• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

 

মায়ানমারের প্রতি জাতিসংঘ মানবাধিকার কমিশন

দুই সাংবাদিককে অবিলম্বে মুক্তি দাও

নিউজ আপলোড : ঢাকা , মঙ্গলবার, ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
image

মায়ানমারের রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে দণ্ড দেয়া রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের নতুন মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার মিশেল ব্যাশেলেট। একই সঙ্গে দেশটিতে মত প্রকাশের স্বাধীনতার জন্য আটক থাকা সাংবাদিকদের সবাইকেও মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। এদিকে এ দুই সাংবাদিককে কারাদণ্ড প্রদানের মাধ্যমে মায়ানমার কর্তৃপক্ষ প্রকৃতপক্ষে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে একটি হাস্যকর দৃষ্টান্ত স্থাপন করার পাশাপাশি মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে মারাত্মকভাবে লঙ্ঘন করেছে বলে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে বিশ্ব। বিশেষ করে গণতন্ত্রপন্থি নেত্রী ও দেশটির নোবেল বিজয়ী স্টেট কাউন্সেলর অং সান সুচি এ ঘটনায় কোন নিন্দা না জানানোয় আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নতুন করে তিনি ভাবমূর্তি সংকটে পড়বেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের সদস্যদের ওপর দেশটির সেনাবাহিনী যে নিপীড়ন চালিয়েছে- সে তথ্য সংগ্রহের সময় গ্রেফতার হন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম রয়টার্সের ৩২ বছর বয়সী সাংবাদিক ওয়া লোন এবং ২৮ বছরের কিয়াও সো ওকে। তাদের বিরুদ্ধে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক আমলের রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা আইনে অভিযোগ আনা হয়। সোমবার (৩ সেপ্টেম্বর) এ দুই সাংবাদিককে দোষী সাব্যস্ত করে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন ইয়াংঙ্গুনের একটি আদালত। রাখাইনের সেনা অভিযানের সময় ইনদিন গ্রামে ১০ রোহিঙ্গাকে হত্যা করে মরদেহ পুঁতে ফেলার ঘটনা বিশ্বের সামনে তুলে ধরেছিলেন এ দুই সাংবাদিক। রয়টার্স ওই ঘটনার খবর প্রকাশের পর মায়ানমার প্রথমবারের মতো রোহিঙ্গা হত্যার দায়ে কয়েকজন নিরাপত্তা কর্মীকে কারাদণ্ড দেয়। তবে বরাবরই নিজেদের নির্দোষ দাবি করে আসা সাংবাদিক ওয়া লোন ও কিয়াও সো মামলার বিচারের সময় আদালতকে বলেছিলেন, গত ১২ ডিসেম্বর ইয়াংগনের এক রেস্তোরাঁয় দাওয়াত দিয়ে নিয়ে দুই পুলিশ সদস্য তাদের হাতে কিছু মোড়ানো কাগজ ধরিয়ে দেন এবং তার পরপরই সেখান থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার তাদের কারাদণ্ড দেয়া হয়। এদিকে এ ঘটনায় একইদিন (সোমবার) এক বিবৃতিতে জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনার মিশেল ব্যাশেলেট বলেন, যে আইনি প্রক্রিয়ায় ওই দুই সাংবাদিককে অভিযুক্ত করা হয়েছে, তাতে স্পষ্টতই আন্তর্জাতিক মানের বত্যয় ঘটেছে। তিনি বলেন, ‘এ রায় মায়ানমারে দায়িত্বরত সব সাংবাদিককে এটাই বার্তা দিচ্ছে যে- তারা সেখানে নির্ভয়ে কাজ করতে পারবেন না। হয় তাদের ঘটনা চেপে যেতে হবে নইলে কারাগারে যাওয়ার ঝুঁকি নিতে হবে।’

অপরদিকে মায়ানমারে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের কারাদণ্ড প্রাপ্ত দুই সাংবাদিকের অবিলম্বে ও নিঃশর্ত মুক্তির আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের দূত নিক্কি হ্যালি। সোমবার এক বার্তায় টুইটার তিনি এ আহ্বান জানান। জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্র মিশন কর্তৃক প্রকাশিত টুইটে হ্যালি বলেন, দায়িত্ব পালন করার কারণে সাংবাদিকদের সাজা পাওয়া বার্মিজ সরকারের জন্য বড় ধরনের কলঙ্ক। তিনি আরও বলেন, এটা স্পষ্ট যে মায়ানমার সরকার বড় ধরনের নিপীড়ন চালিয়েছে। একটি মুক্ত দেশে মানুষকে সবকিছু সম্পর্কে অবহিত রাখা দায়িত্বশীল সংবাদমাধ্যমের কর্তব্য। নেতাদের জবাবদিহিতায় আওতায় রাখা দেশের দায়িত্ব। চলতি মাসে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতিত্বের দায়িত্ব পালন করবে যুক্তরাষ্ট্র। মঙ্গলবার (৪ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় একটি সংবাদ সম্মেলনে হ্যালির বক্তব্য রাখার কথা। ধারণা করা হচ্ছে, ওই সংবাদ সম্মেলনে রয়টার্স সাংবাদিকদের সাজা দেয়ার বিষয়টি আবারও আলোচনায় আসবে। এরই ধারবাহিকতায় এক বিবৃতিতে ওই দুই সাংবাদিককে দেয়া সাজা সম্পর্কে মায়নামার কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিবের মুখপাত্র ।

