধানী ঢাকার বেশিরভাগ এলাকার রাস্তা

পুলিশের ভূমিকা খতিয়ে দেখতে হবে

ফেনীর সোনাগাজীতে মাদ্রাসাছাত্রীকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার মামলায় স্থানীয় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন ভিকটিমের স্বজনরা।

sangbad ad