• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯

 

ঢাবির ‘উপাচার্য প্যানেল’ চূড়ান্ত

নিউজ আপলোড : ঢাকা , মঙ্গলবার, ৩০ জুলাই ২০১৯

সংবাদ :
  • আবদুল্লাহ আল জোবায়ের
image

(বাম থেকে) অধ্যাপক আখতারুজ্জামান, অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল ও অধ্যাপক মুহাম্মদ : ছবি ইন্টারনেট

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) আওয়ামীপন্থি শিক্ষকদের সংগঠন নীলদল ‘উপাচার্য প্যানেল’ চূড়ান্ত করেছে। মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) সন্ধ্যা ছয়টার দিকে আওয়ামীপন্থি শিক্ষকদের বৈঠকে তিন সদস্যের প্যানেল চূড়ান্ত হয়। প্যানেলে থাকা নীলদল এর তিনজন হলেন- বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল।

বুধবার (৩১ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৩টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব আলী চৌধুরী ভবনে সিনেটের বিশেষ অধিবেশনে উপাচার্য প্যানেল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ১৯৭৩-এর আর্টিকেল ২১ (২) ধারায় অর্পিত ক্ষমতাবলে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান সিনেটের বিশেষ অধিবেশন আহ্বান করেছেন। দীর্ঘ ২৮ বছর পর ডাকসু নির্বাচনের মাধ্যমে পাঁচ ছাত্রপ্রতিনিধি সিনেটে যাওয়ায় ১০৫ সদস্যের সিনেট পূর্ণাঙ্গ হয়েছে। ফলে ২৬ বছর পর পূর্ণাঙ্গ সিনেটেই এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে সর্বশেষ ১৯৯৩ সালে সিনেট পূর্ণাঙ্গ ছিল।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাদেশ, ১৯৭৩ এর ১১ (১) ধারা অনুযায়ী সিনেট ‘উপাচার্য প্যানেল’ নির্বাচন করবে। অধ্যাদেশের ১১ (১) ধারায় বলা হয়েছে, ‘সিনেট সদস্যগণ কর্তৃক বিধিমোতাবেক নির্বাচিত তিন সদস্যের প্যানেল থেকে একজনকে পরবর্তী চার বছরের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দিবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য। উপাচার্য হিসেবে তিনি পুনরায় চার বছরের জন্য নিয়োগপ্রাপ্ত হওয়ার সুযোগ পাবেন।’ তিন সদস্যের এই প্যানেল থেকে বিশ^বিদ্যালয়ের পরবর্তী উপাচার্য মনোনীত করবেন রাষ্ট্রপতি (বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য)।

সূত্র জানায়, মঙ্গলবার নীলদল এর সদস্যদের ভোটে এই তিনজনের নাম চূড়ান্ত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ ৪২ ভোট, উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান ৩৬ ভোট ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক এস এম মাকসুদ কামাল ৩০ ভোট পেয়ে মনোনীত হয়েছেন। এছাড়া উপাচার্য প্যানেলে জায়গা পাওয়ার জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ছিলেন উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান। অধ্যাপক নাসরীন আহমদ ২৮ ভোট ও মীজানুর রহমান ২০ ভোট পেয়েছেন। এর আগে, সন্ধ্যায় নীল দলের শিক্ষকরা তিন সদস্যের প্যানেল ঠিক করতে বৈঠকে বসে। নীল দলের শিক্ষক, রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট সবাইকে নিয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এখানে প্যানেল উত্থাপন করা হয়। মতৈক্য থাকায় ব্যক্তিপর্যায়ে ভোটাভুটি হয়।

