• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , রোববার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০

 

গুগলকে সিংহাসন থেকে টলানো কেন এত কঠিন?

নিউজ আপলোড : ঢাকা , শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০

সংবাদ :
  • সংবাদ অনলাইন ডেস্ক
image

ইন্টারনেট ব্যবহারের ক্ষেত্রে গুগলকে এড়িয়ে যাওয়ার কোনো উপায় নেই। অনলাইনে কোনো কিছুর অনুসন্ধান করতে গেলে গুগলকে লাগবেই। গুগল আর সার্চ যেন সমার্থক।

সার্চের ক্ষেত্রে তার এই আধিপত্য কমাতে চায় যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ। তারা গত মঙ্গলবার গুগলের বিরুদ্ধে বাজারে সুষ্ঠু প্রতিযোগতিা টিকিয়ে রাখার বিদ্যমান আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা হয়েছে। প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি এত বড় মামলার মুখে পড়েনি কখনো। তবে এর ফলে গুগল কী ধরনের পরিস্থিতিতে পড়তে পারে তা এখনো পরিস্কার নয়। যুক্তরাষ্ট্রের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জেফ্রি রোজেন অবশ্য বলেছেন, কোনো কিছুই আলোচনার বাইরে নয়। তবে প্রশ্ন হচ্ছে, যদি গুগল সার্চের প্রাধান্য কমানোই লক্ষ্য হয়, তাহলে কোনো কিছুই কি আদতে আলোচনার মাধ্যমে মীমাংসা হবে? স্ট্যাটকাউন্টার নামে একটি অ্যানালিটিক্স ওয়েবসাইট অনুসারে, ইন্টারনেটে বিশ্বব্যাপী সার্চের ৯২ শতাংশ হয় গুগলে। ওয়েব ব্রাউজিংয়ের ৬৬ শতাংশ হয় গুগল ক্রোমে। চারভাগের তিনভাগ স্মার্টফোনে গুগল অ্যান্ড্রয়েড অপারটিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয়। এই বিপুল আধিপত্য খর্ব করার উদ্দেশ্যেই প্রারম্ভিক পদক্ষেপ নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ। কিন্তু তার জন্য যে ধরনের পদক্ষেপ হাতে নেওয়া লাগবে তার কোনো পরিকল্পনা কর্তৃপক্ষের হাতে নেই।

মানুষ কি গুগল করা বন্ধ করবে?

সব ক্ষেত্রেই ডিফল্ট সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে গুগলের অবস্থানই বিচার বিভাগের মাথাব্যথার কারণ। গুগলের বিরুদ্ধে অভিযোগ তার এই অবস্থান ধরে রাখতে ওয়েব ব্রাউজার, মোবাইল অপারেটর ও স্মার্টফোন কোম্পানিগুলোর পেছনে শত শত কোটি ডলার ব্যয় করে সে।

গুগলের পক্ষ থেকে আত্মপক্ষ সমর্থনে বলা হয়েছে আর যে কোনো বিপণনের জন্য যেভাবে ব্যয় করা হয়ে থাকে এটি তার চেয়ে আলাদা কিছু নয়। যে কোনো খাদ্যপণ্যও যাতে সুবিধাজনক তাকে শোভা পায় সেজন্য যেভাবে অর্থব্যয় করা হয়, এটিও তেমনই।

গুগলের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ফর গ্লোবাল অ্যাফেয়ার্স কেন্ট ওয়াকার বলেন, মানুষ গুগল ব্যবহার করে কারণ তারা এটি পছন্দ করে। তাদের এজন্য জোরজবরদস্তি করা হয় না। তাদের জন্য এর চেয়ে ভালো কোনো বিকল্প নেই।

বিশেষ করে গুগলের প্রাধান্য কমানোর তৎপরতায় মূখ্য ভূমিকা নিয়েছে ইউরোপীয় দেশগুলো। তারা এর ওপর প্রতিযোগিতার নীতি লঙ্ঘনের জন্য ৯০০ কোটি ডলার জরিমানা করেছে। তারা চায় অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা তাদের ইচ্ছেমতো ব্রাউজার ও সার্চ ইঞ্জিন বেছে নিক।

তবে তাদের এই পদক্ষেপ কাজে আসেনি। কেননা এ বছর সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ইউরোপের ইন্টারনেটে বাজারের ৯৩ শতাংশ সার্চ গুগল দিয়েই হয়।

ওপেন মার্কেট ইনস্টিটিউট এর এনফোর্সমেন্ট স্ট্র্যাটেজির ডিরেক্টর স্যালি হাবার্ড বলেন, গুগলের পেছনে সবচেয়ে বেশি লেগেছে ইউরোপ। তাদের তদন্ত ও অভিযোগ ঠিকই আছে। তবে তাদের নেওয়া ব্যবস্থা কার্যকর হয়নি।

আসলে মানুষ গুগলের সঙ্গে এমন আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে গেছে যে একে বাদ দিয়ে নতুন কিছু আবার কে খুঁজতে যাবে?

