• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯

 

সিন্ডিকেটের কারণে ২৪ বার পিয়াজের দাম বৃদ্ধি

নিউজ আপলোড : ঢাকা , রোববার, ০৩ নভেম্বর ২০১৯

সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক
image

পিয়াজের সিন্ডিকেটের কারণে সম্প্রতি মোট ২৪ বার পিয়াজের দাম বৃদ্ধি হয়েছে। আর এই দাম বৃদ্ধির কারণে ভোক্তার ক্ষতি হয়েছে ৩ হাজার ১৭৯ কোটি ৩৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা। পিয়াজের এই সিন্ডিকেট ভোক্তার কাছে থেকে প্রতিদিন ৫০ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তারা যে পরিমাণ অর্থ হাতিয়েছে, তা দিয়ে আরেকটি বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করা সম্ভব। ৩ নভেম্বর রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছে কনসাস কনজ্যুমারস সোসাইটি নামে একটি সংগঠন। সংগঠনটির সম্প্রতি এক গবেষণায় এমন তথ্য উঠে এসেছে। গত চার মাসে সাধারণ বাজার এবং সরকারি বিপণন সংস্থা টিসিবির বাজার মূল্যের তথ্যেরভিত্তিতে সংস্থাটি এ প্রতিবেদন তৈরি করেছে। সংবাদ সম্মেলনে কনসাস কনজ্যুমারস সোসাইটির নির্বাহী পরিচালক পলাশ মাহমুদ বলেন, গত ১ জুলাইয়ে পিয়াজের দাম ছিল ৩০ টাকা। ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে মাত্র একদিনের (২ জুলাই) ব্যবধানে পিয়াজের মূল্য কেজিপ্রতি বেড়ে যায় ১৫ টাকা। এর পর থেকে নানা অজুহাতে বাড়তে থাকে পিয়াজের দাম। বিক্রেতাদের অজুহাতের মধ্যে ছিল আমদানি খরচ বৃদ্ধি ও সরবরাহ কম। গত চার মাসে মোট ২৪ বার পিয়াজের দাম ওঠানামা করেছে। দেশের ১৮ কোটি ভোক্তা কতিপয় সিন্ডিকেটের কাছে বন্দী। ইতোমধ্যে চট্টগ্রামে ১৩ সদস্যের একটি সিন্ডিকেট শনাক্ত করা হয়েছে। চার মাস সময়ের মধ্যে বাণিজ্যমন্ত্রী অন্তত পাঁচবার স্বীকার করেছেন যে সিন্ডিকেটের কারণে পিয়াজের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু মন্ত্রী এটা স্বীকার করলে সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি যা ভোক্তাদের হতাশ, ব্যথিত ও ক্ষুদ্ধ করেছে। তিনি আরও বলেন, চার মাসে ভোক্তার ক্ষতি হয়েছে ৩ হাজার ১৭৯ কোটি ৩৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা। এ সময়ের মধ্যে শুধু জুলাই মাসে এ সিন্ডিকেট ৩৯৭ কোটি ৬৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে, আগস্টে ৪৯১ কোটি ৪৩ লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকা, সেপ্টেম্বরে ৮২৫ কোটি ২৬ লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকা, অক্টোবরে ১৪০০ কোটি ৯৯ লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়। দিনে প্রায় ৫০ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে তারা। এসব অর্থ দিয়ে দ্বিতীয় বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপন করা সম্ভব। এ সিন্ডিকেটের কারণে শুধু ভোক্তারা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন না সরকরাও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। সরকারে নানাবিধ উন্নয়ন প্রকল্প, দুর্নীতিবিরোধী অভিযান, চলমান ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানের বিষয়ে যে সুনাম তৈরি হয়েছে এ সিন্ডিকেটের কারণে তা ম্লান হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, বিভিন্ন দেশ থেকে গড়ে প্রতিদিন ৫০০ টন পিয়াজ আসেছ যার ক্রয় মূল্য কেজিপ্রতি ২৬ থেকে ৪২ টাকা, গড়ে ৩৪ টাকা। সে হিসেবে যে পরিমাণ বিদেশি পিয়াজ আসছে তার বিক্রয় মূল্য ৫০ টাকার বেশি হওয়া অস্বাভাবিক। সম্প্রতি খুচরা বাজারে পিয়াজের মূল্য কেজিপ্রতি ১২০ থেকে ১৫০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে। ক্ষেত্র বিশেষ এটা ১৫০ টাকাও ছাড়িয়েছে কোথাও কোথাও। দেশের ইতিহাসে এটাই সর্বোচ্চ দাম। এ কারণে নিত্যপণ্যটি এখন মানুষের ক্রয় ক্ষমতায় বাইরে চলে গেছে আর দরিদ্র মানুষের কাছে এটি এখন দুর্লভ বস্তুতে পরিণত হয়েছে। এ সময় সিন্ডিকেট থেকে ভোক্তাকে রক্ষা ও সরকারের সুনাম রক্ষায় ৪টি উপস্থাপন দাবি করা হয়। তাদের দাবির মধ্যে ছিল, ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানের মতো মূল্য সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে দ্রুত অভিযান পরিচালনা করা, দ্রুত সময়ের মধ্যে পিয়াজের মূল্য নির্ধারণ করা, পিয়াজ ছাড়াও যেকোন পণ্যে অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধি হলে সরকার থেকে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত সর্বোচ্চ মূল্য ঘোষণা করা এবং ন্যায্য মূল্য নিশ্চিতে অংশীজনদের নিয়ে ভোক্তা অধিদফতরে একটি সেল গঠন ও সার্বক্ষণিক তদারকি করা।

