• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ২২ জানুয়ারী ২০১৯

 

ভোলার ৩টি আসনে পুলিশের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

ভোলার ৩টি সংসদীয় আসনে বিএনপির ৩ হেভিওয়েট প্রার্থী হাফিজ ইব্রাহিম, মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ (বীর বিক্রম), এবং সাবেক এমপি নাজিম উদ্দিন আলম অবরুদ্ধ হয়ে আছেন নিজ বাড়িতে। তফসিল ঘোষণার পর একদিনও নির্বাচনী প্রচার চালাতে দেয়া হয়নি এ ৩ প্রার্থীকে। ভোট চাওয়া তো দূরের কথা নির্বাচনী পোস্টার, ব্যানার এমনকি লিপলেটও বিতরণ করতে দেয়া হয়নি বিএনপির হাফিজ ইব্রাহিম, মেজর হাফিজ ও নাজিম উদ্দিন আলমকে। তফসিল ঘোষণার পর প্রচরণার জন্য এলাকায় গিয়ে রীতিমতো নিজ বাসায় অবরুদ্ধ থাকা ভোলা-২ আসনের সাবেক এমপি হাফিজ ইব্রাহিম, ভোলা-৩ আসনের মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ (বীর বিক্রম) এবং ভোলা-৪ আসনের নাজিম উদ্দিন আলম এখন নিজেদের এবং ভোটারদের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত। এর মধ্যে এলাকায় গিয়ে একাধিক হামলার শিকার হয়েছেন ভোলা-৩ আসনের মেজর হাফিজ উদ্দিন আহমেদ এবং ভোলা-৪ আসনের নাজিম উদ্দিন আলম। এ তিন নেতার বাড়ির চারদিকে স্থানীয় সন্ত্রাসী ও যুবলীগ, ছাত্রলীগ দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে মহড়া দিচ্ছে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের উপস্থিতিতেই। এমন পরিস্থিতিতে বোরহানউদ্দিন, দৌলতখান, লালমোহন, তজুমুদ্দিন, চরফ্যাশন ও মনপুরায় ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তফসিল ঘোষণার এলাকায় পৌঁছার পর বোরউদ্দিন পৌরসভার নিজ বাসায় ভোলা ২ আসনের হাফিজ ইব্রাহিম, লালমোহন পৌরসভার নিজ বাসায় ভোলা-৩ আসনের মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ এবং চরফ্যাশন পৌরসভার নিজ বাড়িতে ভোলা-৪ আসনের নাজিম উদ্দিন আলম গতকাল পর্যন্ত অবরুদ্ধ ছিলেন। তাদের কাছে বিএনপির নেতাকর্মী এমনকি সাধারণ ভোটারদেরও যেতে দেয়া হচ্ছে না। কোন নেতাকর্মী এমনকি কর্মচারীরাও প্রয়োজনীয় খাবার, ওষুধপত্র এমনকি নিত্য পণ্য নিয়েও প্রবেশ করতে পারছে না। বাসার সামনে থেকে নেতাকর্মীদের ধরে নিয়ে যাচ্ছে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের কর্মীরা। বৃহস্পতিবার (২৭ ডিসেম্বর) পর্যন্ত বোরউদ্দিনে ভোলা-২ আসনের হাফিজ ইব্রাহিম, লালমোহনের বাসার সামনে ভোলা-৩ আসনের মেজর (অব.) হাফিজ এবং চরফ্যাশনের ভোলা-৪ আসনের নাজিম উদ্দিন আলমের বাসার সামনে একাধিকবার অস্ত্র ও মোটরসাইকেলে ছাত্রলীগ যুবলীগসহ আওয়ামী লীগের কর্মীরা এবং চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা মহড়া দিচ্ছিল বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে প্রার্থীদের কাছ থেকে। অভিযোগ উঠেছে, ভোলা-২-এর নির্বাচনী এলাকা বোরহান উদ্দিন ও দৌলতখান, ভোলা-৩ আসনের লালমোহন ও তজুমুদ্দিন এবং ভোলা-৪ আসনের চরফ্যাশন ও মনপুরার প্রত্যেকটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিচ্ছে এবং ভোটারদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে ভোলার ৩টি নির্বাচনী আসনে ভোট দেয়া নিয়ে ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। পুলিশের হয়রানির কারণে এ ৩ আসনের ৬টি উপজেলায় বিএনপির নেতাকর্মী ও সমর্থক ও সাধারণ ভোটারাও পর্যন্ত বাড়িঘর ছাড়া।

বিএনপির প্রার্থী হাফিজ ইব্রাহিম অভিযোগ করেন, এলাকায় আসার পর থেকে তাকে বাসায় অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। তার দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দেয়া হয়েছে। তাকে কোন প্রচার কার্যক্রম চালাতে দেয়া হয়নি। ভোটের দিনে তিনি ভোটকেন্দ্রে ভোট দিতে যেতে পারবেন কিনা তাও নিয়েও সন্দেহ রয়েছে। কোন নেতাকর্মী ভয়ে এজেন্ট হতে চাচ্ছেন না নিরাপত্তাহীনতার কারণে। পুলিশ প্রশাসন নগ্ন হয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষ নিয়ে কাজ করছেন। এলাকায় অস্ত্রধারীরা প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিলেও পুলিশ কোন অভিযোগ নিচ্ছে না।

