• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮

 

পাকিস্তানে অর্থ সহায়তা বাতিল করছে যুক্তরাষ্ট্র

নিউজ আপলোড : ঢাকা , রবিবার, ০২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
image

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর থেকেই যুক্তরাষ্ট্র-পাকিস্তান সম্পর্কের অবনতি শুরু হয়। বিভিন্ন সময় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অভিযোগ করেছেন যে পাকিস্তান জঙ্গি দমন না করে বরং তাদের সহায়তা করছে। তাই ভবিষ্যতে দেশটি যদি তার অবস্থান থেকে সরে না আসে তাহলে দেশটিকে দেয়া সব ধরনের মার্কিন সহায়তা বন্ধ করা হবে। এবার সেই সিদ্ধান্ত জানালো মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর পেন্টাগণ। শনিবার (১ সেপ্টেম্বর) পেন্টাগণের মুখপাত্র লেফটেনেন্ট কর্নেল কোনে ফকনার এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, জঙ্গি দমনে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থতার হওয়ায় পাকিস্তানের জন্য নির্ধারিত ৩০ কোটি ডলার অর্থ সহায়তা বাতিল করা হচ্ছে। বিবিসি, রয়টার্স।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর এ সিদ্ধান্তটি স্থানীয় সময় শনিবার জানালেও এর আগে থেকেই সেই অর্থের ছাড় আগে স্থগিত রাখা হয়েছিল। শনিবার তা একেবারে বাতিলের বিষয়টি ঘোষণা দিল যুক্তরাষ্ট্র। এখন সেই অর্থ পাকিস্তানকে দেয়ার বদলে সামরিক বাহিনী তাদের ‘জরুরি অগ্রাধিকার’ বিভিন্ন প্রকল্পে খরচের পরিকল্পনা নিয়েছে। মুখপাত্র লেফটেনেন্ট কর্নেল কোনে ফকনার বলেন, ‘অর্থ সহায়তা বন্ধের সিন্ধান্ত হলেও সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পাকিস্তানের ওপর চাপ অব্যাহত রাখব আমরা।’ পেন্টাগণ ঘোষণা দিলেও এখনই তা কার্যকর হচ্ছে না। সিদ্ধান্তটি মার্কিন কংগ্রেসে অনুমোদিত হলেই তা কার্যকর হবে। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর পাকিস্তান সফরের দিনকয়েক আগে পেন্টাগণ ইসলামাবাদকে দেয়া অর্থ সহায়তা বাতিলের এ ঘোষণা দিল। পাকিস্তান সফরে দেশটির নতুন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে পম্পেওর দেখা হওয়ার কথা রয়েছে। জঙ্গি দমনে পাকিস্তানের ব্যর্থতা নিয়ে ট্রাম্প প্রশাসন আগে থেকেই বেশ কট্টর অবস্থানে রয়েছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট এর আগে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ‘বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে ধোঁকা দেয়ার’ অভিযোগ এনেছিলেন। চলতি বছরের জানুয়ারিতে মার্কিন সরকার পাকিস্তানে সব ধরনের নিরাপত্তা সহায়তা তহবিল কাঁটছাঁট করা হবে বলেও জানিয়েছিল। যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা আরও অনেক দেশই অভিযোগ করে আসছে দেশের ভেতরে তৎপর হাক্কানি সন্ত্রাসী নেটওয়ার্কসহ অন্যন্য সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে না পাকিস্তান। আফগানিস্তানের সীমান্ত পাড়ি দিয়ে তারা সেখানে হামলা পরিচালনা করছে। কিন্তু ইসলামাবাদ এ অভিযোগ সবসময়ই প্রত্যাখ্যান করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের সর্বশেষ এ সিদ্ধান্তের বিষয়ে পাকিস্তান সরকার থেকে এখনও পর্যন্ত কোন মন্তব্য করা হয়নি। তবে এর আগে গত জানুয়ারি মাসে যখন এরকম একটি ঘোষণা দেয়া হয়েছিল তখন পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, ‘পাকিস্তান কখনও অর্থের জন্যে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে লড়াই করেনি। করেছে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্যে। প্রচুর রক্তপাত ও সম্পদের বিনিময়ে পাকিস্তান জঙ্গিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে।’ পাকিস্তানে সামরিক বাহিনীর অর্থ সহায়তা বাতিলের ঘোষণা দেয়ার আগের দিনই জাতিসংঘের প্যালেস্টাইনি শরণার্থী সংস্থার তহবিলেও আর অর্থ দেয়া হবে না বলে জানায় মার্কিন প্রশাসন। জাতিসংঘের ত্রাণ ও কাজ বিষয়ক সংস্থা ইউএনআরডব্লিউএ-কে ‘অবিশ্বাস্যরকমের ত্রুটিপূর্ণ’ প্রতিষ্ঠান হিসেবেও অ্যাখ্যা দিয়েছে তারা। প্যালেস্টাইনিরা ট্রাম্প প্রশাসনের এ সিদ্ধান্তকে তাদের ওপর ‘হামলা’ হিসেবে অভিহিত করেছে। ইউএনআরডব্লিউর তহবিল বন্ধে ট্রাম্প প্রশাসনের এ ঘোষণা মধ্যপ্রাচ্যের পরিস্থিতি আরও জটিল করে তুলবে বলে সতর্ক করেছেন জার্মানির পররাষ্ট্র মন্ত্রী হেইকো মাসও। তার আশঙ্কা, ‘প্রতিষ্ঠানটির এ ক্ষতি, নিয়ন্ত্রণ করা যাবে না এমন চেইন রিঅ্যাকশনের সূচনা করতে পারে।’

