• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮

 

চট্টগ্রাম টেস্ট : মমিনুলের সেঞ্চুরির পর গ্যাব্রিয়েলের তোপ

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৮

সংবাদ :
  • বিশেষ প্রতিনিধি
image

‘টেস্ট স্পেশালিস্ট’ খ্যাত মমিনুল হকের অষ্টম সেঞ্চুরিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের উদ্বোধনী দিনে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩১৫ রান করে। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আলোর স্বল্পতায় প্রথম দিনের খেলা শেষ হওয়ার আগে তাইজুল ৩২ এবং নাঈম হাসান ২৪ রানে অপরাজিত আছেন। মমিনুল ১২০ রান করার পর গ্যাব্রিয়েলের বলে কট বিহাইন্ড হয়ে ফিরেন। টেস্টে বাঁ-হাতি টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান মমিনুলের ৩২ টেস্টে এটা ৮ম শতক। যার সবকটি দেশের মাঠে। আবার এর ৬টি নিজের প্রতিবেশী জেলা শহরের সাগর পাড়ের ভেন্যুতে।

দুই টেস্ট সিরিজের প্রথমটিতে অধিনায়ক সাকিব আল হাসান টস জিতে ব্যাটিং নেন। ইনিংসের প্রথম ওভারে বাংলাদেশ দল শুরুতেই বিপদের মধ্যে পড়ে গেলে মমিনুল সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে দলকে টেনে তোলার পাশাপাশি রেকর্ড বইয়ে নিজের নাম লিখিয়েছেন। ইনিংসের মাঝামাঝিতে শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের তোপে চার ব্যাটসম্যান সাজঘরের পথ ধরলেও শেষদিকে তাইজুল এবং অভিষিক্ত নাঈম হাসান গড়েছেন প্রতিরোধ।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসে ৩ বল স্থায়ী হয় ওপেনিং জুটি। ডানহাতি ক্যারিবিয়ান পেসার কেমার রোচের অফ স্টাম্পের বাইরের বলে খোঁচা মেরে কিপার শেন ডরিচের গ্লাভসবন্দী হন ১৩ মাস পর টেস্টে ফেরা সৌম্য সরকার (০)। এরপর ইমরুল-মমিনুলের ১০৪ রানের জুটিতে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। শুরু থেকেই নড়বড়ে ব্যাটিং করতে থাকা ইমরুল কায়েস ৮৭ বলে ৪৪ রান করে জোমেল ওয়ারিক্যানের বলে অ্যামব্রিসের হাতে ধরা পড়লে ভাঙে দ্বিতীয় উইকেট জুটি। দুপুরের আহারের পর ব্যাটিংয়ে নেমে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি মোহাম্মদ মিথুন (২০)। তিন অংকের কাছাকাছি চলে যাওয়া মমিনুলকে কিছুক্ষণ সঙ্গ দিয়ে দেবেন্দ্র বিশুর বলে উইকেটকিপার ডরিচের গ্লাভসবন্দী হন তিনি। মিথুনের বিদায়ের পর উইকেটে আসেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। গত জুলাইয়ে এই উইন্ডিজের বিপক্ষেই কিংস্টনে সর্বশেষ টেস্ট খেলেছিলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটের পোস্টার বয়।

সাকিবকে সঙ্গী হিসেবে পেয়ে টেস্টে টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ফেলেন মমিনুল হক। ১৩৭ বলে ৯ বাউন্ডারিতে ক্যারিয়ারের ৮ম সেঞ্চুরি তুলে নেন এই ‘টেস্ট স্পেশালিস্ট’। এর আগে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ঢাকা টেস্টেও তিনি ১৬১ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। এই জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে হাঁকানো এই শতরানের ইনিংসটার মধ্য দিয়ে সেঞ্চুরির সংখ্যায় মমিনুল ধরে ফেললেন দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবালকে। দুজনের টেস্ট সেঞ্চুরিই এখন সমান ৮টি।

এর মধ্য দিয়ে রেকর্ড বইয়েও নামটা লেখানো হয়েছে মমিনুলের। তার এই আট সেঞ্চুরির মধ্যে ছয়টিই জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। বাংলাদেশের আর কোন ব্যাটসম্যানেরই এক মাঠে এতগুলো টেস্ট সেঞ্চুরি নেই। মমিনুল ছাড়া এক মাঠে ছয় সেঞ্চুরির মালিক সাবেক ইংলিশ ক্রিকেটার গ্রাহাম গুচ (লর্ডস), সাবেক অজি অধিনায়ক রিকি পন্টিং (অ্যাডিলেড ও সিডনি), সাবেক অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার ম্যাথু হেইডেন (মেলবোর্ন) আর সাবেক ব্রিটিশ দলপতি মাইকেল ভন (লর্ডস)। এই রেকর্ডে নাম লেখানোর পথে মমিনুল পেছনে ফেলেছেন শচিন তেন্ডুলকার, জ্যাক হবস, হাবার্ট সাটক্লিফ, গ্যারফিল্ড সোবার্স, সুনীল গাভাস্কারদের মতো কিংবদন্তিদের। নির্দিষ্ট একটি মাঠে তাদের সেঞ্চুরি সংখ্যা সর্বোচ্চ পাঁচটি।

এই রেকর্ডে অবশ্য এখনও শীর্ষে আছেন সাবেক লংকা দলপতি মাহেলা জয়াবর্ধনে। টেস্ট ক্রিকেটে এক মাঠে (সিংহলিজ স্পোর্টস গ্রাউন্ড) সর্বোচ্চ ১১ সেঞ্চুরির রেকর্ডটি এখনও তার দখলে।

