• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮

 

প্রতিবেশীদের সঙ্গে শান্তি স্থাপনে আলোচনায় আগ্রহী ইমরান

নিউজ আপলোড : ঢাকা , সোমবার, ২০ আগস্ট ২০১৮

সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
image

প্রতিবেশী সব দেশের সঙ্গেই স্বাভাবিক ও শান্তিপূর্ণ সম্পর্ক গড়তে আলোচনায় বসার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এর পাশাপাশি দেশের বর্তমান আর্থিক সঙ্কট লাঘবে ঋণের চাপ কমাতে দ্রুতই দেশজুড়ে কৃচ্ছ্রতা অভিযান শুরু করার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর জন্য নিয়োজিত ৫২৪ জন কর্মচারীর সংখ্যা কমিয়ে তা ২-এ নামিয়ে আনার ঘোষণাও দিয়েছেন ইমরান। পাশাপাশি বুলেট প্রুফ গাড়ি বহরের অধিকাংশই বিক্রি করে দিয়ে রাষ্ট্রীয় কোষাগারের ঘাটতি মোকাবিলার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন। পাকিস্তানের ২২তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেয়ার পরের দিন (রোববার) রাত সাড়ে নয়টায় জাতির উদ্দেশে দেয়া প্রথম ভাষণে এমন অভিপ্রায় ব্যক্ত করার পাশাপাশি এ ঘোষণা দেন তিনি। এসময় প্রবাসী পাকিস্তানিদের নিজের দেশে বিনিয়োগ ও ধনীদের নিয়ম মেনে কর দেয়ারও আহ্বান জানান ইমরান।

৬৫ বছর বয়সী সাবেক ক্রিকেট কিংবদন্তী ইমরান গত মাসের সাধারণ নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর গত শনিবার দেশটির ২২তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন। দুর্নীতিবিরোধী প্রচারণা চালিয়ে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে তরুণ ভোটার ও পাকিস্তানে ক্রমাগতভাবে বাড়তে থাকা মধ্যবিত্ত শ্রেণীর মন জয় করে ইমরান ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হতে পেরেছেন বলে পর্যবেক্ষকদের অভিমত। এভাবেই তেহরিক-ই-ইনসাফ দলের (পিটিআই) এ শীর্ষ নেতা ২০ কোটি ৮০ লাখ জনসংখ্যার মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশটির শীর্ষ নেতায় পরিণত হয়েছেন বলে ধারণা তাদের। তবে বিরোধী রাজনীতিকরা ইমরানের জয়ের পেছনে পাকিস্তানের প্রভাবশালী সামরিক বাহিনীর হাত রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন। গত রোববার (১৯ আগস্ট) রাতে ঘণ্টাখানেকের ওই ভাষণে ভারত বা অন্য কোন দেশের নাম উল্লেখ না করেই ইমরান বলেছেন, ‘প্রতিবেশীদের সবার সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। আমি সম্পর্কের উন্নতি চাই। তা না-হলে পাকিস্তানে শান্তি আসবে না।’ পাকিস্তানের বর্তমান ঋণের পরিমাণ ২৮লাখ কোটি টাকা । ব্যক্তি পর্যায়ে কর ফাঁকির জন্য বিখ্যাত পাকিস্তান। দেশটির মোট জনসংখ্যার ১ শতাংশেরও কম নাগরিক নিয়মিত আয়কর দেয় বলে জানিয়েছে রয়টার্স। জাতির উদ্দেশে দেয়া ওই ভাষণে ইমরান দেশের ঋণের মাত্রা ও দারিদ্র্যতা কমিয়ে ইসলামী কল্যাণমূলক ‘নতুন পাকিস্তান’ গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের। বিলাসী জীবনযাপন থেকে ধর্মীয় রাজনীতিতে আকৃষ্ট হওয়া এ সাবেক ক্রিকেটার বলেছেন, মদিনায় নবী মোহাম্মদ যে আদর্শ রাষ্ট্রের কথা বলেছিলেন, পাকিস্তানকে সেই আদলেই একটি কল্যাণ রাষ্ট্রে পরিণত করতে চান তিনি। ‘আল্লাহ যাদের পর্যাপ্ত দেননি আমি তাদের পেছনেই খরচ করতে চাই’ বলেছেন ইমরান।

