• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , বুধবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৮

 

কোটা সংস্কারের আশ্বাস

নিউজ আপলোড : ঢাকা , সোমবার, ০৯ এপ্রিল ২০১৮

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
image

শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রত্যাশীদের আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে সরকারি চাকরির বিদ্যমান কোটা পদ্ধতি ‘যৌক্তিক সংস্কার’ ও ‘পরীক্ষা-নিরীক্ষা’ করে দেখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে কাজ করবে। আগামী ৭ মে’র মধ্যে কোটা পদ্ধতি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হবে। দাবি বাস্তবায়নে সরকারের আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে এক মাসের জন্য আন্দোলন স্থগিত ঘোষণা করেছে আন্দোলনকারীরা।

আন্দোলনকারীদের প্রতিনিধিদলের সঙ্গে সোমবার (৯ এপ্রিল) বিকেলে সচিবালয়ে এক বৈঠক শেষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সরকারের ওই সিদ্ধান্তের কথা জানান।

এর আগে মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যমান কোটা পদ্ধতির ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী ও সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের গণমাধ্যমে ব্যাখ্যা দেয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, ‘চাকরির কোটা সংরক্ষণ বিষয়ে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে এগিয়ে নিয়ে আসার জন্য সংবিধানে কোটার বিষয়ে বলা আছে।’

এছাড়াও চাকরিতে কোটা পূরণের ক্ষেত্রে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে সম্প্রতি জারি করা পরিপত্রে কোটা বিষয়ে যে ব্যাখ্যা দেয়া হয়েছে, তা অধিকতর পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সোমবার প্রধানমন্ত্রী তার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ নির্দেশনা দেন বলে মন্ত্রিসভার একাধিক সদস্যের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা গেছে। কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে দেশব্যাপী শিক্ষার্থীদের আন্দোলন নিয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে অনির্ধারিত আলোচনা হয়।

মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ‘কোটা নিয়ে আজকে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি, কিছুটা অনির্ধারিত আলোচনা হয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় বিষয়টি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখবে, দেখে এটা অবহিত করবে।’

মন্ত্রিসভার একজন সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংবাদকে জানান, মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরও বলেছেন, ‘কোটা নিয়ে আন্দোলন দুঃখজনক। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বাসভবনে ভাঙচুর করেছে শিক্ষার্থীরা। এ ধরনের ঘটনা পাকিস্তান আমলেও হয়নি। এসব কারা করছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি কি চাকরির কোটা সংস্কার করতে পারবেন? এগুলো কেন করা হচ্ছে?’

কোটায় নিয়োগের বিষয়ে ব্যাখ্যা দিয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্প্রতি যে পরিপত্র দিয়েছে, তার পরই নতুন করে এ আন্দোলন শুরু হয়েছে- এমন বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘পরিপত্রটা আমরা পরীক্ষা করে দেখব।’

গত তিনটি বিসিএসের নিয়োগে কত শতাংশ মেধাবী নিয়োগ পেয়েছেন- সেই তথ্য তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘৩৩তম বিসিএসে ৭৭ দশমিক ৪০ শতাংশ পদ মেধা কোটা দিয়ে পূরণ করা হয়েছে। আর ৩৫তম বিসিএসে ৬৭ দশমিক ৪৯ শতাংশ এবং ৩৬তম বিসিএসে ৭০ দশমিক ৩৮ শতাংশ পদ মেধা থেকে পূরণ হয়েছে।’

