• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯

 

মায়ানমারে ক্রিকেটের ‘ফেরিওয়ালা’ বাপ্পী

নিউজ আপলোড : ঢাকা , সোমবার, ০৪ মার্চ ২০১৯

সংবাদ :
  • আরাফাত জোবায়ের, ইয়াঙ্গুন থেকে
image

ক্রিকেট এখন বাংলাদেশের অন্যতম গর্বের প্রতীক। ক্রিকেটারদের মাঠের পারফরম্যান্স দেশ ও জাতিকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সুনাম বৃদ্ধি করছে। ক্রিকেট মাঠ ছাড়াও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ক্রিকেট বিস্তার ও প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা বিশেষ ভূমিকা রাখছে। অভিষেক টেস্টে সেঞ্চুরিয়ান আমিনুল ইসলাম বুলবুল এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলে কাজ করছেন অনেক দিন। এশিয়ার ক্রিকেট উন্নয়ন ও প্রতিষ্ঠায় নিরলস কাজ করছেন। এসিসি, আইসিসি থেকে বিভিন্ন স্বীকৃতিও পেয়েছেন। আরেক সাবেক ক্রিকেটার মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু চীনে কোচিং করিয়েছেন। এদের দু’জনেরটা বেশি আলোচনা হলেও আরেকজন নীরবে-নীভৃতে ক্রিকেটের প্রসারে কাজ করছেন তার নাম অনেকেরই অজানা।

আশফাক উল ইসলাম (বাপ্পী)। মিয়ানমার ক্রিকেট দলের হেড কোচ ও জেনারেল ম্যানেজার। মিয়ানমারের ক্রিকেট তার হাত ধরেই চলছে। প্রায় এক দশক আগে মিয়ানমারের কোচ হিসেবে যাত্রা শুরু এখন মিয়ানমার ক্রিকেট প্রশাসনের সাথে যুক্ত হতে হয়। কোচিংয়ের পাশাপাশি প্রশাসনে জড়ানোর বিষয়টি ব্যাখ্যা দিলেন বাপ্পী এভাবে,‘ ২০১৩ সালে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলর ( এসিসি) সংকুচিত হয়। এসিসি নানা সমস্যার মধ্যে ছিল তখন আইসিসির সাথে যোগাযোগ ও বিভিন্ন প্রোগ্রাম করতে হতো তখন থেকেই আমার মিয়ানমারে প্রশাসনে কাজ করা শুরু। ’ প্রশাসনে কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে তার ইতোপূর্বেই। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের গেম ডেভলপমেন্ট বিভাগে গেম এডুকেশন ম্যানেজার ছিলেন বেশ কয়েক বছর। সেখান থেকেই তার এই অভিজ্ঞতা,‘ ক্রিকেট বোর্ডের জেলায়, বিভাগে কোচ নিয়োগ সহ বিভিন্ন বিষয়ে আমি কাজ করেছি। ক্রিকেট বোর্ডের গেম ডেভলপমেন্টে অনেক কার্যকর ভূমিকা রেখেছিলাম। সেই অভিজ্ঞতা এখানে কাজে লেগেছে। ’ গেম ডেভলপমেন্টে কাজ করার আগে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোচ হিসেবে কাজ করেছিলেন। জাতীয় দলের অনেক প্রতিষ্ঠিত তারকা (মুশফিক,সাকিব সহ অনেকে) তার হাত ধরেই বিকেএসপিতে আগমন। বিকেএসপির কোচিংয়ের বিসিবির গেম ডেভলপমেন্ট এডুকেশন ম্যানেজার পদে কাজ ভালোই চলছিল। হঠাৎ এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল থেকে কোচের প্রস্তাব তার জীবনের বাক বদলে দিল। এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে মিয়ানমারে আসার সিদ্ধান্ত নিলেন,‘ বিসিবি’তে আমি ভালোই করছিলাম। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে কাজ করার সুযোগটি কাজে লাগাতে চেয়েছিলাম। ’ সেই চ্যালেঞ্জ নিয়ে এখন অনেকটাই সফল বাপ্পী। মিয়ানমার ক্রিকেট উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন। মিয়ানমার এখন আইসিসি’র তৃতীয় পর্যায়ের ক্রিকেট দেশ। বিভিন্ন দেশের সাথে দ্বিপাক্ষিক ও বহুদেশীয় টুর্নামেন্ট খেলছে। সম্পতি মিয়ানমার নারী ক্রিকেট দল দ্বিপাক্ষিক সিরিজে সাত ম্যাচের মধ্যে ছয়টিতে জিতেছে। ছেলেরা থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুরের সাথে খেলছে।

