• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শুক্রবার, ০৩ জুলাই ২০২০

 

নন-এমপিও শিক্ষকদের জন্য আর্থিক অনুদান চেয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়

নিউজ আপলোড : ঢাকা , শুক্রবার, ২৯ মে ২০২০

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
image

করোনাভাইরাসের কারণে প্রায় আড়াই মাস ধরে বন্ধ রয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এতে সবচেয়ে অসহায় জীবনযাপন করছেন নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীরা। তাই নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের এককালীন আর্থিক অনুদান দিতে ১২৬ কোটি টাকা চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রস্তাব পাঠিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সূত্র জানায়, প্রধামন্ত্রীর কাছে পাঠানো শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবে স্কুল ও কলেজের জন্য আলাদা আলাদা থোক বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে। প্রস্তাবে কলেজ পর্যায়ে শিক্ষকদের জন্য ৮ হাজার অথবা ৫ হাজার কর্মচারীদের জন্য ৪ হাজার অথবা আড়াই হাজার টাকা করে দুটি বিকল্প রেখে প্রস্তাব করা হয়েছে।

প্রথম প্রস্তাবে স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে শিক্ষকদের জন্য এককালীন ৮ হাজার এবং কর্মচারীদের জন্য ৪ হাজার টাকা চাওয়া হয়েছে। এতে স্কুল পর্যায়ে ৬৬ হাজার ৫০৭ জন শিক্ষকের জন্য ৫৩ কোটি ২০ লাখ ৫৬ হাজার টাকা এবং ৫০ হাজার ৪৫৫ জন কর্মচারীর জন্য ২০ কোটি ১৮ লাখ ২০ হাজার টাকা প্রয়োজন। আর কলেজ পর্যায়ে ৮৪ হাজার ৮১৮ জন শিক্ষককের জন্য প্রায় ৩৯ কোটি ৫৪ লাখ ৪ হাজার টাকা এবং ৩৪ হাজার ৭৬২ জন কর্মচারীর জন্য ১৩ কোটি ৯০ লাখ ৮ হাজার টাকা প্রয়োজন।

সবমিলিয়ে প্রথম প্রস্তাবে মোট ১২৬ কোটি ৩৪ লাখ ৬৮ হাজার টাকা চাওয়া হয়েছে।

দ্বিতীয় প্রস্তাবে স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে শিক্ষকদের জন্য এককালীন ৫ হাজার এবং কর্মচারীদের জন্য ২ হাজার ৫০০ টাকা চাওয়া হয়েছে। দ্বিতীয় প্রস্তাবে প্রয়োজন ৭৮ কোটি ৯৬ লাখ ৬৭ হাজার ৫০০ টাকা।

জানা গেছে, প্রস্তাব দুটির মধ্যে প্রধানমন্ত্রী যেটার অনুমোদন দিবেন সে অনুযায়ী প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দের জন্য অর্থ বিভাগকে অনুরোধ করবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রস্তাবে এ টাকা চাওয়ার যুক্তি হিসেবে বলা হয়েছে, করোনাকালীন সময়ে প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন খাতে প্রনোদনা ঘোষণা করেছেন। টেকসই উন্নয়নের জন্য সমগ্র বিশ্বে শিক্ষা ও স্বাস্থ্যখাতে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর সায় পেলেই অর্থ বিভাগের অনুমতি চাইবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এদিকে গত ২৩ মে দেশের সব জেলা প্রশাসকদের কাছে নন-এমপিও স্কুল কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের নির্ধারিত ছকে তালিকা চেয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এসব ব্যাপারে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোমিনুর রশিদ আমিন বলেন, নন-এমপিও শিক্ষকদের প্রনোদনা দিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমরা প্রস্তাব পাঠিয়েছি। শিক্ষক কর্মচারীদের তালিকা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে দেওয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন স্বাপেক্ষে এ বাবদ অর্থ সহায়তা প্রদান করা হবে।

উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতিতে আর্থিক অনুদান দেওয়ার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়ে আসছিলেন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির সভাপতি এবং এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ লিয়াজোঁ ফোরামসহ বিভিন্ন সংগঠন। তারা শিক্ষকদের দিকে বিশেষ দৃষ্টি দিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানান।

