• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯

 

জিয়া হত্যায় বেশি লাভবান খালেদা : ড. হাছান মাহমুদ

নিউজ আপলোড : ঢাকা , শনিবার, ১৩ জুলাই ২০১৯

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
image

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, জিয়াউর রহমানের হত্যাকান্ডে সবচেয়ে বেশি বেনিফিসিয়ারি হয়েছেন বেগম খালেদা জিয়া। তিনি আরও বলেন, ঐ হত্যাকান্ডের সঙ্গে বিএনপির নেতারা জড়িত কিনা সেটাও দেখা দরকার। ১৩ জুলাই শনিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এ্যাভিনিউয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস’ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সহ-সভাপতি ও স্বাধীন বংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী রফিকুল আলমের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন সাবেক খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল চৌধুরী, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা প্রমুখ।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, জিয়াউর রহমান হত্যার পর খালেদা জিয়া দুই মেয়াদে দশ বছর প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। ক্ষমতায় থেকেও জিয়ার হত্যাকান্ড নিয়ে তিনি মামলা করলেন না কেন, মামলাটা চালালেন না কেন? তথ্যমন্ত্রী বলেন, জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে সেনাবাহিনীর কয়েক হাজার অফিসারকে ধরে এনে বিনা বিচারে হত্যা করেন। সেই হত্যাকান্ডেরও বিচার হওয়া দরকার। ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের ষড়যন্ত্রের সঙ্গে যারা জড়িত ছিলো তদন্ত কমিশন করে জিয়াসহ তাদেরও বিচার হওয়া দরকার। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সমালোচনা করে তিনি বলেন, রাজনীতিবিদ হতে হলে জেলের ভয় পেলে হয় না। গ্রেফতার হওয়ার জন্য প্রস্তুৎ থাকতে হয়। ভয় পেলে রাজনীতিবিদ হওয়া যায় না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারাবন্দি হওয়ার সময়ে কথা উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, গত ৩৮ বছরে শেখ হাসিনা সমস্ত প্রতিবন্ধকতা, দুর্বিপাক উপেক্ষা করে বাঙালি জাতির পাশে ছিলেন, আছেন। আজ তিনি শুধু আওয়ামী লীগের নেতা নন, বাংলাদেশর নেতা নন, বিশ্ব নেতায় পরিণত হয়েছেন।

নারী ও শিশু নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহবান জানিয়ে অ্যাড. কামরুল ইসলাম বলেন, সামাজিক অপরাধের সাথে যারা জড়িত সরকার তাদের বিচার করছে। কিন্তু চূড়ান্ত বিচার সমাপ্ত করতে সময় লাগছে। নারী নির্যাতন ও ধর্ষণকারিদের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। এই সব পাপিষ্ঠদের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলে এদের নির্মূল করতে হবে।

টক অব দ্য কান্ট্রি : যুবলীগের নেতৃত্বে কে আসছেন

ফয়েজ আহমেদ তুষার

image

যুবলীগের নতুন নেতৃত্বে কারা আসছেন- এই মুহূর্তে এটিই দেশের রাজনীতিতে সর্বোচ্চ আলোচিত বিষয়। ক্যাসিনো কাণ্ডে সংশ্লিষ্টতায় শীর্ষ নেতাদের

ছাত্রলীগ থেকে অমিত স্থায়ীভাবে বহিষ্কৃত

প্রতিনিধি, ঢাবি

image

আবরার ফাহাদকে হত্যার সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত না থাকলেও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে যোগাযোগের প্রমাণ পেয়ে বাংলাদেশ প্রকৌশল

মহিলা শ্রমিক লীগের সভাপতি সুরাইয়া সম্পাদক সাথী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

সুরাইয়া আক্তারকে সভাপতি ও কাজী রহিমা আক্তার সাথীকে সাধারণ সম্পাদক করে মহিলা শ্রমিক লীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

sangbad ad

শেখ হাসিনার আমলে অপরাধ করে কেউ ছাড় পায়নি, পাবেও না : কাদের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল

দ্বিপাক্ষিক চুক্তি এবং সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরগুলোর প্রায় সবগুলোই একপাক্ষিক : নাগরিক ঐক্য

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

সম্প্রতি ভারত সফরে করা দ্বিপাক্ষিক চুক্তি এবং সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরগুলোর প্রায় সবগুলোই একপাক্ষিক হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক

বিতর্কিতদের বদলে যোগ্যদের পদায়ন শীঘ্রই

আবদুল্লাহ আল জোবায়ের

image

চাঁদাবাজি, পদায়নে অর্থের লেনদেনসহ নানা অভিযোগে ছাত্রলীগের শীর্ষ দুই নেতাকে অপসারণের পর সংগঠনটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ

কেক কেটে জননেত্রী শেখ হাসিনা’র জন্মদিন পালন বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

কেক কাটাসহ নানা আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠ কন্যা, আওয়ামীলীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র জন্মদিন পালন করেছে

তারেক রহমান ক্যাসিনো সম্রাট : তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

তথ্যমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ক্যাসিনো

বিএনপি-জামায়াত ক্যাডারদের অনুপ্রবেশ দশ লাখ টাকায় যুবলীগের সদস্য

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

অর্থের বিনিময়ে পদ বিক্রি এবং অনুপ্রবেশকারীদের কারণেই চরম বিতর্কের মুখে পরেছে আওয়ামী লীগের অন্যতম শক্তিশালী অঙ্গসংগঠন

sangbad ad