• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭

 

নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক পদের দায়িত্ব চান স্যানিটারী ইন্সপেক্টররা

খাদ্যমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান

নিউজ আপলোড : ঢাকা , সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০১৭

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
image

প্রশিক্ষক প্রাপ্ত ২২শ’ স্যানিটারী ইন্সপেক্টরশীপদের নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনার পরিদর্শন কাজে লাগানোর দাবি জানিয়েছে স্বাধীনতা সেনিটারিয়ান পরিষদ (স্বাসেপ)। এই দাবিতে খাদ্য মন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপিও প্রদান করা হয়েছে। রোববার (৩ নভেম্বর) (৩ নভেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন শেষে ৫ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল স্বারকলিপি প্রদান করে। স্বাসেপ’র আহ্বায়ক এস.এফ জুনায়েদ আহমদের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব এনামুল হকের মোল্লার সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ক্যাব সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট হুমায়ুন কবির ভূইয়া, সিপিবির কেন্দ্রীয় নেতা রুহিত হাসান প্রিন্স, স্বাসেপ প্রধান উপদেস্টা এম. খসরু চৌধুরী, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইমুল হোসেন রিপন, যুগ্ম সম্পাদক মাহমুদা খাতুন, মিডিয়া প্রধান জাকির হোসাইন, পৌরসভা সেনেটারিয়ান ইন্সপেক্টর এসোসিয়েশন সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসাইন প্রমুখ। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে আগত সেনেটারিয়ানগণ এতে অংশগ্রহণ করেন।

বক্তারা বলেন, ১৯৬৭ সালের বিশুদ্ধ খাদ্য বিধি অনুযায়ী এই কাজ মাঠ পর্যায়ে নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনা তদারকি/পরিদর্শনের মৌলিক দায়িত্ব পালন করেন খাদ্য-স্বাস্থ্য পরিবেশ উন্নয়নের উপর উপযুক্ত ডিপ্লোমা, শিক্ষা সনদ প্রাপ্ত দক্ষ সেনেটারিয়াগণ। সরকারি আইএইচটিগুলোতে যে জনবল তৈরীতে সরকারের লক্ষ কোটি টাকার বিনিয়োগও আছে। বর্তমানে সরকারের হাতে এসব সনদপ্রাপ্ত জনবলের পরিমান ২২ শতাধিক। কিন্তু দুঃখজনক হলো, বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ (বিএফএসএ) বিএফএসএ ও ডিজিএইচএস এর সমন্বয়হীনতার দরুন এই সকল দক্ষ জনবল প্রায় অকেজো হয়ে রয়েছে। প্রয়োজন থাকা সত্ত্বেও এদেকে একসাথে কাজে লাগানো যাচ্ছে না। যে কারণে দেশের প্রায় ২৫ লক্ষ খাদ্য স্থাপনা সরকারের নিয়মিত তদারকি/পরিদর্শনের আওতাধীন নয়। যারফলে সরকারও এই সকল প্রতিষ্ঠান হতে বছরে সম্ভাব্য ২৫০ থেকে ৩০০ কোটি টাকার প্রমিসেসেস ফি আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এতে দেশের খাদ্য স্থাপনাসমূহ তদারকি কাজের বাইরে থাকা খাদ্যে ভেজালকারীদের দৌরাত্ম ও ভেজালের পরিমান বিগত ৩ বছরে বহুগুণ বেড়েছে। বেড়েছে খাদ্যের মাধ্যমে সৃষ্ট রোগ ও রোগীর পরিমান। সম্প্রসারিত হচ্ছে চিকিৎসা সেবার বাণিজ্য। দেশে মাঠ পর্যায়ে নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনার পরিদর্শন কাজের ২২ শত দক্ষ সরকারি জনবল থাকা সত্ত্বেও এ অবস্থা মেনে নেয়া যায় না।

বক্তারা আরও বলেন, বর্র্তমান সরকার জনকল্যাণে বদ্ধপরিকর। তাই আমাদের দাবি, জনগণের খাদ্য প্রাপ্তির অধিকার নিশ্চিত করতে এবং ভেজাল খাদ্যের মাধ্যমে সৃষ্ট দুই শত ধরনের রোগ নিয়ন্ত্রণের স্বার্থে অবিলম্বে সনদপ্রাপ্ত ২২ শত সেনেটেরিয়ানদের একসাথে ‘নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক’ পদে তাদের দায়িত্ব অর্পণ করা। আমরা মনেকরি, নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ খাদ্য পরিদর্শনে বাস্তব ও বিজ্ঞানভিত্তিক কর্মপদ্ধতি গ্রহণ করলে ২/৩ বছরের মাথায় খাদ্যে ভেজাল ও খাদ্যের মাধ্যমে সৃষ্ট রোগসমূহ পুরোপুরি নিয়ন্ত্রন করা সম্ভব।

পরীক্ষামূলক সম্প্রচার

বুদ্ধিজীবী হত্যা মামলা যেভাবে ধামাচাপা পড়ে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

স্বাধীনতার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশ স্বাধীন হওয়ার পর পাকিস্তানি

৪৬ বছরেও বুদ্ধিজীবী হত্যার সরকারি তদন্ত হয়নি

ওয়ালিদ খান ও মাহমুদুল হাসান

image

স্বাধীনতার ৪৬ বছর পেরিয়ে গেলেও রাষ্ট্রীয়ভাবে বুদ্ধিজীবী হত্যার কোন তদন্ত করা হয়নি। তবে

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ। এক সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর

sangbad ad

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় জাতি গঠনে শিক্ষক সমাজের প্রতি স্পিকারের আহ্বান

image

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা তরুণ প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে। আর

বাংলাদেশে ফরাসি অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনের আহ্বান

image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশে বিভিন্ন ক্ষেত্রে ফরাসি বিনিয়োগের বিপুল সুযোগ রয়েছে উল্লেখ

জাতি-ধর্ম নেই সন্ত্রাসীই সন্ত্রাসের ধর্ম

image

বাংলাদেশ সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে জিরোটলারেন্স নীতির কথা পুনর্ব্যক্ত করে গতরাতে নিউইয়র্কে

কৃষিবান্ধব নীতির কারণে কৃষিতে অনেক সাফল্য এসেছে : কৃষিমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

শ্রমিক সংকট সমাধানে এবং কৃষি উৎপাদনশীলতা বাড়াতে কৃষিতে যান্ত্রিকীকরণের বিকল্প

প্যারিসের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর দুবাই ত্যাগ

বাসস

image

রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফ্রান্সে ওয়ান প্লানেট সামিট-এ অংশগ্রহণের জন্য তিনদিনের সরকারি সফরে

পদ্মা সেতু আট মাস পিছিয়ে

মাহমুদ আকাশ

image

ডিসেম্বরেও বসছে না পদ্মা সেতুর দ্বিতীয় স্প্যান। পিছিয়ে আছে নদী শাসনের কাজ। এখনও চূড়ান্ত হয়নি ১৪ পিলারের নকশা। মূল সেতু, নদী শাসন, সংযোগ সড়ক ও

sangbad ad