• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শনিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৮

 

বাজেট কর্মসংস্থানমুখী নয় মেগা প্রকল্পমুখী

দক্ষ শ্রমশক্তি না হলে কর্মসংস্থান তৈরি বৃথা, জোর দিতে হবে কারিগরি শিক্ষায়

নিউজ আপলোড : ঢাকা , রবিবার, ১০ জুন ২০১৮

সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক
image

বাংলাদেশের আজকের যে উন্নয়ন তা জনগণের কঠোর পরিশ্রমের ফল, এখানে সরকারে বিশেষ কোন কৃতিত্ব নেই। বিশেষ করে অর্থনৈতিক উন্নয়নে কৃষি, তৈরি পোশাক খাত, প্রবাসী আয় ও এসএমই খাতের অবদান এখানে মুখ্য। বর্তমান সরকার এখন যে অবকাঠামোভিত্তিক উন্নয়ন দর্শন চিন্তা করছে তা আদৌ সফল হবে না যদি কমর্সংস্থানের জন্য দক্ষ জনগোষ্ঠী তৈরি করা না যায়। আর দক্ষ মানবসম্পদ গঠনে দরকার মানসম্মত সাধারণ ও কারিগরি শিক্ষা, স্বাস্থ্যের মতো সামাজিক ও মানবিক উন্নয়ন খাতে বরাদ্দ। কিন্তু সরকার করছে তার উল্টোটা। তাই এ বাজেট কর্সংস্থানমুখী নয় বরং মেগা প্রজেক্টমুখী বলা যেতে পারে। রোববার (১০ জুন) বাজেটোত্তর এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক এমএম আকাশ। ২০১৮-১৯ সালের বাজেটে জনগণের দাবি-দাওয়ার প্রতিফলন ও প্রক্রিয়ার বিশ্লেষণ নিয়ে গণতান্ত্রিক বাজেট আন্দোলন ডেমোগ্রাফিক বাজেট মুভমেন্ট (ডিবিএম) ও ইকোনমিক রিপোটার্স ফোরাম (ইআরএফ) যৌথভাবে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে। রাজধানীর পুরানা পল্টনের ইআরএফ কার্যালয়ে ‘জাতীয় বাজেট ২০১৮-১৯ পর্যালোচনা : সাংবাদিকবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময়’ শীর্ষক ওই সভার আয়োজন করা হয়। গণতান্ত্রিক বাজেট আন্দোলন এর সহ-সভাপ্রধান আসগর আলী সাবরীর সঞ্চালনায় বাজেট বিশ্লেষণ উপস্থাপন করেন গবেষণা সম্পাদক মনোয়ার মোস্তফা। এছাড়া বক্তব্য দেন ইআরএফ’র সভাপতি সাইফুল ইসলাম দিলাল, সহ-সভাপতি সালাউদ্দিন বাবলু, স্বাস্থ্য অধিকার আন্দোলনের সভাপতি ডা. রশিদই মাহবুব, বিজনেস ইনিসিয়েটিভ লিডিং চেঞ্জ (বিল্ড)-এর সিইও ফেরদৌস আরা বেগম ও গণতান্ত্রিক বাজেট আন্দোলন সভাপ্রধান ড. প্রতিমা পাল মজুমদারসহ আরও অনেকে।

মনোয়ার মোস্তফা তার উপস্থাপনায় বলেন, মেগা প্রকল্পের ক্রমাগত ব্যয় বৃদ্ধির কারণে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খাদ্য-পুষ্টিসহ সামাজিক ও মানবিক উন্নয়ন খাতে বাজেট প্রতিবছর কমছে। যার ফলশ্রুতিতে দক্ষ মানবসম্পদ তৈরি হচ্ছে না। একই সঙ্গে আমাদের সমাজে আয় বৈষম্য বাড়ছে। সরকারি হিসাবে শীর্ষ ৫ শতাংশ মানুষের আয় সর্বনিম্ন ৫ শতাংশ এর আয়ের চেয়ে ১২১ গুন বেড়েছে। ২০১০ সালে এ ব্যবধান ছিল ৩১.৫ গুন। বিশ্লেষণ শেষে তিনি প্রগতিশীল কর ব্যবস্থা, জনকল্যাণ ও সামাজিক খাতে বিনিয়োগ বৃদ্ধি এবং আঞ্চলিক বৈষম্য হ্রাসের জন্য উন্নয়ন ও বাজেটের বিকেন্দ্রীকরণের মতো ৩টি কৌশলগত সমাধানের প্রস্তাব করেন।