লালমোহন ও তজুমুদ্দিন উপজেলা নিয়ে গঠিত ভোলা-৩ আসনের পরিস্থিতি বেশি গুরুতর। গত ১৫ ডিসেম্বর নির্বাচনী প্রচরণা উপলক্ষে লালমোহন গিয়ে হামলার শিকার হন বিএনপির প্রার্থী মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ। ওইদিন তার বাসা লক্ষ্য করে গুলিও চালানো হয়। এর দুদিন আগে ঢাকা থেকে লঞ্চযোগে এলাকায় রওনা হলে সদরঘাটে লঞ্চে হামলা চালিয়ে হাফিজের যাত্রা রোধ করা হয়। এরপর এলাকায় গেলেও নিজ বাসাতে অবরুদ্ধ হয়ে আছেন মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ। লালমোহন ও তজুমুদ্দিনে প্রতিদিন যুবলীগ ও ছাত্রলীগের অস্ত্রধারীদের অস্ত্র নিয়ে মহড়ার কারণে ভোটরদের মধ্যে ভীতি তৈরি হয়েছে। চিহ্নিত সন্ত্রাসীরাও ধারালো এবং আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে লালমোহনের ৯ ইউনিয়নে প্রকাশ্যে মহড়া দিলেও পুলিশ নীবর ভূমিকা পালন করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বাসা বাড়ি থেকে বিএনপি সমর্থক, ভোটারদের ধরে নিয়ে আওয়ামী লীগ অফিসে আটকে রেখে আওয়ামী লীগে যোগদান করার চাপ দেয়া হচ্ছে।

ভোলা-৩ আসনের বিএনপির প্রার্থী মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ টেলিফোনে সংবাদকে জানান, বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তিনি বাসায় অবরুদ্ধ। তার বাসার চারদিকে যুবলীগ, ছাত্রলীগের অস্ত্রধারীরা অস্ত্র নিয়ে প্রকাশ্যে পুলিশের সামনেই মহড়া দিচ্ছে। নেতাকর্মীরা কেউ আসতে পারছে না। বুধবার (২৬ ডিসেম্বর) তার বাসার কর্মচারী মুক্তার হোসেনকে বাসার সামনে থেকে ধরে আওয়ামী লীগ অফিসে নিয়ে যায় আওয়ামী লীগের কর্মীরা। এ বিষয়ে স্থানীয় পুলিশ ও রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করা হয়েছে কিন্তু কোন প্রতিকার পাওয়া যায়নি। হাফিজ উদ্দিন অভিযোগ করেন গত ১১ দিনে তার দলের ৪০ নেতাকর্মীকে কুপিয়ে আহত করা হয়েছে। প্রতিদিন রাতে পুলিশ বিএনপির নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে তল্লাশি ও হয়রানি করছে। বিএনপির সমর্থক হলেই তাকে ধরে নিয়ে আওয়ামী লীগে যোগ দেয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে।

এদিকে ভোলা ৪ আসনে চরফ্যাশন ও মনপুরা আসনে বিএনপির প্রার্থী সাবেক এমপি নাজিম উদ্দিন আলম গত ১০ ডিসেম্বর এলাকায় গেলে তার উপর হামলা চালায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এরপর আবারও হামলা চালানো হয়।

এককভাবে উপজেলা নির্বাচন করবে আওয়ামী লীগ

ফয়েজ আহমেদ তুষার

image

জোটগতভাবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন করলেও আসন্ন (পঞ্চম) উপজেলা

নির্বাচন বাতিলে ঐক্যফ্রন্টের আবেদন আমলে নেয়নি ইসি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

নির্বাচন বাতিলের দাবি করে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের করা আবেদন আমলে নেয়নি নির্বাচন

আবার সংলাপ : দলগুলোকে চিঠি দিয়ে আমন্ত্রণ জানাবেন প্রধানমন্ত্রী

ফয়েজ আহমেদ তুষার ও ইকবাল মজুমদার তৌহিদ

image

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আবারও সংলাপে বসবেন। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সূত্রে জানা

sangbad ad

গণতন্ত্রের স্বার্থে বিএনপিকে সংসদে যোগদানের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা গণতন্ত্রের স্বার্থে জনমতের প্রতি সম্মান

ঐক্যফ্রন্টে ভাঙনের আলামত

অমিত হালদার

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের শপথ গ্রহণ নেয়া না

এখন নালিশই বিএনপির অবলম্বন : কাদের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আন্দোলনে

এমিলির মন্ত্রিত্ব মুন্সীগঞ্জবাসীর প্রত্যাশা

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের টানা দশ বছরে মুন্সীগঞ্জ থেকে কোন সংসদ সদস্য মন্ত্রিত্ব

ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচিত প্রার্থীরা শপথ গ্রহন করবেন : ১৪ দলের আশা প্রকাশ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও তাদের প্রধান শরীক বিএনপি থেকে যারা সংসদ সদস্য নির্বাচিত

বিএনপির রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ ও নেতৃত্ব নিয়ে জল্পনা-কল্পনা

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির ভরাডুবির পর দলটির রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ

sangbad ad