• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

 

সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

নিউজ আপলোড : ঢাকা , রবিবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৮

সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক

৭ এপ্রিল, শনিবার সিরিয়ার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত সর্বশেষ শহর দৌমায় ‘রাসায়নিক হামলার’ জন্য বাশার বাহিনীকে দায়ী করে সরকারি বিভিন্ন স্থাপনায় একযোগে হামলা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স। দেশটির সামরিক ও বেসামরিক বিভিন্ন স্থাপনা লক্ষ্য করে শতাধিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে চালানো এ হামলাকে ‘সফল’ দাবি করছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এর পক্ষে সমর্থন জানিয়েছে জার্মানি। তবে যুক্তরাষ্ট্র ও তার পশ্চিমা মিত্রদের এমন আগ্রাসী পদক্ষেপের ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের জরুরি বৈঠক ডেকেছে বাশারের মিত্র রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

শুক্রবার (১৩ এপ্রিল) রাতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হোয়াইট হাউজ থেকে সিরিয়ায় হামলা শুরুর ঘোষণা দেন। ঘোষণায় বলা হয় যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য এবং ফ্রান্স সিরিয়ার সামরিক ঘাঁটিগুলোর সম্ভাব্য রাসায়নিক অস্ত্রভাণ্ডারে হামলা চালাবে। টেলিভিশনে সম্প্রচারিত ভাষণে ট্রাম্প বলেন, ‘কিছুক্ষণ আগে আমি যুক্তরাষ্ট্রের সশস্ত্র বাহিনীকে সিরিয়ার স্বৈরশাসক বাশার আল-আসাদের রাসায়নিক অস্ত্রের স্থাপনাগুলো লক্ষ্য করে হামলা চালানোর নির্দেশ দিয়েছি। (সিরিয়ায়) বর্বরতার বিরুদ্ধে ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিক্রিয়া সামরিক, অর্থনৈতিক ও কূটনৈতিক ক্ষেত্রে আমাদের ক্ষমতাকে সংহত করকে।’

৮ মিনিটের ওই ভাষণে সিরিয়ার ‘স্বৈরশাসককে‘ সমর্থন দেয়ায় রাশিয়া ও ইরানেরও সমালোচনা করে ট্রাম্প বলেছেন, আসাদ সরকার যতক্ষণ পর্যন্ত রাসায়নিক অস্ত্রের ব্যবহার বন্ধ না করছে, ততক্ষণ পর্যন্ত এ ধরনের ঘামলা চলবে। এ ঘোষণার পরপরই সিরিয়ার স্থানীয় সময় ভোর ৪টায় যুক্তরাষ্ট্র ও তার দুই মিত্র দেশের বিমান ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় দেশটিতে। ওয়াশিংটন, লন্ডন ও মস্কো জানিয়েছে, তাদের বিমান ও নৌ বাহিনী সিরিয়ার বেশ কয়েকটি স্থাপনায় কার্যকর হামলা চালিয়েছে, তারা ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে ১০৫টি। জবাবে ৭১টি ক্ষেপণাস্ত্র বিধ্বস্ত করার দাবি দামেস্কের। সে সময় সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে বড় ধরনের বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়। ট্রাম্প বলেছেন, বাশার সরকার যতক্ষণ পর্যন্ত রাসায়নিক অস্ত্রের ব্যবহার বন্ধ না করছে, ততক্ষণ পর্যন্ত এ ধরনের প্রতিক্রিয়া বজায় রাখার প্রস্তুতি আছে তার। এ সময় রাজধানী দামেস্কে বড় ধরনের বিস্কোরণের শব্দ পাওয়া যায়। দামেস্কের পূর্বাঞ্চল কমলা রং ধারণ করে। এক প্রত্যক্ষদর্শী দামেস্কে কমপক্ষে ছয়টি বিস্ফোরণের শব্দ শোনার কথা ও আকাশে ধোঁয়া দেখতে পাওয়ার কথা জানান। এদিকে, নিরাপত্তা পরিষদের তিন স্থায়ী সদস্যের চালানো যৌথ এ হামলা ‘ব্যর্থ’ হয়েছে বলে দাবি করেছে সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম। একে ‘আন্তর্জাতিক আইনের চরম লঙ্ঘন’ হিসেবেও অভিহিত করেছে তারা। ২০১৫ সাল থেকে সিরিয়ার গৃহযুদ্ধে বাশার বাহিনীকে সমর্থন দিয়ে আসা রাশিয়া এর পাল্টা জবাব দেয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে। জাতিসংঘে নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূত আনাতোলি আন্তোনভ বলেছেন, ‘এ ধরনের কর্মকাণ্ডের প্রতিক্রিয়া হবে ভয়াবহ এবং সেই পরিণতির জন্য দায়ী থাকবে ওয়াশিংটন, লন্ডন আর প্যারিস।’

