• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮

 

বন উজাড় করতে দৈনিক ৪শ’ টাকা পাচ্ছে রোহিঙ্গারা

নিউজ আপলোড : ঢাকা , সোমবার, ১৪ মে ২০১৮

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

কক্সবাজারের পাহাড় কাটতে এবং বন উজার করতে রোহিঙ্গারা দৈনিক পাচ্ছে ৪শ’ টাকা। এতে নেতৃত্ব দিচ্ছে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম)। তবে এই কাজে বন বিভাগের অনুমতি নেই বলে জানিয়েছে কক্সবাজার দক্ষিণ বন বিভাগ।

পালিয়ে আসা চার লাখসহ কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফে ১২টি ক্যাম্পে প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা অবস্থান করছে। বন বিভাগের হিসাব অনুযায়ী, সাড়ে পাঁচ হাজার একর বনভূমিতে রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলো গড়ে ওঠার কথা বলা হলেও বাস্তবে ১০ হাজার একরেরও বেশি বনভূমিতে রোহিঙ্গারা অবস্থান করছে। বর্তমান হাজার হাজার রোহিঙ্গা বসতি গড়ে তুলতে প্রতিদিন নতুন নতুন বনভূমি দখল করে গাছ কেটে পাহাড় ন্যাড়া করে ফেলছে। পাহাড় কেটে মাটি সমান করছে। এছাড়া, বুলডোজার দিয়েও পাহাড় কাটা হচ্ছে। বর্ষা মৌসুমে ঝুঁকি এড়াতে দুই লাখ রোহিঙ্গার জন্য নতুন আবাসন তৈরির নামে এসব পাহাড় কাটাচ্ছে আইওএমসহ বিভিন্ন দাতা সংস্থা।

উখিয়ার কুতুপালং, মধুরছড়া, লম্বাশিয়া, পালংখালী, বালুখালী, তাজনিমার খোলাসহ বিভিন্ন পয়েন্টে এই কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। পাহাড় কাটতে জনপ্রতি দৈনিক ৪০০ টাকা করে পারিশ্রমিকও পাচ্ছেন রোহিঙ্গারা। পাহাড় নিধনে নিয়োজিত রোহিঙ্গা শ্রমিক জাফর আলম বলেন, ‘আমার নেতৃত্বে ১২০০ রোহিঙ্গা শ্রমিক ‘আইওএম’র আওতায় মাটি কাটার কাজ করছি। প্রতি ঘণ্টায় ৫০ টাকা মজুরিতে দৈনিক ৪০০ টাকা পাওয়া যায়। এক সপ্তাহ ধরে আমরা এই কাজ করে যাচ্ছি’।

আরেক রোহিঙ্গা মাঝি শফিউল ইসলাম বলেন, ‘সকাল সাতটা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত মোট আট ঘণ্টা মাটি কাটার কাজ করছি। কারণ, যেখানে আমরা বসতি স্থাপন করেছিলাম, সেই জায়গাটা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। এজন্য এখানে নতুন করে বসতি স্থাপনের কাজ চলছে। মূলত, এসব বসতি ঘর তৈরির দায়িত্বে রয়েছে আইওএম।’

আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা ‘আইওএম’-এর পক্ষে পাহাড় কাটা কাজে নিয়োজিত সুপারভাইজার ইমাম শরিফ ঘটনার স্বীকার করে বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের বসতি স্থাপনে দৈনিক ৪০০ টাকা পারিশ্রমিকে তিন হাজার রোহিঙ্গা শ্রমিক এখন কাজ করছেন। কারণ, ঝুঁকিপূর্ণ রোহিঙ্গা বসতিগুলোকে নিরাপদে সরিয়ে নিতে পাহাড় কেটে আবাসন তৈরি করা ছাড়া কোন বিকল্প নেই।’

বন বিভাগের সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছে, পাহাড় কাটার জন্য কোন অনুমতি না নিয়েই এই কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। নির্বিচারে বন ও পাহাড় কাটার ফলে এ অঞ্চলে পরিবেশের মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পরিবেশবিদরাও। এ কারণে বড় ধরনের বিপর্যয়ের আশঙ্কাও করছেন তারা।