এদিকে দেশের বর্তমান আর্থিক সঙ্কট সমাধানের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের বুলেটপ্রুফ গাড়িবহরের বেশিরভাগ গাড়ি বিক্রি করে দিয়ে নিজেই এ কৃচ্ছ্রতা অভিযানের উদ্বোধন করবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি। ইমরান বলেন, ‘ঋণ নিয়ে জীবনযাপন ও অন্য দেশের কাছ থেকে সহায়তা নিয়ে চলার বাজে অভ্যাস করেছি আমরা। কোন দেশ এভাবে উন্নতি করতে পারে না। একটি দেশকে অবশ্যই নিজের পায়ে দাঁড়াতে হবে।’ এ সময় তিনি ধনীদের কর দেয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, ‘কর দেয়া আপনাদের দায়িত্ব। মনে করুন এটি জিহাদ, আপনার দেয়া কর দেশের উন্নতিতে ব্যয় হবে।’ ‘আমি আমার জনগণকে বলতে চাই, আমি সাধারণ জীবনযাপন করব, আমি আপনাদের অর্থ বাঁচাব’ বলে জানান পাকিস্তানের নবনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী। মুদ্রা সংকট ও দীর্ঘদিনের মিত্র যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্কে টানাপোড়েনসহ উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া বেশকিছু সমস্যার মুখেও পড়তে হচ্ছে নতুন এ প্রধানমন্ত্রীকে। অর্থনৈতিক সমস্যায় জর্জরিত পাকিস্তানকে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ‘বেইলআউট’ সুবিধা পেতে আরেক দফা আবেদন করতে হবে বলেও অনুমান আন্তর্জাতিক বিশ্লেষকদের। তাই এ সংকট মোকাবিলায় নীতিগত পরিকল্পনা কী হবে, ভাষণে সে বিষয়ে কোন ধরনের আলোকপাত না করলেও ইমরান কৃচ্ছ্রতা অভিযান পরিচালনায় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ইশরাত হুসেনের নেতৃত্বে একটি টাস্কফোর্স গঠন করা হবে বলে জানিয়েছেন। রোববার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেনার বোঝার জন্য আগের সরকারকে দায়ী করে ইমরান আবার বলেছেন, অর্থের অপচয় রুখবেন তিনি। ঔপনিবেশিক আমলের মানসিকতা ও অভিজাত পাকিস্তানিদের বিলাসী জীবনযাপনের সমালোচনা করে পিটিআইর এ নেতা প্রাসাদোপম প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের পরিবর্তে তিন কক্ষবিশিষ্ট একটি ছোট বাসায় থাকবেন বলে ঘোষণা দেন। বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে ৫২৪ জন পরিচারক, ৮০টি গাড়ি, তার মধ্যে ৩৩টা বুলেটপ্রুফ! আমি দু’জন সহকারীকে রাখব, দু’টো বুলেটপ্রুফ গাড়ি থাকবে। বাকি গাড়িগুলো নিলাম করে টাকাটা সরকারি কোষাগারে দিয়ে দেব। আমার কোন ব্যবসা নেই। আমার জীবনযাত্রাও সাদামাঠা।’