তবে মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর পেন্টাগনের ব্রিফিংয়ে জয়েন্ট চিফ অফ স্টাফসের চেয়ারম্যান জেনারেল জোসেফ ডানফোর্ড সিরিয়ার তিনটি স্থাপনায় একযোগে হামলা চালানোর কথা জানান। এ লক্ষ্যবস্তুর মধ্যে একটি গবেষণাগার ও রাসায়নিক অস্ত্র মজুদ করে রাখা হয়েছে এমন একটি কারখানা ছিল বলেও দাবি তার। সিরিয়ার যুদ্ধপরিস্থিতি পর্যবেক্ষণকারী মানবাধিকার সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস (এসওএইচআর) জানিয়েছে, হামলায় সিরিয়ার তিনটি বৈজ্ঞানিক গবেষণাগার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, যার মধ্যে দু’টির অবস্থান দামেস্কে, অন্যটি হোমসে। যুক্তরাষ্ট্র ও তার পশ্চিমা মিত্রদের এ পদক্ষেপের মধ্যে দিয়ে সিরিয়ায় গত সাত বছর ধরে চলা রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে নতুন এক অধ্যায়ের সূচনা হলো বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

উ. কোরিয়ার সঙ্গে পুনরায় আলোচনায় প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র

সংবাদ ডেস্ক

image

কোরীয় উপদ্বীপে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ করার লক্ষ্যে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে পুনরায় আলোচনা

রোহিঙ্গা নির্যাতন : প্রাথমিক তদন্ত শুরু অপরাধ আদালতের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

মায়ানমারের বিরুদ্ধে গত মঙ্গলবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রোহিঙ্গা নির্যাতনের প্রাথমিক তদন্ত

মায়ানমার সেনা আইনের ঊর্ধ্বে থাকলে দেশটিতে শান্তি ফিরবে না

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

মায়ানমারে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হলে সেনাবাহিনীর ক্ষমতা কমিয়ে বেসামরিক প্রশাসনকে শক্তিশালী

sangbad ad

মুসলিম নারীদের সামাজিব ও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে উৎসাহ দেবে ওআইসি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

রাষ্ট্রীয়, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে মুসলীম নারীদের আরও সম্পৃক্ত হতে উৎসাহিত

তুরস্ক ও রাশিয়াকে অবশ্যই ইতিবাচক সমাধান খুঁজতে হবে: এরদোগান

সংবাদ ডেস্ক

image

সিরিয়া ইস্যুতে মস্কো ও রাশিয়াকে অবশ্যই ইতিবাচক সমাধান খুঁজতে হবে বলে মন্তব্য

চীন ও হংকংয়ে মাংখুটের আঘাত

সংবাদ ডেস্ক

image

ফিলিপাইনের উত্তরাঞ্চলে ধ্বংসযজ্ঞ চালানোর পর এবার চীন ও হংকংয়ে আঘাত হেনেছে

ফিলিপাইনে টাইফুনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৫

image

টাইফুন ম্যাংখুতের আঘাতে ধ্বংসযজ্ঞে পরিনত হয়েছে ফিলিপাইন জুড়ে। রোববার (১৬ সেপ্টেম্বর) কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে

আমার সঙ্গে খেল, তোমার মোবাইলের সঙ্গে নয়

সংবাদ ডেস্ক

image

আজকাল প্রযুক্তির আসক্তির কারণে সামাজিক বন্ধন ভেঙে পড়ছে। বিষয়টি নিয়ে অনেক

পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের বল এখন যুক্তরাষ্ট্রের পকেটে : উত্তর কোরিয়া

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

কোরীয় উপদ্বীপের পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ এখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওপরই নির্ভর করবে

sangbad ad