• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২০

 

দুরবস্থায়ও বেড়েছে অধিকাংশ ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বুধবার, ০১ জানুয়ারী ২০২০

সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক
image

বেসরকারি খাতে ব্যাংকগুলোর ঋণ প্রবৃদ্ধি গত ১০ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে। আমদানি-রপ্তানি কমে যাওয়ায় কমেছে ব্যাংকের কমিশন আয়। ২০১৯ সালে বিপুল পরিমাণের ঋণখেলাপি হয়ে যাওয়ায় তার বিপরীতে পরিচালন আয় দেখাতে পারেনি ব্যাংকগুলো। শেয়ারবাজারের পরিস্থিতিও বছরজুড়ে খারাপ ছিল। এর মধ্যে আবার সুদহার কমানো নিয়ে বছরজুড়ে চাপে ছিল। এত সংকটের মধ্যেও পরিচালন মুনাফা বেড়েছে অধিকাংশ ব্যাংকের। যদিও শেষ পর্যন্ত নিট বা প্রকৃত মুনাফা কোথায় নামবে তা নিয়ে সংশয়ে আছেন ব্যাংকাররা।

ব্যাংকাররা জানান, ঋণ বিতরণের স্থিতি বৃদ্ধির কারণে সুদ আয় থেকে পরিচালন মুনাফা বেড়েছে। সার্ভিস চার্জ থেকেও ভালো আয় এসেছে। তবে পরিচালন মুনাফা বেশি হলেও নিট মুনাফা হয়তো বাড়বে না। কেননা ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৯ মাসে রেকর্ড ৩১ হাজার ১৭৫ কোটি টাকার খেলাপি ঋণ পুনঃতফসিল করার পরও অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে খেলাপি ঋণ ২২ হাজার ৩৭৭ কোটি টাকা বেড়ে এক লাখ ১৬ হাজার ২৮৮ কোটি টাকায় ঠেকেছে। অবশ্য ২ শতাংশ ডাউন পেমেন্ট দিয়ে বিশেষ নীতিমালায় শেষ তিন মাসে আরও অনেক খেলাপি ঋণ পুনঃতফসিল হয়েছে। তবে পুনঃতফসিল করা এসব ঋণের শুধু যে, অংশ আদায় হবে তার বিপরীতে আয় দেখাতে পারবে ব্যাংক। ফলে শেষ পর্যন্ত নিট মুনাফার চিত্রটা এতটা ভালো হবে না।

জানা গেছে, পরিচালন মুনাফা কোন ব্যাংকের প্রকৃত মুনাফা নয়। কারণ পরিচালন মুনাফা থেকে ঋণের বিপরীতে নির্ধারিত হারে নিরাপত্তা সঞ্চিতি (প্রভিশন) সংরক্ষণ এবং সাড়ে ৩৭ শতাংশ হারে করপোরেট কর পরিশোধ করতে হয়। তারপরে যে অর্থ থাকে তাকে ব্যাংকগুলোর নিট মুনাফার হিসাব ধরা হয়। নিট মুনাফার ওপর ভিত্তি করে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংকগুলো সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের লভ্যাংশ দিয়ে থাকে। ফলে এসব ব্যাংকের মুনাফা নিয়ে শেয়ারবাজারে ব্যাপক আগ্রহ থাকে। আর এই কারণে মূল্য সংবেদনশীল বিবেচনায় শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা আগেভাগে প্রকাশের ওপর বাংলাদেশ ব্যাংক ও পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসির নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। ব্যাংকগুলো বিএসইসির কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে এ তথ্য দেয়ার পর স্টক এক্সচেঞ্জের ওয়েবসাইটে তা প্রকাশ করা হয়।

তবে নির্ভরযোগ্য সূত্রে ব্যাংকগুলোর পরিচালন মুনাফার তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৩১ ডিসেম্বর) বিভিন্ন ব্যাংক থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্যে দেখা গেছে, ২০১৯ সালের ব্যাংকিং কার্যদিবস শেষে রাষ্ট্রায়ত্ত রূপালী ব্যাংকের মোট পরিচালন মুনাফা হয়েছে ১ হাজার ৫০ কোটি টাকা, যা আগের বছরে ছিল ১ হাজার ১০ কোটি টাকা। ইসলামী ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা হয়েছে ২ হাজার ৮৮০ কোটি টাকা। আগের বছর ছিল ২ হাজার ৭৭০ কোটি টাকা। পূবালী ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা বেড়ে হয়েছে ১ হাজার ৪০ কোটি টাকা, যা আগের বছরে ছিল ১ হাজার ২৫ কোটি টাকা। সাউথইস্ট ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ২৫ কোটি টাকা, যা আগের বছরে ছিল ১ হাজার ১২ কোটি টাকা। ইস্টার্ন ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা দাঁড়িয়েছে ৯০০ কোটি টাকা, আগের বছর ছিল ৭৮০ কোটি টাকা। সিটি ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা দাঁড়িয়েছে ৮২৫ কোটি টাকা, আগের বছর ছিল ৬৮১ কোটি টাকা। অন্যদিকে আল আরাফা ব্যাংক মুনাফা করেছে ৮০১ কোটি টাকা, আগের বছর ছিল ৬৪০ কোটি টাকা। এক্সিম ব্যাংক মুনাফা করেছে ৭৮০ কোটি টাকা, আগের বছর ছিল ৭৫০ কোটি টাকা। মার্কেন্টাইল ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা হয়েছে ৭৫৩ কোটি টাকা, যা আগের বছরে ছিল ৬৭৩ কোটি টাকা। যমুনা ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা দাঁড়িয়েছে ৭৩০ কোটি টাকা। আগের বছর ছিল ৬২০ কোটি টাকা। সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা হয়েছে ৬৮২ কোটি টাকা, যা আগের বছরে ছিল ৬৬৭ কোটি টাকা। আইএফআইসি ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা হয়েছে ৬৭৫ কোটি টাকা, যা আগের বছরে ছিল ৫০৪ কোটি টাকা। এছাড়াও শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা দাঁড়িয়েছে ৬৫৩ কোটি টাকা, আগের বছর ছিল ৪৭৫ কোটি টাকা।

ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা হয়েছে ৫৯১ কোটি টাকা, যা আগের বছরে ছিল ৫২৫ কোটি টাকা। অন্যদিকে পরিচালন মুনাফা কমেছে ন্যাশনাল ব্যাংকের। ২০১৯ সালে ব্যাংকটি পরিচালন মুনাফা করেছে ৯৪৮ কোটি টাকা, ২০১৮ সালে যা ছিল ১ হাজার ২২৯ কোটি টাকা। এদিকে বছরের ব্যাংকিং কার্যদিবস শেষে নতুন ব্যাংকগুলোর মধ্যে সাউথ বাংলা ব্যাংক মুনাফা করেছে ২২৮ কোটি টাকা, আগের বছর যা ছিল ২০৩ কোটি টাকা। একইভাবে এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংক মুনাফা করেছে ২৬২ কোটি টাকা, যা আগের বছর ছিল ২০১ কোটি টাকা। মেঘনা ব্যাংক ২০১৯ সালে মুনাফা করেছে ১২৪ কোটি টাকা, ২০১৮ সালে ছিল ৯৩ কোটি টাকা।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে ব্যাংকগুলো ২৬ হাজার ৬৩৯ কোটি টাকার পরিচালন মুনাফা করেছিল।

অথচ নিট মুনাফা নেমেছিল ৪ হাজার ৩৯ কোটি টাকায়। এর আগের বছর ২০১৭ সালে ব্যাংকগুলো পরিচালন মুনাফা হয়েছিল ২৪ হাজার ৬৫০ কোটি টাকা। নিট মুনাফা হয়েছিল ৯ হাজার ৫১০ কোটি টাকা। এর মানে পরিচালন মুনাফা এক হাজার ৯৯০ কোটি টাকা বাড়লেও নিট মুনাফা কমেছিল ৫ হাজার ৪৭০ কোটি টাকা। গত বছর ব্যাংক খাতে নিট মুনাফা কমার অন্যতম কারণ হিসেবে খেলাপি ঋণ বৃদ্ধিকে চিহ্নিত করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এবার পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে।

স্বপ্ন প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ালো ম্যারিকো ও ইউএনডিপি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

ম্যারিকো বাংলাদেশ ও জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি) তাদের “স্ট্রেংথেনিং উইম্যানস অ্যাবিলিটি ফর প্রোডাক্টিভ নিউ অপরচ্যুনিটিস”

ডিপ্লোমেটিক কর্পসের সদস্য ও উন্নয়ন সহযোগীদের সম্মানে এমসিসিআই এর নেটওয়ার্কিং লাঞ্চ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (এমসিসিআই) ১৭ ফেব্রুয়ারি

উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের জন্য কেনা হচ্ছে কোটি টাকার গাড়ি

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের (ইউএনও) জন্য প্রায় কোটি টাকা মূল্যের পাজেরো স্পোর্টস কিউ এক্স জিপ গাড়ি কিনছে সরকার। সরাসরি

sangbad ad

নারী উদ্যোক্তা বৃদ্ধিতে কাজ করছে সরকার : টিপু মুনশি

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, নারী উদ্যোক্তা বৃদ্ধি এবং ব্যবসা-বাণিজ্যে নারীদের সম্পৃক্ততা বাড়াতে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে।

জনপ্রিয় হচ্ছে এজেন্ট ব্যাংকিং

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

প্রত্যন্ত গ্রামে ব্যাংকিং সেবা পৌঁছে দিতে সহজ মাধ্যম হয়ে উঠেছে এজেন্ট ব্যাংকিং। ব্যাংকের শাখা খুলতে যে পরিমান খরচ হয় তার চেয়ে

বিদেশি কর্মীদের বেতন-ভাতার নামে বছরে ২৬ হাজার কোটি টাকা পাচার

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

বিদেশি কর্মীদের বেতন-ভাতার নামে বাংলাদেশ থেকে প্রতিবছর ২৬ হাজার কোটি টাকা পাচার হয়। কম করে ধরলেও বাংলাদেশে আড়াই

জনমনে বীমার আস্থা অর্জনে সরকারের নেওয়া পদক্ষেপগুলো বেগবান করতে ‘জাতীয় বীমা দিবস’ এর দিন ঘোষনা

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বীমা একটি সম্ভাবনাময় গুরুত্বপূর্ণ আর্থিক খাত। তবে দেশের প্রেক্ষাপটে বীমার প্রতি জনগণের আস্থা তেমন নেই। তাই বীমার ব্যাপ্তি

ব্যাংক আমানতের সুদহার ৬ শতাংশ কার্যকর

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

ঋণের সুদহারে সিঙ্গেল ডিজিট বাস্তবায়নে আমানতে ৬ শতাংশ সুদহার কার্যকর করেছে ব্যাংকগুলো। রোববার (২ ফেব্রুয়ারি) থেকে

২০১৯ সালে ১৪,৩৭০ কোটি টাকা রাজস্ব আয় করেছে গ্রামীণফোন

মোহাম্মদ কাওছার উদ্দীন

image

২০১৯ সালে ১৪,৩৭০ কোটি টাকা রাজস্ব আয় করেছে গ্রামীণফোন যা আগের বছরের তুলনায় ৮.১% বেশি। ইন্টারনেট সেবা খাত থেকে

sangbad ad