• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , রোববার, ২৯ মার্চ ২০২০

 

অনিয়মের অভিযোগ তিন বিচারপতির বিরুদ্ধে সাময়িক অব্যাহতিদান

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
image

দুর্নীতির অভিযোগে হাইকোর্টের তিন বিচারপতিকে সাময়িক অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। তাদের অনিয়মের অভিযোগ তদন্ত শুরু করেছেন সুপ্রিম কোর্ট। আপিল বিভাগের একজন জ্যেষ্ঠ বিচারপতির নেতৃত্বে চলছে এই তদন্ত। কোন ধরনের দুর্নীতি, কত টাকর দুর্নীতি কিংবা পরবর্তী পদক্ষেপ সম্পর্কিত বিষয়ে আইনমন্ত্রী কিংবা সংশ্লিষ্ট কেউ মন্তব্য করতে রাজি হননি। সূত্রমতে, প্রভাব খাটিয়ে ডিক্রি পাল্টে দেয়ার অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। অবশ্য আইনজীবীরা দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত বিচারপতির সংখ্যা ভবিষ্যতে আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন।

সুপ্রিম কোর্টের নিয়মিত কার্যতালিকায় অন্য বিচারপতিদের নাম ও বেঞ্চ নম্বর উল্লেখ থাকলেও বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী, বিচারপতি কাজী রেজাউল হক এবং বিচারপতি একেএম জহুরুল হক নাম গতকাল রাখা হয়নি। এ বিষয়ে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল কার্যালয় জানায়, তিন বিচারপতিকে আপাতত বিচার কাজ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে কিছু বিষয়ে তদন্ত চলছে। তবে সূত্রমতে, দুর্নীতির অভিযোগ ওঠায় হাইকোর্ট বিভাগের এই তিন বিচারপতিকে আপাতত তাদের দায়িত্ব পালন থেকে বিরত রাখা হয়েছে। এ কারণে বৃহস্পতিবারের কার্যতালিকায় তাদের নাম রাখা হয়নি।

১৬ মে নিয়মবহির্ভূতভাবে নিম্ন আদালতের মামলায় হস্তক্ষেপ করে ডিক্রি পাল্টে দেয়ার অভিযোগ ওঠেছিল হাইকোর্টের বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি একেএম জহুরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চের বিরুদ্ধে। বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে তুলেছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। এরই ধারাবাহিকতায় প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ সংশ্লিষ্ট অর্থঋণ আদালতের (নিম্ন আদালত) মামলাটির সব ডিক্রি ও আদেশ বাতিল ঘোষণা করেছিলেন।

তিন বিচারপতির অব্যাহতির বিষয়ে জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সংবাদকে বলেন, এটা আমার বিষয় না। এটা রাষ্ট্রপতি এবং প্রধান বিচারপতি দেখবেন। সুতরাং এ বিষয়ে আমি কোন বক্তব্য দিতে পারব না।

প্রভাব খাটিয়ে মামলার রায় পরিবর্তন করার অভিযোগে বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি একেএম জহুরুল হককে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে কিনা, সে বিষয়ে কোন মন্তব্য করেননি অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তিনি বলেন, হাইকোর্টের তিন বিচারপতির বিরুদ্ধে তদন্তের বিষয়টি শুনেছি। তবে এটা প্রধান বিচারপতি ও রাষ্ট্রপতির বিষয়। তাই আপাতত এ বিষয়ে মন্তব্য করতে চাই না।

তিন বিচারপতিকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া প্রসঙ্গে অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী সংবাদকে বলেন, আমরা অনেক বারই বলেছিলাম, কিন্তু কোন লাভ হয়নি। বিচার বিভাগে যদি এমন হয়, তাহলে অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের কি হবে। এখন তো মাত্র তিনজন, ভবিষ্যতে এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তিনি।

সুপ্রিম কোর্ট বারের (আইনজীবী সমিতি) সম্পাদক ব্যারিস্টার এএম মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, তিন বিচারপতি ছাড়াও হাইকোর্টের আরও অনেক বিচারপতির বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের পর সুপ্রিম জুডিসিয়াল কাউন্সিল আবারও পুনরুজ্জীবিত হয়েছে। এখন এটির কার্যক্রম কি অবস্থায় রয়েছে আমরা জানি না। তাই এটি স্পষ্ট করা দরকার।

তিনি বলেন, বিচার বিভাগে আরও অনেকে দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত। এ বিষয়ে আমরা এর আগে প্রধান বিচারপতিকে বারের পক্ষ থেকে অবহিত করেছি। এ বিষয়টি আমলে নিয়ে তদন্ত কাজ অব্যাহত রাখা হবে বলে আশাকরি।

খোজ নিয়ে জানা গেছে, দেশের ইতিহাসে এরকম ঘটনা ২য় বারের মতো ঘটেছে। এর আগে ২০০৪-২০০৫ সালের দিকে বিচারপতি সৈয়দ শাহেদের বিরুদ্ধে সুপ্রিম জুডিশিয়াল করা হয়েছিল। তখন তাকে অব্যাহতি দেয়া হয়। এরপর আর কোন বিচারপতির বিরুদ্ধে দুর্নীতির কারনে সুপ্রিম জুডিশিয়ারি হয়নি।

সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিশেষ কর্মকর্তা মো. সাইফুর রহমান এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, প্রাথমিক অনুসন্ধানের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের তিন বিচারপতিকে দায়িত্ব থেকে সাময়িক অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। প্রাথমিক অনুসন্ধানের প্রেক্ষাপটে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে পরামর্শক্রমে বিচারকার্য থেকে বিরত রাখার সিদ্ধান্তের কথা তাদের অবহিত করা হয়েছে।

দায়িত্ব থেকে বিরত রাখার সিদ্ধান্তের পর ওই তিন বিচারপতি ছুটি চেয়েছেন বলেও জানান হাইকোর্ট বিভাগের এই বিশেষ কর্মকর্তা। তবে তাদের ছুটি মঞ্জুর হয়েছে কিনা, সে বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি তিনি।

একদিন আগে অর্থাৎ বুধবার ওই তিন বিচারপতির বেঞ্চ ও এখতিয়ার ছিল। তারা দেওয়ানি মামলার রুল ও আবেদন শুনতেন। মূল ভবনের ১০ নম্বর এজলাসে বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দ দ্বৈত বেঞ্চে বসতেন। বিচারপতি কাজী রেজাউল হক মূল ভবনের ৬ নম্বর এজলাসে এবং বিচারপতি একেএম জহিরুল হক অ্যানেক্স ভবনের ৩০ নম্বর এজলাসে বসতেন।

বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ২০০২ সালের ২৯ জুলাই হাইকোর্ট বিভাগের অতিরিক্ত বিচারপতি নিযুক্ত হন। দুই বছর পর স্থায়ী বিচারপতির শপথ নেন তিনি। বিচারপতি কাজী রেজাউল হক ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হক ২০১০ সালের ১৮ এপ্রিল অতিরিক্ত বিচারপতি নিযুক্ত হন এবং ২০১২ সালের ১৫ এপ্রিল স্থায়ী বিচারপতি হন তারা।

বিমানের আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ থাকবে আরও কিছু দিন

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বিশ্বজুড়ে নভেল করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষাপটে এরইমধ্যে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক রুটে বন্ধ করা ফ্লাইট চালুতে আরও সময় নেবে রাষ্ট্রীয়

বিসিবির স্বাধীনতা দিবস উদযাপন

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বর্ডারগার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) প্রতি বছরের ন্যায় এবারও যথাযোগ্য মর্যাদা এবং উৎসাহ উদ্দীপনার সাথে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন

করোনাযুদ্ধে সবাই ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘বৈশ্বিক মহামারীতে রূপ নেয়া করোনাভাইরাসের প্রকোপ মোকাবিলা’ বাংলাদেশের জন্য যুদ্ধ হিসেবে উল্লেখ

sangbad ad

শিশু দিবাযত্ন কেন্দ্র ও কর্মজীবী মহিলা হোস্টেলে সতর্কতা

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

কর্মজীবী মায়েদের শিশু সন্তান ও কর্মজীবী নারীদের সুরক্ষা এবং নিরাপত্তা বিবেচনায় করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে মহিলা ও শিশু মন্ত্রণালয়ের

ডাক্তার ও রোগীদের সুরক্ষায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

করোনাভাইরাসজনিত স্বাস্থ্য ঝুঁকি মোকাবিলায় বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) তৈরি হ্যান্ড স্যানিটাইজার ডাক্তার

করোনার প্রভাবে যথাসময়ে বিদ্যুৎ ও জ্বালানিখাতের প্রকল্প বাস্তবায়ন নিয়ে সংশয়

ফয়েজ আহমেদ তুষার

image

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বিদ্যুৎ ও জ্বালানিখাতের বেশকিছু প্রকল্প যথাসময়ে বাস্তবায়ন নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে। বিদেশি কর্মীদের অবাধে

বিদেশি ডিগ্রির সমতাবিধানের নীতিমালা যুগোপযোগী করার উদ্যোগ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বিদেশি ডিগ্রি সমতাবিধানের নীতিমালা যুগোপযোগী করার উদ্যোগ নিয়েছে বিশ^বিদ্যাল মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়। শিক্ষামন্ত্রী

বিদেশফেরতদের পুলিশের তত্ত্বাবধানে হস্তান্তরের নির্দেশ হাইকোর্টের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

করোনাভাইরাস থেকে দেশের মানুষদের রক্ষা করতে বিদেশফেরত প্রতিটি যাত্রীকে পুলিশের তত্ত্বাবধানে হস্তান্তরের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

নিত্যপণ্যের কৃত্রিম সঙ্কটকারীদের ধরতে চলছে বিশেষ অভিযান

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

নভেল করোনাভাইরাস আতঙ্কে নিত্যপণ্যের বিক্রি বেড়েছে। এ সুযোগে অনেক অসাধু ব্যবসায়ী বাড়িয়ে দিচ্ছেন নিত্যপণ্যের দাম, করছেন মজুত।

sangbad ad