• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০

 

অসুস্থ রাজনীতির জন্ম পাপিয়া-সম্রাটরা

নিউজ আপলোড : ঢাকা , সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০

সংবাদ :
  • বাকী বিল্লাহ ও সাইফ বাবলু
image

সম্রাট, জিকে শামীম, খালেদ, লোকমানদের মতো ক্যাসিনো কিং, পাপিয়ার মতো মাফিয়া কুইন নারী মাদক ব্যবসায়ীরা সবাই যুবলীগের নেতা। রাজনীতি ব্যবহার করে অপরাধ জগতে তাদের উত্থান কিভাবে? রাজনৈতিক পৃষ্ঠপোষকতা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একটি চক্রের সহযোগিতা এবং প্রভাবশালীদের প্রত্যক্ষ মদদে অসুস্থ রাজনৈতিক পরিবেশে জন্ম হচ্ছে পাপিয়া-সম্রাটদের। ধরা পড়েছে হাতেগোণা মাত্র কয়েকজন। আরও কতজন রয়ে গেছে রাজনৈতিক প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায়, সেটা কে বলবে?

রাজনৈতিক, প্রশাসনিক ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ছত্রছায়ায় পাপিয়া দম্পত্তির মতো দেশে গড়ে উঠছে ভয়ঙ্কর মাফিয়া চক্র। রাজনৈতিক দলের প্রভাবশালী নেতা এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে ব্যক্তিগত সখ্যতা গড়ে তুলে এসব মাফিয়া চক্র দিনের পর দিন নানা অপরাধ করে যাচ্ছে। রাজধানীর বারিধারা, গুলশানের অভিজাত আবাসিক হোটেলগুলোতে দিনের পর দিন নানা অপকর্ম চলছে। সেখানে অবৈধভাবে উপার্জিত টাকা খরচের যেন উৎসব চলছে। এসব অপকর্মে সমাজের নানা পেশার উচ্চবিত্তরা তাদের কালো টাকার ক্ষেত্র হিসেবে পাপিয়ার মতো যুবলীগ নেতৃত্বকে ব্যবহার করছে। তবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, অপরাধীদের পরিচয় যাই হোক বিচার হবে।

সোমবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাতে র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক লে. কর্নেল সারওয়ার বিন কাশেম মুঠোফোনে সংবাদকে বলেন, শুধু পাপিয়া নয়, আরও অনেক রাঘব বোয়াল রয়েছেন। তাদের প্রত্যেককে গ্রেফতার করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। ইতোমধ্যে অনেকের বিরুদ্ধে তাদের অনুসন্ধান চলছে। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত দুর্নীতি ও অপরাধমুক্ত দেশ গড়তে র‌্যাবের এ কার্যক্রম চলমান থাকবে। র‌্যাবের একটি সূত্র জানায়, রাজনৈতিক পদ-পদবীর অন্তরালে যে বা যারা বিভিন্ন অপরাধে জড়িত তাদের একটি তালিকা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে রয়েছে। প্রত্যেকের প্রোফাইল তৈরি হচ্ছে। এদের প্রত্যেকের ক্ষমতার উৎস কোথায়, কখন কিভাবে গড়ে উঠেছে, কি কর্মকা- চলছে এগুলোর সব তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে তাদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী অনেকের বিষয়ে তথ্য এসেছে র‌্যাবের কাছে। উপযুক্ত সময় ও প্রমাণ নিয়ে প্রত্যেকের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। অপরাধীদের রাজনৈতিক কোন পরিচয় নেই। অপরাধী যে দলেরই হোক না কেন, যত ক্ষমতাধরই হোক না কেন তাকে ছাড় দেয়া হবে না। ছাড় দেয়ার সুযোগও নেই। এ বিষয়ে হাইকমান্ডের কঠোর নির্দেশনা রয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রাজনৈতিক সিড়ি বেয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে নানাভাবে ছবি তুলে আন্ডারওয়ার্ল্ডের এসব ডন বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তাদের উত্থানের চিত্র দেখে দেশবাসী হতবাক। র‌্যাবের একটি শক্তিশালী টিম গত ২২ ফেব্রুয়ারি শনিবার সকালে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়ে বিদেশ পালিয়ে যাওয়ার সময় অর্থপাচার, ব্লাকমেইলিং এবং অসামাজিক কর্মকা- পরিচালনার অভিযোগে গ্রেফতার করে নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক শামিমা নূর পাপিয়া ওরফে পিউ ওরফে পাপিয়া ডন। র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার হওয়ার পর পাপিয়ার সম্রাজ্যের নানা কাহিনী বেরিয়ে আসে। শীর্ষ রাজনৈতিক নেতা, মন্ত্রী, প্রশাসন এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন ইউনিটের কর্মকর্তার সঙ্গে পাপিয়ার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এরপর বুঝতে বাকি থাকে না পাপিয়ার ক্ষমতার উৎস কোথায় ছিল। শুধু পাপিয়াই নয়, সম্প্রতি ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানে গ্রেফতার হওয়া যুবলীগ ঢাকা দক্ষিণের সাবেক সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট, বিতর্কিত ঠিকাদার গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জিকে শামীম, খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া, আওয়ামী লীগ নেতা এনামুল হক অনু, রুপন ভূইয়া, মোহাম্মদপুরের ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান মিজান ওরফে পাগলা মিজান তারিকুল ইসলাম রাজীব, কাউন্সিলর মমিনুল হক সাঈদ, যুবলীগ থেকে বহিষ্কৃত কাজী আনিস, কাউন্সিলর রতনসহ ক্ষমতাসীন দলের অনেক প্রভাবশালী নেতা।

