• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , বুধবার, ০৩ জুন ২০২০

 

পরামর্শ : সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর লেখার নিয়ম

নিউজ আপলোড : ঢাকা , শুক্রবার, ১৫ মে ২০২০

সংবাদ :
  • মো. ওয়ালিয়ার রহমান
image

প্রিয় শিক্ষার্থীরা, তোমার প্রতি শুভেচ্ছা রইল। মহামারি করোনার প্রার্দুভাবে জীবনের এক কঠিন সময় পার করছে বিশ্ববাসী। আমরা নিজেরাও এর বাইরে নই । প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা, বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল। আমাদের দেশেও বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এখন বন্ধ। এই সময়ে ঘরে বসে অনুশীলন করবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে। তোমরা ভালো থাকো এবং পরিবারকে ভালো রাখো। সবার জন্য সুস্বাস্থ্য ও শুভকামনা।

প্রিয় ছাত্রছাত্রীরা, তোমরা জানো, ভালো ফলের জন্য শুধু ভালো প্রস্তুতি থাকলেই চলবে না, ভালো প্রস্তুতির প্রমাণ রাখতে হবে। তুমি কী ধরনের ছাত্রছাত্রী তা পরীক্ষক দেখবেন না। তিনি দেখবেন তুমি পরীক্ষার খাতায় কেমন উপস্থাপন করেছ। তাই আজ আমি পরীক্ষার সৃজনশীল উত্তর লেখার ব্যাপারে কিছু কথা বলবো। অনেকসময় পরীক্ষার প্রশ্ন একটু কঠিন হলেই ছাত্র-ছাত্রীরা ঘাবড়ে যায় এবং প্রথম দিকে হাল ছেড়ে দিয়ে অনেকটুকু সময় নষ্ট করে ফেলে। এইক্ষেত্রে মনে রাখবে, তোমার যে রকম পরীক্ষা হবে তোমার অন্যান্য লাখো বন্ধুদেরও প্রায় তেমনটিই হবে। তাই পরীক্ষার প্রশ্ন দেখে কোনো কারণেই ভয় পাবে না।

সৃজনশীল :

‘ক’ নম্বর প্রশ্নের উত্তর করার ক্ষেত্রে :

এই প্রশ্নটির নম্বর ১। এর উত্তরটি একটি শব্দে, একাধিক শব্দে বা সর্বোচ্চ একটি বাক্যে দেয়া যেতে পারে। সব ক্ষেত্রেই তুমি ১ নম্বর পাবে। অযথা উত্তরের আকার বড় করলে তুমি এই ১ নম্বরের বেশি পাবে না। আবার এক শব্দে সঠিক উত্তর লিখলেও স্যার/ম্যাডাম তোমাকে ১ নম্বরের কম দিতে পারবে না। তবে উত্তরটি একটি পূর্ণ বাক্যে হলেই ভালো হয়। এ ধরনের প্রশ্নের উত্তর তোমাকে স্মৃতি থেকে দিতে হবে। তাই কী, কে, কখন, কোথায়, কাকে বলে এই জাতীয় প্রশ্নের উত্তরগুলো তোমার পাঠ্য বই থেকে ভালো করে মুখস্থ করে নাও। যেমন : ক. পৌরনীতি কী?

উত্তর : পৌরনীতি হচ্ছে নাগরিকতা বিষয়ক বিজ্ঞান।

অথার্ৎ, বেশি লেখার প্রয়োজন নেই। এই টুকুই লেখলে ১ নম্বর পাবে।

‘খ’ নম্বর প্রশ্নের উত্তর করার ক্ষেত্রে:

‘খ’ নম্বর প্রশ্নের মোট নম্বর ২। এই প্রশ্নে সাধারণত কী বোঝায়, ব্যাখ্যা করো, বর্ণনা করো, কেন এ ঘটনা ঘটেছে ইত্যাদি জানতে চাইবে। এই প্রশ্নটির উত্তর দেয়ার ক্ষেত্রে একটু বুঝতে চেষ্টা করবে তুমি কোন প্রসঙ্গটি ব্যাখ্যা করতে যাচ্ছ। প্রথমেই প্রসঙ্গটি একটু সঙ্গায়িত করে নেবে। উত্তরের এই অংশটি হলো জ্ঞান অংশ, যার জন্য তুমি পাবে ১ নম্বর। তারপর প্রসঙ্গটি কয়েকটি বাক্যে নিজের ভাষায় ব্যাখ্যা করো বা বুঝিয়ে লেখো। উত্তরের এই অংশটি হলো অনুধাবন অংশ, যার জন্য তুমি পাবে আরও ১ নম্বর। তুমি যদি শুধু জ্ঞান অংশটি লিখ তবে ১ নম্বর পাবে। আর অনুধাবন অংশ সহ পুরো উত্তরটি লিখতে পারলে তুমি পেয়ে যাবে পুরো ২ নম্বর। এইক্ষেত্রে উত্তরটি দুই প্যারায় দিতে পারলে ভালো।