কক্সবাজার দক্ষিণ বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. আলী কবির বলেন, ‘বসতি নির্মাণের জন্য প্রথম দফায় সাড়ে পাঁচ হাজার একর বনভূমি রোহিঙ্গাদের দখলে চলে গেছে। কোন ধরনের পরিকল্পনা ছাড়াই এটা করা হয়েছে। এজন্য বন বিভাগের কোন অনুমতি নেয়া হয়নি। আর এখন নতুন করে যেসব পাহাড় কাটা হচ্ছে, সঠিক পরিকল্পনা না নিলে বর্ষা মৌসুমে সেগুলোও ঝুঁকিতে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। তিনি বলেন, কক্সবাজার ত্রাণ ও শরণার্থী কমিশনার ‘আরআরআরসি, এবং আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা ‘আইওএম’ এসব পাহাড় কাটছে।

পরিবেশবাদী সংগঠন কক্সবাজার বন-পরিবেশ সংরক্ষণ পরিষদের সভাপতি দীপক শর্মা দিপু বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের এক পাহাড় থেকে আরেক পাহাড়ে সরিয়ে নিয়ে এ কেমন ঝুঁকিমুক্ত করতে চাইছে প্রশাসন? নতুন বসতি তৈরির অজুহাতে ‘এনজিও’রা যেভাবে পাহাড় কেটে মরুভূমিতে পরিণত করছে, তাতে মনে হয় বনভূমি সংরক্ষণের কেউ এখানে নেই। যেভাবে পাহাড় কেটে সাবাড় করা হচ্ছে, এতে এনজিওদের স্বার্থসিদ্ধি হলেও এলাকার মানুষের জন্য ভয়াবহ পরিণতির দিন ঘনিয়ে আসছে। এ থেকে তখন কেউ রেহাই পাবে না। তাই এনজিদের এসব অপকর্ম ঠেকাতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’

কক্সবাজার শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মো. আবুল কালাম বলেন, ‘ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা থেকে রোহিঙ্গাদের সরিয়ে নিতে সরকার আরও ৫৪০ একর বনভূমি-পাহাড় বরাদ্দ দিয়েছে। তাই ওইসব এলাকায় ঝুঁকিতে থাকা রোহিঙ্গাদের বর্ষার আগেই নিরাপদ স্থানে স্থানান্তর করতে এনজিও’রা কাজ করছে।’ তবে ঢালাওভাবে পাহাড় কাটার বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলে জানান তিনি।

সংসদ ভবনের নির্মাণশৈলীর প্রশংসা দ. কোরিয়ার প্রতিনিধি দলের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ ভবনের নির্মাণশৈলীর ভূয়সী প্রশংসা করেছে দক্ষিণ কোরিয়ার সংসদীয়

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে বিশেষ ট্রাফিক নির্দেশনা

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে কাল শুক্রবার রাজধানীর কয়েকটি সড়কে যানবাহন চলাচল

ইসি বিব্রত

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর দ্বিতীয় দিনে দু'জন নিহত হওয়ার ঘটনা এবং বিএনপি মহাসচিবের

sangbad ad

ঢাবিতে ডিনস্ অ্যাওয়ার্ড পেলেন ৭০ শিক্ষার্থী

প্রতিনিধি, ঢাবি

image

বিবিএ ও এমবিএ পরীক্ষায় অসাধারণ ফলাফল অর্জন করায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ব্যবসায়

টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীদের দায়িত্ব তিন জনের হাতে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

চার টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়ার পর তাদের দফতরগুলো নতুন

উত্তাপ যেন উত্তপ্ত না হয় : সিইসি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দায়িত্বপ্রাপ্ত জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটদের উদ্দেশে প্রধান নির্বাচন

প্রজ্ঞা ও মেধা খাটিয়ে নিরপেক্ষ বিচার করার নির্দেশ

image

রাজধানীর আগারগাঁয়ে নির্বাচন ভবনে অনুষ্ঠিত নির্বাচনী নির্দেশনামূলক এক ব্রিফিং

৬ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে ব্যয় হচ্ছে ১৫ হাজার ৬৫০ কোটি টাকা

রাকিব উদ্দিন

image

সারাদেশের বেসরকারি হাইস্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় অবকাঠামো উন্নয়নে প্রায় ১৫ হাজার

মায়েদের প্রতি শেখ হাসিনা : সন্তানদের জঙ্গিবাদ ও মাদক থেকে দূরে রাখতে যত্নবান হউন

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাতা-পিতাকে বিশেষ করে মায়েদের তাদের সন্তানকে বেগম রোকেয়ার

sangbad ad