• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯

 

নদী রক্ষার অভিযানে ৫ দিনে দেড় হাজার স্থাপনা উচ্ছেদ

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বুধবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

সংবাদ :
  • মাহমুদ আকাশ ও মাসুদ রানা
image

বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত। কামরাঙ্গীরচর থেকে তোলা-সোহরাব আলম

নদী দখল ও দূষণ প্রতিরোধে ঢাকার চারপাশের নদীসহ সারাদেশের বিভিন্ন স্থানে নদীর তীরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হচ্ছে। গত ৫ দিনে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও খুলনাসহ বিভিন্ন নদী তীরে প্রায় দেড় হাজার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকার চারপাশের বুড়িগঙ্গা, তুরাগ, শীতলক্ষ্যা ও বালু নদীতে উচ্ছেদ অভিযান পরিচলানা করছে অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। এছাড়া স্থানীয় জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে চট্টগ্রাম ও খুলনাসহ বিভিন্ন নদীর তীরে উচ্ছেদ অভিযান করা হচ্ছে। বুধবার (৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে কামরাঙ্গীরচরের কয়লাঘাট ও ইসলামবাগ এলাকায় এ অভিযান শুরু করা হয়। এসব অবৈধ স্থাপনার মধ্যে বিভিন্ন কারখানা, বসতবাড়ি, সেমিপাকা ভবনসহ বহুতল ভবনও রয়েছে। গত ২৯ জানুয়ারি থেকে শুরু করে বুধবার পর্যন্ত ৫ দিনে ছোট-বড় ভবনসহ ৮৯৫টি অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেয়া হয়। এছাড়া চট্টগ্রাম কর্ণফুলী নদীর দুই তীর ও খুলনার ময়ূর নদীসহ মহানগরের অভ্যন্তরীণ ২২ খালের অবৈধ দখলদার উচ্ছেদে অভিযান পরিচালনা করেছে জেলা প্রশাসন।

নৌ-মন্ত্রণালয়ের সূত্র জানায়, বিআইডব্লিউটিএ বুধবার কামরাঙ্গীরচরের কয়লাঘাট ও ইসলামবাগ এলাকায় অভিযান চালিয়ে আড়াই শতাধিক পাকা ও আধাপাকা স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে চারতলা ভবন তিনটি, তিনতলা ভবন দুটি, দোতলা ভবন পাঁচটি, একতলা বাড়ি ৯টি, আধাপাকা ঘর ২৫টি এবং টিন ও টং ঘর ২০৮টি। মঙ্গলবার কামরাঙ্গীরচরের নবাবচর এলাকায় অভিযান চালিয়ে দু’শতাধিক পাকা ও আধাপাকা স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে একটি তিন তলা ভবন, দোতলা ভবন পাঁচটি, একতলা ভবন ২৮টি, আধাপাকা ঘর ২২টি এবং টং ঘর ১৫৫টি। নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে বিআইডব্লিউটিএ দখলদারদের বিতারিত করার পরিকল্পনা নিয়ে নদী উদ্ধারে উচ্ছেদ কার্যক্রম চালাচ্ছে। এ কার্যক্রম ১৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে। প্রথম পর্যায়ে বিআইডব্লিউটিএ ২৯-৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে কামরাঙ্গীরচর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ছোট-বড় ৪৪৫টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। এগুলোর মধ্যে সাত, পাঁচ, তিন ও দোতলা পাকা ভবন, স’মিল গোডাউন, প্লাস্টিক কারখানা এবং আধাপাকা ভবনও রয়েছে।

