• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০

 

হৃদরোগের জন্য স্বতন্ত্র শক্তিশালী উপাদান ট্রান্স ফ্যাট’র ঝুঁকি থেকে রক্ষার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ পিছিয়ে

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০১৯

সংবাদ :
  • যোবায়ের মুরাদ
image

বাংলাদেশে প্রতিবছর হৃদরোগে মারা যায় ২ লাখ ৭৭ হাজারের বেশি মানুষ। যা দেশের মোট মৃত্যুর এক-তৃতীয়াংশ। হৃদরোগ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এটি মহামারীর মতো ছড়িয়ে পড়ার পেছনে অন্যতম কারণ ট্রান্স ফ্যাট। অথচ দেশে উৎপাদিত কোন খাদ্যে কী পরিমাণ ‘ট্রান্স ফ্যাট’ রয়েছে, সে ব্যাপারে সরকারি সুনির্দিষ্ট কোনো জরিপ নেই। ফলে না জেনে, না বুঝেই মানুষ বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্যের সঙ্গে ঝুঁকিপূর্ণ মাত্রার ট্রান্স ফ্যাট গ্রহণ করছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচওর) অগ্রাধিকার লক্ষ্যগুলোর অন্যতম একটি হলো ট্রান্স ফ্যাট নির্মূল করা। শিল্পজাত ট্রান্স ফ্যাটের ক্ষতিকর প্রভাব বিবেচনা করে ২০১৯-২০ সালের মধ্যে খাবারের উৎস থেকে এটি নির্মূলের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে সংস্থাটি। কারণ হিসেবে সংস্থাটি বলছে, একজন ব্যক্তি সারাদিনে যে পরিমাণ ফ্যাট গ্রহণ করে তার সর্বোচ্চ ১ শতাংশ ট্রান্স ফ্যাট গ্রহণ করতে পারবে। অর্থাৎ ২ হাজার ক্যালোরির ডায়াটে তা ২ দশমিক ২ গ্রামের চেয়ে কম হবে। বর্তমানে এটা ২ শতাংশ পর্যন্ত অনুমোদিত।

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা মনে করেন, মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া হৃদরোগ মোকাবেলায় খাদ্য ও তেলের ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ জরুরি। যে দায়িত্ব সরকারকেই নিতে হবে। অথচ দেশে এ ব্যাপারে এখনো কোনো উদ্যোগ নেয়া হয়নি। দেশে শিশু-কিশোর থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ, বিশেষ করে নিম্ন ও মধ্যবিত্ত পরিবারে সদস্যরা প্রচুর পরিমাণে সিঙ্গারা, সমুচা, পুরি, জিলাপির মতো কড়া ভাজা খাবার গ্রহণ করে। যেগুলো সাধারণত পাম তেল দিয়ে কড়া করে ভাজা হয়। ফলে এ সব খাবারে ট্রান্স ফ্যাট থাকায় হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়িয়ে দিচ্ছে।

কার্ডিওভাস্কুলার রোগ নিয়ে কাজ করা চিকিৎসকরা বলছেন, ২০১৫ সালে একটি গবেষণার জন্য ঢাকার বিভিন্ন স্থান থেকে সংগৃহীত ১০টি বিস্কুট পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে তাতে ৫-৩১ শতাংশ পর্যন্ত ট্রান্স ফ্যাট পাওয়া গেছে। যেটা ডব্লিএইচও নির্ধারিত পরিমাণের চেয়ে মোট চর্বির ২ শতাংশের কম হওয়ার কথা হলেও তার চেয়ে বেশি পাওয়া যায়। অথচ ট্রান্স ফ্যাট গ্রহণের হার ২ শতাংশ বাড়লে হৃদরোগের ঝুঁকি ২৩ শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধি পায় এবং হৃদরোগজনিত মৃত্যুর হার ৩৪ শতাংশ বেড়ে যায়। আর শুধু অসেচতনতার ফলে সাধারণ মানুষ অনায়াসে তা গ্রহণ করে অজান্তেই মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকির মুখে পড়ে।

সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞদের মতে, ট্রান্স ফ্যাট এক ধরনের হাইড্রোজেনেটেড অয়েল। বিজ্ঞানের ভাষায়, রাসায়নিক বিক্রিয়ায় হাইড্রোজেন গ্যাস থেকে রূপান্তরিত তেল হাইড্রোজেনেটেড অয়েল নামে পরিচিত। অর্থাৎ ‘স্বাভাবিক অবস্থায় তরল থাকলেও ২০ ডিগ্রি তাপমাত্রায় যে চর্বিজাতীয় পদার্থ জমাটবদ্ধ হয় তাই ট্রান্স ফ্যাট। এ ছাড়া উচ্চ তাপমাত্রায় দাহ্য তেল বা চর্বিও ট্রান্স ফ্যাটে রূপান্তরিত হয়। এটা প্রাথমিক চর্বির উৎস যা রক্তের কোলস্টেরেল বাড়িয়ে দেয়। ‘ট্রান্স ফ্যাট’ ট্রান্স আইসোমার ফ্যাটি এসিড হিসেবেও পরিচিত। ট্রান্স ফ্যাট হার্টের যে কোনো রোগের জন্য স্বতন্ত্র শক্তিশালী উপাদান।