এবার সিনেটের বিশেষ অধিবেশন কিছুটা ব্যতিক্রম হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেটে পাঁচজন নির্বাচিত ছাত্রপ্রতিনিধি রাখার বিধান রয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাদেশ, ১৯৭৩ এর ২০ (১) ধারায় এ বিষয়ের স্পষ্ট উল্লেখ রয়েছে। ১৯৯০ সালের পর থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত ছাত্রপ্রতিনিধি ছাড়া অপূর্ণাঙ্গ সিনেট অধিবেশনের মাধ্যমে নতুন উপাচার্য মনোনীত হয়েছেন। তবে, সম্প্রতি ডাকসু নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ায় সিনেট পূর্ণাঙ্গ হয়েছে। সিনেটের বার্ষিক অধিবেশনে ছাত্রপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। বিশেষ অধিবেশনেও ছাত্রপ্রতিনিধিসহ মোট ১০৫ জন সিনেট সদস্য উপস্থিত থাকবেন বলে আশা করা যায়।

সাদা দলের শিক্ষকদের অবস্থান : বাংলাদেশে যখন যে রাজনৈতিক দল ক্ষমতায় থাকে, সে দলের সমর্থকদের মধ্য থেকেই উপাচার্য প্যানেল গঠিত হয় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য তাদের মধ্য থেকেই নিজ ক্ষমতাবলে উপাচার্য নিয়োগ দেন। দীর্ঘদিন যাবত বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট ক্ষমতার বাইরে। তাই বিএনপি-জামাতপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন সাদা দলের শিক্ষকদের প্যানেল দেয়ার সুযোগ নেই। সিনেটে তাদের সদস্য মাত্র তিনজন। তারা হলেন- পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এবিএম ওবায়দুল ইসলাম, পরিসংখ্যান বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক লুৎফর রহমান এবং ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. হাসানুজ্জামান। সাদা দলের শিক্ষকরা সরকারপন্থি শিক্ষকদের প্যানেলকে সমর্থন জানাবেন কিনা তা এখনো জানা যায় নি। তবে অভিজ্ঞতার আলোকে ধারণা করা হচ্ছে, সাদা দলের শিক্ষকরা সিনেটের বিশেষ অধিবেশনে উপস্থিত থাকবেন না।

শিক্ষার্থীদের সমর্থন মাকসুদ কামালের দিকে : এদিকে, উপাচার্য নিয়োগে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীদের ভূমিকা না থাকলেও তাদের পছন্দকে গুরুত্ব দেয়া হবে বলে আশা করছেন অনেকে। শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপে উপাচার্য প্যানেল নির্বাচন নিয়ে পোল করেছেন। ‘স্বপ্নের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়’ নামক একটি ফেসবুক গ্রুপের পোল বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি এএসএম মাকসুদ কামালকে পরবর্তী উপাচার্য হিসেবে দেখতে বেশি আগ্রহী। এ রিপোর্ট লেখার সময় পোলের তথ্য অনুযায়ী, মাকসুদ কামালকে উপাচার্য হিসেবে দেখতে চান ১০৮০ জন শিক্ষার্থী। শিক্ষার্থীদের পছন্দের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান। তাকে উপাচার্য হিসেবে দেখতে চান ৩৭৪ জন শিক্ষার্থী। তৃতীয় অবস্থানে রয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ। তাকে উপাচার্য হিসেবে দেখতে চান ১৯৯ জন শিক্ষার্থী। চতুর্থ অবস্থানে রয়েছেন বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। তাকে উপাচার্য হিসেবে দেখতে চান ৭৭ জন শিক্ষার্থী। সর্বশেষ অবস্থানে রয়েছেন উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ। তাকে উপাচার্য হিসেবে দেখতে চান ৪৫ জন শিক্ষার্থী।

