• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮

 

শ্রীলঙ্কাকে রেকর্ড রানে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

নিউজ আপলোড : ঢাকা , শনিবার, ২০ জানুয়ারী ২০১৮

সংবাদ :
  • বিশেষ প্রতিনিধি
image

বড় ইনিংস গড়ার পথে সাকিব ও তামিম -সংবাদ

দিন-রাতের ম্যাচগুলোয় রাত গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে স্টেডিয়ামে উপস্থিত দর্শকদের মধ্যে স্মার্টফোনের টর্চ জ্বালিয়ে জোনাকির আলো সৃষ্টির একটা প্রয়াস দেখা যায়। গতকাল শেরেবাংলা স্টেডিয়ামেও তেমন অহরহ দেখা যায়। বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচে লঙ্কান ইনিংসে তেমনটা শুরু হয়েছিল দীনেশ চান্দিমাল আউট হওয়ার আগে। তখনই মনে হয়েছিল যে, জোনাকির আলো হয়তো বিদ্রুপ করছে লঙ্কান দলকে (নাকি বাংলাদেশের সাবেক কোচ এবং বর্তমান লঙ্কান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহেকে)। ম্যাচশেষে এই বিদ্রুপটাই বড় সত্যি মনে হলো।

শুক্রবার এই মাঠে ফ্লাডলাইটের আলোয় বাংলাদেশের হয়ে সাফল্যের বন্যায় ভেসে যাওয়া চন্ডিকা হাথুরুসিংহে কি ভেবেছিলেন এমন অসহায় আত্মসমর্পণ? সাবেক শিষ্যদের কাছে চন্ডিকার বর্তমান শিষ্যরা যেভাবে ম্যাচ হারল, তাকে অসহায় আত্মসমর্পণ ছাড়া আর কিই বা বলা যায়। তামিম, সাকিব, মুশফিকের হাফ সেঞ্চুরিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশ ৩২০ রান তুলেই আসলে চাপে ফেলে দেয় শ্রীলঙ্কাকে। সেই চাপে লঙ্কান ব্যাটিং ডিপার্টমেন্ট ভেঙে পড়ল ১৫৭ রানে, ১০৮ বল বাকি থাকতে। টাইগাররা পেল ১৬৩ রানের জয়, যা চলতি ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশের টানা দ্বিতীয় জয়। এই জয়ে আসলে অনেকটা আগেভাগেই ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে উঠে গেল বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পাওয়া এই জয় বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ব্যবধানের জয়। এর আগে ২০১২ সালে খুলনায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১৬০ রানের জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আগের সর্বোচ্চ ব্যবধানের জয়টা ডাম্বুলায়, ২০১৭ সালে ৯০ রানের।

৩২১ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই ওপেনার কুশল পেরেরা (১) ফেরেন নাসিরের স্পিনে। স্কোরবোর্ডে ৪৩ রান উঠতেই আঘাত হানেন টাইগার দলপতি মাশরাফি। মাহমুদুল্লাহর হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন উপল থারাঙ্গা (২৫)। পরের আঘাতটাও মাশরাফির। এবারের শিকার কুশল মেন্ডিস (১৯)। তখনই শুরু হয় স্মার্টফোনে জোনাকির আলো প্রদর্শন। জোনাকির মতোই মিটমিট করে জ্বলতে থাকা শ্রীলঙ্কার আশা শেষ হয় লংঅফ থেকে সাকিবের দুর্দান্ত থ্রোয়ে দীনেশ চান্দিমাল (২৮) রান আউট হলে। এরপর একে একে আসেলা গুনারতেœ (১৬), থিসারা পেরেরা (২৯) এবং ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা (০) প্রাণ হারান সাকিবের বলে। সুরঙ্গা লাকমলকে (১) রুবেল বোল্ড করলে ১৫২ রানে নবম উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। আকিলা ধনঞ্জয়াকে (১) সাকিবের ক্যাচে পরিণত করে রুবেল হোসেন শেষ করে দেন হাথুরুর শিষ্যদের। এর আগে টস জিতে টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি মর্তুজার আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়ার পর তামিম, সাকিব, মুশফিক, মাহমুদুল্লাহ উইলো চালিয়েছেন দায়িত্ব নিয়ে। ওপেনিংয়ে নেমে দুইবার জীবন পেলেও এনামুল হক বিজয়ও কম যাননি। শেষদিকে সাব্বির রহমানের সøগিংও ছিল দেখার মতো। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ত্রিদেশীয় সিরিজের মঞ্চে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে রানের পাহাড়ই গড়ে টাইগাররা। তামিমের শত রানের আক্ষেপ বাদ দিলে দেশের সেরা তিন ব্যাটসম্যান হাফ সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে টাইগারদের সংগ্রহ পৌঁছে ৩২০ রানে। ব্যাটিংয়ে নেমে দলকে চমৎকার সূচনা এনে দেন তামিম ইকবাল এবং এনামুল হক বিজয়। শুরুতেই ক্যাচ দিয়ে জীবন পাওয়ার পর তামিমের সঙ্গে ৭১ রানের জুটি গড়েন তিনি। ৩৭ বলে ৩ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় ৩৫ রান করে থিসারা পেরেরার বলে উইকেটকিপার নিরোশান ডিকওয়েলার গ্লাভসে ধরা পড়েন এনামুল। ৭২ বলে ৫ বাউন্ডারিতে ক্যারিয়ারের ৪০তম হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। হাফ সেঞ্চুরির পর হাত খুলতে শুরু করেন তামিম। টার্গেট ছিল বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে দশম ওয়ানডে সেঞ্চুরি। লক্ষ্য থেকে ১৬ রান দূরে থাকতেই থামতে হলো তাকে। আকিলা ধনঞ্জয়ার বলে ক্যারিয়ারের ৪০তম হাফ সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে নিরোশান ডিকওয়েলার গ্লাভসবন্দী হওয়ার আগে ১০২ বলের ইনিংসে মেরেছেন ৭টি বাউন্ডারি এবং দুটি ছক্কা। সাকিবের সঙ্গে দ্বিতীয় উইকেটে তার জুটি ৯৯ রানের।

