• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৪ আগস্ট ২০১৮

 

সড়ক-মহাসড়কের বেহাল দশা

মন্ত্রীর নির্দেশ কার্যকর হয়নি ২০ দিনেও

নিউজ আপলোড : ঢাকা , রবিবার, ১০ জুন ২০১৮

সংবাদ :
  • মাহমুদ আকাশ
image

সারাদেশের খানাখন্দ সড়ক সংস্কারে সড়ক ও সেতুমন্ত্রীর নির্দেশ বাস্তবায়ন হয়নি ২০ দিনেও। ঈদযাত্রার আগে ৮ জুনের মধ্যে সব সড়ক-মহাসড়কের সংস্কার কাজ শেষ করে যান চলাচলের উপযোগী রাখার নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি। গত ১৯ মে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুরের কালিয়াকৈর এলাকা পরিদর্শন শেষে স্থানীয় প্রশাসনের কার্যালয়ে জেলা প্রশাসন ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময়ে তিনি এ নির্দেশ দেন। কিন্তু তার নির্দেশ পুরোপুরি বাস্তবায়ন হয়নি এখনও। ঈদের আর মাত্র ৭ দিন বাকি। খানাখন্দে ভরা খুব বাজে অবস্থায় আছে ঢাকা-গাজীপুর, ঢাকা-সিলেট, কুমিল্লা-সিলেট, ঢাকা-বরিশাল ও ঢাকা-খুলনা-যশোর মহাসড়ক। এছাড়া বেহাল অবস্থা আঞ্চলিক সড়ক-মহাসড়কগুলোর। এর মধ্যে ঢাকা-ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা-নোয়াখালী, নোয়াখালী-লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর-লক্ষ্মীপুর ও হবিগঞ্জ-সিলেটসহ সারাদেশের আঞ্চলিক মহাসড়কগুলো যান চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। যা ঈদযাত্রায় চরম ভোগান্তির কারণ হয়ে দাঁড়াবে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। পাশাপাশি চারলেন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দুই লেনের তিনটি সেতু ও ওজন নিয়ন্ত্রণ যন্ত্রের কারণে ঈদের আগেই যানজটের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে যাত্রীদের। এছাড়া ঢাকা-রাজশাহীসহ উত্তরাঞ্চলের বেশিরভাগ সড়কে যানবাহনের অধিক চাপের কারণে যানজট লেগেই থাকে। তাই এবার ঈদযাত্রায় খানাখন্দে ভরা সড়কের কারণেও ভোগান্তির কারণ হবে জানান স্থানীয়রা।

তবে ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ঘরমুখী মানুষের সড়কে কোন দুর্ভোগ হবে না বলে আশ্বাস দিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ঈদ উপলক্ষে ঘরমুখী মানুষের সড়কপথে যানজটের কারণে কোন দুর্ভোগ হবে না। আমি আশ্বস্ত করে বলছি, সংকট হলে আমি নিজেই গিয়ে দাঁড়াব। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) সদর দফতর ঢাকার তেজগাঁওয়ের এলেনবাড়ীতে শনিবার (৯ জুন) ঈদ প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে সাংবাদিকদের কাছে এই মন্তব্য করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘ঈদে সড়কের চিন্তায় আমার রাতের ঘুম অর্ধেক নষ্ট হয়ে গেছে। ভারী বৃষ্টি হলে যান চলাচলে ধীরগতি হতে পারে, তবে থমকে যাবে না। নিয়মিত তদারকি করা হচ্ছে- এবার সড়কের অবস্থা ভালো থাকবে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের অবস্থা ভালো। ঢাকা-এলেঙ্গা সড়কে চার লেনের কাজের জন্য খোঁড়াখুঁড়ি ঈদ উপলক্ষে বন্ধ থাকবে বলেও জানান।

