• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ২২ জানুয়ারী ২০১৯

 

মিথ্যা তথ্য দিলে অভিযোগকারীর বিচার হবে : সিইসি

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বুধবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৮

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
image

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অপরাধ দমনে নির্বাচনী তদন্ত কমিটির (ইলেক্টোরাল ইনকোয়ারি কমিটি) বিচারকদের সম্পূর্ণ ক্ষমতা প্রয়োগের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদা। বুধবার (৫ ডিসেম্বর) নির্বাচন ভবনে তদন্ত কমিটির বিচারকদের প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে সিইসি এ নির্দেশনা দেন। কেএম নুরুল হুদা জানান, বিচারকদের সমন্বয়ে প্রতি জেলায় নির্বাচনী তদন্ত কমিটি গঠন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তাদের নির্বাচন আচরণবিধি প্রতিপালনসহ অপরাধ আমলে নিয়ে বিচার কাজ করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সেই দায়িত্ব সুন্দরভাবে পালন করতে হবে। এ জন্য বিচারকদের আরও সক্রিয়ও হতে হবে। তিনি আরও বলেন নির্বাচন সংক্রান্ত মিথ্যা তথ্য দিয়ে অভিযোগ দিলে সংশ্লিষ্ট অভিযোগকারীর বিচার হবে। তিনি বলেন, তদন্ত কমিটির বিচারকদের নির্বাচনী মাঠে সম্পূর্ণ শক্তি প্রয়োগ করতে হবে। যেকোনো প্রার্থীর অভিযোগ আমলে নিয়ে ব্যবস্থা নিতে হবে। ‘ইতিমধ্যে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গসহ নানা অপরাধের প্রতিকার না পাওয়ার অভিযোগ আসা শুরু করেছে কমিশনে। মাঠ পর্যায়ে তদন্ত কমিটি নিরব রয়েছে।’ এসময় যুগ্ন জজ পর্যায়ের বিচারকদের সমন্বয়ে গঠিত কমিটিগুলো তাদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন না করায় সিইসি তাদের ওপর ক্ষোভও প্রকাশ করেন। পরে সিইসি বিচারকদের উদ্দেশে বলেন, তদন্ত কমিটির বিচারকদের দৃশ্যমান হয়ে তাদের নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করতে হবে। আমরা প্রত্যেকদিন শত শত অভিযোগ পাই। কিন্তু এসব অভিযোগ আমাদের কাছে আসার কথা নয়। কারণ আপনারা সেখানে রয়েছেন। আমরা অভিযোগগুলো আপনাদের কাছে পাঠিয়ে দেবো। কিন্তু প্রয়োজন ছিল, অভিযোগগুলো সরাসরি আপনাদের কাছে যাবে, কিন্তু সেটা যায় না।

সিইসি আরো বলেন, আপনাদের ভিজিবল (দৃশ্যমান) হতে হবে। তার মানে এখন পর্যন্ত কিন্তু ভিজিবল হননি, বাস্তবতা হলো এটা। এর কারণ আপনাদের যে এতো বড় দায়িত্ব আছে, সে সম্পর্কে মানুষ ওয়াকিবহাল না। ওকাকিবহাল হবেন তখনই, যখন আপনারা ভাইব্রেন্ট হবেন, ভিজিবল হবেন।

‘আপনাদের কাজের মাধ্যমে পরিচিতি যখন বাড়বে, আপনাদের ওপর মানুষ আস্থা রাখবে, আপনাদের যখন চিনবে, আপনাদের কমিটিকে যখন চিনবে- তখন থেকে আপনাদের ওপর দায়িত্ব আসবে। ঢাকায় নির্বাচন কমিশনে আর শত শত অভিযোগ আসবে না। ২৫ নভেম্বর ইলেক্টোরাল ইনকোয়ারি কমিটি গঠনের পর থেকে আশানুরূপ তদন্ত হয়নি।’