তারা আরও জানান, ট্রান্স ফ্যাটি অ্যাসিড (টিএফএ) প্রাকৃতিক বা শিল্প উৎস থেকে আসা এক ধরনের অসম্পৃক্ত ফ্যাটি অ্যাসিড। প্রাকৃতিক ট্রান্স ফ্যাট (আরটিএফএ) দুধ, মাখন, ঘি, গরু, ছাগলের মাংসের মত প্রাণীজ উৎস থেকে আসে এবং একটি নির্দিষ্ট মাত্রা পর্যন্ত তেমন একটা ক্ষতিকর নয়। তবে শিল্পক্ষেত্রে উৎপাদিত ট্রান্স ফ্যাট (আইটিএফএ) উদ্ভিজ্জ তেলের হাইড্রোজেনেশনের সময় গঠিত হয়। এই আংশিকভাবে ব্যবহৃত হাইড্রোজেনেটেড তেল (পিএইচও) শিল্পে উৎপাদিত ট্রান্স ফ্যাটের প্রধান উৎস।

ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের রোগতত্ত্ব ও গবেষণা বিভাগের প্রধান অধ্যাপক সোহেল রেজা চৌধুরী সংবাদকে বলেন, দেশে হৃদরোগ মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। এই ঝুঁকি মোকাবেলায় সরকারকে উদ্যোগ নিতে হবে। তিনি আরও বলেন, অনেক দেশ তাদের জনগণকে ট্রান্স ফ্যাটের স্বাস্থ্য ঝুঁকি থেকে রক্ষা করার জন্য অনেক কিছু করেছে। কিন্তু বাংলাদেশ এ ক্ষেত্রে অনেক পিছিয়ে আছে। তাই সরকারের উচিত যত দ্রুত সম্ভব প্রক্রিয়াজাত ও শিল্পখাতে উৎপাদিত খাবারে ট্রান্স ফ্যাটের মাত্রা নির্দিষ্ট করে দেয়া। পাশাপাশি টিএফএ’র স্বাস্থ্য ঝুঁকি সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করা। জরুরি ভিত্তিতে ট্রান্স ফ্যাটের ঝুঁকি কমাতে একটি সুনির্দিষ্ট কর্ম পরিকল্পনা গ্রহণ করা বলে মন্তব্য করেন তিনি।

দেশে করোনায় আক্রান্ত ৩৬ হাজার ৭৫১: মৃত্যু ৫২২

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণে ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে; নতুন শনাক্ত হয়েছেন এক হাজার ১৬৬ জন। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট মৃত্যু হয়েছে ৫২২ জনের, মোট শনাক্ত হয়েছেন ৩৬ হাজার ৭৫১ জন।

করোনায় মৃত্যু প্রায় সাড়ে ৩ লাখ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে। গত ডিসেম্বরের শেষে চীনের উহানে শুরু হওয়া করোনার সংক্রমণ বিশ্বের ২১৫টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে।

অসহায়দের পাশে থাকাতে সামর্থ্যবানদের প্রতি আহ্বান তথ্যমন্ত্রীর

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ পবিত্র ঈদে দরিদ্র অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে সামর্থ্যবানদের আহ্বান জানিয়েছেন।

sangbad ad

জাতীয় কবি নজরুলের জন্মবার্ষিকী উদযাপিত

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২১তম জন্মবার্ষিকী আজ উদ্যাপিত হয়েছে।

করোনা সংকটে দরিদ্রদের পাশে দাঁড়াতে সমাজের বিত্তবানদের প্রতি আহবান রাষ্ট্রপতির

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ করোনাভাইরাস জনিত সংকট এবং বাংলাদেশের উপকুল এলাকার ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া সাম্প্রতিক ঘূর্ণীঝড় আম্পানের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্থ দরিদ্র জনগণের পাশে দাঁড়াতে সমাজের বিত্তবানদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

ঈদ উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা ও ঈদ উপহার

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুসলমানদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে দেশের সকল মুক্তিযোদ্ধাদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী আজ (২৫ মে) সকালে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের গজনবী রোডে মুক্তিযোদ্ধা পুনর্বাসন কেন্দ্রে (মুক্তিযাদ্ধা টাওয়ার-১) বসবাসরত শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্য এবং যুদ্ধাহত পঙ্গু মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ফুল, ফল ও মিষ্টি পাঠান।

যথাযোগ্য মর্যাদায় সারাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে আজ সারাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হচ্ছে। মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে ঈদকে ঘিরে যে আনন্দ-উচ্ছাস থাকার কথা তা এবার ম্লান করে দিয়েছে মহামারী করোনাভাইরাস।

দেশে করোনায় মৃত্যু পাঁচশ ছাড়াল

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণে ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে; নতুন শনাক্ত হয়েছেন সর্বোচ্চ ১৯৭৫ জন। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট মৃত্যু হয়েছে ৫০১ জনের, শনাক্ত হয়েছেন ৩৫ হাজার ৫৮৫ জন।

বায়তুল মোকাররমে ঈদের ৫টি জামাত

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

আজ সোমবার পবিত্র ঈদুল ফিতর। দেশজুড়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে এবার ঈদুল ফিতরের জামাত আয়োজনের ক্ষেত্রেও সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছে। জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে এবং কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহেও এবার হচ্ছে না ঈদ জামাত। ইসলামিক ফাউেন্ডশন জানিয়েছে, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে পর্যায়ক্রমে পাঁচটি ঈদের নামাযের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৭টায়। পর্যায়ক্রমে ৮টা, ৯টা, ১০টা ও পৌঁণে ১১টায় পরবর্তী জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

sangbad ad