এক প্রশ্নের জবাবে শফিউল আলম বলেন, ‘কোটার কারণে মেধাবীরা খুব বেশি বঞ্চিত হয়নি। মেধা কোটা কখনো অবহেলিত হয় না। মেধাটা আসলে যেমন ধরুন মহিলা কোটা- মহিলা কোটায় যদি ১০টি পদ থাকে, এই ১০টির মধ্যে তারাই আসবে যারা লিখিত বা অন্যান্য সব ক্যাটাগরিতে ভালো করেছে, তারাই আসবে যারা উপরের দিকে আছে। মহিলাদের মধ্যে যারা মেধা তালিকায় ভালো করবে তারাই আসবে। এমন নয় যে, যারা মেধাবী তারা অবহেলিত হয়ে যাচ্ছে, পিছনে পড়ে যাচ্ছে। জেলা কোটার ক্ষেত্রেও তাই। জেলার মধ্যে যারা ভালো করবে তারা আসবে, প্রত্যেক সেক্টরেই মেধার মধ্যে যারা অগ্রসর তারাই আসবে, কোটার দ্বারা কিন্তু কারো মেধা ক্ষতিগ্রস্ত হবে না।’

মুক্তিযোদ্ধা কোটায় যখন যোগ্য প্রার্থী পাওয়া যাচ্ছে না, তখন সেসব পদ অন্যভাবে পূরণ করা হচ্ছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘মন্ত্রিসভার সোজা সিদ্ধান্ত ছিল কোটাতে যদি যোগ্যপ্রার্থী পাওয়া না যায়, মেধা তালিকার শীর্ষে অবস্থানকারীদের দিয়ে তা পূরণ করা হবে।’

এক্ষেত্রে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ব্যাখ্যায় বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে কি না- জানতে চাইলে সচিব বলেন, ‘পরিপত্রটি আমরা পরীক্ষা করব। পদ না পাওয়া গেলে মেধা তালিকার উপরের দিকে যারা আছে তাদের দিয়ে পূরণ করা হবে, এটাও তো সংস্কার। একটা সংস্কার অলরেডি হয়ে গেছে। সার্কুলার দিয়ে কোটা চলছে, সার্কুলার সংশোধন করা হয়েছে। এতে কিন্তু মোধাবীরা যথেষ্ট স্কোপ পাচ্ছে বলে আমাদের ধারণা। কোটার কারণে যারা মেধাবী তারা খুব বেশি বঞ্চিত হয়নি।’

চলমান আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে কোটা নিয়ে সরকার নতুন করে ভাববে কি না- এমন প্রশ্নে শফিউল আলম বলেন, ‘শুধুমাত্র মেধা যদি হয় তাহলে অনগ্রসর জেলাগুলো তাদের জন্য যে জেলা কোটা রাখা আছে সেখানে তারা একসেস পাবে না, এটা তো বুঝতে হবে। মহিলা, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী, প্রতিবন্ধীরা পাবে না। মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে মেধার কনটেস্ট হচ্ছে। তাদের মধ্যে যারা মেধায় অগ্রসর, উপরের দিকে তারাই তো আসবে। এখানে মেধাকে আন্ডারমাইন করা হচ্ছে না।’

বর্তমানে কোটার জন্য বরাদ্দ ৫৬ শতাংশ। এর মধ্যে পাঁচ শতাংশ কোটা রাখা হয়েছে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর জন্য। আর প্রতিবন্ধী এক শতাংশ, মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের জন্য ৩০ শতাংশ, নারী ও জেলা কোটা ১০ শতাংশ করে। এসব কোটার কোন শ্রেণীতে যারা পড়ে না, তাদের প্রতিযোগিতা করতে হচ্ছে বাকি ৪৪ শতাংশের জন্য।

এই কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’ এর ব্যানারে আন্দোলন করছেন চাকরি প্রত্যাশী ও শিক্ষার্থীরা। তারা রোববার (৮ এপ্রিল) শাহবাগ মোড় চার ঘণ্টা অবরোধ করে রাখে। পরে পুলিশ তাদের লাঠিপেটা ও রাবার বুলেট-কাঁদুনে গ্যাস ছুড়ে সরিয়ে দেয়। এরপর রাতে বিক্ষোভ ও সংঘাত ছড়িয়ে পড়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরো ক্যাম্পাসে। রাত দেড়টা থেকে ২টার মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবনে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়।