জানা গেছে, সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগ থেকে আবদুল্লাহপুর থেকে গাজীপুর চৌরাস্তা পর্যন্ত মহাসড়কের দুই পাশে পানি নিষ্কাশনের জন্য চলমান ড্রেন খোঁড়াখুঁড়ি কাজ আপাতত বন্ধ রেখে খোদাইকৃত ড্রেন ভরাট করার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল। কিন্তু বাস্তবে কিছুই হয়নি। মহাসড়কের দুই পাশে ড্রেনের কাজ এলোমেলো করে ফেলে রাখা হয়েছে। খোদাইকৃত জায়গা ভরাট করা হয়নি। এর ফলে সড়কে কাদামাটিতে একাকার অবস্থা। কাজের ধীরগতির কারণে এখনও প্রতিনিয়ত যানজট সৃষ্টি হচ্ছে ঢাকা-গাজীপুর মহাসড়কে। এর ফলে টঙ্গী থেকে গাজীপুর চৌরাস্তা ও চৌরাস্তা থেকে টাঙ্গাইল এবং ময়মনসিংহ মহাসড়কে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। যা ঈদের সময় আরও তীব্র হবে বলে স্থানীয়রা জানান। এছাড়া আবদুল্লাহপুর হতে গাজীপুর পর্যন্ত মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে ৩৩টি গ্যাপ ও ইউটার্ন চিহ্নিত করা হয়েছে। বৈঠকে মহাসড়কে যানজট সৃষ্টির জন্য যত্রতত্র বাস/মিনিবাস স্টপেজ, অবৈধ দোকান/কাঁচাবাজার/স্থাপনা, ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যানের অবৈধ পার্কিং, শিল্প কারখানা/গার্মেন্টস লিকুইড বর্জ্য, মহাসড়কের দ্ইু পাশে ড্রেনের পানির নির্গমন ব্যবস্থার অভাব, মহাসড়কের পাশে সিটি করপোরেশনের ময়লা-আবর্জনার স্তূপ, মহাসড়কে ব্যাটারি চালিত রিকশা, ইজিবাইক, ভ্যান, লেগুনা চলাচল এবং অবৈধ স্ট্যান্ডের কারণে প্রতিনিয়ত যানজট সৃষ্টি হয়। এ সব বিষয়গুলো ঈদের আগে সমাধানের সড়ক ও জনপথ অধিদফতর (সওজ)সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়। কিন্তু ঈদের ৭ দিন আগেও এসব সিদ্ধান্ত এখনও বাস্তবায়ন হয়নি বলে স্থানীয়রা জানান। এর ফলে ঈদযাত্রায় মহাসড়কে যানজটসহ চরম ভোগান্তি পোহাতে হবে বলে স্থানীয়রা জানান।

পুলিশ সূত্র জানায়, গাজীপুরের ছয়দানা, চান্দনা-চৌরাস্তা ও ভোগড়া বাইপাস মোড় এলাকায় নালা নির্মাণের কাজ চলছে। কাজ শুরুর আগে বিকল্প রাস্তার ব্যবস্থা করা হয়নি। রাস্তার প্রশস্ততা কমে যাওয়ায় এই জট। নালা নির্মাণ করতে গিয়ে রাস্তার ওপর মাটি ও ময়লা ফেলে রাখায় যানজট হচ্ছে। এছাড়া ওভার ব্রিজ ও বিআরটি রুট নির্মাণ প্রকল্পের কাজ শুরুর আগে বিকল্প সড়ক বানানোর প্রস্তাবনা থাকলেও বাস্তবে তা না হওয়ায় জট লাগছে। নাওজোর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মো. অহিদুজ্জামান বলেন, চান্দনা-চৌরাস্তায় ফ্লাইওভার নির্মাণের কাজ চলছে। ভোগড়া বাইপাস মোড়েও চলছে ফ্লাইওভারের কাজ। মহাসড়কের পাশে জলাবদ্ধতা আছে অনেক জায়গায়। মহাসড়কে ট্রাকস্ট্যান্ড আরেকটা কারণ। ফুটপথ দখল করে দোকানপাট বসানো হয়েছে বহু জায়গায়। আর শিল্প এলাকা হওয়ায় লাখ লাখ শ্রমিক ও এলাকাবাসী চলাচল করার সময় জট লেগে যায় বলে তিনি জানান। শুকনো মৌসুমে এই জট মোটামুটি সহনীয় থাকলে বর্ষায় ভোগান্তি বেড়ে যায়। ভোগড়া বাইপাস, চৌধুরীবাড়ি, বাসন সড়ক, ছয়দানা, মালেকের বাড়ি, সাইনবোর্ড এলাকায় মহাসড়কের পাশে প্রায়ই জলাবদ্ধতা দেখা যায়।