সূত্র জানায়, ক্যাসিনোকা-ে এসব নেতাদের সর্ম্পকে তদন্ত করতে গিয়ে দেখা গেছে প্রত্যেকই রাজনৈতিক কতিপয় কোন না কোন নেতার হাত ধরে তৈরি হয়েছে। প্রভাবশালী নেতাদের ছত্রছায়ায় থেকে এসব নেতা চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, মাদক ব্যবসা, অস্ত্র ব্যবসাসহ অপরাধ জগতের নিয়ন্ত্রক ছিলেন। তারা ওপরের মহলকে ম্যানেজ করার জন্য যাকে যা দিয়ে হাত করা যায় তাই করেছে। বছরের পর বছর এরা নানা অপরাধ অপকর্ম করলেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসন এদের কিছুই করেনি। গ্রেফতার তো দূরের কথা এদের অপরাধের সাম্রাজ্যের বিষয়ে কোন কথা বলতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সচেতন মহলের ভাষ্য, পাপিয়া সম্রাটরা একদিনে গড়ে ওঠেনি। এদের নেপথ্যে ছিল রাজনৈতিক নেতাদের পূর্ণ সমর্থন। একাধিক নেতার সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তুলে পাপিয়া, সম্রাট, খালেদ, এনামূল, লোকামান ভূইয়া, কাউন্সিলর পাগলা মিজান, তারিকুল ইসলাম রাজীব, ময়নুল হক মঞ্জুর মতো ব্যক্তিরা রাজনীতিতে দুর্বৃত্তায়ন গড়ে তুলেছে। সাবেক কাউন্সিলার মমিনুল হক সাইঈ। এছাড়াও পাপিয়ার মতো আরও অনেক নারী ক্যাডার গড়ে উঠেছে। তারা অনেককে নানাভাবে রাজনৈতিক নেতা ও ক্যাডারদের ভয় দেখাচ্ছে।

কয়েকজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলেন, গুলশান ও বারিধারার আবাসিক হোটেলগুলোতে তেমন তদারকি নেই। রাজনৈতিক খোঁজখবর নেয়া ছাড়া অন্য তথ্য কমই নেয়া হয়। অবৈধভাবে উপার্জিত টাকা রাখার ওপর নানা কড়াকড়ির কারণে অনেকেই ওইসব স্থানে তা ব্যয় করছে। এটাকে এখনই কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ না করলে পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে।

যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক শামিমা নূর পাপিয়া গ্রেফতার হওয়ার পর ক্ষমতাসীন দলের অঙ্গসংগঠন যুবলীগ আলোচনায় আসে নতুন করে। নরসিংদীর রাজনীতিতে নিষিদ্ধ থাকার পরও কিভাবে পাপিয়া যুব মহিলা লীগের মতো একটি সংগঠনের সাধারণ সম্পাদকের পদ পেয়েছেন তা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়। নরসিংদীতে সন্ত্রাসী বাহিনী গড়ে তোলা, ঢাকার অভিজাত হোটেলগুলোতে মাসের পর মাস রুম বুকিং রেখে উচ্চবিলাসী খরচ, বাড়ি, গাড়িসহ বিপুল পরিমাণ সম্পদের মালিক হওয়ার নেপথ্যে উৎস কি ছিল এসব নিয়ে রীতিমতো আলোচনা শুরু হয়। র‌্যাবের দেয়া তথ্যমতে, ঢাকার একটি হোটেলে পাপিয়া ২ মাসে প্রায় ১ কোটি টাকার মতো খরচ করেছেন। ক্ষমতাসীন দলের একাধিক মন্ত্রীর সঙ্গে তার ছবিও পাওয়া যায়। যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হতে থাকে। ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে যুবলীগ, আওয়ামী লীগের কয়েকজন প্রভাবশালী নেতা গ্রেফতার হওয়ার পর রাজনীতিতে শুদ্ধি অভিযান শুরু হয়। অবৈধভাবে সম্পদ অর্জনকারীদের বিরুদ্ধে অনুসন্ধানে নামে দুর্নীতি দমন কমিশনও (দুদক)। এ পর্যন্ত সরকারি দলের সংসদ সদস্য, বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের শীর্ষ পর্যায়ের একাধিক নেতা, ব্যবসায়ী এবং কয়েকটি প্রভাবশালী সরকারি প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ কর্মকর্তাসহ ২ শতাধিক ব্যক্তির তালিকা রয়েছে দুদকের কাছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানের মধ্যে অনেক প্রভাবশালী নেতা আত্মগোপনে চলে যান। এসব অভিযানের মধ্যেও শামিমা নূর পাপিয়া ছিল ধরাছোঁয়ার বাইরে। এতদিন পাপিয়াকে কেন গ্রেফতার করা হয়নি তা নিয়েও রয়েছে নানা রহস্য। হোটেল ওয়েস্টিনসহ একাধিক ভিআইপি হোটেলে পাপিয়ার সঙ্গে রাজনৈতিক নেতা থেকে শুরু করে বিভিন্ন পর্যায়ে ভিআইপি ব্যক্তিদের নিয়মিত সাক্ষাৎ হতো। পাপিয়ার নামে বুকিং থাকা হোটেল কক্ষে বিভিন্ন বয়সী মেয়ে, মাদকের সম্ভার থাকত নিয়মিত।

র‌্যাব জানায়, ‘সম্প্রতি জাল টাকা এবং নারীঘটিত কেলেঙ্কারির ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে পাপিয়ার অজানা সব কাহিনী জানা যায়। তিনি যে বিদেশে টাকা পাচারসহ ভয়ঙ্কর অপরাধ কর্মকা- করছেন তা নিশ্চিত হওয়া যায়। এর পরেই তাকে গ্রেফতার করা হয়। এসব ঘটনায় তার সঙ্গে আর কারা জড়িত তাদের প্রাথমিক সব তথ্য মিলেছে। তাদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে। রাজধানীর তেজগাঁওয়ে এফডিসি গেট সংলগ্ন এলাকায় পাপিয়ার যৌথ মালিকানাধীন শোরুম ‘কার এক্সচেঞ্জ’ এবং নরসিংদীতে ‘কেএমসি কার ওয়াশ অ্যান্ড অটো সলিউশন’ নামে একটি গাড়ি সার্ভিসিং সেন্টার আছে। এসব ব্যবসার আড়ালে অবৈধ অস্ত্র, মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকা-ই ছিল তার প্রধান কাজ। সমাজসেবার নামে নরসিংদী এলাকায় অসহায় নারীদের আর্থিক দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে সহযোগিতার নামে তাদের অনৈতিক কাজে লিপ্ত করাতেন। অধিকাংশ সময় তিনি নরসিংদী ও রাজধানীর বিভিন্ন বিলাসবহুল হোটেলে অবস্থান করতেন। নরসিংদী এলাকায় চাঁদাবাজির জন্য তার একটি ক্যাডার বাহিনীও আছে। স্বামীর প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় অবৈধ অস্ত্র-মাদক ব্যবসা ও চাঁদাবাজির মাধ্যমে অল্প সময়ের মধ্যে তিনি নরসিংদী ও ঢাকায় একাধিক বিলাসবহুল বাড়ি, গাড়ি, ফ্ল্যাট, প্লটসহ বিপুল পরিমাণ নগদ অর্থের মালিক বনে গেছেন। পাপিয়ার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরী তার স্ত্রীর ব্যবসায় সহযোগিতার পাশাপাশি থাইল্যান্ডে বারের ব্যবসা করেন। ফার্মগেট এলাকাস্থ ২৮ ইন্দিরা রোডে পাপিয়া দম্পত্তির ২টি বিলাসবহুল ফ্ল্যাট, নরসিংদী শহরে ২টি ফ্ল্যাট, বিলাসবহুল ব্যক্তিগত গাড়ি ও নরসিংদীর বাগদী এলাকায় ২ কোটি টাকা মূল্যের ২টি প্লট আছে রয়েছে। কেএমসি কার ওয়াশে ৪০ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ আছে। গত ২০১৯ সালের ১২ অক্টোবর থেকে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তারা বিভিন্ন মেয়াদে মোট ৫৯ দিন হোটেল ওয়েস্টিনের কয়েকটি বিলাসবহুল রুমে অবস্থান করে বলে তথ্য পেয়েছে র‌্যাব।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রশাসনিক দফতর খোলা রাখার অনুমতি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