‘গ’ নম্বর প্রশ্নের উত্তর করার ক্ষেত্রেঃ

‘গ’ নম্বর প্রশ্নের মোট নম্বর ৩। এই প্রশ্নে উদ্দীপকের প্রদত্ত ক্ষেত্রে কোনো একটি প্রসঙ্গ ব্যাখ্যা করতে বলে বা বর্ণনা করতে বলে কিংবা কোনো সূত্র, নিয়ম, তত্ত্ব, নীতি, পদ্ধতি ইত্যাদি প্রয়োগ করে কিছু নির্ণয় করতে বলে।এই প্রশ্নটির উত্তর করার আগে ভালো করে উদ্দীপক ও প্রশ্নটি পড়ে কোন প্রসঙ্গটি নিয়ে তোমাকে উত্তর করতে হবে সেটি বুঝার চেষ্টা করতে হবে। এইক্ষেত্রে যে প্রসঙ্গটি ব্যাখ্যা করতে বলে বা যে প্রসঙ্গটি নিয়ে আলোচনা করতে বলে বা যেটি নির্ণয় করতে বলে, সেটি প্রথমে সঙ্গায়িত করে নিতে হবে বা আনুষঙ্গিক কোনো সূত্র বা তত্ত্ব থাকলে তা লিখতে হবে।

উত্তরের এই অংশটি হলো জ্ঞান অংশ। এর জন্য তুমি পাবে ১ নম্বর। উক্ত প্রসঙ্গটি নিজের ভাষায় বুঝিয়ে লিখতে পারলে তুমি পেয়ে যাবে আরও ১ নম্বর। উত্তরের এই অংশটি হলো অনুধাবন অংশ। আর উদ্দীপকের প্রদত্ত ক্ষেত্রে উক্ত প্রসঙ্গটি বা সূত্রটি প্রয়োগ করতে পারলে অর্থাৎ, উদ্দীপকের প্রদত্ত ক্ষেত্রে উক্ত প্রসঙ্গটি কীরূপ হবে তা লিখতে পারলে বা সূত্র প্রয়োগ করে কিছু নির্ণয় করতে পারলে তুমি পেয়ে যাবে আরও ১ নম্বর। উত্তরের এই অংশটি হলো প্রয়োগ অংশ। তুমি যদি এক্ষেত্রে শুধু জ্ঞান অংশটি লিখতে পারো, তবে পেয়ে যাবে ১ নম্বর। আবার তুমি যদি জ্ঞানের সঙ্গে অনুধাবন অংশটি লিখতে পারো তবে পেয়ে যাবে আরও ১ নম্বর। আর যদি তুমি প্রয়োগ অংশ সহ পুরো উত্তরটি সঠিকভাবে লিখতে পারো তবে পেয়ে যাবে পুরো ৩ নম্বর। এইক্ষেত্রে উত্তরটি দুই থেকে তিন প্যারায় লিখতে পারলে ভালো।

‘ঘ’ নম্বর প্রশ্নের উত্তর করার ক্ষেত্রে:

