• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী ২০২১

 

ম্যারাডোনা: ফুটবলের মহাতারকা, বিতর্ক ছিল যার নিত্যসঙ্গী

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০

সংবাদ :
  • সংবাদ অনলাইন ডেস্ক
image

বিশ্ব মাতালেও ম্যারাডোনার কীর্তি নিয়ে অস্বস্তি আছে ইংল্যান্ডে। থাকাটাই স্বাভাবিক। তার বড় কীর্তি দুয়েকটা তো তাদের বিরুদ্ধেই গড়া। এবং তা মোটেই স্বস্তিকর হওয়ার কথা নয়।

১৯৮৬ র বিশ্বকাপে তার দেওয়া দুটো গোলেই কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদেয় নিতে হয়েছিল ইংল্যান্ডকে।

একই ম্যাচে তিনি দুটো গোল দিয়েছিলেন, যার একটিকে বলা হয়ে থাকে গোল অব দ্য সেঞ্চুরি। অনেকের মতে সেটিই সর্বকালের সেরা গোল। আরেকটি দিয়েছিলেন হাত দিয়ে। বিতর্কিত সেই গোলকে তিনি পরে অভিহিত করেছিলেন হ্যান্ড অব গড বা ঈশ্বরের হাতে হওয়া গোল হিসেবে।

তার চারবছর আগে ফকল্যান্ড যুদ্ধ হয়েছিল। সেই ম্যাচে যেন ছিল সেই যুদ্ধেরই আমেজ, ম্যারাডোনার স্মৃতিতে সেই ম্যাচটি ছিল যেন ফকল্যান্ড যুদ্ধেরই প্রতিশোধ।

ফলে ব্রিটিশ গণমাধ্যমে তার মৃত্যুকে ঘিরে তাই মিশ্র অনুভূতির প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে। সেই অস্বস্তি, তার পাশাপাশি ম্যারাডোনার ব্যক্তিজীবনের কিছু দিক, আর তারপর তার কীর্তির কিছু উল্লেখ।

বিবিসি তার মৃত্যুগাথায় তাকে অভিহিত করেছে আর্জেন্টিনার নষ্ট হয়ে যাওয়া ফুটবল তারকা হিসেবে।

সেই প্রতিবেদনে তাকে অভিহিত করা হয়েছে – জাকজমকপূর্ণ, বিতর্কিত, অসাধারণ, প্রতিভাময়, রগচটা হিসেবে। সর্বোপরি বখে যাওয়া এক ফুটবল তারকা হিসেবে।

ফুটবলের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় প্রতিভাদের একজন এই আর্জেন্টাইন মাঠে বিচক্ষণতা, দাপট, দুরদৃষ্টি ও গতির সমন্বয়ে দুর্দান্ত সক্ষমতার স্বাক্ষর রেখেছেন যা দর্শকদের বিমোহিত করেছিল।

তার বিতর্কিত ’ঈশ্বরের হাতের’ গোলে ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন অনেকেই। এর বাইরে তার মাদকাসক্তি ও ব্যক্তিজীবনের সঙ্কটে ডুবে গিয়েছিলেন তিনি।

৬০ বছর আগে বুয়েন্স আয়ার্সের বস্তিতে জন্মেছিলেন ডিয়েগো আরম্যান্ডো ম্যারাডোনা। তরুণ বয়সে ফুটবল দিয়ে তার দারিদ্র্য ঘোচে। অনেকের মতে, খেলোয়াড় হিসেবে তিনি পেলেকেও ছাড়িয়ে গিয়েছিলেন।

গত শতকে এই দুইজনের মধ্যে কে সেরা তা নির্ধারণে ফিফা ভোটের আয়োজন করেছিল, তাতে ম্যারাডোনা পরিস্কার ব্যবধানে জয়ী হন। পরে ফিফা নিয়ম পাল্টে দুজনকেই এই পুরস্কার দেয়। একজন ভোটে, আরেকজন ফিফার বিচারে।

খুব অল্প বয়স থেকেই নিজের সামর্থ্যের প্রমাণ রাখতে শুরু করেন ম্যারাডোনা। লস কেবোলিতাসে ক্লাবে খেলার সময় টানা ১৩৬ ম্যাচে অপরাজিত থাকার পর ১৬ বছর ১২০ দিন বয়সে জাতীয় দলে অভিষেক হয় তার।

