• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮

 

ফিফা জাদুঘরে একবেলা

নিউজ আপলোড : ঢাকা , রবিবার, ০৮ জুলাই ২০১৮

সংবাদ :
  • আরাফাত জোবায়ের, মস্কো থেকে

http://thesangbad.net/images/2018/July/08Jul18/news/111.jpg

দোতলা ছোট্ট দালান। সামনে কাচ দিয়ে ঘেরা। সুসজ্জিত ফিকশ্চার আকা। বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে মস্কোতে ফিফার জাদুঘর। ভেতরে প্রত্যেক পরতে পরতে ফুটবলের ইতিহাস গাথা। তাই তো ফিফা এর নাম দিয়েছে,‘ দ্য হিস্ট্রোরি মেকারস’।

জাদুঘরে প্রবেশের শুরুতেই স্বাগত জানায় বড় স্ক্রিনে ৩০ মিনিটের এক প্রামাণ্যচিত্র। সেখানে বিশ্বকাপের নানা গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা খন্ড খন্ডভাবে প্রদর্শিত। ‘৫৮ সালে ব্রাজিলের প্রথম চ্যাম্পিয়নশীপে পেলেকে নিয়ে উৎসব, ৮৬ সালে কয়েকজনকে কাটিয়ে ম্যারাডোনার একক প্রচেষ্টায় সেই গোল,‘ ৫০ এর মারাকানা ট্র্যাজেডি, ৮২’র পাওলো রসির দুর্দান্ত সব পারফরম্যান্স। শুধু স্ট্রাইকারদেরই নয় লেভ ইয়াসিন, বুফনদেরও বেশ কিছু অসাধারণ মুহূর্তও রয়েছে। ভিডিওগুলো এতটাই জীবন্ত যে প্রতিটি ভিডিও সেই সময় ফিরিয়ে নিয়ে যায়!

ভিডিও দেখার পর চোখ গেল ছোট্ট একটা বক্সে। সাত-আট বছরের শিশু কানে হেড ফোন লাগিয়ে দুলছে। কিছুক্ষণ পর আমিও বসলাম সেই বক্সে। ১৯৬২ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত সব বিশ্বকাপের অফিসিয়াল থিম সংয়ের অডিও-ভিডিও ডিসপ্লে। ঐ বক্সে আরেকটি কুইজ অপশন আছে। বিভিন্ন দেশের জাতীয় সংগীত, দর্শকদের আওয়াজ,গান শুনে বলতে হবে কোন দেশ। যন্ত্রগত কুইজও রয়েছে। যন্ত্রের আওয়াজ শোনার পর অপশন বাছাই করতে হবে শব্দটি কিসের ভুভুজেলা, বাশি না অন্য কিছুর।

http://thesangbad.net/images/2018/July/08Jul18/news/222.jpg

অডিও ভিজুয়ালের এই অংশের সামনে বলের সম্ভার। যুগে যুগে ফুটবলের বিবর্তন হয়েছে সেই বলগুলো থরে থরে সাজানো। প্রতিটি বলের ইতিহাসও সংক্ষিপ্ত করে লেখা। নিচতলার শেষ প্রান্তে অটোগ্রাফ কর্নার। রবার্তো কার্লোস,পিটার স্যামুয়েলস সহ বেশ কয়েকজন তারকার অটোগ্রাফ ফ্রেমে বন্দি। ফিফার বর্তমান ও প্রথম মহিলা সাধারণ সম্পাদক ফাতিমার অটোগ্রাফও রয়েছে। অটোগ্রাফ সেকশনের পাশেই নিচে কালো এক দেয়ালে জাদুঘর দেখতে আসা দর্শনার্থীদের নিজেদেরও ইতিহাসে সাক্ষ্য রাখার মাধ্যম আছে। কেউ নিজের নাম, দেশের নাম আবার অনেকে মন্তব্য লেখে সেই দেয়ালে।

নিচ তলার মুগ্ধতা ছাড়িয়ে যাবে দোতলা উঠতেই। দোতলা উঠার দু পাশে অন্তত দু’বার দাড়াতেই হবে। ১৯৩০ সাল থেকে ২০১৮ পর্যন্ত প্রতিটি বিশ্বকাপের পোস্টার সিরিয়াল অনুযায়ী সাজানো। আরেক পাশে প্রত্যেক বিশ্বকাপে যে বলগুলো দিয়ে খেলা হয়েছে। এখানেই সংগ্রহের শেষ না। সামনে আরো বেশ কিছু অপেক্ষা। পোস্টারের উল্টো দিকে আলাদা কর্নার। সেখানে প্রথম বিশ্বকাপ থেকে প্রতিটি বিশ্বকাপের বাস্তব স্মৃতি কাচে ঘেরা। ১৯৩০ বিশ্বকাপের টিকিট, ১৯৫০ বিশ্বকাপে ব্রাজিলের জার্সি, ২০১০ বিশ্বকাপে সবচেয়ে আলোচিত বিষয় ভুভুজেলা, ১৯৯৮ বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স গোলরক্ষকের গ্লাভস,১৯৮২ বিশ্বকাপে পাওলো রসির বুট, প্রতিটি বিশ্বকাপের বাস্তব সব কিছু চাক্ষুষ করার অপূর্ব ব্যবস্থা।

http://thesangbad.net/images/2018/July/08Jul18/news/333.jpg

এগুলো দেখতে দেখতে ক্লান্ত হওয়ার মোটেও সুযোগ নেই। এসব দেখা শেষ করা মাত্রই দর্শনার্থীদের জন্য পেলে, ম্যারাডোনা, লেভ ইয়াসিন অপেক্ষায়! পেলে ও ম্যারাডোনার খেলোয়াড়কালীন সময়ের অবয়ব। দুই গ্রেটকে দুই পাশে দর্শনার্থীরা নিজেদের মাঝে রেখে ছবি তোলার হিড়িক। পেলের একটু পাশে আলাদা এককভাবে লেভ ইয়াসিন। বল ধরার জন্য ডাইভ দিচ্ছেন এমন ভঙ্গি।

