• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৪ আগস্ট ২০১৮

 

ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের সক্ষমতা বাড়াতে খামেনির নির্দেশ

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বুধবার, ০৬ জুন ২০১৮

সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
image

ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের সক্ষমতা বাড়াতে ইরানের জাতীয় আণবিক শক্তি সংস্থাকে (এইওআই) প্রস্তুতির নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি। ইরানের ইসলামি বিপ্লবের প্রতিষ্ঠাতা খামেনির মৃত্যুবার্ষিকীর বিশাল সমাবেশে সোমবার (৪ জুন) বিকেলে ভাষণ দেয়ার সময় এ নির্দেশনা দেন তিনি । এ সময় তিনি ‘দ্য অ্যাটমিক এনার্জি অরগ্যানাইজেশন অব ইরান’কে এ সক্ষমতা ১ লাখ ৯০ হাজার এসডব্লিউইউতে উন্নীত করার প্রস্তুতি নিতে বলেন। এদিকে সর্বোচ্চ নেতা খামেনির নির্দেশের এক দিন (মঙ্গলাবর, ৫ জুন থেকে ) পর থেকেই ইরান তার নাতানজ পরমাণু স্থাপনায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের কাজ শুরু করেছে বলে মঙ্গলবার রাজধানী তেহরানে এক সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দেন দেশটির জাতীয় আণবিক শক্তি সংস্থার প্রধান আলী আকবর সালেহি । এসময় তিনি আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থা আইএইএ’কে তাদের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের প্রথম ধাপের কাজ শুরুর বিষয়টি চিঠি দিয়ে অবহিত করার বিষয়টিও নিশ্চিত করেন সালেহি। দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম পার্স টুডে এ তথ্য জানিয়েছে।

ইরানের পরমাণু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বেরিয়ে যাওয়ার পর চলমান উত্তেজনার মধ্যেই এ নির্দেশ দিলেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা। ২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের পাঁচ শক্তিধর দেশের সঙ্গে পরমাণু সমঝোতা চুক্তি সই করে ইরান। কিন্তু চলতি বছর একে ‘ত্রুটিপূর্ণ’ আখ্যা দিয়ে চুক্তিটি বাতিল করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তবে ইউরোপের দেশগুলো চুক্তিটি রক্ষার চেষ্টা চালাচ্ছে। তাদের সমর্থন দিয়েছে রাশিয়া ও চীন। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের অনুপস্থিতির কারণে চুক্তিটির কার্যকারিতা এখন প্রশ্নের মুখে পড়েছে। যেহেতু নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে ইউরোপীয় প্রতিষ্ঠানগুলোও যুক্তরাষ্ট্রের শাস্তির আওতায় পড়বে, সেহেতু শুধু ইউরোপের সমর্থনের ওপর ভিত্তি করেই স্বাভাবিক বিনিয়োগ ইরানে করা সম্ভব হবে কিনা তা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। এ চুক্তির মূল উদ্দেশ্যই ছিল ইরানের ইউরেনিয়াম সক্ষমতা কমিয়ে আনা, যাতে দেশটি পারমাণবিক অস্ত্র তৈরির সক্ষমতা অর্জন করতে না পারে। আর তাই গত ৯ মে যুক্তরাষ্ট্র এ চুক্তি থেকে বেরিয়ে গেলে পুরোদমে পারমাণবিক কর্মসূচি চালু করার হুমকি দিয়েছিল দেশটি। এদিকে সোমবারের সমাবেশে সর্বোচ্চ নেতা খামেনি বলেন, পরমাণু সমঝোতার ভিত্তিতে আগামীকাল থেকেই এ সংক্রান্ত প্রস্তুতি শুরু করতে হবে। তিনি আরও বলেন, কোন কোন ইউরোপীয় সরকারের কথাবার্তা থেকে মনে হচ্ছে, তারা চায় ইরানি জাতি নিষেধাজ্ঞাও সহ্য করবে, আবার পরমাণু কর্মসূচিও বন্ধ রাখবে। কিন্তু ওইসব ইউরোপীয় সরকারের জেনে রাখা উচিত, তাদের এ স্বপ্ন সত্যি হবে না। নিশ্চিতভাবেই খুব শীঘ্রই ইরানের জন্য পরমাণু তৎপরতার প্রয়োজন দেখা দেবে বলে উল্লেখ করেন খামেনি। ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র শক্তি প্রসঙ্গে খামেনি বলেন, ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র শক্তি দেশের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখছে। (সাদ্দামের) ওপর চাপিয়ে দেয়া যুদ্ধের সময় আমাদের ক্ষেপণাস্ত্র শক্তি ছিল না, এ কারণে সীমান্ত শহরগুলো থেকে শুরু করে রাজধানী তেহরান পর্যন্ত রাত-দিন ক্ষেপণাস্ত্র এসে পড়ত। কিন্তু বর্তমানে তরুণ বিশেষজ্ঞদের কল্যাণে মধ্যপ্রাচ্যের শ্রেষ্ঠ ক্ষেপণাস্ত্র শক্তিতে পরিণত হয়েছি আমরা। শত্রুরা এটা জানে, তারা যদি একটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে, তাহলে আমরা দশটি ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে তার জবাব দেবো। এ সময় খামেনি আরও বলেন, শত্রুরা এ বিষয়ে মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধ চালাচ্ছে, যাতে আমরা আমাদের জাতীয় শক্তি ও দৃঢ়তার এ উপাদান হাতছাড়া করি। আর তারা সহজেই আমাদের দেশ-জাতি ও ভবিষ্যতের ওপর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে পারে। কিন্তু ইরানি জাতি তাদের এ তৎপরতা মোকাবিলায় রুখে দাঁড়িয়েছে।