৫ ফুট ৫ ইঞ্চি উচ্চতার মারাদোনা কোনো সাধারণ খেলোয়াড় ছিলেন না।

তার দক্ষতা, ক্ষিপ্রতা, দুরদৃষ্টি, বলের ওপর নিয়ন্ত্রণ, কাটানোর ক্ষমতা, বল বাড়ানো সব কিছুই এত শক্তিশালী ছিল যে তার শরীরের ভারে মাঝে মাঝে গতি কমে গেলেও কোনো সমস্যাই হয়নি।

ঝটিকার মতো হিংস্র ডিফেন্ডারদের ফাঁক গলে যেতে পারলেও জীবনের বহু সমস্যাকে তিনি এড়াতে পারেননি।

ক্যারিয়ারে ৪৯১ ম্যাচ খেলে ২৫৯ গোল করেছিলেন তিনি।

জাতীয় দলের হয়ে ৯১ ম্যাচে ৩৪ গোল করেছিলেন। কিন্তু পরিসংখ্যান তার সবটা, তার সাফল্য, চড়াই-উতরাই বোঝার জন্য যথেষ্ট না।

তিনি ১৯৮৬’র মেক্সিকো বিশ্বকাপ জিতিয়েছিলেন আর্জেন্টিনাকে। চারবছর পর তুলেছিলেন ফাইনালে।

১৯৮৬’র বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে তিনি যা করেছিলেন, তা তার সারাজীবনের গল্প হয়ে যায়।

চার বছর আগেই দুই দেশের মধ্যে ফকল্যান্ড যুদ্ধ হয়। খেলাটি ঘিরে উত্তেজনা তৈরি হয় আগে থেকেই। মাঠে তা স্ফুলিঙ্গ ঝরায়।

৫১ মিনিট গোলশূন্য সেই যুদ্ধংদেহী খেলায় লাফিয়ে উঠে হাত দিয়ে গোল করে ফেলেন।

এত ক্ষিপ্রতার সঙ্গে ঘটনা ঘটে যায় যে লাইন্সম্যান বুঝতে পারেননি। রেফারিও গোল ঘোষণা করে।

পরে ম্যারাডোনা বলেন, এর কিছুটা আমার মাথা দিয়ে, আর বাকিটা ঈশ্বরের হাতে।

চার মিনিট পরেই তিনি যে গোলটি করেন সেটিকে বলা হয় গোল অব দ্য সেঞ্চুরি।

নিজেদের অর্ধে বল পেয়ে অনেকগুলো খেলোয়ারকে কাটিয়ে যাদুর মতো, সবাইকে ধন্ধের মধ্যে ফেলে দিয়ে গোলটি করেছিলেন তিনি।

ব্রিটিশ ধারাভাষ্যকার ব্যারি ডেভিস বরেন, এটিকে বিশাল বলতেই হবে তোমার। এই গোল নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। বিশুদ্ধ ফুটবল প্রতিভা।

ওই ম্যাচের পর ম্যারাডোনা বলেছিলেন, এটি শুধু ম্যাচ জেতার ব্যাপার ছিল না, বরং ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে জেতাটাই বড় ছিল।

ম্যারাডোনা দুবার দলবদলের লেনদেনের দিক থেকে সর্বোচ্চ অঙ্কের নজির গড়েছিলেন। বোকা জুনিয়র্স থেকে বার্সেলোনায় তার ট্রান্সফার হয়েছিল ৩০ লাখ পাউন্ডে। এরপর সেখান থেকে নেপোলিতে ৫০ লাখ পাউন্ডে।

নেপোলির স্যান পাওলো স্টেডিয়ামে তিনি যখন নামেন তখন ৮০ হাজার দর্শক তাদের নতুন নায়ককে বরণ করে নিয়েছিল।

সেই ক্লাবকে প্রথম তিনিই দিয়েছিলেন শিরোপার স্বাদ, ১৯৮৭ ও ১৯৯০ সালে লীগ শিরোপা, ১৯৮৯-এ উয়েফা কাপ।

ইউরোপের ক্লাব শ্রেষ্ঠত্বের শিরোপা জেতার পর টানা পাঁচ দিন নেপোলির রাস্তায় বিজয়োল্লাস হয়েছে। কিন্তু ম্যারাডোনা হাপিয়ে উঠেছিলেন তাকে ঘিরে এত মাতামাতি ও মনোযোগের কারণে।

তিনি বলেন, এটি একটি দারুণ শহর।কিন্তু আমি শ্বাস নিতে পারছি না। আমি মুক্তভাবে হাঁটতে চাই।অন্যদের মতো।