সেনা অভিযানের মধ্যে রোহিঙ্গা নাগরিকদের হত্যা করে মাটি চাপা দেয়ার ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্র ও হ্যালি মায়ানমার সরকারের কঠোর সমালোচনা করে আসছেন। গত সপ্তাহে হ্যালি জানান, যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় রোহিঙ্গা নিধনযজ্ঞ নিয়ে নিজেদের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং প্রতিবেদন তৈরি করেছে। যা জাতিসংঘের তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ। এর আগে জাতিসংঘের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রোহিঙ্গারা মায়ানমার সেনাবাহিনীর পরিকল্পিত গণহত্যার শিকার হয়েছে। আগস্টের শেষ সপ্তাহে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে প্রতিবেদনটি প্রকাশ করার কথা ছিল। কিন্তু পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এখনও প্রতিবেদনটি পর্যালোচনা করছেন এবং তিনিই সিদ্ধান্ত নেবেন কখন তা প্রকাশ করা হবে। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বলেন, এ মুহূর্তে আমাদের কাছে প্রতিবেদন প্রকাশের সময়ের কোন নতুন তথ্য নেই। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঠিক করবেন কখন তা প্রকাশ করা হবে। তবে জাতিসংঘ গণহত্যার কথা বললেও যুক্তরাষ্ট্র এখনও রোহিঙ্গা নিধনযজ্ঞকে ‘গণহত্যা’ হিসেবে আখ্যায়িত করেনি। মার্কিন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনের বরাতে জানা গেছে, মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আইন শাখা ‘গণহত্যা’ শব্দ ব্যবহারে আপত্তি জানিয়েছে। কারণ যুক্তরাষ্ট্র নিশ্চিতভাবে মায়ানমার সেনাবাহিনীর উদ্দেশ্য সম্পর্কে জানে না। ধারণা করা হচ্ছে, এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া বাকি থাকায় হয়ত প্রতিবেদন প্রকাশে বিলম্ব হচ্ছে।

প্রসঙ্গত গত বছরের ২৫ অগাস্ট মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যে কয়েক ডজন নিরাপত্তা চৌকিতে সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ এনে সেনাবাহিনী ওই নির্মম দমন অভিযান শুরু করে। জাতিসংঘ বলছে, সেনাবাহিনীর ওই অভিযানে এ পর্যন্ত দশ হাজারেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। রাখাইনে সেনাবাহিনীর ওই দমন-পীড়নের মুখে গত বছর অগাস্ট থেকে এ পর্যন্ত সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এ ঘটনাকে দক্ষিণাঞ্চলের সবচেয়ে দ্রুত বেড়ে ওঠা শরণার্থী সঙ্কট হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।

উ. কোরিয়ার সঙ্গে পুনরায় আলোচনায় প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র

সংবাদ ডেস্ক

image

কোরীয় উপদ্বীপে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ করার লক্ষ্যে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে পুনরায় আলোচনা

রোহিঙ্গা নির্যাতন : প্রাথমিক তদন্ত শুরু অপরাধ আদালতের

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

মায়ানমারের বিরুদ্ধে গত মঙ্গলবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রোহিঙ্গা নির্যাতনের প্রাথমিক তদন্ত

মায়ানমার সেনা আইনের ঊর্ধ্বে থাকলে দেশটিতে শান্তি ফিরবে না

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

মায়ানমারে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হলে সেনাবাহিনীর ক্ষমতা কমিয়ে বেসামরিক প্রশাসনকে শক্তিশালী

sangbad ad

মুসলিম নারীদের সামাজিব ও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে উৎসাহ দেবে ওআইসি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

রাষ্ট্রীয়, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে মুসলীম নারীদের আরও সম্পৃক্ত হতে উৎসাহিত

তুরস্ক ও রাশিয়াকে অবশ্যই ইতিবাচক সমাধান খুঁজতে হবে: এরদোগান

সংবাদ ডেস্ক

image

সিরিয়া ইস্যুতে মস্কো ও রাশিয়াকে অবশ্যই ইতিবাচক সমাধান খুঁজতে হবে বলে মন্তব্য

চীন ও হংকংয়ে মাংখুটের আঘাত

সংবাদ ডেস্ক

image

ফিলিপাইনের উত্তরাঞ্চলে ধ্বংসযজ্ঞ চালানোর পর এবার চীন ও হংকংয়ে আঘাত হেনেছে

ফিলিপাইনে টাইফুনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৫

image

টাইফুন ম্যাংখুতের আঘাতে ধ্বংসযজ্ঞে পরিনত হয়েছে ফিলিপাইন জুড়ে। রোববার (১৬ সেপ্টেম্বর) কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে

আমার সঙ্গে খেল, তোমার মোবাইলের সঙ্গে নয়

সংবাদ ডেস্ক

image

আজকাল প্রযুক্তির আসক্তির কারণে সামাজিক বন্ধন ভেঙে পড়ছে। বিষয়টি নিয়ে অনেক

পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের বল এখন যুক্তরাষ্ট্রের পকেটে : উত্তর কোরিয়া

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

কোরীয় উপদ্বীপের পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ এখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওপরই নির্ভর করবে

sangbad ad