করোনা সংক্রমণের কারণে প্রায় আড়াই মাস ধরে বন্ধ থাকা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অফিস

খাদ্য উৎপাদন আরও বাড়াতে হবে : কৃষিমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক বলেছেন, ‘করোনার কারণে সম্ভাব্য খাদ্য সংকট

অন্তঃসত্ত্বা নারীদের অগ্রাধিকারভিত্তিতে করোনা পরীক্ষা করার নির্দেশ হাইকোর্টের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

সরকারি-বেসরকারি সব হাসপাতালে অন্তঃসত্ত্বা নারীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে করোনা টেস্টসহ অন্যান্য সুচিকিৎসা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

sangbad ad

দেশ ভাগ হচ্ছে রেড, ইয়েলো ও গ্রিন জোনে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

করোনা মহামারির কারণে সংক্রমণ এবং মৃত্যুর হার অনুযায়ী সারা দেশকে তিনটি জোন-এ ভাগ করা হচ্ছে। এগুলো হলো; রেড, গ্রিন ও ইয়েলো জোন।

সরকারী অফিসে একসঙ্গে ২৫ শতাংশ কর্মকর্তা অফিসে থাকবেন

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

করোনার ঝুকি উপেক্ষা করে সব অফিস খুলে দেয়ার পর এখন সরকারী অফিসগুলোতে

বাস ভাড়া বেড়েছে মালিকদের স্বার্থে; লুটপাটের জন্য : মির্জা ফখরুল

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, কম আয়ের মানুষই বাসে ওঠে। কার স্বার্থে বাস ভাড়া বাড়িয়েছে? মালিকদের স্বার্থে। মালিকদের আবার অনুদান দিচ্ছে। পুরো বিষয়টা হয়েছে লুটপাটের জন্য।

পরিস্থিতির অবনতি হলে কঠোর সিদ্ধান্ত : ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, হুড়োহুড়ি করা, অতিরিক্ত যাত্রী হওয়া, স্বাস্থ্যবিধি না মানা দেশকে আরও সংকটে নিমজ্জিত করতে পারে।

ডিপিএস আশরাফুল আলম খোকনের পিতার মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার উপ-প্রেস সচিব (ডিপিএস) আশরাফুল আলম খোকনের পিতা আলহাজ মো. আনোয়ার হোসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

বাজেট অধিবেশনে সাংবাদিকদের সংসদে না যাওয়ার অনুরোধ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

করোনাভাইরাস সংক্রামনের কারণে জাতীয় সংসদের আসন্ন বাজেট অধিবেশনে সাংবাদিকদের সশরীরে উপস্থিত না হওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

sangbad ad