• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮

 

ভারতকে আজ চ্যালেঞ্জ জানাতে প্রস্তুত উজ্জীবিত বাংলাদেশ

নিউজ আপলোড : ঢাকা , শুক্রবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮

সংবাদ :
  • বিশেষ প্রতিনিধি
image

চতুর্দশ এশিয়া কাপের ফাইনাল আজ। দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হচ্ছে গতবারের দুই ফাইনালিস্ট ভারত ও বাংলাদেশ। গত আসরের সঙ্গে এবারেরটার অবশ্য কিছুটা পার্থক্য আছে। ঢাকার এশিয়া কাপের ত্রয়োদশ আসরটা হয়েছিল টি-২০ ফরম্যাটে। এবার ফের পঞ্চাশ ওভারে।

বাংলাদেশ দল এবারের আসরের ফাইনালে উঠলেও সবকিছু চলছে না ঠিকঠাকমতো। ইনজুরির কারণে উদ্বোধনী ম্যাচেই মাঠের বাইরে চলে গেছেন টাইগারদের সেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানও ইনজুরির কারণে ছিটকে গেছেন। পাকিস্তানের বিপক্ষে অঘোষিত সেমিফাইনালে জয়ী হওয়া শেষ ম্যাচ না খেলেই সাকিবকে দেশে ফিরতে হয়েছে।

দুই অভিজ্ঞ সেনানী দলে না থাকায় রান স্কোরিংয়ের মূল দায়িত্বটা বর্তেছে আরেক অভিজ্ঞ ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিমের কাঁধে। সেই দায়িত্ব তিনি পালন করছেন যথাযথভাবেই। বলা যায় দলের ইনিংস একাই টেনে নিচ্ছেন মুশফিক।

দেশ থেকে উড়িয়ে আনেন সৌম্য সরকার ও ইমরুল কায়েসকে। দু’জনের অন্তর্ভুক্তি নিয়েও আছে উত্থান-পতনের কাহিনী। ইমরুল কায়েস ব্যাটিং অর্ডারের ছয় নম্বর পজিশনে পাকিস্তানের বিপক্ষে ব্যর্থ হন ওপেনার হিসেবে অযথাই আগ্রাসী শটে উইকেট বিলিয়ে দিয়ে সৌম্য নিজের অসারতা প্রমাণ করলেও বোলিংয়ে সেটা পুষিয়ে দিয়েছেন। তার করা পাঁচটি ওভারে রান নিতে হাঁসফাঁস করেছেন পাক ব্যাটসম্যানরা। উইকেটও পেয়েছেন সৌম্য একটি। ওপেনিং জুটিতে ভালো করতে না পারলেও সাকিবের বোলিং শূন্যতা পূরণের স্বার্থে সৌম্য সরকারকে একাদশে রাখতে পারে টিম ম্যানেজমেন্ট। পাকিস্তানের বিপক্ষে মমিনুল হক ব্যর্থ হওয়ার কারণে ফেরার সম্ভাবনা আছে নাজমুল হোসেন শান্তর।

সব মিলিয়ে বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্টের পক্ষে যুৎসই উইনিং কম্বিনেশন বের করার কাজটা বেশ কঠিনই। তারপরও এই ভাঙাচোরা দলটা মাশরাফি মর্তুজার নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়িয়ে যেভাবে আফগানিস্তান ও পাকিস্তানকে পরাজিত করেছে, তা আত্মবিশ্বাসের রসদ জোগাতে যথেষ্ট। অন্তত ভারতের বিপক্ষে ফাইনালের আগে বাংলাদেশের ড্রেসিংরুমে দুশ্চিন্তার কোন জায়গা নেই।

মুশফিকুর রহিমের কণ্ঠে শোনা গেল আত্মবিশ্বাসের সুর। তিনি বলছেন, ভারতকে পরাজিত করা সম্ভব। আমরা এখানে শিরোপা জয়ের লক্ষ্য নিয়েই এসেছি। আমাদের প্রাথমিক লক্ষ্য ছিল ফাইনালে খেলা। সেটা পূরণ হয়েছে। এতদূর যখন আসতে পেরেছি, আমরা নিজেদের সেরাটা উজাড় করে দিতে চেষ্টার ত্রুটি করব না। এমন নয় যে, ভারতীয় দলকে কখনো আমরা পরাজিত করিনি। আবার এটাও ঠিক যে, ভারতের বিপক্ষে আমাদের জয়ের ধারাবাহিকতা নেই। বিশ্বের সেরা এই দলটাকে চাপে রাখতে চেষ্টার ত্রুটি করব না।

অন্যদিকে এবারের আসরে এককথায় উড়ছে ভারতীয় ক্রিকেট দল। ফাইনালে ওঠার পথে কোন ম্যাচই হারেনি তারা। প্রতিপক্ষকে দলগুলোকে তারা উড়িয়ে দিলেও আফগানিস্তানের বিপক্ষে সুপার ফোরের ম্যাচে কোন মতে টাই করে মান রক্ষা করে টিম ইন্ডিয়া।

ফাইনালের আগে নিয়মিত ক্রিকেটারদের বিশ্রাম হয়ে যাওয়ার কারণে বাংলাদেশের বিপক্ষে ফুরফুরা মেজাজেই শিরোপা জয়ের শেষ ম্যাচে মাঠে নামবে রোহিতের দলটি।