বল, পোস্টার, জার্সি, বিশেষ ম্যাচ, গ্রেট ফুটবলার সবই দেখা হল। এর পরও কি যেন একটা না দেখার অপূর্ণতা ! দোতলা সিড়ি দিয়ে নামার পথেই পূর্ণাঙ্গ পূর্ণতা অনুভব করলাম। সেই বিখ্যাত জুলেরিমে ট্রফি। যেটা ১৯৭০ সালে ব্রাজিল প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হয়ে নিজেদের করে নিয়েছিল। এই ট্রফির পাশে এবারের ট্রফিও প্রদর্শনীর জন্য আনা হবে এই জাদুঘরে।

মাত্র কয়েকশ বর্গগজ জায়গা। নিমিষেই দুই ঘন্টা শেষ হয়ে গেল। বিদায় নেয়ার সময় রয়েছে আরো একটু রোমাঞ্চ। ভিডিও গেমসের একটি ডিসপ্লে রয়েছে। সেখানে দর্শনার্থীরা রেফারির ভূমিকায়। বিগত বিশ্বকাপের বিভিন্ন ঘটনা দেখিয়ে কয়েক সেকেন্ডর মধ্যে সিদ্ধান্ত দিতে হয়। দ্রুত সিদ্ধান্ত সঠিক সিদ্ধান্ত দিলে বেশি পয়েন্ট। নির্দিষ্ট পয়েন্টের মাত্রা অতিক্রম করলে রয়েছে পুরস্কারও।

http://thesangbad.net/images/2018/July/08Jul18/news/444.jpg

স্বল্প জায়গায় খুব সুন্দরভাবে বিশ্বকাপ ফুটবলের ইতিহাস তুলে ধরেছে ফিফা। বাংলাদেশেও ক্রীড়ার অনেক ইতিহাস রয়েছে। নেই কর্তাব্যক্তিদের কোনো সদিচ্ছা বা পরিকল্পনা। না হলে এত বছরে স্বাধীন বাংলা ফুটবল দল বা দেশের একটি ক্রীড়া জাদুঘর-সংগ্রহশালা কেন হবে না ? বর্তমান ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী অবশ্য বঙ্গবন্ধুর নামে একটি ক্রীড়া জাদুঘর করার কথা বলেছেন বেশ কয়েকবার। সেই অপেক্ষার প্রহর অবশ্য এখনো শেষ হয়নি ।

http://thesangbad.net/images/2018/July/08Jul18/news/555.jpg

২১৮ রানে পিছিয়ে জিম্বাবুয়ে

বিশেষ প্রতিনিধি

image

ব্যাটিংয়ে মমিনুল-মুশফিকের পর বোলিংয়ে জিম্বাবুয়ের ওপর চড়াও হয়ে ছিলেন দুই স্পিনার

মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরিতে রানের পাহাড়ে বাংলাদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

জিম্বাবুয়ের কাছে সিলেট টেস্টে নাস্তানাবুদ বাংলাদেশ দল যে আহত বাঘের মতো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারে সেই ইঙ্গিত দেয়া হয়েছিল

মমিনুল-মুশফিকের শতকে চাপমুক্ত বাংলাদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

চাপের মুখে থাকা বাংলাদেশের টেস্ট ‘স্পেশালিস্ট’ ব্যাটসম্যান মমিনুল হক খেললেন

sangbad ad

অমার্জনীয় ব্যাটিংয়ে বিধ্বস্ত বাংলাদেশ

অজয় বড়ুয়া

image

সিলেট টেস্টে চার দিনের মধ্যে মঙ্গলবার (৬ নভেম্বর) গ্যালারিতে দর্শক সবচেয়ে বেশি ছিল। এক-দুই রানেও উল্লসিত সবাই! কিন্তু রেজিস চাকাভা যখন

আত্মঘাতী ব্যাটিংয়ে ১৪৩ রানেই শেষ বাংলাদেশ

সংবাদ স্পোর্টস ডেস্ক

image

অবিশ্বাস্য বললেও কম বলা হয়। ওয়ানডেতে সহজেই বাংলাওয়াশ করা জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে

পাকিস্তানকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ

আরাফাত জোবায়ের

image

মুদাসসর নজরের শট ঠেকালেন বাংলাদেশের গোলরক্ষক মেহেদী হাসান। সঙ্গে সঙ্গেই নেপালের

ভারতকে টাইব্রেকারে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

ক্রীড়া বার্তা পরিবেশক

image

শক্তিশালী ভারতকে হারিয়ে সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ।

অনায়াসে সিরিজ জয় বাংলাদেশের

বিশেষ প্রতিনিধি

image

শতরানের কাছে পৌঁছেও অযথা শট খেলতে গিয়ে সেঞ্চুরি করার সুযোগ হাতছাড়া করলেও জয়ের

চট্টগ্রামেই লিড নিতে চায় বাংলাদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

সফরে আসা জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওডিআই সিরিজের প্রথমটাতে আত্মবিশ্বাসী জয় পাওয়া

sangbad ad