টেক অ্যাডভোকেসি গ্রুপ পাবলিক নলেজের কম্পিটিশান পলিসি ডিরেক্টর শ্যারোলেট স্লেইম্যান বলেন, গুগলের অবস্থান এমন জায়গায় চলে গেছে যে, যা কিছুই হোক না কেন, ব্যবহারকারী ও ফোন কোম্পানিগুলো এটি একইভাবে ব্যবহার করতে থাকবে।

তিনি বলেন, তাদের ডিফল্ট রাখার চুক্তিগুলো বন্ধ করে দেওয়াই এক্ষেত্রে যথেষ্ঠ বলে মনে হয় না আমার।

নতুন কোনো গুগল গড়ে তোলা কেন এত কঠিন?

গুগলের মতো প্রতিষ্ঠান, যার সম্পত্তির পরিমাণ ১ ট্রিলিয়ন ডলারেরও বেশি, যে গত দুই দশক ধরে বাজারে তার বর্তমান অবস্থানকে সুসংহত করেছে, তার প্রাধান্য কমানো সহজ নয়।

হাবার্ডের মতে, গুগলের যে আকার ও ক্ষমতা তা ইউরোপীয় কৌশলকে নখদন্তহীন প্রমাণ করে ছেড়েছে।

তিনি বলেন, গুগল খুবই শক্তিশালী, জরিমানায় তার কিছুই আসে যায় না। ইউরোপীয়দের নেওয়া পদক্ষেপগুলোতে আসলে প্রমাণ হয়েছে, শুধু কিছু আচরণের প্রতিকারের মাধ্যমে একে সার্বিকভাবে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব না।

আরেকটি কারণে গুগলের আধিপত্য খর্ব করা সম্ভব না, সেটি হচ্ছে এর কোনো ভালো বিকল্প গড়ে না ওঠা। কেউ তার সঙ্গে প্রতিযোগিতা করার চ্যালেঞ্জটাও নেয়নি। গুগলের সার্চ ইনডেক্সে আছে কয়েক শত কোটি ওয়েবপেজ এবং এর আকার ১০ কোটি গিগাবাইটের বেশি।

বিচার বিভাগের আনা অভিযোগেই বলা হয়েছে, এই আকারের একটি সার্চ ইঞ্জিন গড়তে তাদের কয়েকশ কোটি ডলারের বিনিয়োগ লেগেছে।

সর্বশেষ যে প্রতিষ্ঠানটি তাদের কাছাকাছি আসতে পেরেছে সেটি হচ্ছে মাইক্রোসফট, যার গুগলের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করার মতো সামর্থ্য ছিল। তারা সার্চ ইঞ্জিন এনেছিল এক দশক আগে। তবে তাদের সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহারকারীদের আকৃষ্ট করতে ব্যর্থ হয়। সার্চ ইঞ্জিনগুলোর মধ্যে গুগলের পরই আছে বিং। বিশ্বের মোট সার্চের মাত্র ৩ শতাংশ হয় বিংয়ে।

সরকার কী করতে পারে?

গুগলের সবচেয়ে বড় জোরের জায়গা হচ্ছে যে পরিমাণ ডেটা তার সংগ্রহে আছে, আর কারো পক্ষে তেমনটি করা সম্ভব না।

স্লেইম্যান বলেন, যে ডেটা গুগল বিগত অনেকগুলো বছর ধরে সঞ্চয় করেছে, সার্চ এবং ক্লিকের মাধ্যমে, তার ফলেই তাদের পক্ষে সম্ভব হয়েছে ব্যবহারকারীরা কী চাইবে সে সম্পর্কে সঠিক অনুমান করা। সেটাও একটা কারণ হতে পারে তাদের ব্যাপারে ভাবার।

তবে ঠিক কী উপায়ে গুগলের সার্চ করার ক্ষমতাকে সীমিত করা যেতে পারে তা এখনো পরিস্কার না। তবে একটা পরামর্শ পাওয়া গেছে, সেটি হচ্ছে ইয়েল্প বা এক্সপেডিয়ার মতো যেই সেবাগুলো আছে, সেগুলোতে যেন ব্যবহারকারীরা গুগলের মাধ্যমে না গিয়ে সরাসরি সেবা পেতে পারে সেই ব্যবস্থা করা।