আসরের গতিপ্রকৃতি বলে দিচ্ছে যে, শিরোপা জয়ের দাবিদার ভারত। ধারাভাষ্যকাররা শুরু থেকেই ভারত-পাকিস্তান ফাইনালের কথা বলাবলি করছিলেন। কিন্তু মাশরাফির নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা নিজেদের ‘টাইগার’ খ্যাতির জানান দিয়েছেন বেশ দাপটের সঙ্গে। সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে ফাইনালে ওঠা টাইগারদের থাবায় ভারত পর্যুদস্ত যে হবে না, তা নিশ্চিত করে বলার উপায় নেই। ফাইনালের আগে ভারতের প্রস্তুতি সম্পর্কে শিখর ধাওয়ান বলেছেন, আফগানিস্তানের সঙ্গে ম্যাচে আমাদের বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় বিশ্রামে থাকায় অন্যরা সুযোগ পেয়েছে। সবাইকে সুযোগ দেয়ার প্রয়োজন ছিল। আমাদের টার্গেট ছিল ফাইনালের আগে অন্তত ব্যাটিং শক্তির পরীক্ষা নিয়ে রাখা।

দুবাইয়ের প্রচণ্ড গরমে ক্রিকেটীয় উত্তাপটা আরও একটু বাড়িয়ে দিতে স্টেডিয়াম কাণায় কাণায় দর্শকে ঠাঁসা থাকবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে। চলতি আসরে এখন পর্যন্ত এই স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ছয়টি ম্যাচের চারটিতেই পরে ব্যাটিং করা দল জয় পেয়েছে। কাজেই আজকের ম্যাচে টস গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে।

এশিয়া কাপে এখন পর্যন্ত ১১ বার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও ভারত। এরমধ্যে দশবারই জয় পেয়েছে টিম ইন্ডিয়া। একবার জিতেছে বাংলাদেশ। ২০১২ সালের আসরে ভারতকে ৫ উইকেটে হারিয়েছিল টাইগাররা। এছাড়া ওয়ানডে ফরম্যাটে এখন পর্যন্ত ৩৪ মুখোমুখিতে ২৮টিতে জয় পেয়েছে ভারত। বাংলাদেশের জয় ৫টিতে।

বাংলাদেশ একাদশ (সম্ভাব্য) : লিটন দাস, সৌম্য সরকার, মমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিঠুন, ইমরুল কায়েস, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), মেহেদি হাসান মিরাজ, রুবেল হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান।

ভারত একাদশ (সম্ভাব্য) : রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), শিখর ধাওয়ান, আম্বাতি রাইডু, দীনেশ কার্তিক, মহেন্দ্র সিং ধোনি, কেদার যাদব, রবীন্দ্র জাদেজা, ভুবনেশ্বর কুমার, কুলদীপ যাদব, যুজবেন্দ্রা চাহাল, জসপ্রিত বুমরাহ।

উইন্ডিজকে উড়িয়ে সিরিজ বাংলাদেশের

সংবাদ স্পোর্টস ডেস্ক

image

ফের সেঞ্চুরিতে চ্যালেঞ্জিং স্কোর ছুড়ে দেয়ার চেষ্টা করেছেন শেই হোপ। কিন্তু মেহেদী

পেসের বদলা স্পিনে হোয়াইটওয়াশ উইন্ডিজ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

হাঁটি হাঁটি পা পা করে টেস্ট ক্রিকেটে ১৮ বছরের পদচারণা বাংলাদেশ দলের। বলা যায়

মাহমুদুল্লাহর সেঞ্চুরির পর স্পিনে বেদিশা উইন্ডিজ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

টেস্ট ক্যারিয়ারের তৃতীয় শতরানের ইনিংস খেলেছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। হাফ সেঞ্চুরি এসেছে

sangbad ad

ঘূর্ণি বিষে দ্বাদশ টেস্ট জিতল বাংলাদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

সফরে আসা ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চলতি টেস্ট সিরিজটি স্বাগতিক বাংলাদেশ দলের

চট্টগ্রাম টেস্ট : মমিনুলের সেঞ্চুরির পর গ্যাব্রিয়েলের তোপ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

‘টেস্ট স্পেশালিস্ট’ খ্যাত মমিনুল হকের অষ্টম সেঞ্চুরিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম

দু’শতাধিক রানে জিতে সিরিজ সমতা বাংলাদেশের

বিশেষ প্রতিনিধি

image

ওডিআই সিরিজ দাপটের সঙ্গে জয় করার পর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুই টেস্ট সিরিজের প্রথম

২১৮ রানে পিছিয়ে জিম্বাবুয়ে

বিশেষ প্রতিনিধি

image

ব্যাটিংয়ে মমিনুল-মুশফিকের পর বোলিংয়ে জিম্বাবুয়ের ওপর চড়াও হয়ে ছিলেন দুই স্পিনার

মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরিতে রানের পাহাড়ে বাংলাদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

জিম্বাবুয়ের কাছে সিলেট টেস্টে নাস্তানাবুদ বাংলাদেশ দল যে আহত বাঘের মতো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারে সেই ইঙ্গিত দেয়া হয়েছিল

মমিনুল-মুশফিকের শতকে চাপমুক্ত বাংলাদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

চাপের মুখে থাকা বাংলাদেশের টেস্ট ‘স্পেশালিস্ট’ ব্যাটসম্যান মমিনুল হক খেললেন

sangbad ad