• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯

 

শেয়ারবাজারে ধারাবাহিক দরপতন

ডিএসই’র সামনে প্রতীকী গণঅনশন বিনিয়োগকারীদের

নিউজ আপলোড : ঢাকা , সোমবার, ২৯ এপ্রিল ২০১৯

সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক
image

বনিয়োগকারীদের গণঅনশনের প্রতি সংহতি প্রকাশ করেন এবং জুস খাইয়ে প্রতীকী গণঅনশন ভাঙান বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন

শেয়ারবাজারে ধারাবাহিক দরপতনের প্রতিবাদে প্রতীকী গণঅনশন করছেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা। ২৯ এপ্রিল সোমাবর ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সামনে ১২ দফা দাবি নিয়ে সকাল ১১টা থেকে ‘পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদ’র ব্যানারে এই প্রতীকী গণঅনশন শুরু হয়।

বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের সভাপতি মিজান উর রশিদ বলেন, এই মুহূর্তে আমাদের আর কিছু করার নেই। দরপতনের প্রতিবাদে আমরা নিয়মিত মানববন্ধন করছি। কিন্তু কেউ কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। তাই এখন প্রতীকী গণঅশন করছি। আমাদের দাবি মানা না হলে সামনে আরও কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে।

পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আতাউল্লাহ নাঈম বলেন, ‘তিন মাস ধরে বাজারে দরপতন চলছে। এমন টানা দরপতন কোথাও হয় না। আমরা শখ করে রাস্তায় নামিনি। আমরা রাস্তায় ধুকে ধুকে মরার জন্য পুঁজিবাজারে আসিনি। আমরা কেউ রাস্তায় থাকতে চাই না। রাতে ঘুমাতে পারি না। প্রতিদিন সকালে উঠে ভাবি- আজ ভালো কিছু হবে। বাসা থেকে ব্রোকারেজ হাউজে এসে স্ক্রিনে চোখ রেখে ভাবি- আজ অবস্থার পরিবর্তন হবে। কিন্তু কিছুই হয় না। বাজার পরিস্থিতির উন্নতি হয় না। বুকের মধ্যে ব্যাথা করে। কান্না চেপে আবার বাসায় ফিরে যাই। একমাত্র প্রধানমন্ত্রী আমাদের ভরসা। তিনি ছাড়া কেউ আমাদের দুঃখ বুঝবেন না। তাই আমরা শেয়ারবাজরের বর্তমান অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য তার হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) কাছে ডিএসইর পক্ষ থেকে স্ক্রিপ্ট নিটিং সিস্টেম চালুর জন্য করা দাবির বিরোধীতা করে তিনি বলেন, স্ক্রিপ্ট নিটিং চালু করলে এই বাজার আর টিকবে না। বাজারের স্বার্থে স্ক্রিপ্ট নিটিং চালুর উদ্যোগ বন্ধ করতে হবে। ডিএসইর চিহ্নিত কিছু লোক নিজেদের স্বার্থে স্ক্রিপ্ট নিটিং চালুর দাবি জানিয়েছেন। এর মাধ্যমে তারা অতিরিক্ত কমিশন খেতে চান। শেয়ারবাজারে দুর্বল কোম্পানি তালিকাভুক্ত হওয়ায় বিএসইসির সমালোচনা করে এই বিনিয়োগকারী বলেন, উচ্চ প্রিমিয়াম নিয়ে একটি কোম্পানি তালিকাভুক্ত হয়, এখন ওই কোম্পানির শেয়ার দাম ৫-৬ টাকা। আর বিএসইসি আমাদের বলে বিনিয়োগকারীরা দেখে বিনিয়োগ করতে পারে না। আমরা বলতে চাই- বিএসইসি আইপিও অনুমোদন দেয়ার আগে দেখে দিতে পারে না? অফিস নাই, ঠিকানা নাই এমন কোম্পানি কিভাবে আইপিও অনুমোদন পায়?

এই গণঅনশনে সংহতি প্রকাশ করেছেন ঢাকা-৮ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন। সোমাবর দুপুর ২টার পরে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সামনে উপস্থিত হয়ে বিনিয়োগকারীদের গণঅনশনের প্রতি সংহতি প্রকাশ করেন এবং বিনিয়োগকারীদের জুস খাইয়ে প্রতীকী গণঅনশন ভাঙান।

বিনিয়োগকারীদের দাবির মধ্যে মধ্যে রয়েছে-

১. বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান খায়রুল হোসেনসহ সব দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের পদত্যাগ করতে হবে।

২. যেসব কোম্পানি পুঁজিবাজার থেকে মূলধন সংগ্রহ করেছে এবং করবে- ওইসব কোম্পানিকে বাধ্যতামূলকভাবে ন্যূনতম ১০ শতাংশ লভ্যাংশ দিতে হবে। জেড গ্রুপের এবং ওটিসি (ওভার দ্য কাউন্টার) মার্কেট বলতে কোন মার্কেট থাকতে পারবে না।

৩. দুর্বল কোম্পানির আইপিও প্লেসমেন্ট শেয়ারের অবৈধ বাণিজ্য বন্ধ করতে হবে।

৪. খন্দকার ইব্রাহিম খালেদের তদন্ত কমিটির রিপোর্ট অনুযায়ী দোষীদের আইনের আওতায় এনে বিচারের ব্যবস্থা করতে হবে।