সিইসি বলেন, আমরা চেয়েছিলাম একটা করে হলেও ১২২টি তদন্ত সম্পন্ন হবে। সে প্রত্যাশা ছিল আমাদের। কিন্তু ১০০টিও না, ২২টিও হয়নি। কেননা, এখন পর্যন্ত আপনারা প্রস্তুতি নিয়ে গুছিয়ে উঠতে পারেননি।

নুরুল হুদা আরও বলেন, আপনারা আপনাদের করণীয় যথাযথভাবে পালনের মাধ্যমে মানুষের অভিযোগ শুনবেন, আমলে নেবেন। কোন অভিযোগ যেন ঢাকা পর্যন্ত না আসে, এলাকায় বসে সমাধান পেতে হবে।

তিনি আরও বলেন, সরকারের উদ্দেশ্য ছিল গণপ্রতিনিধিত্ব অধ্যাদেশ (আরপিও) পরিবর্তন করে জনগন প্রতিটা সমস্যার সমাধান যেন কাছাকাছি পায়- সেই ব্যবস্থা করা। তারা যেনো তাদের সমস্যা নিয়ে এখানে-ওখানে ছুটাছুটি না করে আপনাদের সামনে পেয়ে আপনাদের কাছে অভিযোগগুলো পেশ করতে পারে। ‘আপনাদের ওপর যে দায়িত্ব অর্পিত হয়েছে, সে দায়িত্ব পালনে আপনাদের প্রো অ্যাকটিভ হতে হবে। মানুষকে জানাতে হবে আপনারা আছেন। অনুষ্ঠানে নির্বাচন কমিশনার (ইসি) মাহবুব তালুকদার, রফিকুল ইসলাম, কবিতা খানম, শাহাদাত হোসেন চৌধুরী, ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পরে নির্বাচন কমিশনাররা বলেন, এবারের নির্বাচনে সব দল অংশ নিচ্ছে। তাই এটি গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচন। নির্বাচনী তদন্ত কমিটির প্রত্যেককে সমান গুরুত্ব দিয়ে তাদের দায়িত্ব পালন করতে হবে।

সততা ও জবাবদিহিতার সঙ্গে কাজ করতে হবে : নতুন মন্ত্রীদের প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ, জনবান্ধব প্রশাসন গড়া এবং কোন কাজ ফেলে না রাখতে মন্ত্রিসভার সদস্যদের নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

মন্ত্রিসভায় রাষ্ট্রপতির ভাষণের খসড়া অনুমোদন

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

একাদশ জাতীয় সংসদের উদ্বোধনী অধিবেশনে রাষ্ট্রপতি যে ভাষণ দেবেন, তার খসড়া অনুমোদন

পহেলা মার্চ জাতীয় ভোটার দিবস উদযাপন করবে ইসি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

দেশের নাগরিকদের মধ্যে ভোটাধিকার ও জাতীয় পরিচয়পত্র সম্পর্কে সচেতনা বাড়াতে প্রথমবারের

sangbad ad

‘উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে সবার জন্য কাজ করব’ : প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

উন্নত সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ গড়তে দল-মত নির্বিশেষে সবার জন্য কাজ করার অঙ্গীকার

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে নানা চেষ্টা

সাইফ বাবলু

image

সড়কে শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে রাজধানীতে পক্ষকালব্যাপী পুলিশের ট্রাফিক শৃঙ্খলা পক্ষের ৩

সরকারের প্রধান লক্ষ্য জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বর্তমান সরকারের প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে সুশাসনের মাধ্যমে

শিক্ষা প্রশাসনে বড় পরিবতর্ন আসছে

রাকিব উদ্দিন

image

শিক্ষা প্রশাসনে বড় ধরনের রদবদল আসছে। রাজধানীর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ‘লোভনীয়’ পদে

ইশতেহার বাস্তবায়নই প্রথম লক্ষ্য

মোস্তাফিজুর রহমান

image

নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়নেই মনোযোগ সরকারের। চলতি মেয়াদের শুরু থেকে

নিজের জন্যই ট্রাফিক আইন মানা উচিত : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

আমাদের নিজেদের জন্যই ট্রাফিক আইন মানা প্রয়োজন। দ্রুত যাওয়ার চাইতে জীবন

sangbad ad