• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ২২ জানুয়ারী ২০১৯

 

উইন্ডিজকে উড়িয়ে সিরিজ বাংলাদেশের

নিউজ আপলোড : ঢাকা , শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮

সংবাদ :
  • সংবাদ স্পোর্টস ডেস্ক
image

বাংলাদেশের জয়ের শক্ত ভিত গড়ে দেয়া সৌম্য সরকার ও তামিম ইকবাল রান নিচ্ছেন -ইদ্রিস আলী

ফের সেঞ্চুরিতে চ্যালেঞ্জিং স্কোর ছুড়ে দেয়ার চেষ্টা করেছেন শেই হোপ। কিন্তু মেহেদী হাসান মিরাজ, মাশরাফি বিন মর্তুজা ও সাকিব আল হাসানের স্পিন-পেস এ দ্বিমুখী আক্রমণ হোপের আশা উবে যায়। বাংলাদেশ পায় মামুলি লক্ষ্য। রান তাড়ায় শতরানের জুটিতে জয়ের পথ দেখান তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। স্বাভাবিকভাবেই তৃতীয় ওয়ানডেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে উড়িয়ে দিয়ে সিরিজ জিতল বাংলাদেশ।

সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুক্রবার (১৪ ডিসেম্বর) প্রথম ওয়ানডেতে জয়োৎসবে মাতোয়ারা মাশরাফি বাহিনী প্রায় হেসে খেলে ৮ উইকেটের জয়ে ২-১ ব্যবধানে জিতল সিরিজও। তামিম-সৌম্যর ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ১৯৯ রানের লক্ষ্য পেরিয়ে যায় স্বাগতিকরা ৭৯ বল বাকি থাকতে। সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় ওয়ানডেতে স্বাগতিকদের বোলিং ছিল লক্ষ্যণীয়। বোলাররা লাইন-লেংথ হারিয়েছেন খুব কমই। আঁটসাঁট বোলিং করায় উইন্ডিজ ইনিংসে ছিল ১৭৯টি ডট বল। হোপের ৯ চার ও এক ছক্কার বাইরে হয়েছে মাত্র ৫টি চার ও একটি ছক্কা। তদুপরি সফরকারীদের ইনিংসে নেই কোন পঞ্চাশ ছোঁয়া জুটি। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান মারলন স্যামুয়েলসের ১৯। মামুলি লক্ষ্য তাড়ায় কোন সমস্যাই হয়নি বাংলাদেশ দলের। দারুণ কাটানো একটি বছরে নিজেদের শেষ ওয়ানডেতেও পেল অনায়াস জয়। জিতল টানা তৃতীয় সিরিজ।

উইন্ডিজের রানের জবাবে বাংলাদেশের শুরুটা ছিল সাবধানী। মারার বল মারছিলেন লিটন দাস ও তামিম। ঝুঁকি নেননি কেউই। রান রেটের কোন চাপ ছিল না। হাতে ছিল অনেক ওভার। কিন্তু তবুও সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি লিটন। আরও একবার থিতু হয়ে ফিরেছেন বাজে শটে। তার বিদায়ে ভাঙে ৪৫ রানের উদ্বোধনী জুটি। আগের দুই ম্যাচে ব্যর্থ ইমরুল কায়েসকে বাদ দিয়ে মিডল অর্ডারে মোহাম্মদ মিঠুনকে নেয় বাংলাদেশ। টপ অর্ডারে ফিরেন সৌম্য। নিজের জায়গায় ফিরে বাঁ-হাতি এই ব্যাটসম্যান যেন ফিরে পান নিজেকে। শুরু থেকে খেলেন আস্থার সঙ্গে। দ্রুত জমে যায় তামিমের সঙ্গে তার জুটি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেস-স্পিন কিছুই বিব্রত করতে পারেনি দুই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যানকে। পরে নামা সৌম্য ফিফটির আগেই প্রায় ছুটেছেন তামিমকে ছোঁয়ার জন্য। কিন্তু দেশসেরা ওপেনার ওই সুযোগ না দিয়ে প্রথমে পৌঁছান ফিফটিতে। একটু পর পঞ্চাশ ছোঁয়া সৌম্য ফ্যাবিয়ান অ্যালেনকে বিশাল দুই ছক্কা মেরে তামিমের সমকক্ষ হন । পরে লেগ স্পিনার বিশুর এক ওভার থেকে ১৪ রান নিয়ে এগিয়ে যান অনেকটা।