সংগঠনটির গবেষণায় আরও উঠে আসে, প্রথম ধাপে ১৫ টাকা বাড়িয়ে ৪৫ টাকায় বিক্রি করা হয়। দ্বিতীয় ধাপে ১০ টাকা বাড়িয়ে ৫৫ টাকা করা হয়। তৃতীয় ধাপে কেজিতে ২২ টাকা বেশি নিয়ে পিয়াজ ব্যবসায়ীরা লুটেছে ৮৭ কোটি ৭৮ লাখ টাকা। চতুর্থ ধাপে কেজিতে ১৮ টাকা বেশি নিয়ে তারা লুটেছে ১৪৩ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। পঞ্চম ধাপে কেজিতে ১৮ টাকা বেশি নিয়ে ব্যবসায়ীরা লুটেছে ৭১ কোটি ৮২ লাখ টাকা। ষষ্ঠ ধাপে কেজিতে ২০ টাকা বেশি নিয়ে ব্যবসায়ীরা বাড়তি মুনাফা নিয়েছে ১৪৬ কেটি ৩০ লাখ টাকা। সপ্তম ধাপে ২২ টাকা বাড়িয়েছে লুটেছে ১৪ কোটি ৬৩ লাখ টাকা। অষ্টম ধাপে ১৯ আগস্ট কেজিতে ২৫ টাকা বেশি নিয়ে ব্যবসায়ীরা বাড়তি মুনাফা করেছে ১৬ কোটি ৬২ লাখ ৫০ হাজার টাকা। নবম ধাপে কেজিতে ৩০ টাকা বেশি নিয়ে ব্যবসায়ীরা লুটেছে ১৯৯ কোটি ৫০ লাখ টাকা। দশম ধাপে কেজিতে ৩২ টাকা বেশি নিয়ে ব্যবসায়ীরা পিয়াজ থেকে লুটেছে ৪২ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। ১১তম ধাপে কেজিতে ৩০ টাকা বেশি নিয়ে তারা লুটেছে ২৫৯ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। ১২তম ধাপে ৪৫ টাকা বেশি নিয়ে ব্যবসয়ীরা লুটেছে ১৭৯ কোটি ৫৫ লাখ টাকা। ১৩তম ধাপে ৫২ টাকা বেশি নিয়ে ব্যবসায়ীরা লুটেছে ১০৩ কোটি ৭৪ লাখ ৪০ হাজার টাকা। ১৪তম ধাপে কেজিতে ৫০ টাকা, ১৫তম ধাপে কেজিতে ৭৫ টাকা, ১৬তম ধাপে কেজিতে ৭৮ টাকা, ১৭তম ধাপে কেজিতে ৬৮ টাকা, ১৮তম ধাপে কেজিতে ৫৮ টাকা, ১৯তম ধাপে কেজিতে ৪৮ টাকা, ২০তম ধাপে কেজিতে ৫০ টাকা, ২১তম ধাপে কেজিতে ৬৮ টাকা, ২২তম ধাপে কেজিতে ৭৩ টাকা, ২৩তম ধাপে কেজিতে ৯৩ টাকা ও সর্বশেষ ২৪তম ধাপে কেজিতে ১০৮ টাকা বেশি নিয়ে কোটি কোটি টাকা লুটপাট করেছে পিয়াজ ব্যবসায়ীরা। এভাবে গত ১২২ দিনে পিয়াজ সিন্ডিকেটকারীরা দেশের ভোক্তার পকেট থেকে লুটে নিয়েছে ৩ হাজার ১৭৯ কোটি টাকা।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন কনসাস কনজ্যুমারস সোসাইটির মিডিয়া সেলের প্রধান জয়কৃষ্ণ জয়, ডাকা কালেকশন সেলের শরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