‘ঘ’ নম্বর প্রশ্নের মোট নম্বর ৪। এইক্ষেত্রে উদ্দীপকের প্রদত্ত ক্ষেত্রে কোনো একটি প্রসঙ্গ ব্যাখ্যা করে এর থেকে সিদ্ধান্ত নিতে বা ধারণা সৃষ্টি করতে বলে, কিংবা উদ্দীপকের প্রদত্ত ক্ষেত্রে কোনো একটি প্রসঙ্গ সম্পর্কে একটি উক্তি বা বিবৃতি মূল্যায়ন করতে বলে কিংবা কোনো একটি ঘটনা বিশ্লেষণ করতে বলে। ‘গ’ নম্বর প্রশ্নের মতোই এই প্রশ্নটির উত্তর করার আগে ভালো করে উদ্দীপক ও প্রশ্নটি পড়ে কোন প্রসঙ্গটি নিয়ে তোমাকে উত্তর করতে হবে সেটি বুঝার চেষ্টা করতে হবে। উত্তরের শুরুতে উক্ত প্রসঙ্গটি প্রথমে সঙ্গায়িত করে নিতে হবে। উত্তরের এই অংশটি হলো জ্ঞান অংশ। এর জন্য তুমি পাবে ১ নম্বর। প্রসঙ্গটি নিজের ভাষায় বুঝিয়ে লিখতে পারলে তুমি পেয়ে যাবে আরও ১ নম্বর। উত্তরের এই অংশটি হলো অনুধাবন অংশ। আর উদ্দীপকে প্রদত্ত ক্ষেত্রে এই প্রসঙ্গটি প্রয়োগ করতে পারলে অর্থাৎ, উদ্দীপকে প্রদত্ত ক্ষেত্রে উক্ত প্রসঙ্গটি কীরূপ হবে তা লিখতে পারলে তুমি পেয়ে যাবে আরও ১ নম্বর। উত্তরের এই অংশটি হলো প্রয়োগ অংশ। আর তুমি যদি উদ্দীপকের প্রদত্ত ক্ষেত্রে প্রসঙ্গটি প্রয়োগ করার পর এর থেকে নতুন করে কোনো একটি সিদ্ধান্তে আসতে পারো, কিংবা কোনো একটি উক্তি সম্পর্কে মূল্যায়ন করতে পার কিংবা কোনো একটি ঘটনার পিছনের কারণগুলো কী ব্যাখ্যা করতে পারো (প্রশ্নে যেটি চাওয়া হয়েছে সেই অনুসারে), তবে তুমি পেয়ে যাবে আরও ১ নম্বর। উত্তরের এই অংশটি হলো উচ্চতর দক্ষতা অংশ। এক্ষেত্রে শুধু জ্ঞান অংশটি লিখতে পারলে তুমি পেয়ে যাবে ১ নম্বর। জ্ঞানের সঙ্গে অনুধাবন অংশটি লিখতে পারলে তুমি পেয়ে যাবে আরও ১ নম্বর। আর যদি তুমি প্রয়োগ অংশটিও লিখতে পারো তবে পেয়ে যাবে আরও ১ নম্বর। আর উচ্চতর দক্ষতার অংশটি সহ পুরো উত্তরটি সঠিকভাবে লিখতে পারলে তুমি পেয়ে যাবে পুরো ৪ নম্বর। এইক্ষেত্রে উত্তরটি তিন থেকে চার প্যারায় লিখতে পারলে ভালো। তোমার জানা থাকা ভালো, উত্তরের জ্ঞান, অনুধাবন, প্রয়োগ ও উচ্চতর দক্ষতার অংশগুলো অনেক সময়ই আলাদা করে পর পর লেখা সম্ভব হয়না। সেক্ষেত্রে প্রশ্নটির উত্তর সাজিয়ে লেখার প্রয়োজনে এই অংশগুলো আগে পরে কিংবা একসঙ্গে লেখা যেতে পারে।

তাহলে তুমি নিশ্চয় বুঝতে পারছো, ‘গ’ বা ‘ঘ’ প্রশ্নের উত্তরে শুধু জ্ঞান বা অনুধাবন অংশটি লিখেও তোমার ১ বা ২ নম্বর পাওয়ার সুযোগটি থাকছে। (একইভাবে ‘খ’ প্রশ্নের উত্তরে শুধু জ্ঞান অংশটি লিখেও তুমি ১ নম্বর পেতে পারো।) তাই যদি কোনো একটি সৃজনশীল প্রশ্নের ‘গ’ ও ‘ঘ’ নম্বর প্রশ্নের উত্তর কী হবে তা তুমি পুরোপুরি বুঝতে না পারো, সেক্ষেত্রে অন্তত প্রাসঙ্গিক জ্ঞান ও অনুধাবন অংশগুলো লিখে এসো। উত্তর সঠিক হলে এইক্ষেত্রে তুমি ১ ও ২ নম্বর পেয়ে যাবে। তাই হাতে সময় থাকলে কোনোভাবেই কোনো প্রশ্নের উত্তর না করে এসোনা। সবগুলি প্রশ্নের উত্তরে প্রাসঙ্গিক কিছু না কিছু লেখার চেষ্টা করবে। আরেকটি ব্যাপার, তুমি এই আংশিক নম্বর পাওয়ার প্রচেষ্টা তখনই শুধুমাত্র করবে, যখন তোমার অন্যান্য প্রশ্নের উত্তর লেখা ও দেখা শেষ কিন্তু হাতে কিছুটা সময় থাকবে। বাক্য উত্তরের ক্ষেত্রে হতে পারে।

