• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , সোমবার, ২৫ মে ২০২০

 

বিনামূল্যের পাঠ্যবই মুদ্রণে অনিয়ম ও প্রতারণা

নিউজ আপলোড : ঢাকা , শনিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

সংবাদ :
  • রাকিব উদ্দিন
image

সরকারের বিনামূল্যের পাঠ্যবই ছাপতে গিয়ে অনিয়ম ও প্রতারণার আশ্রয় নিচ্ছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত ছাপাখানার মালিকরা। তারা পাঠ্যবই ছাপার কাজে নিম্নমানের কাগজ, কালি ও বাঁধাইয়ে নিম্নমানের গ্লু (আঠা) ব্যবহার করছেন। কেউ কেউ এনসিটিবির কিনে দেয়া কাগজের পরিবর্তে নিম্নমানের কাগজে বই ছাপার চেষ্টা করছে। সম্প্রতি ১০টি প্রতিষ্ঠানের পাঠ্যবই মুদ্রণে অনিয়ম ও প্রতারণার প্রমাণ পেয়েছে এনসিটিবির মনিটরিং টিম। পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণের দায়িত্বে থাকা ‘জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড’ (এনসিটিবি) কয়েক দফা সতর্ক করলেও অসাধু ছাপাখানার মালিকরা তা আমলে নিচ্ছেন না।

সরকার ২০২০ শিক্ষাবর্ষে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্কুলের চার কোটি ৩০ লাখ শিক্ষার্থীর মধ্যে বিনামূল্যে বিতরণের জন্য ৩৫ কোটি ৩১ লাখ ৪৪ হাজার ৫৫৪ কপি বই ছাপছে। এরমধ্যে প্রাথমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ১০ কোটি ৫৪ লাখ দুই হাজার ৩৭৫ কপি এবং মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ২৪ কোটি ৭৭ লাখ ৪২ হাজার ১৭৯ কপি বই বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে। আগামী বছর ১ জানুয়ারি সারাদেশে একযোগে ‘পাঠ্যপুস্তক উৎসব’ আয়োজন করে এসব নতুন বই সব স্কুলে বিতরণ করা হবে। এনসিটিবির তিনটি মনিটরিং টিমের সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংবাদকে জানিয়েছেন, ইতোমধ্যে ১০টি ছাপাখানার মালিককে সতর্ক করা হয়েছে এনসিটিবির পক্ষ থেকে। প্রিন্টিং প্রেসগুলোর মধ্যে ভাই ভাই, নুরুল ইসলাম, শিশির, বলাকা, সমা, পলাশ, আবুল, টাঙ্গাইল ও লেটার অ্যান্ড কালার অন্যতম। এগুলোর দু’টিকে মৌখিকভাবে এবং বাকিগুলোকে লিখিতভাবে সতর্ক করা হয়েছে। এরমধ্যে একটি প্রতিষ্ঠানকে দু’দফা সতর্ক করার পরও প্রতিষ্ঠানটি নিম্নমানের কাগজে বই ছাপার চেষ্টা করছিল। একই কারণে আরেকটি প্রতিষ্ঠানের দশ হাজার কপি বই বাতিল ও অপর একটি প্রতিষ্ঠানের কিছু বই ধ্বংস (কেটে ফেলা) করা হয়েছে। আর ছপি অস্পষ্ট ছাপায় একটি প্রতিষ্ঠানের প্রায় ১০ হাজার কপি বই বাতিল করা হয়েছে।

এছাড়া একটি প্রতিষ্ঠান নিজেদের ছাপাখানায় বই না ছেপে অন্যের ছাপাখানা ভাড়া করে নি¤œমানের কাগজে বই ছাপার টেষ্টা করছিল। এনসিটিবির মনিটরিং টিম এই দু’টি প্রতিষ্ঠানকেই সতর্ক করার পাশাপাশি নিজ প্রতিষ্ঠানে বই ছাপতে বাধ্য করছেন। আগামীতে অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোকে কালো তালিকাভুক্ত করা হতে পারে বলে এনসিটিবির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে এনসিটিবির চেয়ারম্যান প্রফেসর নারায়ন চন্দ্র সাহা সংবাদকে বলেছেন, ‘এটা চলমান প্রক্রিয়ার অংশ। কেউ ছাপায় ত্রুটি করলে বা ছবি অস্পষ্ট হলে, খারাপ কাগজ ব্যবহার করলে, বাঁধাই ভালো না করলে কিংবা অন্য অনিয়ম করলে তাদের সতর্ক করা হয়। আমাদের মনিটরিং টিমগুলো নিয়মিত ছাপাখানায় যাচ্ছেন, অনিয়ম ও ত্রুটি পেলে তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ নিচ্ছেন। গুরুতর অনিয়ম করলে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।’