ইরানের কাছে ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি সীমিত করার যে দাবি পশ্চিমা দেশগুলো করেছে তার বিরুদ্ধে নিজের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে খামেনি আরও বলেন, পশ্চিমাদের ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি সীমিত করে দেয়ার প্রত্যাশা ‘এমন এক স্বপ্ন যা কোন দিন পূরণ হওয়ার নয়।’ যেসব কারণ দেখিয়ে ট্রাম্প চুক্তিটি বাতিল করেছেন, তার একটি ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও তার ‘প্ল্যান বি’ নামক পরিকল্পনায় সে বিষয়ের উল্লেখ করেছেন। এ দাবি যে ইরানের কাছে গ্রহণযোগ্য নয় তা জানাতে গিয়ে এদিন খামেনি বলেছেন, এটি আলোচনার কোন বিষয় নয়। তার ভাষ্য, ‘কোন কোন পশ্চিমা দেশ দাবি করেছে আমরা যেন আমাদের প্রতিরক্ষামূলক ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি প্রত্যাহার করি। আমি তাদের উদ্দেশে বলতে চাই, আমাদের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি সীমিত করে দেয়ার দাবি এমন এক স্বপ্ন, যা কোন দিন বাস্তবায়িত হবে না।’ তার ওই বক্তব্য ইরানের একটি টেলিভিশনে প্রচারিত হয়। গত শুক্রবার (১ জুন) পররাষ্ট্রমন্ত্রী পম্পেওর আরেকটি শর্ত নাকচ করে দিয়ে খামেনি জানান, আঞ্চলিক সহযোগী সংগঠনগুলোকে সহায়তা দেয়া বন্ধ করবে না ইরান।

তুরস্কের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করার অভিযোগ এরদোগানের

সংবাদ ডেস্ক

image

প্রবল মার্কিন চাপের মুখে চরম অর্থনৈতিক সংকটের মুখে পড়েছে তুরস্ক। দেশটির মুদ্রা লিরার দাম ক্রমেই কমে চলেছে। এর ফলে সাম্প্রতিক

তেল আবিবে ইহুদি জাতিরাষ্ট্র আইনের বিরুদ্ধে ব্যাপক বিক্ষোভ

সংবাদ ডেস্ক

image

ইসরায়েলকে ইহুদি জাতিরাষ্ট্র ঘোষণা করা নতুন আইনের বিরোধিতা করে বিক্ষোভ করেছে হাজারো সংখ্যালঘু আরব ও কিছু সংখ্যক ইহুদি। শনিবার

কেরালায় বন্যায় বাস্তুচ্যুত ৫৪ হাজার মানুষ

সংবাদ ডেস্ক

image

ভারতের কেরালা রাজ্যে টানা বর্ষণে সৃষ্ট বন্যায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ বাড়ছেই। অনেক জায়গায় মহাসড়ক ভেঙ্গে গেছে, ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে রাজ্যের অর্ধেকের

sangbad ad

রুশ ব্যাংকের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিলে পাল্টা ব্যবস্থা

সংবাদ ডেস্ক

image

কোন রুশ ব্যাংকের ওপর যদি মার্কিন নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয় তাহলে তার পাল্টা ব্যবস্থা

লাহোরে ইমরানের জয় স্থগিতের আদেশ খারিজ সুপ্রিম কোর্টের

সংবাদ ডেস্ক

image

ইমরান খানের বিজয় স্থগিত ও ভোট পুনর্গণনাকে কেন্দ্র করে পাকিস্তানের নির্বাচন

‘যুক্তরাষ্ট্র ক্ষতিপূরণ দিলে ও ক্ষমা চাইলে আলোচনায় প্রস্তুত ইরান’

সংবাদ ডেস্ক

image

ইরানের উদ্দেশে আলোচনার প্রস্তাব রেখে পূর্ব সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, দেশটির উপর নিষেধাজ্ঞা চাপিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। মঙ্গলবার (৭ আগস্ট) আন্তর্জাতিক

জঙ্গি বোমা মিজান ভারতে গ্রেফতার

সংবাদ ডেস্ক

image

নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামায়াত-উল-মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) শীর্ষ নেতা বোমা মিজান ওরফে জাহিদুল ইসলামকে ভারতে গ্রেফতার

কানাডার সঙ্গে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সহযোগিতা স্থগিত সৌদির

সংবাদ ডেস্ক

image

কানাডার বিরুদ্ধে পারস্য উপসাগরীয় দেশগুলোর অভ্যন্তরীণ বিষয়ে ‘হস্তক্ষেপের’ অভিযোগ তুলে দেশটির সঙ্গে সব ধরনের নতুন বাণিজ্য ও বিনিয়োগ

অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন প্রেসিডেন্ট মাদুরো

সংবাদ ডেস্ক

image

ড্রোন (চালকবিহীন বিমান) হামলা চালিয়ে ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস

sangbad ad