সরেজমিনে দেখা গেছে, রাস্তার আশপাশে অসংখ্য পোশাক কারখানা থাকলেও তাদের গাড়ির জন্য কোন পার্কিং ব্যবস্থা নেই। ফলে তাদের পণ্যবাহী গাড়ি, প্রাইভেট কার রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে কাজ সারে। টঙ্গী থেকে চান্দনা চৌরাস্তা পর্যন্ত ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাড়কের দুই পাশে, চান্দনা চৌরাস্তা থেকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের কালিয়াকৈরের চন্দ্রা পর্যন্ত, চান্দনা চৌরাস্তা থেকে জেলা শহরের শিববাড়ি পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশে অসংখ্য ছোট-বড় কারখানা রয়েছে। এছাড়া চান্দনা চৌরাস্তার পশ্চিমে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের পাশে রড-সিমেন্টের ছোট-বড় অসংখ্য দোকান রয়েছে। এসব দোকানের সামনে বড় বড় গাড়ি থামিয়ে লোড-আনলোড করতে গিয়েও মহাসড়কে যানজট সৃষ্টি হয়। ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ওপর গাজীপুরের তেলিপাড়া এলাকায় ট্রাকস্ট্যান্ড থাকায় চলাচলের পথ সংকীর্ণ হয়ে গেছে। প্রতিনিয়ত যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হচ্ছে এখানে। কারখানার কাছে মহাসড়কে ওভারব্রিজ না থাকায় শ্রমিকদের রাস্তা পার হওয়ার সময় গাড়ির গতি কমাতে হয়, অনেক সময় থামতে হয়। এতে জট লাগে।

ফুটপাত ও মহাসড়কে দোকানপাট
গাজীপুরের চান্দনা-চৌরাস্তা, ছয়দানা ও সাইনবোর্ড এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাড়কের পাশের ফুটপাত ও মহাসড়ক দখল করে অবৈধ বাজার বসে। এসব বাজারের কারণে মহাসড়ক সংকীর্ণ হয়ে যায়। পথচারীরা মহাসড়কে চলতে গিয়ে যান চলাচল বিঘিœত হয়। অনেক সময়ই জট লাগে। মাঝে মাঝে অভিযান চালিয়ে উচ্ছেদ করা হলেও একদিন না যেতেই আবার সেখানে দোকানপাট বসে যাচ্ছে। এজন্য প্রতিদিন সকাল-বিকেল মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা প্রয়োজন বলে পুলিশ সূত্র জানায়।

এদিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক ঢাকা-চট্টগ্রাম ১৯২ কিলোমিটার চারলেন মহাসড়কে প্রায় অর্ধশত স্থানে যানজটে চরম ভোগান্তির শিকার হতে হয় যাত্রীদের। এর মধ্যে কুমিল্লার পদুয়ার বাজার ও দাউদকান্দি টোলপ্লাজাসহ প্রায় ১৩টি স্থানে মহাযানজটে ঘণ্টার পর ঘণ্টা সড়কে আটকে থাকতে হয়। বিশেষ করে মহাসড়কে প্রবেশের আগে কাচপুর ব্রিজ থেকেই শুরু হয় এই যানজট। এসব স্থানে ট্রফিক অব্যবস্থাপনা, সিএনজি অটোরিকশা, লেগুনা, বাস, ট্রাক-কাভার্ড ভ্যানের অবৈধ পার্কিং ও হাইওয়ে পুলিশের চাঁদাবাজির কারণে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে প্রতিদিন ২০-৩০ কিলোমিটার এলাকায় যানজট তৈরি হচ্ছে। এছাড়া মালবাহী ট্রাক-লরি থেকে টোল আদায়ের সময় অতিরিক্ত ওজনের নামে চাঁদা আদায়, এসব পরিবহনের চালক-হেলপারের সঙ্গে টোল কর্তৃপক্ষের কথাকাটাকাটির ফলেই মহাসড়কে এ দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। প্রতিদিন সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত থাকে এই যানজট। যানজটের কারণে জনভোগান্তি বাড়ছে। স্থবির হয়ে পড়েছে ব্যবসা বাণিজ্য। ভয়াবহ এই যানজটের কারণে সাধারণ মানুষের চলাচলে চরম অস্থিরতা বিরাজ করছে। এছাড়া কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে বিভিন্ন স্থানে খানা-খন্দের কারণে যান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। এর মধ্যে ডেবপুর, রামপুর ও পারুয়া এলাকায় সড়কে ছোট-বড় গর্ত ও ভাঙাচোরার কারণে ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করতে হয়।

এদিকে কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক সড়কের অবস্থা খুবই খারাপ। সড়কের বিভিন্ন স্থানে ভাঙা-চোরার কারণে প্রায় ৮০ কিলোমিটার এলাকায় যানজট সৃষ্টি হয় বলে স্থানীয়রা জানান।

ঢাকা-টাঙ্গাইল
স্বাভাবিক সময়ে এই মহাসড়ক হয়ে ২৩ জেলার প্রায় আট হাজার যানবাহন চলাচল করে। তবে ঈদ মৌসুমে যান চলাচল প্রায় চারগুণ বেড়ে যায়। ঢাকার গাবতলী, মহাখালী টার্মিনালসহ বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ড থেকে উত্তরবঙ্গের ২০টি জেলার যানবাহন চলে বঙ্গবন্ধু সেতু হয়ে। ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক, গাজীপুর বাইপাস ও আবদুল্লাহপুর-বাইপাইল সড়ক ধরে সব যানবাহন এসে মেশে চন্দ্রা মোড়ে। হাটিকুমরুল, তাড়াশ, শেরপুর, মোকামতলা এলাকায় মহাসড়কের একাধিক স্থানে খানাখন্দে ভরা। সিরাজগঞ্জের চান্দাইকোনা থেকে গাইবান্ধার রহবল পর্যন্ত ৮০ কিলোমিটারের ২৫ কিলোমিটার অংশ খানাখন্দে ভরা। ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেনে উন্নীত করার কাজ ৩০ শতাংশ বাকি। মির্জাপুরের গোড়াই থেকে এলেঙ্গা পর্যন্ত সেতু সংযোগ সড়ক ও সড়কদ্বীপ নির্মাণ কাজ শেষ হয়নি। সেই সঙ্গে মহাসড়কের স্থানে স্থানে গাড়ির চাকাও আটকে যাচ্ছে ভাঙার কারণে। নগর জালফৈ থেকে ঘারিন্দা অংশে খানাখন্দ বেড়েছে। ঈদে আগে সড়কে ৮০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। বাকি ২০ ঈদের পরে শেষ করা হবে বলে স্থানীয়রা জানান।