কোচিংয়ের পাশাপাশি মিয়ানমারের ক্রিকেট উন্নয়ন ও পরিচালনার রুপরেখাও তার করা। ১৫ টি ক্রিকেট জোনে মিয়ানমারকে বিভক্ত করেছেন। প্রত্যেক জোন থেকে খেলোয়াড় আসছে। কোচও রয়েছে অনেক জোনে। তিনি এসব সমন্বয় করেন। নারী ক্রিকেট দল ম্যাচ জিতছে, ছেলেরা মাঝ্যে মধ্যে জেতায় সরকারও( মিয়ানমারের ক্রীড়া মন্ত্রনালয় ) ক্রিকেটের প্রতি সহযোগিতা বাড়িয়ে দিচ্ছে। মিয়ানমারে প্রতি স্কুলে ক্রীড়া শিক্ষক বাধ্যতামূলক। আগে ফুটবল ও অন্যান্য খেলা শেখানো হতো স্কুল গুলোতে। এখন ক্রিকেটও শেখানো হয় স্কুলে। এটা বাপ্পীর অন্যতম সফলতা।

সপিরবারে মিয়ানমারে থাকেন বাপ্পী প্রায় এক দশকের বেশি। পুনরায় বাংলাদেশের ক্রিকেটে কাজের বিষয়ে তার মন্তব্য,‘ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সাথে আমার যোগাযোগ রয়েছে। আমি এখন মিয়ানমারের ক্রিকেট নিয়ে কাজ করতে এখন আগ্রহী। আরো একটু উন্নত জায়গা নিতে চাই। এরপর দেশের ক্রিকেটে কাজ করার ইচ্ছে রয়েছে। ’ পুরুষদের চেয়ে নারীদের উন্নতির সম্ভাবনা বেশি দেখেন তিনি,‘ ছেলেদের ক্রিকেটে পরবর্তী স্তরে যাওয়াটা কঠিন নেপাল, আরব আমিরাত, হংকং এরা বেশ শক্তিশালী। এখানে এথনিক খেলোয়াড় নিয়ে ঐ পর্যায়ে যেতে আরো সময় লাগবে। এর চেয়ে মেয়েদের ক্রিকেটে ভালো অবস্থানে যাওয়া যাবে। ’ টি-২০ ভিত্তিক খেলার প্রচলন বেশি আসিয়ান অঞ্চলগুলোতে। এসিসির টুর্নামেন্ট গুলো অবশ্য ৫০ ওভারের হয়।

বিকেএসপির প্রথম ব্যাচের ছাত্র ছিলেন। তার ব্যাচমেট সালাহউদ্দিন, নাইমুর রহমান দুর্জয়,শিপনরা দেশের ক্রিকেট অঙ্গনে প্রতিষ্ঠিত। বিকেএসপির পাঠ শেষ করে শান্তিনগর ও ঢাকা আবাহনীতে খেলেছেন। স্পিনার হিসেবে ভালোই করছিলেন। খেলাধূলার পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাকোত্তর সম্পন্ন করেন। ক্রিকেটের শীর্ষ পর্যায়ে অবশ্য খুব বেশি দিন খেলতে পারেননি। এই বিষয়ে তার মন্তব্য,‘ পারিবারিকভাবে পড়াশোনার উপর চাপ ছিল। ক্রিকেট খুব সবোচ্চ পর্যায়ে যেতে পারব এটা বুঝেছিলাম। ’ ১৯৯৫ সালে খেলা ছেড়ে দেন। খেলা ছাড়লেও ক্রিকেটার তৈরি ও ক্রিকেট উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারবেন এটা বুঝেছিলেন ঠিকই। দেশের ক্রিকেটে কয়েক বছর পর এখন কাজ করছেন ভিন দেশের ক্রিকেটের প্রতিষ্টায়। এ কাজের মাধ্যমে বাংলাদেশকে নিয়ে যাচ্ছেন ভিন্ন উচ্চতায়।