এ তো গেল এক মাঠে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির রেকর্ডের কথা। বছরটাও কিন্তু মমিনুলের জন্য সঙ্গে করে এনেছে সৌভাগ্য। সেটি এমনই যে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলিও মমিনুলের পেছনে। চলতি বছরে কেবলমাত্র শুধু কোহলি আর মমিনুলই চারটি করে সেঞ্চুরির দেখা পেলেন। আর এই পথে মমিনুল বর্তমান বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যানটিকে পেছনে ফেলেছেন ইনিংসের হিসেবে। ২০১৮ সালে এ পর্যন্ত চারটি সেঞ্চুরি করতে কোহলি খেলেছেন ১৮টি ইনিংস। মমিনুল (১৩ ইনিংস) তার চেয়ে ৫ ইনিংস কম খেলেই চার সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন। ভারতীয় অধিনায়ককে (৫৮.৭৯) স্ট্রাইকরেটেও পেছনে ফেলেছেন মমিনুল (৬৬.৫৫)।

যাহোক শেষ পর্যন্ত শ্যানন গ্যাব্রিয়েলর বলে ডরিচের গ্লাভসবন্দী হয়ে মমিনুলের ইনিংসটি থামে ১২০ রানে।

মমিনুলের বিদায়ের পর থেকেই দ্রুত উইকেট হারায় বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে গত টেস্টেই ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকানো মুশফিকুর রহিম গ্যাব্রিয়েলের বলে লেগ বিফোর উইকেট হয়ে যান। জিম্বাবুয়ে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের সেঞ্চুরিয়ান মাহমুদুল্লাহ রিয়াদও একই পথে হাঁটেন। ৩ রান করে বোল্ড হয়ে যান গ্যাব্রিয়েলের বলে। আশা-ভরসার প্রতীক হয়ে ছিলেন অধিনায়ক সাকিব। কিন্তু দলকে কঠিন বিপদে ফেলে ৩৪ রান করে গ্যাব্রিয়েলের চতুর্থ শিকার হন তিনি। ১৩ রানের মধ্যে ৪ সেরা ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে অনেকটাই দিশা হারায় বাংলাদেশের ইনিংস।

জিম্বাবুয়ে সিরিজে দারুণ ব্যাটিং করা মেহেদি হাসান মিরাজও দলের বিপদে হাল ধরতে পারেননি। ওয়ারিক্যানের বলে বোল্ড হয়েছেন ২২ রান করে। বাংলাদেশ যখন ৩শ রানের নিচে অল-আউট হওয়ার শঙ্কায় ভুগছিল, ঠিক তখনই অভিষিক্ত নাঈমকে নিয়ে হাল ধরলেন তাইজুল ইসলাম। দুজনের অবিচ্ছিন্ন ৯ম উইকেট জুটিতে এসেছে ৫৬ রান।

উইন্ডিজকে উড়িয়ে সিরিজ বাংলাদেশের

সংবাদ স্পোর্টস ডেস্ক

image

ফের সেঞ্চুরিতে চ্যালেঞ্জিং স্কোর ছুড়ে দেয়ার চেষ্টা করেছেন শেই হোপ। কিন্তু মেহেদী

পেসের বদলা স্পিনে হোয়াইটওয়াশ উইন্ডিজ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

হাঁটি হাঁটি পা পা করে টেস্ট ক্রিকেটে ১৮ বছরের পদচারণা বাংলাদেশ দলের। বলা যায়

মাহমুদুল্লাহর সেঞ্চুরির পর স্পিনে বেদিশা উইন্ডিজ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

টেস্ট ক্যারিয়ারের তৃতীয় শতরানের ইনিংস খেলেছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। হাফ সেঞ্চুরি এসেছে

sangbad ad

ঘূর্ণি বিষে দ্বাদশ টেস্ট জিতল বাংলাদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

সফরে আসা ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চলতি টেস্ট সিরিজটি স্বাগতিক বাংলাদেশ দলের

দু’শতাধিক রানে জিতে সিরিজ সমতা বাংলাদেশের

বিশেষ প্রতিনিধি

image

ওডিআই সিরিজ দাপটের সঙ্গে জয় করার পর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুই টেস্ট সিরিজের প্রথম

২১৮ রানে পিছিয়ে জিম্বাবুয়ে

বিশেষ প্রতিনিধি

image

ব্যাটিংয়ে মমিনুল-মুশফিকের পর বোলিংয়ে জিম্বাবুয়ের ওপর চড়াও হয়ে ছিলেন দুই স্পিনার

মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরিতে রানের পাহাড়ে বাংলাদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

জিম্বাবুয়ের কাছে সিলেট টেস্টে নাস্তানাবুদ বাংলাদেশ দল যে আহত বাঘের মতো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারে সেই ইঙ্গিত দেয়া হয়েছিল

মমিনুল-মুশফিকের শতকে চাপমুক্ত বাংলাদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

চাপের মুখে থাকা বাংলাদেশের টেস্ট ‘স্পেশালিস্ট’ ব্যাটসম্যান মমিনুল হক খেললেন

অমার্জনীয় ব্যাটিংয়ে বিধ্বস্ত বাংলাদেশ

অজয় বড়ুয়া

image

সিলেট টেস্টে চার দিনের মধ্যে মঙ্গলবার (৬ নভেম্বর) গ্যালারিতে দর্শক সবচেয়ে বেশি ছিল। এক-দুই রানেও উল্লসিত সবাই! কিন্তু রেজিস চাকাভা যখন

sangbad ad