এক পর্যায়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েক’শ শিক্ষার্থী গভীর রাতে হল থেকে বেরিয়ে এসে টিএসসিতে অবস্থান নেয়। টিএসসিসহ ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশ ও ছাত্রলীগ কর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ চলে রাতভর।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা আজও (সোমবার) ঢাবি ক্যাম্পাসে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ দেখায়। তাদের ১৯ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল বিকেলে দলের সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বৈঠকে বসে।

কোটা সংস্কার আন্দোলন স্থগিত :
বিদ্যমান কোটার বিষয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হবে-সরকারে এমন আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে চলমান আন্দোলন আগামী ৭ মে পর্যন্ত স্থগিত করেছে আন্দোলনকারীরা।

সোমবার বিকেলে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে সরকারের একটি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের পৌনে দুই ঘণ্টা বৈঠকের পর এ সিদ্ধান্ত হয়।

বৈঠকের সিদ্ধান্ত সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আন্দোলনকারীদের সঙ্গে তাদের অত্যন্ত সুন্দর আলোচনা হয়েছে। আমরা তাদের বলেছি, আগামী ৭ মের মধ্যে সরকার বিদ্যমান কোটার বিষয়টি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করবে। সে পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত থাকবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘আন্দোলনের সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাড়িতে যারা ভাঙচুর করেছে এবং আন্দোলনে সহিংসতা করেছে, তাদের বিরুদ্ধে ভিডিওফুটেজ দেখে পুলিশ ব্যবস্থা নেবে। কোন নিরীহ শিক্ষার্থী বা আন্দোলনকারী যেন হয়রানির শিকার না হন, সেদিকে লক্ষ্য রাখতে ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনারকে বলা হয়েছে। তবে আন্দোলেনর সময়ে যেভাবেই আহত হয়ে থাকুক না কেন, তাদের চিকিৎসার জন্য সরকার সবকিছু করবে।’

ভাঙচুর, হামলার ঘটনায় শিক্ষামন্ত্রীর নিন্দা :
কোটা সংস্কারের আন্দোলনের নামে ভাঙচুর, হামলা ও নৈরাজ্য সৃষ্টির ঘটনায় উদ্বিগ্ন ও মর্মাহত বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিবৃতিতে মন্ত্রী আরও বলেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবনে হামলা ও হত্যাচেষ্টা এবং ভাঙচুরের ঘটনা নজিরবিহীন। এর সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এর পেছনে যারা উসকানি দিচ্ছে, তাদের স্বার্থ হাসিলের জন্য এ ধরনের ঘটনা ঘটানো হচ্ছে।’

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘চাকরির কোটা সংরক্ষণ বিষয়ে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে এবং সরকার সম্প্রতি এ বিষয়ে একটি ব্যাখ্যা দিয়েছে। প্রয়োজনীয় যোগ্যতা ও মেধা না থাকলে কোটাধারীরাও চাকরিতে আসতে পারে না। কোটা পূরণ না হলে সেসব পদ মেধা তালিকা থেকেই পূরণ করার নির্দেশনা রয়েছে।’

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের যে ব্যাখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তি :
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় গত ৬ মার্চ কোটা সংক্রান্ত যে নির্দেশনা জারি করে তাতে বলা হয়, ‘সব সরকারি নিয়োগের ক্ষেত্রে কোটার কোন পদ যোগ্য প্রার্থীর অভাবে পূরণ করা সম্ভব না হলে সেই সব পদ মেধা তালিকার শীর্ষে অবস্থানকারী প্রার্থীদের মধ্য হইতে পূরণ করিতে হইবে।’

এই আদেশের বিষয়ে ৫ এপ্রিল জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মোজাম্মেল হক খান স্বাক্ষরিত একটি পরিপত্র জারি করা হয়।

এই পরিপত্রে বলা হয়- (ক) ‘(১) ১ম ও ২য় শ্রেণীর পদসমূহে সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে কোটা বিষয়ে সরকারের গত ৫ মে, ২০১০ তারিখের পরিপত্র অনুসরণপূর্বক বিশেষ কোটার অধীন কোন জেলার বিতরণকৃত পদের সংখ্যা হইতে যোগ্য প্রার্থীর সংখ্যা কম হইলে উক্ত বিশেষ কোটার অপূর্ণ পদসমূহ জাতীয় ভিত্তিক স্ব স্ব বিশেষ কোটার (অর্থাৎ মুক্তিযোদ্ধা, মহিলা ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী) জন্য প্রণীত জাতীয় মেধা তালিকা হইতে পূরণ করিতে হইবে।