তোমাদের সুস্বাস্থ্য ও মঙ্গলকামনা করি।

নতুন ‘কারিকুলাম’ পেছাল

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে নতুন ‘কারিকুলামে, পাঠদান শুরু কথা থাকলেও করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে তা এক বছর পেছানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ২০২১ সালে প্রাক-প্রাথমিক থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত নতুন কারিকুলামে শিক্ষাক্রম চালুর পূর্ব নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নে করণীয় নির্ধারণে মঙ্গলবার রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে এক সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়।

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় সবচেয়ে বেশী পাশ রাজশাহী বোর্ডে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় মোট ১১টি শিক্ষাবোর্ডের (নয়টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ড) মধ্যে এবার সবচেয়ে বেশী পাশ করেছে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের শিক্ষার্থীরা।

পাসের হার ও জিপিএ-৫, ছাত্রীরা এগিয়ে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবারও জিপিএ-৫ ও পাসের হারের দিক থেকে ছাত্রদের পেছনে ফেলেছে ছাত্রীরা এগিয়ে রয়েছে। ফলাফল বিশ্লেষণে এমনই তথ্য জানা যায়। এবার পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়া এক লাখ ৩৫ হাজার ৮৯৮ শিক্ষার্থীর মধ্যে ৬৫ হাজার ৭৫৪ জন ছাত্র এবং ৭০ হাজার ১৪৪ জন ছাত্রী রয়েছে।পাসের হার ৮২ দশমিক ৮৭ শতাংশ।

sangbad ad

এসএসসি পরীক্ষার্থীদের পুনঃনিরীক্ষার আবেদন সোমবার থেকে ৭ জুনের মধ্যে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশের ঠিক পরের দিন অর্থাৎ ১ জুন

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি এখনই নয়

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

প্রতিবছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশের এক সপ্তাহ পরে একাদশ শ্রেণিতে

মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজে শতভাগ জিপিএ-৫

প্রতিনিধি, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)

image

এবারের এসএসসি পরীক্ষায় শতভাগ জিপিএ-৫ পাওয়ার মধ্যদিয়ে সাফল্যের ধারাবাহিকতা ধরে রাখলো টাঙ্গাইলের মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজ। ৫২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে সবাই জিপিএ-৫ পেয়েছে।

মাইলস্টোন কলেজে শতভাগ পাস

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

প্রতি বছরের ন্যায় ২০২০ সালেও এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলে অসাধারণ সাফল্যের ধারা বজায় রেখেছে রাজধানীর উত্তরা মডেল টাউনে অবস্থিত মাইলস্টোন কলেজ। এবছর মাইলস্টোন কলেজ থেকে বাংলা ও ইংরেজি মাধ্যমে ১৩৮১ জন শিক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে এবং ১৩৮১ জনই জন পাস করে অর্থাৎ পাসের হার ১০০%। পাসকৃতদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯৩৫ জন শিক্ষার্থী। জিপিএ-৫ অর্জনের হার ৬৭.৭০%।

১০৪ প্রতিষ্ঠানের কেউ পাস করেনি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার কেউ পাস করেনি এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ১০৪টি । এসএসসি সমমানের পরীক্ষার ঘোষিত ফল থেকে এ তথ্য জানা গেছে। সকাল সাড়ে ১০টায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা ফলের অনুলিপি তুলে দেওয়া হয়। এর পর সেখানে ফলের বিভিন্ন দিক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তুলে ধরেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

শতভাগ পাস শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বাড়ছে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

এবার মাধ্যমিক (এসএসসি) পরীক্ষায় শতভাগ পাস করেছে এমন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা গত বছরের চেয়ে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ২৩টি। গত বছর যা ছিল দুই হাজার ৫৮৩টি। চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষার ঘোষিত ফল থেকে এমন তথ্য জানা গেছে। শতভাগ পাস করা প্রতিষ্ঠান বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এটা একটা ভালো দিক যে শতভাগ পাস করা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে।

sangbad ad