বুধবার ঢাকার কামরাঙ্গীরচরের উচ্ছেদ অভিযান পরিদর্শনে গিয়ে নৌ-সচিব মো. আবদুস সামাদ সাংবাদিকদের বলেন, নদী তীরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স দেখানো হবে। অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শেষে নদী তীর চিহ্নিত করে সেখানে ওয়াকওয়ে নির্মাণ ও বনায়ন করা হবে।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, বুধবার বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে পূর্ব ইসলামবাগ এলাকায় থেকে উচ্ছেদ অভিযান শুরু করে বিআইডব্লিউটিএ। এরপর কামরাঙ্গীচরের কয়লাঘাট পর্যন্ত বিভিন্ন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। এর মধ্যে ৫টি বহুতল ভবন এবং দোকান ও ফ্যাক্টরি রয়েছে। বহুতল ভবনগুলোর আংশিক ভাঙা হলেও পুরোপুরি উচ্ছেদ করা হয়েছে টিনশেডের বাসা, দোকন ও ফ্যাক্টরি। এছাড়া ভারী স্থাপনাও ভেঙে ফেলা হয়েছে বুলডোজার দিয়ে। অভিযানের সময় সদরঘাট-গাবতলী সড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। ফলে নারীসহ অনেককেই ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে বলে যাত্রীরা জানান। অভিযানের এক মাস আগে ইসলামবাগ এলাকায় নোটিশ দেয়া হলেও কোন খবর জানে না বলে ভাড়াটিয়ারা জানান। ফলে ঘরে থাকা খাট, ফ্রিজ, ফ্যানসহ অনেক আসবাবপত্র ভেঙে ফেলতে দেখা গেছে। তবে বিআইডব্লিউটিএ’র এই অভিযানে খুশি হয়েছেন অনেকেই। দখলবাজরা এসব জমি দখল করে রেখেছিল। জমি উদ্ধার হলে সড়ক আরও বড় হবে। এতে চলাচল করতে সহজ হবে বলে স্থানীয়রা জানান।

এদিকে ক্ষতিগ্রস্তদের অভিযোগ তাদের পর্যাপ্ত সময় না দিয়ে উচ্ছেদ করা হচ্ছে। ভাড়াটিয়া দোকানদাররা আশঙ্কা করছেন ভাড়া নেয়ার জন্য দেয়া অগ্রিম টাকাও হয়তো ফেরত দেবে না দোকান মালিকরা। এ অবস্থায় তাদেরকে পুনর্বাসন করার পাশাপাশি সরকারের কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করেন ক্ষতিগ্রস্তরা। মালেক নামের এক স্থানীয় বাসিন্দা সংবাদকে বলেন, সরকার নদী বাঁচাইতে অবৈধ ঘড়বাড়ি ভাঙছে এতে আমরা খুশি। তবে আজ ভাঙা হলে কাল আবার বসানো হবে। স্থায়ীভাবে নদী বাঁচাইতে চাইলে নদী পরিষ্কার করতে হবে যাতে ১২ মাস নদীতে পানি থাকে। ইসলামবাগের আবুল হোসেন নামে এক বাসিন্দা সংবাদকে বলেন, আমার টেম্পোর যন্ত্রাংশের দোকান ছিল। আমার সংসার চলতো এই দোকানের আয় দিয়ে। দোকান উচ্ছেদ করা হবে জানলে আগে থেকে সব মালামাল সরাতে পারতাম। হঠাৎ করে অভিযান চালানোর ফলে মালামালগুলো নষ্ট হয়ে গেছে। গত ৫ দিন থেকে কোন বেচাকেনা নাই। অন্য জায়গার দোকান নেব সেই টাকাও নাই। মাত্র দোকান ভাঙলো এখন দোকন মালিকের কাছে অগ্রিম দেয়া টাকাও চাইতে পারছি না। আর মালিক সেই অগ্রিম টাকা দেবে কিনা সেটাও বুঝতে পারছি না।

রুবেল নামের এক ব্যক্তি সংবাদকে বলেন, এই জায়গায় প্রায় দেড় হাজার দোকান ও কারখানা ছিল। এই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কাজ করে কয়েক হাজার মানুষ। দোকান ভেঙে ফেলায় এই মানুষগুলো বেকার হয়ে গেছে। এখন সরকারের কাছে দাবি উচ্ছেদ অভিযানে ক্ষতিগ্রস্তদের যাতে ক্ষতিপূরণ দেয়ার পাশাপাশি পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা হয়।

এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিএ’র যুগ্ম পরিচালক আরিফ উদ্দিন সংবাদকে বলেন, গত ৫ দিনে ৮৯৫টি স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এর মধ্যে বুধবার ২৫২টি স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। উচ্ছেদের আগে প্রত্যেক এলাকায় আগে নোটিশ দেয়া হয়েছে। মাকিং করা হয়েছে। ঢাকার নদীবন্দরের আওতাধীন এলাকায় ১৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এ উচ্ছেদ অভিযান চলবে। ১১ দিনের উচ্ছেদ অভিযানের প্রথম দফায় গত ২৯, ৩০ ও ৩১ জানুয়ারি ৪৪৫টি স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। দ্বিতীয় দফায় মঙ্গলবার (৫ ফেব্রুয়ারি) কামরাঙ্গীরচরের নবাবচর এলাকায় দু’শতাধিক পাকা ও আধাপাকা স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। এছাড়া বুধবার ইসলামবাগসহ ৫তলা ভবনসহ শতাধিক বাড়ি ভেঙে ফেলা হয়েছে। আমরা প্রাথমিকভাবে ৬০০ স্থাপনা উচ্ছেদের পরিকল্পনা করেছিলাম। কিন্তু অভিযানে এসে বাস্তবে দেখি এ সংখ্যা আরও বেশি হবে। যে কারণে এ অভিযান প্রয়োজনে বর্ধিত হতে পারে বলে জানান তিনি।