দ্রুত ম্যাচ শেষ করার চেষ্টায় থাকা সৌম্যকে বোল্ড করে বিদায় করেন পল। ভাঙেন ১৩১ রানের জুটি। এই জুটিতে সৌম্যর অবদান পাঁচটি করে ছক্কা-চারে ৮১ বলে ৮০, তামিমের ৭১ বলে ৪৯। সৌম্যর বিদায়ের পর মুশফিকুর রহিমকে নিয়ে বাকিটা সহজেই সম্পন্ন করেন তামিম। চার ছ মেরে দলকে জয় উপহার দেয়া বাঁ-হাতি এই ওপেনার অপরাজিত থাকেন ৮১ রানে। তার ১০৪ বলের দায়িত্বশীল ইনিংস গড়া ৯ চারে। মুশফিক ১৪ বলে করেন ১৬। এর আগে হাবিবুল বাশারকে ছাড়িয়ে দেশকে সবচেয়ে বেশি ৭০ ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দেয়ার রেকর্ড গড়া মাশরাফি টস জিতে নেন ফিল্ডিং। ওয়েবসাইট।

পেসের বদলা স্পিনে হোয়াইটওয়াশ উইন্ডিজ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

হাঁটি হাঁটি পা পা করে টেস্ট ক্রিকেটে ১৮ বছরের পদচারণা বাংলাদেশ দলের। বলা যায়

মাহমুদুল্লাহর সেঞ্চুরির পর স্পিনে বেদিশা উইন্ডিজ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

টেস্ট ক্যারিয়ারের তৃতীয় শতরানের ইনিংস খেলেছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। হাফ সেঞ্চুরি এসেছে

ঘূর্ণি বিষে দ্বাদশ টেস্ট জিতল বাংলাদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

সফরে আসা ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চলতি টেস্ট সিরিজটি স্বাগতিক বাংলাদেশ দলের

sangbad ad

চট্টগ্রাম টেস্ট : মমিনুলের সেঞ্চুরির পর গ্যাব্রিয়েলের তোপ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

‘টেস্ট স্পেশালিস্ট’ খ্যাত মমিনুল হকের অষ্টম সেঞ্চুরিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম

দু’শতাধিক রানে জিতে সিরিজ সমতা বাংলাদেশের

বিশেষ প্রতিনিধি

image

ওডিআই সিরিজ দাপটের সঙ্গে জয় করার পর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুই টেস্ট সিরিজের প্রথম

২১৮ রানে পিছিয়ে জিম্বাবুয়ে

বিশেষ প্রতিনিধি

image

ব্যাটিংয়ে মমিনুল-মুশফিকের পর বোলিংয়ে জিম্বাবুয়ের ওপর চড়াও হয়ে ছিলেন দুই স্পিনার

মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরিতে রানের পাহাড়ে বাংলাদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

জিম্বাবুয়ের কাছে সিলেট টেস্টে নাস্তানাবুদ বাংলাদেশ দল যে আহত বাঘের মতো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারে সেই ইঙ্গিত দেয়া হয়েছিল

মমিনুল-মুশফিকের শতকে চাপমুক্ত বাংলাদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি

image

চাপের মুখে থাকা বাংলাদেশের টেস্ট ‘স্পেশালিস্ট’ ব্যাটসম্যান মমিনুল হক খেললেন

অমার্জনীয় ব্যাটিংয়ে বিধ্বস্ত বাংলাদেশ

অজয় বড়ুয়া

image

সিলেট টেস্টে চার দিনের মধ্যে মঙ্গলবার (৬ নভেম্বর) গ্যালারিতে দর্শক সবচেয়ে বেশি ছিল। এক-দুই রানেও উল্লসিত সবাই! কিন্তু রেজিস চাকাভা যখন

sangbad ad