ঢাবি ক্লাবের সভাপতি ওবায়দুল, সম্পাদক রহিম

প্রতিনিধি, ঢাবি

image

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ক্লাবের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এতে পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম সভাপতি এবং ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. আবদুর রহিম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মনোনীত হয়েছেন।

এম এ কাসেম নর্থসাউথ ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান নির্বাচিত

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

image

বিশিষ্ট শিল্পপতি, বাংলাদেশে বেসরকারি পর্যায়ে উচ্চ শিক্ষার পথ প্রদর্শক, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির

প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) নতুন উপাচার্য হলেন অধ্যাপক সত্য প্রসাদ মজুমদার

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক সত্য প্রসাদ

sangbad ad

অবসরের বন্ধু বই

ওয়ালিয়ার রহমান

image

করোনায় অনেকেই অবসর সময় পার করছেন। এই সময়ে শুধু শিক্ষার্থীদেরই নয়, আমাদের সকলেরই বইপড়া দরকার। কেননা বই শুধু মনের অন্ধকারই দূর করে না, সমৃদ্ধ করে জ্ঞানের ভাণ্ডার। আমাদের বই পড়তেই হবে। কেননা বইপড়া ছাড়া যেমন সাহিত্যচর্চার উপায়ন্তর নেই, তেমনি জ্ঞানের ভাণ্ডার সমৃদ্ধির জন্য প্রয়োজন বইপড়া। বইপড়া থেকে আনন্দ, বুদ্ধি ও সক্ষমতা অর্জিত হয়। বই পড়তে হয় একাকী এবং তাতে অবসর ভরে ওঠে নির্মল আনন্দে, বুদ্ধি আসে বইয়ের কথামালা থেকে, আর সক্ষমতা আসে গ্রন্থগত বিদ্যার সঙ্গে বিষয়বুদ্ধির সংশ্লেষে।

করোনায় বিপর্যস্ত শিক্ষাব্যবস্থা ও উত্তরণে করণীয়

অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম সাজু

image

বিশ্ব মহামারি কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের ভয়াবহ থাবায় দীর্ঘ তিন মাস যাবৎ বাংলাদেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। ফলে দেশের শিক্ষাব্যবস্থা এক চরম সংকটের মধ্যে পড়েছে। চরম বিপর্যস্ত শিক্ষা ব্যবস্থাকে সচল রাখার জন্য সরকার প্রাণপন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সরকার সংসদ টিভির মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অনলাইন ব্যবস্থায় ক্লাস নেওয়ার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পড়ার টেবিলে রাখার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে । এতে করে শহর কেন্দ্রিক শিক্ষার্থীদের একটি অংশ হয়ত উপকৃত হচ্ছে, বাস্তবতা হলো দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের বৃহদাংশের শিক্ষার্থীরা এই সুযোগ থেকে বঞ্চিত রয়েছে।

শিক্ষার্থীদের ক্ষতি পোষাতে পরিকল্পনা আসছে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের যে ক্ষতি হচ্ছে, তা কাটিয়ে উঠতে একগুচ্ছ পরিকল্পনা হাতে নিতে যাচ্ছে সরকার। ভাইরাসের বিস্তার কমলে আগামী সেপ্টেম্বরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলতে পারে এমনটা ধরে নিয়ে এই পরিকল্পনার ছক তৈরি করা হচ্ছে বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

করোনার দুর্যোগে প্রচলিত শিক্ষার বিকল্প হতে পারে অনলাইন শিক্ষা

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

করোনাভাইরাসের মহামারীর চরম অবস্থার মধ্যেও মানুষের জীবন-জীবিকার কথা চিন্তা করে...

ভালো ফলাফলের জন্য শিক্ষার্থীদের করণীয়

জুলহাস প্রামাণিক

image

মেইন বই সব বিষয়েও পুরো রিভিশন দেবে এতে করে যে কোনো ধরনের প্রশ্ন এলে উত্তর দিতে পারবে। মেইন বই পড়লে নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নগুলো সবচেয়ে ভালোভাবে উত্তর দিতে পারবে এবং সৃজনশীল প্রশ্নগুলোর উত্তরও ভালোভাবে দিতে পারবে।

অনলাইন লাইব্রেরি পেল বিডিইউ শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

করোনাকালীন অনলাইন ক্লাস চালুর পর এবার শিক্ষার্থীদের জন্য অনলাইন লাইব্রেরি চালু করেছে

sangbad ad