স্লেইম্যান বলেন, যেসবের সার্চ গুগলে ভালো হয়, সেগুলোর জন্য মানুষ গুগলে যেতে পারে। কিন্তু বেশ কিছু বিশেষায়িত সার্চ ইঞ্জিন আছে যেগুলোতে সুনির্দিষ্ট বিষয়ে সার্চের ক্ষেত্রে শ্রেয়তর সেবা দেয়। তিনি বলেন ধরা যাক আমার একজন ভালো কাঠমিস্ত্রি চাই। দেখা গেলো, গুগলে সার্চ দিলে সবচেয়ে ভালো কাঠমিস্ত্রি হয়তো প্রথমেই পাওয়া যাবে না। সেক্ষেত্রে গুগলের স্থলে ওই বিশেষায়িত সার্চ ইঞ্জিনগুলো ব্যবহার করতে হবে।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের সরকার সম্ভব ইউরোপে যেমনটা করা হয়েছে, তেমন কিছুও করতে পারে। সেখানে যেটা করা হয়েছে, গুগলকে দিয়েই ইউরোপের সার্চ ইঞ্জিনগুলোকে সামনে আনা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত গুগলের বিরুদ্ধে জরিমানাসহ যে ব্যবস্থাই নেওয়া হয়েছে, তার প্রভাব সামান্যই। সে প্রেক্ষিতেই অনেক বিশেষজ্ঞই আরো আগ্রাসী পদক্ষেপ নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন।

যুক্তরাষ্ট্র সোমালিয়া থেকে সব সৈন্য প্রত্যাহার করছে

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পূর্ব আফ্রিকার দেশ সোমালিয়ায় মোতায়েন করা

কাতার সংকট শেষ : সৌদির পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহানের মতে কাতারের সঙ্গে আরব দেশগুলোর

‘স্পুটনিক ৫’ ভ্যাকসিনের প্রয়োগ শুরু করছে রাশিয়া

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

রাশিয়া নিজেদের তৈরি করোনা ভ্যাকসিন ‘স্পুটনিক ৫’-এর প্রয়োগ শুরু করতে যাচ্ছে। রাজধানী

sangbad ad

প্রয়াত রাজার জন্মদিনে থাইল্যান্ডে বহু বন্দীর মুক্তি, অনেকের সাজা কমানো হলো

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

প্রয়াত রাজা ভূমিকল আদুল্যাদেজের জন্মদিন ছিল শনিবার। এ উপলক্ষে দেশটির কমপক্ষে ৩০

বাইডেন জামানায় আরও অবনতি হবে চীন-মার্কিন সম্পর্ক

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালনের শেষ সময় পার করছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আগামী

ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিকের আগে স্বাধীন ফিলিস্তিন চায় সৌদি

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, ফিলিস্তিনিদের জন্য সার্বভৌম রাষ্ট্র গঠন করা হবে, এমন পরিকল্পনা থাকলেই কেবল ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার পথে সৌদি আরব হাঁটবে।

ফাইজারের টিকা অনুমোদন দিলো বাহরাইন

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

যুক্তরাজ্যের পর দ্বিতীয় দেশ হিসেবে ফাইজার-বায়োএনটেকের উদ্ভাবিত করোনাভাইরাসের টিকা ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ বাহরাইন।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা টিকা নেওয়া বাধ্যতামূলক হবে না: বাইডেন

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের টিকা ব্যবহারের অনুমোদন পাওয়ার পর সবার জন্য তা বাধ্যতামূলক করা হবে না। শুক্রবার ডেলাওয়ারের উইলমিংটনে যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন একথা বলেছেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এখবর জানিয়েছে।

টাইম ম্যাগাজিনের ‘বর্ষসেরা শিশু’ নির্বাচিত হলেন গীতাঞ্জলি

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সাপ্তাহিক টাইম ম্যাগাজিন প্রতিবছর প্রভাবশালী ব্যক্তিদের তালিকা করলেও এবারই প্রথম ‘বর্ষসেরা শিশুর’ একটি তালিকা প্রকাশ করেছে। আর সেই তালিকায় ‘সেরা শিশু ২০২০’ নির্বাচিত হয়েছে ভারতীয়-মার্কিনি গীতাঞ্জলি রাও। ১৫ বছর বয়সী গীতাঞ্জলি একজন তরণ বিজ্ঞানী ও উদ্ভাবক।