• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮

 

গুঁড়াদুধের শুল্ক কমানো আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বুধবার, ১৩ জুন ২০১৮

সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

প্রস্তাবিত (২০১৮-১৯) অর্থবছরের বাজেটে গুঁড়াদুধ আমদানিতে শুল্ক কমানোকে আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত উল্লেখ করে তা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ডেইরি ফারমার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিডিএফএ)। একইসঙ্গে গুড়া দুধ আমদানিতে ৩০ শতাংশ এন্টিডাম্পিং ডিউটি আরোপের দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

মঙ্গলবার (১২ জুন) জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত প্রস্তাবিত বাজেট পরবর্তী এক সংবাদ সম্মেলনে এসব দাবি জানানো হয়। সংগঠনটির পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য তুলে ধরেন সভাপতি মো. ইমরান হোসেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মিল্ক ভিটার ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মুস্তাফিজুর রহমান, জাতীয় দুগ্ধ ডেভেলপমেন্ট ফোরামের সাধারণ সম্পাদক মো. আনিসুর রহমান, এসএমই করপোরেশনের পরিচালক আজাদ চৌধুরি, বিডিএফএর সাধারণ সম্পাদক শাহ এমরান প্রমুখ।

ইমরান হোসেন বলেন, দুধ উৎপাদনে সাধারণ খামারিরা যখন পারদর্শিতা দেখাতে শুরু করেছেন, সেই সময় বাজেটে গুঁড়াদুধের শুল্ক কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। বাজেট প্রস্তাব অনুযায়ী গুড়াঁদুধের আমদানি শুল্ক ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১০ শতাংশ করা হলে দুগ্ধ খামারিরা ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হবেন। তিনি বলেন, ‘গুড়াঁদুধ আমদানির ক্ষেত্রে সর্বপ্রথম শুল্ক হার ছিল ৫১ শতাংশ। পরবর্তীতে তা কমিয়ে ২৫ শতাংশ করা হয়। আর ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে তা কমিয়ে ১০ শতাংশ করার কথা বলা হয়েছে। যেখানে দেশে দুধের উৎপাদন বাড়ছে, খামারের সংখ্যা বাড়ছে, বেকার সমস্যার সমাধান হচ্ছে-সেক্ষেত্রে হঠাৎ করে গুঁড়াদুধের আমদানি শুল্ক কমিয়ে দেয়া দুগ্ধ খামারিদের অস্তিত্ব বিলীন করে দেবারই সামিল।

দেশে দুধ উৎপাদনের চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, ২০১০-১১ অর্থবছরে দুধ উৎপাদন হয় ২৯ দশমিক ৫০ লাখ মেট্রিক টন; যা ধারাবাহিকভাবে বেড়ে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ৯২ দশমিক ৮৩ লাখ মেট্রিক টন হয়েছে। এখন গুঁড়াদুধের আমদানি শুল্ক কমালে খামারিরা নিরুৎসাহিত হবেন। ফলে দুধের উৎপাদন কমে ৫০ লাখ মেট্রিক টনের নিচে চলে আসবে।

এ সময় তিনি দুগ্ধ খামারিদের রক্ষায় গুঁড়াদুধের আমদানি শুল্ক কমানোর প্রস্তাব বাতিলের দাবি জানান। সেইসঙ্গে ৩০ শতাংশ অতিরিক্ত এন্টিডাম্পিং শুল্ক আরোপের দাবি জানিয়ে বলেন, আমাদের দেশে যে দুধ উৎপাদন হচ্ছে আমরা তাই ব্যবহার করতে পারছি না। দুধ বিক্রি করতে না পেরে অনেক সময় খামারিরা পানিতে দুধ ফেলে দিচ্ছেন। তাহলে কেন বিদেশ থেকে গুঁড়াদুধ আমদানি করতে হবে?

বিদেশ থেকে আমদানি করা গুঁড়াদুধ নিম্নমানের উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘নিম্নমানের হওয়ার পরও দেশে ক্রমান্বয়ে গুঁড়াদুধের আমদানি বাড়ছে। ২০১৩-১৪ অর্থবছরে গুঁড়াদুধের আমদানি ছিল ৭১ হাজার মেট্রিক টন; যা বেড়ে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে হয়েছে ১২০ হাজার মেট্রিক টন।

মিল্ক ভিটার ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, মিল্ক ভিটার এলাকাতে প্রতিদিন সাড়ে ৩ লাখ লিটার দুধ উৎপাদন হয়। আমরা এই দুধই নিতে পারি না। এমন পরিস্থিতিতে গুঁড়াদুধের আমদানি শুল্ক কমিয়ে দেয়া সঠিক হবে না।

এসএমই গ্যারান্টি স্কিম চালু হলে ব্যাংকিং ঝুঁকি কমবে

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের (বিআইবিএম) এক গোলটেবিল আলোচনায়

বিনিয়োগ বাড়াতে আগামী মার্চেই চালু হবে ওয়ানস্টপ সার্ভিস

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্প্রসারণে আগামী মার্চে ‘এক দরজায় সব সেবা (ওয়ান স্টপ সার্ভিস)

সামিটের উদ্যোগের প্রশংসায় কানাডার প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বাংলাদেশে পরিবেশবান্ধব জ্বালানির নিয়ে আসার প্রচেষ্টার

sangbad ad

করদাতা বেড়েছে, বাড়াতে হবে আরও : আয়কর মেলা উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মুহিত

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

জনগণকে কর দিতে উৎসাহিত করতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের আয়োজনে সারাদেশের

তিন মাসে বাণিজ্য ঘাটতি ৩২ হাজার কোটি টাকা

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

রপ্তানি আয়ে প্রবৃদ্ধি থাকলেও বেড়েছে বাণিজ্য ঘাটতির পরিমাণ। চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের

এগারো এগারো তে ৮০% পর্যন্ত ছাড় থাকবে মীরবাজারে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

নভেম্বর এর ১১ তারিখ, সংক্ষেপে এগারো এগারো বা এলেভেন এলেভেন। এই দিনে বিশ্বের

কর ব্যবস্থায় দুর্নীতি রয়েছে

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

দেশের ৬৫ শতাংশ মানুষ মনে করে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) কর ব্যবস্থায় দুর্নীতি

খুলনা পাওয়ারের শেয়ার লেনদেন অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত খুলনা পাওয়ারের শেয়ার লেনদেন অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত

নতুন রপ্তানি নীতিতে গুরুত্ব পাচ্ছে রপ্তানিমুখী শিল্প খাত

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

সহজ শর্তে ঋণ প্রদান, শিল্পনগরী প্রতিষ্ঠাসহ রপ্তানিমুখী শিল্পকে গুরুত্ব দিয়ে করা হচ্ছে

sangbad ad