কারা এই হাক্কানি নেটওয়ার্ক : হাক্কানি নেটওয়ার্ক একটি জঙ্গি গোষ্ঠী যাদের তৎপরতা মূলত প্রতিবেশী আফগানিস্তানে। কাবুলের দীর্ঘদিনের অভিযোগ, পাকিস্তানের সহযোগিতায়ই নেটওয়ার্কের জঙ্গিরা আফগানিস্তানের ভেতরে ঢুকে সন্ত্রাসী তৎপরতা পরিচালনা করছে। এ গোষ্ঠীটির সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে আফগান তালেবানের। আফগান সরকারের জন্যে বড়ো ধরনের হুমকি এ আফগান তালেবান বাহিনী। আফগান তালেবানের সঙ্গে সম্পর্ক আছে পাকিস্তানি তালেবানের যারা বিভিন্ন সময়ে পাকিস্তানের ভেতরে হামলা চালিয়েছে। এ হাক্কানি নেটওয়ার্ক এবং আফগান তালেবান আফগানিস্তানের ভেতরে বেশকিছু হামলা চালিয়েছে যাতে যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্য ও কর্মকর্তারাও নিহত হয়েছেন। মার্কিন কর্মকর্তাদের অভিযোগ, পাকিস্তানের সামরিক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই এসব জঙ্গিদের সমর্থন দিচ্ছে।

পাকিস্তান কেন তাদের সমর্থন দেবে : পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে অভিযোগ রয়েছে, দেশটি তাদের পররাষ্ট্রনীতির স্বার্থে আফগান তালেবানকে ব্যবহার করে থাকে। ১৯৭৯ সালে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন আফগানিস্তানে সৈন্য পাঠানোর পর পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই আফগানিস্তানের ভেতরে জঙ্গিদের অর্থ সাহায্য ও প্রশিক্ষণ দিতে শুরু করে। ২০০১ সালের পর থেকে আফগানিস্তান যুদ্ধের সময় পাকিস্তানের ভেতর দিয়ে সেখানে পশ্চিমা সৈন্য কিংবা রসদ পাঠানো হয় এবং আল কায়েদার মতো জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তারা পশ্চিমা দেশগুলোকে সহায়তা দেয়। কিন্তু অনেক বিশ্লেষক মনে করেন, এর মধ্যেও পাকিস্তান জঙ্গিদের আশ্রয় প্রশ্রয় দেয়া অব্যাহত রেখেছে। তারা বলছেন, পাকিস্তানের লক্ষ্য হচ্ছে আফগানিস্তানে ভারতের প্রভাব সীমিত করা। আর এ জন্যেই আফগানিস্তানে প্রভাব বজায় রাখতে চাইছে দেশটি।

শত্রুদের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নিতে ইরানকে সহযোগিতা করবে রাশিয়া

সংবাদ ডেস্ক

image

সম্প্রতি ইরানে সামরিক কুচকাওয়াজে বন্দুকধারীদের হামলার ঘটনায় দেশটির প্রতি দুঃখ প্রকাশ

মায়ানমারের সার্বভৌমত্বে উপর জতিসংঘের হস্তক্ষেপের কোনও অধিকার নেই : মায়ানমার সেনাপ্রধান

image

মায়ানমারের সার্বভৌমত্বে উপর জতিসংঘের হস্তক্ষেপের কোনও অধিকার নেই বলে জানিয়েছেন

রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে মায়ানমারের মোকাবিলার সামর্থ্য প্রমাণ করেছে আইসিসি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

রোহিঙ্গা ইস্যুতে মায়ানমারকে মোকাবিলার সামর্থ্য প্রমাণ করেছে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত

sangbad ad

উ. কোরিয়ার সঙ্গে পুনরায় আলোচনায় প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র

সংবাদ ডেস্ক

image

কোরীয় উপদ্বীপে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ করার লক্ষ্যে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে পুনরায় আলোচনা

রোহিঙ্গা নির্যাতন : প্রাথমিক তদন্ত শুরু অপরাধ আদালতের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

মায়ানমারের বিরুদ্ধে গত মঙ্গলবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রোহিঙ্গা নির্যাতনের প্রাথমিক তদন্ত

মায়ানমার সেনা আইনের ঊর্ধ্বে থাকলে দেশটিতে শান্তি ফিরবে না

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

মায়ানমারে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হলে সেনাবাহিনীর ক্ষমতা কমিয়ে বেসামরিক প্রশাসনকে শক্তিশালী

মুসলিম নারীদের সামাজিব ও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে উৎসাহ দেবে ওআইসি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

রাষ্ট্রীয়, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে মুসলীম নারীদের আরও সম্পৃক্ত হতে উৎসাহিত

তুরস্ক ও রাশিয়াকে অবশ্যই ইতিবাচক সমাধান খুঁজতে হবে: এরদোগান

সংবাদ ডেস্ক

image

সিরিয়া ইস্যুতে মস্কো ও রাশিয়াকে অবশ্যই ইতিবাচক সমাধান খুঁজতে হবে বলে মন্তব্য

চীন ও হংকংয়ে মাংখুটের আঘাত

সংবাদ ডেস্ক

image

ফিলিপাইনের উত্তরাঞ্চলে ধ্বংসযজ্ঞ চালানোর পর এবার চীন ও হংকংয়ে আঘাত হেনেছে

sangbad ad