সিনেটের সর্বশেষ উপাচার্য প্যানেল নির্বাচন হয় ২০১৭ সালের ২৯ জুলাই। সেই সভায় তৎকালীন উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের সঙ্গে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক কামাল উদ্দীন ও বিজ্ঞান অনুষদের তৎকালীন ডিন অধ্যাপক ড. আবদুল আজিজ প্যানেলে যুক্ত হন। পূর্ণাঙ্গ সিনেট না থাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের আওয়ামীপন্থি নীল দলের শিক্ষকদের একটি অংশের রিটের পরিপ্রেক্ষিতে ১০ অক্টোবর ওই প্যানেলকে অবৈধ ঘোষণা করেন আদালত। তখন উপাচার্য অধ্যাপক আরেফিন সিদ্দিকের পক্ষে-বিপক্ষে নীল দল বিভক্ত হয়ে পড়ে। এর পরিপ্রেক্ষিতে ৪ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য ও রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক আখতারুজ্জামানকে সাময়িক উপাচার্যের দায়িত্ব দেন। পরে সিনেট পূর্ণাঙ্গ করতে রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট ও প্রায় তিন দশক পর অনুষ্ঠিত হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন। সেখান থেকে পাঁচজন ছাত্রপ্রতিনিধি যোগ দিয়েছেন সিনেটের বার্ষিক অধিবেশনে। বর্তমানে সিনেটে মোট সদস্য সংখ্যা ১০৫ জন। যারমধ্যে বেশিরভাগ সদস্য নীল দলের। শিক্ষক প্রতিনিধিদের ৩৫ জনের মধ্যে ৩৩ জন অধ্যাপক আরেফিন সিদ্দিকের সময়ে নির্বাচিত। বাকি দুজন বিএনপি-জামায়াতপন্থি সাদা দল থেকে নির্বাচিত।

জবিতে জুন ২০২০ এর পর পি.এইচ.ডি ছাড়া কোন শিক্ষক পদোন্নতি পাবেন না।

প্রতিনিধি জবি

image

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) ২০২০ সালের জুন মাসের পর কোন শিক্ষক পি.এইচ.ডি ডিগ্রি ছাড়া অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পাবে না। গবেষণায়

নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্বেও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য-শিক্ষকরা রাজনৈতিক মাঠে আছেন

মাহমুদ তানজীদ, জবি

image

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) আইন ২০০৫ এ বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীদের সরাসরি রাজনীতিতে জড়ানোয়

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় দিবস-২০১৯ উপলক্ষে বর্ণাঢ্য আয়োজন

প্রতিনিধি, জবি

image

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ১৪তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে নানা কর্মসূচির আয়োজন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। আগামী ২০ অক্টোবর

sangbad ad

জবি ছাত্র ইউনিয়নের নেতৃত্বে মুত্তাকী-জাহিন

প্রতিনিধি, জবি

image

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। নতুন কমিটিতে কেএম মুত্তাকী সভাপতি, খায়রুল

চাপাতি দিয়ে কোপানোর পর ‘ছাত্রদল-শিবির’ বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা

প্রতিনিধি, জবি

image

বুয়েটের শিক্ষার্থী আবরার হত্যার রেশ কাটতে না কাটতেই জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে এক পক্ষকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে ‘ছাত্রদল-শিবির’ বলে

মাঠ পর্যায়ের আন্দোলন স্থগিত করে ক্লাসে ফিরছেনা বুয়েট শিক্ষার্থীরা

প্রতিনিধি, ঢাবি

image

আবরার ফাহাদ হত্যার বিচার দাবিতে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) আন্দোলরত শিক্ষার্থীরা মাঠ পর্যায়ের আন্দোলন

জাবি উপাচার্যকে অপসারণের দাবিতে পদযাত্রা ও সমাবেশ

প্রতিনিধি, জাবি

image

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামকে অপসারণের দাবিতে পদযাত্রা ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে আন্দোলনকারী শিক্ষক শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) দুপুরে ‘দুর্নীতির

জবিতে ‘মুক্তমঞ্চ’ নির্মানের প্রস্তাবণা

প্রতিনিধি, জবি

image

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) নাট্যচর্চা এবং সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড বাস্তবায়নে বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান ভবন সংলগ্ন মাঠে মুক্তমঞ্চ

জবির বাণিজ্য শাখার ফলাফল প্রকাশ

প্রতিনিধি, জবি

image

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ২০১৯-২০ শিক্ষার্বষের বিবিএ ১ম র্বষের ভর্তি পরীক্ষা ইউনিট-৩ ( বাণিজ্য শাখার) ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে।

sangbad ad