পিয়াজের দাম বৃদ্ধির স্থায়ী সমাধান চেয়ে আইনী নোটিশ

পিয়াজের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি রোধ এবং দাম বৃদ্ধির স্থায়ী সমাধান চেয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রাজস্ব বোর্ডকে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। আগামী সাত দিনের মধ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ না করা হলে রিট করা হবে বলে জানানো হয়। রোববার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোহাম্মদ মাহমুদুল হাসান এ নোটিশ পাঠিয়েছেন। সম্প্রতি দেশে অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে গেছে পিয়াজের দাম। বর্তমানে দেশের খুচরা বাজারে পিয়াজের কেজি ১৫০ টাকার ওপরে। প্রতিদিনই বাড়ছে দাম। বাণিজ্যমন্ত্রী ইতোমধ্যেই পিয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারার বিষয়ে দুঃখ প্রকাশ করেছেন। নিত্যপ্রয়োজনীয় এই দ্রব্যটির দাম বৃদ্ধি পাওয়া বিপাকে নিম্ন আয়ের মানুষ। অবশ্য সরকারিভাবে টিসিবি ৪৫ টাকা করে পিয়াজ বিক্রি করছে। কিন্তু সেখানেও চাহিদামদ পিয়াজ না যাওয়ার অভিযোগ করেছেন ক্রেতারা।

নোটিশে পিয়াজ নিয়ে এ সমস্যার স্থায়ী সমাধান হওয়া দরকার। এক্ষেত্রে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রাজস্ববোর্ডকে যথাযথ উদ্যোগ নিতে হবে। পিয়াজ নিয়ে সব প্রকার বৈদেশিক রাজনৈতিক খেলা বন্ধ করার জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে আমদানি নীতি বিশেষ শর্ত আরোপ করতে হবে। একইসঙ্গে রাজস্ব বোর্ডকে বিশেষ শুল্ক নীতি প্রণয়ন করতে হবে।

নোটিশে বলা হয়েছে, গত ২৯ সেপ্টেম্বর ভারত সরকার আকস্মিকভাবে পিয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণার কারণে বাংলাদেশে পিয়াজের মূল্য অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যায়। নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য পিয়াজ আমদানিতে এক দেশের ওপর নির্ভরশীল হয়ে না থাকতে এ শুল্ক নীতি প্রণয়ন করতে বলা হয়েছে।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে ভারত কর্তৃপক্ষ পিয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণা করে। বিকল্প হিসেবে বাংলাদেশ মায়ানমার থেকে এলসি এবং বর্ডার ট্রেডের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় পিয়াজ আমদানি শুরু করে। পাশাপাশি মিসর ও তুরস্ক থেকেও এলসির মাধ্যমে পিয়াজ আমদানি শুরু হয়। সম্প্রতি মায়ানমারও পিয়াজের মূল্যবৃদ্ধি করেছে। ফলে বাংলাদেশের বাজারেও এর প্রভাব পড়েছে।

সশস্ত্র বাহিনীর বীর শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন

বাসস

image

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ অ্যাডভোকেট ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘সশ্রস্ত্র বাহিনী দিবস-২০১৯’ উপলক্ষে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর

নেপাল ও ভুটানকে শীতকালে বাংলাদেশ থেকে বিদ্যুৎ নেয়ার পরামর্শ নসরুল হামিদের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু শীতকালে নেপাল ও ভুটানকে বাংলাদেশ থেকে বিদ্যুৎ নেয়ার (আমদানির)

পিইসি পরীক্ষায় শিশুদের বহিষ্কার কেন অবৈধ নয় : হাইকোর্ট

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষায় শিশুদের বহিষ্কার করা কেন অবৈধ হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট

sangbad ad

সাম্যের ভিত্তিতে টেকসই ও শান্তিময় বিশ্ব গড়ে তুলতে হবে : স্পিকার

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে সাম্যের ভিত্তিতে টেকসই ও শান্তির

এক সপ্তাহের মধ্যে দাম নিয়ন্ত্রণে না আসলে বিষয়টি দেখবে উচ্চ আদালত

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাওয়া পিয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে আপাতত কোন হস্তক্ষেপ করবে না হাইকোর্ট। তবে এক সপ্তাহের মধ্যে দাম নিয়ন্ত্রণে

অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে সরকারি ব্যয়ে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে : স্পিকার

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা ও গণতন্ত্র শক্তিশালী করতে সরকারি ব্যয়ে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা

সৌদি আররে নির্যাতিত নারীশ্রমিক ও তাদের পরিবারগুলোর ক্ষতিপূরণের দাবি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

সৌদি আররে নির্যাতন-নিপীড়নের শিকার নারীশ্রমিক ও তাদের পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপূরণ দেয়ার পাশাপাশি তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত

সরকারি আইন কর্মকর্তা নিয়োগে স্বাধীন প্রসিকিউশন কেন নয়?

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

সরকারি আইন কর্মকর্তা নিয়োগে স্বাধীন প্রসিকিউশন/অ্যাটর্নি সার্ভিস কমিশন

পদ্মা সেতুর ব্যয় তিন দফায় বেড়ে ৩০ হাজার কোটি টাকা

মাহমুদ আকাশ

image

ঋণের টাকায় নির্মাণ হচ্ছে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ স্বপ্নে পদ্মা সেতু। তবে বিদেশি নয়, স্বয়ং অর্থ মন্ত্রণালয়ের ঋণের টাকায় নির্মাণ

sangbad ad