(২) উক্ত সিদ্ধান্ত অনুসরণের পর সংশ্লিষ্ট নিয়োগের জন্য মহিলা ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী কোটার কোন কৃতকার্য প্রার্থী পাওয়া না গেলে উক্ত পদগুলো অবশিষ্ট কোটা অর্থাৎ জেলার সাধারণ প্রার্থীদের দ্বারা পূরণ করিতে হইবে।

(৩) উপরোক্ত পদ্ধতিদ্বয় অনুসরণ করিবার পরও কোন বিশেষ কোটার (মুক্তিযোদ্ধা, মহিলা ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী) পদ পূরণ করা সম্ভব না হলে অপূরণকৃত সে সব পদ জাতীয় মেধা তালিকার শীর্ষে অবস্থানকারী প্রার্থীদের দ্বারা পূরণ করিতে হইবে।’

(খ) ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণীর পদসমূহে সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে কোন বিশেষ কোটার (মুক্তিযোদ্ধা, মহিলা, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী, এতিম ও শারীরিক প্রতিবন্ধী এবং আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা সদস্য) কোন পদ যোগ্য প্রার্থীর অভাবে পূরণ করা সম্ভব না হলে অপূর্ণ পদসমূহ জেলার প্রাপ্যতা অনুযায়ী স্ব স্ব জেলার সাধারণ প্রার্থীদের মধ্য হইতে মেধা তালিকার শীর্ষে অবস্থানকারী প্রার্থীদের দ্বারা পূরণ করিতে হইবে।

(গ) কোটা সংক্রান্ত বিদ্যমান অন্যান্য বিধান অপরিবর্তিত থাকবে। এই পরিপত্রের অস্পষ্টতার কারণেই সারাদেশে কোটা পদ্ধতি নিয়ে আন্দোলন ও বিক্ষোভ শুরু হয়।

উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় সহযোগিতার হাত বাড়ান : আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে অর্থমন্ত্রী

সংবাদ ডেস্ক

image

স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণের পরবর্তী চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় ও উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে

বিজিবি-বিএসএফ সীমান্ত সম্মেলন শুরু

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

ঢাকায় শুরু হয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও ভারতের বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সের (বিএসএফ)

একটি মাত্র এক্সরে মেশিন তাও নষ্ট

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে এক্সরে মেশিনটি নষ্ট। রহস্যজনক কারণে

sangbad ad

সরকার বিনা মূল্যে ১৯ ক্যাটাগরি কর্মী পাঠাবে আমিরাতে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

গৃহকর্মে নিয়োজিত ১৯ ক্যাটাগরির শ্রমিকদের বিনামূল্যে সংযুক্ত আরব আমিরাতে পাঠাবে সরকার।

প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর আট দিনের সফর

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

সৌদি আরব ও যুক্তরাজ্যে আট দিনের সরকারি সফর শেষে সোমবার (২৩ এপ্রিল) সকালে

তারেক লন্ডনে বসে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করছে : প্রধানমন্ত্রী

image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সন্ত্রাসী

নির্বাচনকে ঘিয়ে সৃষ্ট অরাজকতার চেষ্টা কঠোরভাবে দমন করা হবে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, এ বছর নির্বাচনকে ঘিরে কোন অরাজকতা

চিনিশিল্প রক্ষায় ১০০ কোটি টাকা দিচ্ছে সরকার

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশনকে (বিএসএফআইসি) ভর্তুকি হিসেবে আরও ১০০ কোটি টাকা দিচ্ছে

ছাত্রলীগকে নতুন আঙ্গিকে বিকশিত করার কাজ চলছে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আওয়ামী লীগ সভাপতি

sangbad ad