এরপর তিনি একটি অপরাধচক্রের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। কোকেনে আসক্ত হয়ে পড়েন। তার বিরুদ্ধে এক নারী তার সন্তানের পিতৃত্বের দাবি তুলে মামলা করেন।

জার্মানির বিরুদ্ধে ১-০ গোলে হেরে যায় আর্জেন্টিনা। তারপর একটি ডোপ টেস্টে পজিটিভ ধরা পড়ার পর তাকে ১৫ মাসের নিষেধাজ্ঞা দেয় ফুটবল কর্তৃপক্ষ।

তারপর তিনি আবার ফেরে। ১৯৯৪ সালে যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বকাপে যান। কিন্তু সেই আসরে মাঝেই গ্রিসের সঙ্গে ম্যাচের পরে ডোপ টেস্ট পজিটিভ হওয়ায় তার ওপর আবার নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়।

এর তিন বছর পর আবার নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয় তাকে। ৩৭তম জন্মদিনে তিনি ফুটবল থেকে অবসর নেন।

কিন্তু সমস্যা তার পিছু ছাড়েনি।

এক সাংবাদিককে এয়ার রাইফেল দিয়ে গুলি করায় তাকে দুবছরের কারাদ- দেওয়া হয়।

কোকেন ও মদে আসক্তির কারণে এক র্পায়ে তার ওজন হয় ১২৮ কেজি। ২০০৪ সালে তার একবার হার্ট অ্যাটাক হয়।

তারপর তার অন্ত্রে গ্যাস্ট্রিক বাইপাস সার্জারি হয়। পরে তার মাদকাসক্তি থেকে মুক্তি পেতে কিউবায় চলে যান তিনি।

এসব সত্ত্বেও ২০০৮ সালে তাকে জাতীয় দলের ম্যানেজার করা হয়। সেবার আর্জেন্টিনা কোয়ার্টার ফাইনালে যায়।

২০১৮ সালের বিশ্বকাপে নাইজেরিয়ার সঙ্গে আর্জেন্টিনার আরেকটি খেলা চলাকালে তার আবার হার্ট অ্যাটাক হয়।

জীবনের নানাদিক সত্ত্বেও ম্যারাডোনা শেষ পর্যন্ত সাধারণ কেউ নন।

প্রস্তুতি ম্যাচের জন্য বিসিবি একাদশ ঘোষণা

image

উইন্ডিজের বিপক্ষে তিন দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ সামনে রেখে ১৪ সদস্যের বিসিবি একাদশ

উইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের হ্যাটট্রিক সিরিজ

ক্রীড়া বার্তা পরিবেশক

image

উইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের হ্যাটট্রিক করল বাংলাদেশ। ২০১৮ সালে টানা দুবার ক্যারিবীয়দের

ডি ককদের ক্লাবে মুশফিক

ক্রীড়া বার্তা পরিবশক

image

উইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৪০০ ডিসমিসালের রেকর্ড গড়েছেন মুশফিকুর রহিম।

sangbad ad

নিউজিল্যান্ড সফরে থাকছে না সাকিব!

ক্রীড়া বার্তা পরিবেশক

image

আইসিসির দেওয়া এক বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের ফেরটা

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১৪৮ রানে থামাল বাংলাদেশ

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

টাইগার বোলারদের তোপে আগের ম্যাচের মতোই খাবি খেয়েছে ক্যারিবীয়রা। যদিও এবার একটু

মোস্তাফিজের বোকা বানানো ডেলিভারি, মিরাজের দুরন্ত ক্যাচ

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

কখনও স্লোয়ার, কখনও কাটার, কখনও ইয়র্কার, কখনওবা বাউন্সার। মোস্তাফিজুর রহমানের বৈচিত্র্যময় এক

টস ভাগ্য যায়নি তামিমদের পক্ষে, অপরিবর্তিত বাংলাদেশ

ক্রীড়া বার্তা পরিবেশক

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটিতে ৬ উইকেটের জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ। এবার স্বাগতিকদের

সিরিজ জয়ের লক্ষ্যে আজ মাঠে নামছে বাংলাদেশ

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

সিরিজ জয় নিশ্চিত করার লক্ষ্যে শুক্রবার মিরপুর স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিতীয়

টিভিতে আজকের খেলা

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

ক্রিকেট বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ দ্বিতীয় ওয়ানডে সরাসরি, সকাল ১১.৩০ মিনিট বিটিভি, টি স্পোর্টস, নাগরিক টিভি