• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শনিবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২০

 

ফখরুল ছাড়া বিএনপির সব এমপির শপথ গ্রহণ

নিউজ আপলোড : ঢাকা , সোমবার, ২৯ এপ্রিল ২০১৯

সংবাদ :
  • সংসদ বার্তা পরিবেশক
image

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপির) নবনির্বাচিত ৪জন সংসদ সদস্য (এমপি) শপথ নিয়েছেন। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ২৯ এপ্রিল সোমবার জাতীয় সংসদ ভবনে তাদের (সংসদ সদস্যদের) শপথ বাক্য পাঠ করান। শপথ গ্রহণকারী সংসদ সদস্যরা হলেন, মো. মোশারফ হোসেন (বগুড়া-৪), মো. আমিনুল ইসলাম (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২), মো. হারুনুর রশীদ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩) এবং আবদুস সাত্তার ভূইয়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২)। এবারের নির্বাচনে বিএনপি থেকে নির্বাচিত হয়েছেন মোট ছয়জন; তার মধ্যে ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের জাহিদুর রহমান জাহিদ গত বৃহস্পতিবারই শপথ নিয়েছিলেন। এরপর তাকে বিএনপি থেকে বহিষ্কারও করা হয়। দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে সোমাবর অপর চার জনের শপথ গ্রহণের মধ্য দিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়া বাকী সব সংসদ সদস্যরা শপথ নিলেন।

বিএনপি নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে নির্বাচিত গণফোরামের দুজন সুলতান মো. মনসুর আহমেদ ও মোকাব্বির খানও জোটের সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে ইতোমধ্যে শপথ নিয়েছেন। ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট ডাকাতি হয়েছে দাবি করে শপথ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছিল বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে বিজয়ীদের শপথ নেওয়ার ক্ষেত্রে সোমবারই শেষ দিন; অধিবেশন শুরুর পর ৯০ দিনের মধ্যে কেউ শপথ না নিলে ওই আসনে নতুন নির্বাচন আয়োজনের কথা ইতোমধ্যে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

বিএনপি মহাসচিব মির্জ ফখরুল ঠাকুরগাঁওয়ে নিজের আসনে হারলেও বগুড়া-৪ আসন থেকে নির্বাচিত হন, যে আসন থেকে বরাবর ভোট করে আসছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। জাহিদুর রহমানের পর বিএনপির নতুন চারজন সংসদ সদস্যের শপথ নেওয়ার দিন দলের মহাসচিব মির্জ ফখরুল এক অনুষ্ঠানে বলেন, বর্তমান সংসদ ‘জনগণের প্রতিনিধিত্বশীল সংসদ’ নয়। তবে বিএনপি থেকে নির্বাচিতরা বলছেন, এলাকার মানুষের চাপে সংসদে যেতে শপথ নিতে বাধ্য হয়েছেন তারা।

শপথ গ্রহণ শেষে সংসদ ভবনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিএনপি দুই সংসদ সদস্য আবদুস সাত্তার ভূইয়া এবং মো. হারুনুর রশীদ দাবি করেন, তারা দলীয় সিদ্ধান্ত মেনেই শপথ নিয়েছেন। শপথ গ্রহণ শেষে সংসদ সদস্য আবদুস সাত্তার ভূইয়া সাংবাদিকদের বলেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আলাপ করে তার সম্মতিতে সংসদে এসে শপথ নিয়েছি। অপর সংসদ সদস্য মো. হারুনুর রশীদ বলেন, দলীয় সিদ্ধান্তেই তারা সংসদে এসেছেন। তাদের ওপর সরকারের চাপ ছিল তবে সে কারণে তারা সংসদে আসেননি। তিনি বলেন, সংসদে তারা নতুন নির্বাচন দাবি করবেন। বিএনপি চেয়ারপারসনের মুক্তি চাইবেন।

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হারুনুর রশীদ বলেন, দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে আমরা শপথ নিয়েছি। ভোট চুরির মাধ্যমে দেশের গণতন্ত্র ধ্বংস করা হয়েছে। চুরি করে ক্ষমতায় আসার জন্য সংবিধান সংশোধন করা হয়েছে। এটিকে ঠিক করার দায়িত্ব সরকারের। কীভাবে জনগণের প্রতিনিধির মাধ্যমের সরকার গঠন করা যায় সে দায়িত্ব সরকারের। তিনি আরো বলেন, বিশেষ করে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, নিম্ন আদালতের ফরমায়েশি রায়ে তাকে কারাগারে রাখা হয়েছে। অথচ দেশের ফাঁসির আসামী, মাদকের আসামির মতো জঘন্য আসামিরা জামিনে ঘুরে বেড়াচ্ছে। তাই আমরা আশা করব সরকার অবিলম্ব খালেদা জিয়াকে জামিনে মুক্তি দেবেন এবং তার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করবে।

ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের সম্মতি থাকলে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আসেননি কেন? এ প্রশ্নের জবাবে হারুনুর রশীদ বলেন, মহাসচিবের বিষয়ে আমার কিছু বলার নেই। এ বিষয়ে তাকেই জিজ্ঞেস করেন, তিনি ভালো বলতে পারবেন।

আপনারা কি পাঁচ বছরের জন্য এই সংসদকে বৈধতা দিতে এসেছেন? এ প্রশ্নের জবাব তিনি বলেন, আমরা এই সংসদকে বৈধতা দিতে আসিনি। দেশে আইনের শাসন নাই, সুশাসন নাই, দেশে অরাজকতা চলছে, ১৭ কোটি মানুষকে জিম্মি করে রাখা হয়েছে- এই বিষয়গুলো তুলে ধরার জন্য আমরা সংসদে এসেছি।

দলের সম্মতি থাকলে শপথ নেওয়ার পর আপনাদের সদস্য জাহিদুর রহমানকে দল বহিষ্কার করেছে কেন? এ প্রশ্নের জবাবে হারুনুর রশীদ বলেন, আগে শপথ নেওয়ায় তিনি আজ ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসনের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। এখন দল হয়তো তার ব্যাপারে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে। জাহিদের রহমান হয়তো লিখিতভাবে ক্ষমা চাইবেন। দল বিবেচনা করবে।

আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব-উল আলম হানিফ সোমবার এক সভায় বলেন, দুটি কারণে বিএনপি মহাসচিব মির্জ ফখরুল ইসলাম আলমগীর শপথ নিচ্ছেন না। একটি হল দলীয় পদ হারানোর ভয়ে; অন্যটি হল, নিজের এলাকা থেকে নির্বাচিত হননি বলে নির্বাচনী এলাকার মানুষের প্রতি তার দায়বদ্ধতা নেই। সোমাবর জাতীয় সংসদ ভবনে স্পিকারের কার্যালয়ে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী, হুইপ ইকবালুর রহিম এবং সংসদ সদস্য মো. জাহিদুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। শপথ গ্রহণ শেষে সংসদ সদস্যগণ রীতি অনুযায়ী শপথ বইয়ে স্বাক্ষর করেন। সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমেদ খান শপথ অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন।

আচরণ বিধি ভঙ্গের হিড়িক

ফয়েজ আহমেদ তুষার ও ইমদাদুল হাসান রাতুল

image

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি ও ডিএসসিসি) নির্বাচনের প্রচারণায়

আধুনিক-উন্নত ঢাকা গড়ার প্রতিশ্রুতি নৌকা প্রার্থীদের : অভিযোগের পাশাপাশি উন্নয়নের কথা বলছেন ধানের শীষের প্রার্থীরা

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

আসন্ন ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে উন্নত ও আধুনিক ঢাকা গড়ার প্রতিশ্রুতি নিয়ে প্রচারনা চালাচ্ছেন আওয়ামী লীগে সমর্থিত দুই মেয়র

সিটি নির্বাচনে এমপিদের প্রচারণার সুযোগ চায় ১৪ দল

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রচারণায় সংসদ সদস্যদের (এমপি) অংশ নিতে আইনি বাধাকে দুঃখজনক বলে মন্তব্য

sangbad ad

সাক্ষাৎকার : জয়ী হলে কি করবেন তাপস-ইশরাক

ইমদাদুল হাসান রাতুল

image

দু’ভাগে বিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের দক্ষিণ অংশ উত্তরের তুলনায় একটু বেশি

আওয়ামী লীগের ৪ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং ৮ সাংগঠনিক সম্পদককে বিভাগীয় দায়িত্ব বণ্টন

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং সাংগঠনিক সম্পাদকদের বিভাগীয় দায়িত্ব বন্টন করা হয়েছে। এছাড়াও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

প্রধানমন্ত্রীর সত্যভাষণ বিএনপির গাত্রদাহের কারণ : ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল

বিএনপি সবসময় প্রযুক্তির বিরোধিতা করে : তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি সবসময় প্রযুক্তির বিরোধিতা করে। মঙ্গলবার

বিএনপি পরিবারতন্ত্র লালন করে : তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পদাক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন

ছাত্রদের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়েছিল জিয়া এরশাদ ও খালেদা জিয়া : প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, জিয়া, এরশাদ, খালেদা জিয়া ছাত্রদের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়ে শিক্ষাঙ্গনকে সন্ত্রাসীদের

sangbad ad