সাইফুল ইসলাম দিলাল বলেন, বাজেটে মধ্যবিত্তের জন্য করের বোঝা ছাড়া ইতিবাচক কিছু নেই। তিনি বলেন এ বাজেটে নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তেরে উপর চাপ বাড়বে। সালাহ উদ্দিন বাবলু বলেন, আমরা যদি স্বর্ণের বাজার মূল্যের সঙ্গে বাজেটের আর্থিক মূল্যের হিসাব করি তাহলে দেখবো যে, বঙ্গবন্ধু যে বাজেট দিয়েছিলেন সেই তুলনায় বর্তমান বাজেটের পরিমাণ অনেক কম। আমরা এই বাজেটে বঙ্গবন্ধুর দর্শনের বা আদশের প্রতিফলন দেখতে পাই না। জনগণের করের টাকায় ব্যাংকিং খাতের দায়শোধের সমালোচনা করেন তিনি।

ডা. রশিদই মাহবুব বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশে স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্দ সবচেয়ে কম। স্বাস্থ্যখাতে বাজেট বরাদ্দের ভোক্তার যে হিস্যা সেটা কিন্তু ১ টাকাও বাড়েনি, যা বাড়ে তা রাজস্ব বাজেট তথা বেতন, ভাতাদি, প্রশাসনিক ব্যয়ে সিংহভাগ চলে যায়। অন্যদিকে সামগ্রিক বাজেটের আকার বৃদ্ধির কারণে সাধারণ মানুষের ‘আউট অব পকেট এক্সপেন্ডিচার’ আরও বেড়ে যাবে বলে তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করেন। বতর্মানে ১০০ টাকার চিকিৎসায় জনগণ নিজে পকেট থেকে গড়ে ৬৬ টাকার বেশি খরচ করে।

ফেরদৌস আরা বেগম বলেন, ইউরোপের বাজারে বাংলাদেশি সাইকেলের বাজার কেবল তৈরি হচ্ছে এমন সময় ব্রেকিং সিস্টেম ও শ্যাডেল-এর উপর হঠাৎ করে ১৫ শতাংশ কর আরোপনকে বিকাশমান বাইসাইকেল শিল্পের উপর নেতিবাচক হস্তক্ষেপ। একইসঙ্গে তিনি আমাদের বিনিয়োগ পরিকল্পনায় ধারাবাহিকতার অভাবকে বিশেষভাবে চিহ্নিত করে বলেন যে, তাড়াহুড়ো করে এডহক ভিত্তিতে সরকার বিনিয়োগ সংক্রান্ত যেসকল সিদ্ধান্ত নিচ্ছে তার জন্য সামনে বিপদে পড়তে হবে। মাত্র এক বছরে মাথায় পরিবেশ বান্ধব শিল্পে ২% কর বাড়িয়ে ১২% করার সমালোচনা করেন তিনি। আয়মুক্ত করের সীমা বাড়ানোর উপর জোড় দেন তিনি। তিনি বলেন যানজট নিরসনে কোন বান্তবসম্মত পরিকল্পনা নেই, অথচ এর কারণে আমরা জিডিপি হারাচ্ছি।

জিটিভি-র চিফ রিপোটার রাজু আহমেদ বলেন, আমাদের দেশের ৩০% ধনী মানুষ দেশের মোট সম্পদের ৬৪ ভাগ ভোগ করছেন। অন্যদিকে আঞ্চলিক বৈষম্যও বাড়ছে উল্লেখ করে বলেন যে বাজেটে এই বৈষম্য নিরসনের কোন পদক্ষেপ লক্ষণীয় নয়। যারা দারিদ্র সীমার ঠিক উপরে বসবাস করছেন যে কোন পারিবারিক বা আর্থ-সামাজিক সংকট বা দুযোগের ঝুঁকির কারণে তারা আবার দারিদ্র সীমার নিচে চলে আসতে পারেন।