৫. ২ সিসি আইনের বাস্তবায়ন করতে যেসব কোম্পানির উদ্যোক্তা পরিচালকদের ব্যক্তিগত ২ শতাংশ এবং সম্মিলিতভাবে ৩০ শতাংশ শেয়ার নেই সেসব উদ্যোক্তা পরিচালকদের ও কোম্পানিগুলোকে বিচারের আওতায় আনতে হবে।

৬. পুঁজিবাজারে অর্থের জোগান বৃদ্ধির জন্য সহজ শর্তে ৩ শতাংশ সুদে ১০ হাজার কোটি টাকার বিশেষ বরাদ্দ দিতে হবে, যা আইসিবি, বিভিন্ন মার্চেন্ট ব্যাংক ও ব্রোকার হাউজের মাধ্যমে ৫ শতাংশ হারে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা লোন হিসেবে বিনিয়োগের সুযোগ পাবে।

৭. পুঁজিবাজারের প্রাণ মিউচ্যুয়াল ফান্ডগুলোকে পুঁজিবাজারে সক্রিয় হতে বাধ্য করা এবং প্রত্যেক ফান্ডের ন্যূনতম ৮০ শতাংশ পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করতে হবে। মিউচ্যুয়াল ফান্ডগুলোকে কমপক্ষে ১০ শতাংশ হারে নগদ লভ্যাংশ দিতে হবে এবং মেয়াদ না বাড়িয়ে মিউচ্যুয়াল ফান্ডগুলোকে উন্মুক্ত ফান্ডে রূপান্তর করতে হবে।

৮. পুঁজিবাজার-সংক্রান্ত যেকোন গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণের সময় বিনিয়োগকারীদের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করতে হবে।

৯. ফাইন্যান্সিয়াল রিপোর্টিং অ্যাক্ট-২০১৫ বাস্তবায়ন ও বাইব্যাক আইন চালু করতে হবে।

১০. আইপিওর শেয়ারে সাধারণ বিনিয়োগকারীর ৮০ শতাংশ কোটা দিতে হবে।

১১. ২০১১ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৯ সালের জুন পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মার্জিন লোনের সুদ সম্পূর্ণ মওকুফ করতে হবে।

১২. ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের বিপরীতে বাংলাদেশ স্টক এক্সচেঞ্জ নামে বিকল্প স্টক এক্সচেঞ্জ করতে হবে। এর ফলে কারসাজি বন্ধ করা যাবে।

পুঁজিবাজারকে শক্ত ভিত্তিতে দাঁড় করাতে চান অর্থমন্ত্রী

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

পুঁজিবাজারের চলমান দুরবস্থায় বিনিয়োগকারীরা যখন রাস্তায় তখন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানালেন, পুঁজিবাজারকে শক্ত ভিত্তিতে

২০২১ সাল থেকে সকল স্কুল-মাদ্রাসায় কারিগরি শিক্ষা বাধ্যতামূলক

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বাংলাদেশে প্রতি বছর ২২ লাখ লোক শ্রমবাজারে প্রবেশ করে, কিন্তু কর্মসংস্থানের জন্য যে পরিমান দক্ষতা দরকার তা তাদের নাই। ফলে অধিকাংশই

উদ্যোক্তা সৃষ্টিতে উপজেলা পর্যায়ে কারিগরি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা হচ্ছে

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেছেন, দেশে উদ্যোক্তা সৃষ্টিতে উপজেলা পর্যায়ে কারিগরি

sangbad ad

শেয়ারবাজার টানা দরপতনে ডিএসইর সামনে বিনিয়োগকারীদের বিক্ষোভ

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবশেক

image

শেয়ারবাজারে টানা দরপতনের কারণে বিক্ষোভ করেছেন পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীরা। ১১ জুলাই বৃহস্পতিবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই)

আসবাবপত্র রপ্তানিতে ভালো অবস্থানে বাংলাদেশ

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

দেশের বাইরে ক্রমান্বয়ে জনপ্রিয় হয়ে ওঠছে বাংলাদেশে তৈরি আসবাবপত্র বা গৃহস্থলী পণ্য। গত এক দশক ধরে ক্রমান্বয়ে বাড়ছে এখাতে রপ্তানি

সচেতনতা বাড়ানোই বীমা খাতের প্রধান চ্যালেঞ্জ

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

সময়ের সঙ্গে বাড়ছে দেশের অর্থনীতির আকার। সেই সঙ্গে বেড়েছে বীমা খাতের পরিধি। এরপরও অর্থনীতিতে বাড়েনি বীমা খাতের অবদান

এনবিআরে বিড়ি শ্রমিকদের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

প্রস্তাবিত বাজেটের বৈষম্যমূলক শুল্কনীতির প্রতিবাদ ও ভারতের ন্যায় প্রতি হাজার বিড়িতে ১৪ টাকা করারোপসহ ৬ দফা দাবিতে জাতীয় রাজস্ব

ডিসিসিআই’র ‘ইন্টারন্যাশনাল ক্লিন টেকনোলজি ফেয়ার’

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

‘ইন্টারন্যাশনাল ক্লিন টেকনোলজি ফেয়ার’ শীর্ষক ২ দিনের মেলার আয়োজন করছে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই)।

প্রতিবছর ১০ লাখ মোটরসাইকেল উৎপাদন হবে দেশে : শিল্প মন্ত্রণালয়

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

দেশে ২০২৭ সাল নাগাদ মোটরসাইকেলের বার্ষিক উৎপাদনক্ষমতা ১০ লাখে উন্নীত করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে শিল্প মন্ত্রণালয়। পাশাপাশি

sangbad ad