২০২০ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণ কার্যক্রম মনিটরিংয়ের (তদারক) জন্য মোট ৩৩টি তদারক ও পর্যবেক্ষণ টিম গঠন করেছে এনসিটিবি। টিমগুলো পুরোদমে কাজ শুরু করেছে। এবার বিনামূল্যের পাঠ্যবই ছাপার কাজ পেয়েছে সারাদেশের প্রায় আড়াইশ’ ছাপাখানা। বিদেশি কোন প্রতিষ্ঠান এবার বই ছাপার কাজ পায়নি। কার্যাদেশপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলো পুরোদমে বই ছাপার কাজ করছেন। ইতোমধ্যে বিপুলসংখ্যক বই ছেপে উপজেলাপর্যায়ে সরবরাহ করেছেন ছাপাখানার মালিকরা।

তদারক ও পর্যবেক্ষণ টিমগুলোর কার্যক্রম সমন্বয় করছেন এনসিটিবির সদস্য (টেক্সট) প্রফেসর ফরহাদুল ইসলাম। তিনি সংবাদকে বলেছেন, ‘দেশীয় বাজারে গত বছরের চেয়ে এবার প্রতি টন কাগজের দাম প্রায় ২০ হাজার টাকা কম। এরপরও অতি মুনাফার লোভে এক শ্রেণীর প্রিন্টার্স (ছাপাখানার মালিক) সরকারের বই ছাপায় নানারকম অনিয়ম, দুর্নীতি ও প্রতারণার আশ্রয় নিচ্ছেন। এটা খুবই দুঃখজনক। আমরা সবাইকে নিয়েই কাজ করতে চাই। কিন্তু অনিয়ম ও প্রতারণা করে কেউই রেহাই পাবে না।’

আগামী ১৫ নভেম্বরের মধ্যে পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণের যাবতীয় কার্যক্রম সম্পন্ন করার লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে জানিয়ে ফরহাদুল ইসলাম বলেন, ‘একটি প্যাকেজের কাজের পূনর্দরপত্র আহ্বান করা হয়েছিল। সেটি একটু দেরি হলেও কোন সমস্যা হবে না। কারণ প্রতিবারই বাফার স্টকের (উদ্বৃত্ত বা আপদকালীন মজুদ) ৫ শতাংশ বই ছাপা হয়।’

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মুদ্রণ শিল্প সমিতির সাধারণ সম্পাদক জহুরুল ইসলাম সংবাদকে বলেন, ‘প্রায় চারশ’ প্রতিষ্ঠান বই ছাপার কাজ করছেন। এরমধ্যে দু’চারজন যে অনিয়ম করছে না, তা নয়। যারা অনিয়ম করবে তাদের দায়দায়িত্ব মুদ্রণ শিল্প সমিতি নেবে না। আবার আমাদের কাগজ শতভাগ মানসম্মত হওয়ার পরও এনসিটিবি বারবার পরীক্ষার নামে আমাদের হয়রানি করছে। অযথা সময়ক্ষেপণ করা হচ্ছে। কন্টিনেন্টাল নামের নি¤œমানের একটি প্রতিষ্ঠানকে কাগজ পরীক্ষার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে, যাদের ভালো মানের ল্যাব (পরীক্ষাগার) নেই। এই হয়রানি থেকেও আমরা পরিত্রাণ চাই।’

এবার বিনামূল্যের পাঠ্যবই ছাপাতে সরকারের মোট ব্যয় হচ্ছে প্রায় ১১শ’ কোটি টাকা। এরমধ্যে প্রাথমিক স্তরের বই ছাপাতে ব্যয় হচ্ছে প্রায় ৩৫০ কোটি টাকা এবং মাধ্যমিক স্তরসহ অন্যান্য বই ছাপাতে ব্যয় হচ্ছে প্রায় ৭৫০ কোটি টাকা। ২০১০ শিক্ষাবর্ষ থেকেই সরকার ধারাবাহিক সাফল্য হিসেবে নতুন বছরের শুরুতেই সারাদেশের শিক্ষার্থীকে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করে আসছে।

এনসিটিবি জানায়, এবার ৩২০টি লটে মাধ্যমিক স্তরের পাঠ্যবই ছাপার কাগজ ক্রয় করেছেন ব্যবসায়ীরা। একই স্তরের ৩৪০টি লটের বই ছাপার কাগজ কিনে ব্যবসায়ীদের সরবরাহ করেছে এনসিটিবি। মোট ২৫৩টি প্রিন্টার্স মাধ্যমিকের বই ছাপার কাজ পেয়েছে। বর্তমানে পুরোদমে চলছে পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণ ও সরবরাহ কার্যক্রম।