বিএসজেএ’র স্মরণসভায় অজয় বড়ুয়ার আদর্শ অনুস্মরণের আহবান

ক্রীড়া বার্তা পরিবেশক

image

বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিশিষ্ট ক্রীড়া সাংবাদিক, দৈনিক সংবাদের ক্রীড়া সম্পাদক, বিএসজেএ সিনিয়র সদস্য অজয় বড়ুয়ার স্মরণ সভায় বক্তারা তাঁর আদর্শ অনুস্মরণের আহবান জানিয়েছেন। প্রয়াত অজয় বড়ুয়ার স্মরণে

ফরিদপুরের ক্রীড়াবিদদের মিলনমেলা

ক্রীড়া বার্তা পরিবেশক

image

দেশের ক্রীড়াঙ্গনে ফরিদপুরের অবদান অনেক। বিশেষ করে জাতীয় হকি দলে সাম্প্রতিক অতীতে ফরিদপুরের সন্তানরাই দাপিয়ে বেড়িয়েছেন। হকি

ক্রিকেট নিয়ে শামিম কবিরের ভাবনা

সংবাদ স্পোর্টস ডেস্ক

image

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ভিত্তি যারা রচনা করেছিলেন তাদের অন্যতম ছিলেন শামিম কবির। তিনি শুধু বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রথম

sangbad ad

শামিম কবিরের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের শেষ ওয়ানডেতে খেলোয়াড়রা কালো বাহুবন্ধনী পরে মাঠে নামেন

ক্রীড়া বার্তা পরিবেশক

image

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রথম অধিনায়ক শামিম কবির সোমবার না ফেরার দেশে চলে গেছেন। জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রথম অধিনায়কের

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রথম অধিনায়ক শামিম কবির আর নেই

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বাংলাদেশে ক্রিকেটের অন্যতম প্রাণপুরুষ, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রথম অধিনায়ক শামিম কবির আর নেই। সোমবার (২৯ জুলাই) সকালে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি... রাজিউন)।

বিশ্বকাপ ব্যর্থতা পেছনে ফেলে ঘুরে দাঁড়ানোর মিশন লঙ্কা-বাংলার

বিশেষ প্রতিনিধি

image

সদ্য সমাপ্ত আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপে নিজেদের সামর্থ অনুযায়ী খেলতে পারেনি বাংলাদেশ বা শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট দল। বিশ্বকাপের ব্যর্থতা ঝেড়ে

সুপার ওভারে ‘সুপার’ চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড

বিশেষ প্রতিনিধি

image

অবিশ্বাস্য, অবিস্মরণীয় ফাইনাল। কোন বিশেষণই যথেষ্ট নয় লর্ডসের ফাইনালের বর্ণনার জন্য। নির্ধারিত ৫০ ওভার টাই। সুপার ওভারও

ভারতের বিদায়, ফাইনালে নিউজিল্যান্ড

বিশেষ প্রতিনিধি

image

পেন্ডুলামের মতো ম্যাচভাগ্য দুলেছে একবার এদিকে তো আরেকবার ওদিকে। একপেশে হওয়ারও ইঙ্গিত ছিল মাঝে মাঝে। আবার লড়াই জমে গেছে

বাংলাদেশের স্বপ্নভঙ্গ সেমিতে ভারত

বিশেষ প্রতিনিধি

image

২০১৯ সালের বিশ্বকাপে ভারতের কাছে পরাজয়টা অনেকদিন হয়তো পোড়াবে তামিম ইকবালকে। ফিল্ডিংয়ে নেমে তিনি ক্যাচ ছেড়েছেন রোহিত শর্মার।

sangbad ad