ড. প্রতিমা পাল মজুমদার বলেন, অর্থমন্ত্রীর ভাষণ অনুযায়ী স্কুলে নারী ও পুরুষ শিক্ষার্থীদের জন্য টয়লেট-এর পরিকল্পনাকে তিনি সাধুবাদ জানান। অন্যদিকে ৫ হাজার স্কুলে সীমানা প্রাচীর নির্মাণের উদ্যোগেকে নারী শিক্ষার জন্য ইতিবাচক উদ্যোগ বলে উল্লেখ করেন।

গণতান্ত্রিক বাজেট আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক এআর আমান সভার সূচনায় বলেন, বাজেটের আকৃতি বেড়েছে সেটা আপাত:দৃষ্টিতে ভাল সংবাদ মনে হতে পারে; কিন্তু জনচাহিদা সম্পন্ন খাতে বাজেট বেড়েছে কি না সেটা বিবেচনা করতে হবে। তিনি বলেন সাধারণ বেকারের পাশাপাশি ক্রমবর্ধমান শিক্ষিত ও তরুণ বেকারের জন্য অর্থমন্ত্রী বাজেটে কোন বিনিয়োগ কৌশল দেন নি, যা ইনক্লুসিভ গ্রোথের পথে অন্তরায়।

পোশাক শ্রমিকদের বেতন বোনাস নিয়ে টালবাহানা

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

ঈদের আগেই পোশাক শ্রমিকদের জুলাই মাসের মজুরি ও ঈদ বোনাস প্রায় পরিশোধ করা সম্ভব হয়েছে বলে দাবি করেছেন মালিকরা। তবে আগস্ট

সাইবার হামলার আশঙ্কায় সব ব্যাংকে সতর্কতা জারি

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

যেকোন ব্যাংকে যেকোন সময় সাইবার হামলা হতে পারে। এমন আশঙ্কায় দেশের সব বাণিজ্যিক ব্যাংককে সতর্ক থাকতে নির্দেশ জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বৈধপথে অর্থ পাঠালে ঋণ সুবিধা পাবে বিদেশফেরতরা

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

প্রবাশীদের আয় বৈধপথে আনতে স্বল্পসুদে ঋণ তহবিল গঠন করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এই তহবিল থেকে প্রবাস জীবন শেষে দেশে ফেরার পর কর্মদক্ষতা

sangbad ad

স্বল্পসুদে গৃহঋণ : আবাসনে নতুন বাজারের সম্ভাবনা

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

আবাসন সমস্যা সমাধানকল্পে সরকারি কর্মচারীদের জন্য গৃহনির্মাণ সংক্রান্ত পরিপত্র জারি করায় এই শিল্পে নতুন বাজার সৃষ্টির সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে

বড় বাধা বিলম্ব রপ্তানি

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের (বিআইবিএম) এক গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তৈরি পোশাক খাতের অর্থায়নে ব্যাংক ও ব্যবসায়ীদের

বিনিয়োগকারীদের পুঁজি কমেছে সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকা

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

দুই কার্যদিবস পতন আর তিন কার্যদিবস সূচক উত্থানের মধ্য দিয়ে আরও একটি সপ্তাহ পার করল দেশের পুঁজিবাজার। গত সপ্তাহে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার

হালাল পণ্য উৎপাদনে আলাদা অর্থনৈতিক অঞ্চল চান ব্যবসায়ীরা

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

হালাল পণ্য উৎপাদন ও রপ্তানি বাড়াতে আলাদা অর্থনৈতিক অঞ্চলের দাবি জানিয়েছেন

১৬ আগস্টের মধ্যে শ্রমিকদের বোনাস দেয়ার নির্দেশ

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

পোশাক শ্রমিকদের ঈদুল আজহার বোনাস ১৬ আগস্টের মধ্যে পরিশোধের নির্দেশ

গরুর চামড়া প্রতি বর্গফুট ৩৫ থেকে ৪৫

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

ঈদ সামনে রেখে কোরবানির পশুর চামড়া সংগ্রহের জন্য দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। পশু ও আকারভেদে এবার চামড়ার দাম গতবারের তুলনায়

sangbad ad