এনসিটিবির একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংবাদকে বলেন, ‘৩৪০টি লটের বই ছাপার কাগজ আমরা কিনে দিয়েছি। কিন্তু কয়েকজন অসাধু প্রিন্টার্স সরকারের কিনে দেয়া ভালো মানের কাগজে বিক্রি করে খোলাবাজার থেকে নি¤œমানের কাগজ কিনে বই ছাপা শুরু করেছিল। ওইসব বই বাতিলের পাশাপাশি ওইসব ব্যক্তিকে সরকারের কিনে দেয়া কাগজে বই ছাপতে বাধ্য করেছে এনসিটিবি। এরপরও কেউ অনিয়মের চেষ্টা করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হবে।’

প্রাথমিক স্তরের বই ছাপার কাজ পেয়েছে ৪৩টি প্রতিষ্ঠান এবং প্রি-প্রাইমারি বই ছাপার কাজ পেয়েছে চারটি প্রতিষ্ঠান। প্রাক-প্রাথমিক স্তরের বই ছাপার কাজ পাওয়া প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেও ইতোমধ্যে চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেনেছ এনসিটিবির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা। এই প্রতিষ্ঠানও ছাপার কাজ শুরু করেছে।

অসহায়দের পাশে থাকাতে সামর্থ্যবানদের প্রতি আহ্বান তথ্যমন্ত্রীর

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ পবিত্র ঈদে দরিদ্র অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে সামর্থ্যবানদের আহ্বান জানিয়েছেন।

জাতীয় কবি নজরুলের জন্মবার্ষিকী উদযাপিত

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২১তম জন্মবার্ষিকী আজ উদ্যাপিত হয়েছে।

করোনা সংকটে দরিদ্রদের পাশে দাঁড়াতে সমাজের বিত্তবানদের প্রতি আহবান রাষ্ট্রপতির

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ করোনাভাইরাস জনিত সংকট এবং বাংলাদেশের উপকুল এলাকার ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া সাম্প্রতিক ঘূর্ণীঝড় আম্পানের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্থ দরিদ্র জনগণের পাশে দাঁড়াতে সমাজের বিত্তবানদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

sangbad ad

ঈদ উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা ও ঈদ উপহার

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুসলমানদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে দেশের সকল মুক্তিযোদ্ধাদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী আজ (২৫ মে) সকালে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের গজনবী রোডে মুক্তিযোদ্ধা পুনর্বাসন কেন্দ্রে (মুক্তিযাদ্ধা টাওয়ার-১) বসবাসরত শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্য এবং যুদ্ধাহত পঙ্গু মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ফুল, ফল ও মিষ্টি পাঠান।

যথাযোগ্য মর্যাদায় সারাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে আজ সারাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হচ্ছে। মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে ঈদকে ঘিরে যে আনন্দ-উচ্ছাস থাকার কথা তা এবার ম্লান করে দিয়েছে মহামারী করোনাভাইরাস।

দেশে করোনায় মৃত্যু পাঁচশ ছাড়াল

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণে ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে; নতুন শনাক্ত হয়েছেন সর্বোচ্চ ১৯৭৫ জন। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট মৃত্যু হয়েছে ৫০১ জনের, শনাক্ত হয়েছেন ৩৫ হাজার ৫৮৫ জন।

বায়তুল মোকাররমে ঈদের ৫টি জামাত

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

আজ সোমবার পবিত্র ঈদুল ফিতর। দেশজুড়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে এবার ঈদুল ফিতরের জামাত আয়োজনের ক্ষেত্রেও সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছে। জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে এবং কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহেও এবার হচ্ছে না ঈদ জামাত। ইসলামিক ফাউেন্ডশন জানিয়েছে, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে পর্যায়ক্রমে পাঁচটি ঈদের নামাযের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৭টায়। পর্যায়ক্রমে ৮টা, ৯টা, ১০টা ও পৌঁণে ১১টায় পরবর্তী জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঈদুল ফিতর উদযাপনে দেশবাসীর প্রতি রাষ্ট্রপতির আহ্বান

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সর্বোচ্চ সতর্কতার সঙ্গে ঈদুল ফিতর উদযাপন করতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

আজ পবিত্র ঈদুল ফিতর

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

আজ পবিত্র ঈদুল ফিতর। ঈদ মোবারক। দীর্ঘ এক মাস সিয়াম সাধনার পর আজ (২৫ মে) সারা দেশে উদযাপন করা হবে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় এ উৎসব।

sangbad ad