মুসলিম জঙ্গিদের হুমকির মুখে থাকা পাকিস্তানের কোন প্রধানমন্ত্রীর জন্য এমন পদক্ষেপ ‘বেশ সাহসী’ বলে মন্তব্য রয়টার্সের। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে পাকিস্তান ভয়াবহ বিপদে আছে বলেও এ সময় মন্তব্য করেন তিনি। নবজাতক ও মাতৃমৃত্যুর হার কমানোর প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি স্কুলের বাইরে থাকা সোয়া দুই কোটিরও বেশি শিশুকে সাহায্য করার বিষয় নিয়েও কথা বলেছেন তিনি, এ সময় আগে কখনোই সরকারি কোন দায়িত্বে না থাকা ইমরানের কণ্ঠে ছিল আবেগের রেশ।

অপরদিকে রোববার পাকিস্তানে সরকারি ছুটি থাক সত্ত্বেও সকালের শারীরচর্চা শেষে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে পৌঁছে যান ইমরান। পরনে ট্র্যাকস্যুট, হাতে নোটবুক। পরে ইমরানের ফেসবুক পেজে পোস্ট করা হয়ওই ছবি। সঙ্গে একটা লাইন- ‘দেশ চালাতে হলে ছুটি বলে কিছু থাকে না।’ ওদিনই ইমরানের মন্ত্রিসভার সদস্যদের নাম ঘোষণা করেছে তার দল পিটিআই। এদের মধ্যে ১২ জনই পারভেজ মুশাররফের শাসনামলের গুরুত্বপূর্ণ পদে ছিলেন।

শত্রুদের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নিতে ইরানকে সহযোগিতা করবে রাশিয়া

সংবাদ ডেস্ক

image

সম্প্রতি ইরানে সামরিক কুচকাওয়াজে বন্দুকধারীদের হামলার ঘটনায় দেশটির প্রতি দুঃখ প্রকাশ

মায়ানমারের সার্বভৌমত্বে উপর জতিসংঘের হস্তক্ষেপের কোনও অধিকার নেই : মায়ানমার সেনাপ্রধান

image

মায়ানমারের সার্বভৌমত্বে উপর জতিসংঘের হস্তক্ষেপের কোনও অধিকার নেই বলে জানিয়েছেন

রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে মায়ানমারের মোকাবিলার সামর্থ্য প্রমাণ করেছে আইসিসি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

রোহিঙ্গা ইস্যুতে মায়ানমারকে মোকাবিলার সামর্থ্য প্রমাণ করেছে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত

sangbad ad

উ. কোরিয়ার সঙ্গে পুনরায় আলোচনায় প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র

সংবাদ ডেস্ক

image

কোরীয় উপদ্বীপে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ করার লক্ষ্যে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে পুনরায় আলোচনা

রোহিঙ্গা নির্যাতন : প্রাথমিক তদন্ত শুরু অপরাধ আদালতের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

মায়ানমারের বিরুদ্ধে গত মঙ্গলবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রোহিঙ্গা নির্যাতনের প্রাথমিক তদন্ত

মায়ানমার সেনা আইনের ঊর্ধ্বে থাকলে দেশটিতে শান্তি ফিরবে না

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

মায়ানমারে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হলে সেনাবাহিনীর ক্ষমতা কমিয়ে বেসামরিক প্রশাসনকে শক্তিশালী

মুসলিম নারীদের সামাজিব ও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে উৎসাহ দেবে ওআইসি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

রাষ্ট্রীয়, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে মুসলীম নারীদের আরও সম্পৃক্ত হতে উৎসাহিত

তুরস্ক ও রাশিয়াকে অবশ্যই ইতিবাচক সমাধান খুঁজতে হবে: এরদোগান

সংবাদ ডেস্ক

image

সিরিয়া ইস্যুতে মস্কো ও রাশিয়াকে অবশ্যই ইতিবাচক সমাধান খুঁজতে হবে বলে মন্তব্য

চীন ও হংকংয়ে মাংখুটের আঘাত

সংবাদ ডেস্ক

image

ফিলিপাইনের উত্তরাঞ্চলে ধ্বংসযজ্ঞ চালানোর পর এবার চীন ও হংকংয়ে আঘাত হেনেছে

sangbad ad