ঢাকা-আরিচা
রাজধানী ঢাকার সঙ্গে পশ্চিমাঞ্চলের ২২ জেলার সড়ক যোগাযোগের মাধ্যম এই মহাসড়ক। এর গোলড়া বাসস্ট্যান্ড ও এখানে সবজির পাইকারি বাজার, মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড, বানিয়াজুড়ি বাসস্ট্যান্ড, উথুলি বাসস্ট্যান্ড এলাকায় যানবাহন এলোপাতাড়ি রাখায় যানবাহনের জট লেগে যায়। এই মহাসড়কে সাভারের আমিনবাজার, হেমায়েতপুর, উলাইল, সাভার বাজার বাসস্ট্যান্ড, নবীনগর, নয়ারহাট, কালমাপুর এবং নবীনগর-চন্দ্রা পর্যন্ত প্রতিনিয়তই যানজট সৃষ্টি হয়। চার লেনের নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কে ডিইপিজেড থেকে ভলিভদ্র বাজার পর্যন্ত ৬০০ মিটার সংস্কার হলেও প্রায় ৩০০ মিটার অংশের কাজ শেষ হয়নি। নবীনগর-চন্দ্রা ও টঙ্গী-আশুলিয়া-ডিইপিজেড মহাসড়কের সংযোগস্থল বাইপাইল ত্রিমোড়ে যান্ত্রিক ও অযান্ত্রিক থ্রি হুইলার বেড়ে যাওয়ায় যানজট বৃদ্ধি পেয়েছে। এদিকে বগুড়া-নাটোর মহাসড়কের নন্দীগ্রামের জামাদারপুকুর থেকে গাড়ীদহ সড়কের বিভিন্ন স্থানে গভীর খানাখন্দ সৃষ্টি হয়েছে। মহাসড়কের পৌরসভা এলাকার এবং জেলার বেশির ভাগ আঞ্চলিক সড়কগুলো খানাখন্দের কারণে স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিতে বাংলাদেশ

সংবাদ স্পোর্টস ডেস্ক

image

সাফ অনূর্ধ-১৫ বালিকা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে নেপালকে ০-৩ গোলে

কানাডা থেকে বঙ্গবন্ধুর খুনিকে ফিরিয়ে আনা কঠিন হচ্ছে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

বঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া এখন খুব কঠিন হয়ে গেছে বলে

বিআরটিএর অনিয়মে অভিযোগের অন্ত নেই

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

একের পর অভিযান চালিয়ে, মামলা এবং গ্রেফতার করেও বিআরটিএতে অনিয়ম কমানো যাচ্ছে না

sangbad ad

বাসযোগ্য রাজধানী গড়তে সেবা সংস্থাগুলোর মধ্যে কার্যকর সমন্বয় দরকার

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

নিরাপদ ও বাসযোগ্য ঢাকা গড়তে সেবা সংস্থার মধ্যে কার্যকর সমন্বয় গড়ে তোলার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল

শোক দিবস, পবিত্র ঈদুল আজহা ও পশুর হাটে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা থাকবে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

জাতীয় শোক দিবস, পবিত্র ঈদুল আজহা ও ঈদ উপলক্ষে কোরবানির পশুর হাটে

বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করেই সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব : স্পিকার

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে ধারণ ও লালন করেই তার স্বপ্নের

বশ্ব ডাউন সিনড্রোম দিবস অ্যাওয়ার্ড পেল বাংলাদেশ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

জেনেটিক প্রতিবন্ধী (জেনেটিক ডিজঅর্ডার) সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টিতে বিশেষ অবদান রাখায় ‘বিশ্ব ডাউন সিনড্রোম দিবস অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছেন

ঈদুল আজহা ২২ আগস্ট

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বাংলাদেশের আকাশে জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা যাওয়ায় ২২ আগস্ট (বুধবার) পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। রোববার (১২ আগস্ট) সন্ধ্যায়

শোষণ বৈষম্য ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার প্রশ্নে বঙ্গবন্ধু অবিচল ছিলেন-স্পিকার

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, বাঙালির অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষ্যে তথা

sangbad ad