হাথুরুসিংহের বিদায়ের পর আবারও ব্যাটিং অর্ডারের তিন নম্বর পজিশনে ফেরা বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান মান রেখেছেন হাফ সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে। গুনারতেœর একটা সেøায়ারে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে থামেন ৬৩ বলে ৭ বাউন্ডারিতে ৬৭ রান করা সাকিব আল হাসান। তিন নম্বর পজিশনে সাকিবের এটাই সর্বোচ্চ সংগ্রহ।

শুরু থেকেই হাত খুলে খেলছিলেন মুশফিক। ৪২ বলে ক্যারিয়ারের ২৮তম হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেয়ার পথে তিন বাউন্ডারির সঙ্গে হাঁকিয়েছেন একটি ছক্কা। ভায়রা ভাই মাহমুদুল্লাহ দারুণ সঙ্গ দিয়ে যাচ্ছিলেন মুশফিককে। ২৩ বলে ২৪ রান করে নুয়ান প্রদিপের শিকার হন তিনি।

মুশফিকের সঙ্গী হন সাব্বির। ৫২ বলে ৪ বাউন্ডারি আর ১ ওভার বাউন্ডারিতে ৬২ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে থিসারা পেরেরার ইয়র্কারে বোল্ড হয়ে যান মুশফিক। ততক্ষণে বাংলাদেশের রান ২৮৪। অধিনায়ক মাশরাফি উইকেটে এসে বাউন্ডারি হাঁকালেও ৬ রানের বেশি করতে পারেননি। নাসির ফেরেন ‘ডাক’ মেরে। শেষের দিকে সাব্বিরের ১২ বলে অপরাজিত ২৪ রানের ইনিংসে ৩০০ ছাড়িয়ে যায়। সুরঙ্গা লাকমলের করা শেষ ওভারে সাব্বির-সাইফ নেন ১৯ রান। সাব্বির শেষ ওভারের পঞ্চম বলে ছক্কা হাঁকানোর পর শেষ বলে বাউন্ডারি মারেন। আর টাইগারদের স্কোর দাঁড়ায় ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ৩২০ রান। বাংলাদেশের ইনিংসে তিনটি উইকেট শিকার করেন থিসারা পেরেরা, দুটি যায় নুয়ান প্রদীপের দখলে।

আবার ফাইনালে বাংলাদেশের মেয়েরা

ক্রীড়া বার্তা পরিবেশক

image

সাফ অ-১৮ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ। স্বাগতিক ভুটানকে ০-৪ গোলে

‘জীবনের চেয়েও গোলকে বড় মনে করতাম’

আরাফাত জোবায়ের, সিলেট থেকে

image

সিলেট মূল শহর থেকে একটু ভেতরে করেরপাড়া। স্থানীয় কয়েকজনকে জিজ্ঞেস করে

ভারতকে আজ চ্যালেঞ্জ জানাতে প্রস্তুত উজ্জীবিত বাংলাদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

চতুর্দশ এশিয়া কাপের ফাইনাল আজ। দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মুখোমুখি

sangbad ad

গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন মারিয়ারা

ক্রীড়া বার্তা পরিবেশক

image

শক্তিশালী ভিয়েতনামকে ২-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ নারী চ্যাম্পিয়নশীপের

সাকিবের দুর্দান্ত বোলিংয়ের পরও ২৫৬ রানের টার্গেট বাংলাদেশের

আকাশ চৌধুরী, আরব আমিরাত থেকে

image

আবুধাবি স্টেডিয়ামে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচের শুরুতে টাইগারদের দুর্দান্ত বোলিংয়ের শেষের

লেবাননের বিপক্ষে বাংলাদেশের মেয়েরা জিতল ৮ গোলে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইপর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশের

তপুর গোলেই পাকিস্তান বধ

আরাফাত জোবায়ের

image

বিশ্বনাথের লম্বা থ্রো-ইন। বক্সের মধ্যে জটলা। ডিফেন্ডার তপু বর্মণ একটু দৌড়ে এসে হেড

বাংলাদেশের মেয়েরা ফাইনালে : শনিবার ফাইনাল

সংবাদ স্পোর্টস ডেস্ক

image

স্বাগতিক ভুটানকে তাদের মাঠে ৫-০ গোলে বিধ্বস্ত করে সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ নারী ফুটবল আসরের ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশের মেয়েরা। ফাইনালে

পাকিস্তানের জালে বাংলাদেশের ১৪ গোল

ক্রীড়া বার্তা পরিবেশক

image

অসাধারণ, উড়ন্ত, দুর্দান্ত যেকোন বিশেষণই জুড়ে দেয়া যায় বাংলাদেশ নারী অ-১৫ ফুটবল দলকে। সাফ অ-১৫ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম

sangbad ad