এদিকে খুলনার ময়ূর নদীসহ মহানগরের অভ্যন্তরীণ ২২ খালের অবৈধ দখলদার উচ্ছেদে কার্যক্রম শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। মঙ্গলবার বেলা ১১টা থেকে নগরীর অন্যতম প্রবেশদ্বার গল্লামারি ব্রিজের পশ্চিম পাশে ময়ূর নদীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। বুধবারও বিভিন্ন স্থানে অভিযানে নদীর দুই পাড়ের অবৈধ কাঁচা, সেমিপাকা, পাকা স্থাপনা ক্রেন ও বুলডোজার দিয়ে গুঁড়িয়ে দেয়া হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন খুলনা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসেন।

অর্থনৈতিক বিকাশের প্রধান অন্তরায় দুর্নীতি : দুদক চেয়ারম্যান

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান অর্থনৈতিক বিকাশের প্রধান অন্তরায় হচ্ছে দুর্নীতি

বঙ্গবন্ধু জনগণের মুক্তির প্রশ্নে আপসহীন থেকে আমৃত্যু সংগ্রাম করেছেন : স্পিকার

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অন্যায়ের কাছে কখনো মাথা নত না করে অসীম সাহসিতার

ভোক্তা অধিকার অধিদফতরের পরিচালককে হাইকোর্টে তলব

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

ভোক্তাদের জরুরি সেবায় হটলাইন চালু করতে ৫০ লাখ টাকা বরাদ্দ প্রস্তাবের বিষয়ে ব্যাখ্যা জানতে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ

sangbad ad

বঙ্গবন্ধুর রক্তের ঋণ কোনদিন শোধ হবে না শোধ করা যাবেও না

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

‘বঙ্গবন্ধুর রক্তের ঋণ কোনদিন শোধ হবে না। শোধ করা যাবেও না। কারণ জাতির পিতা যে ত্যাগ স্বীকার করেছেন, তা কারো পক্ষেই সম্ভব নয়।

মিল্কভিটার দুর্নীতি প্রতিরোধে কঠের নীতি প্রণয়নের সুপারিশ সংসদীয় কমিটির

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

দুধের গুণগত মান নিশ্চিত করতে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণ করে প্রয়োজনীয় জনশক্তি নিয়োগের মাধ্যমে মিল্কভিটার সুনাম অক্ষুন্ন রাখার

উন্নত গ্রাহকসেবা নিশ্চিত করার আহ্বান বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু গ্রাহকের বিদ্যুৎ চাহিদা পূরণে এবং উন্নত গ্রাহকসেবা নিশ্চিত করতে কর্মকর্তা-

বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িতদের চিহ্নিত করতে কমিশন হচ্ছে : আইনমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় সাজাপ্রাপ্ত ও পলাতক সকল আসামিকে ফিরিয়ে আনতে সরকার চেষ্টা করছে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আওয়ামী লীগের ডেঙ্গু প্রতিরোধ ও চিকিৎসা মনিটরিং সেল’র বৈঠক

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

আওয়ামী লীগের ডেঙ্গু প্রতিরোধ ও চিকিৎসা মনিটরিং সেল’ ডেঙ্গু প্রতিরোধে সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণে করণীয় বিষয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী

কর্মস্থলমুখী যাত্রীদের লঞ্চে দুর্ঘটনা অপরাধ ও এডিস মশা নির্মূলে নৌ পুলিশের কার্যক্রম

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

ঈদে কর্মস্থলে ফেরত আসা লঞ্চ যাত্রীদের ভোগান্তি দূর করতে সদরঘাটসহ নদীপথে বিশেষ টহল জোরদার করেছে নৌ পুলিশ। সরঘাটে

sangbad ad