• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী ২০২১

 

করোনা সংক্রমণ রোধে

১০ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন পাচ্ছে বাংলাদেশ

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০

সংবাদ :
  • সংবাদ অনলাইন ডেস্ক
image

প্রায় দশ কোটি ডোজ করোনা ভ্যাকসিন পাবে বাংলাদেশ। এর মধ্যে ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউটের তিন কোটি এবং গ্যাভির ৬৮ মিলিয়ন অর্থাৎ ছয় কোটি ৮০ লাখ ডোজ করোনার ভ্যাকসিন দেবে। দুই প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেই এরই মধ্যে চুক্তি হয়েছে। এসব ভ্যাকসিনের দাম হবে দুই থেকে ছয় ডলার বা দুই থেকে ৫০০ টাকা।

‘গ্যাভি কোভ্যাক্স’ সুবিধা থেকে বাংলাদেশ এ ভ্যাকসিন পাবে। প্রতিজন দুই ডোজ করে এই ভ্যাকসিন পাবে। মোট জনসংখ্যার শতকরা ২০ শতাংশ হারে ধাপে ধাপে এই ভ্যাকসিন পাবে বাংলাদেশ। আগামী ২০২১ সালের মধ্যে এই ভ্যাকসিন পাওয়া যাবে বলে আশা প্রকাশ করছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

গ্যাভি কোভ্যাক্স সুবিধা ছাড়াও সরকার সরাসরি যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীন থেকে ভ্যাকসিন পেতে যোগাযোগ করছে। একই সঙ্গে জেএসকের সেনোফি এবং ফাইজারের ভ্যাকসিন পাওয়ার জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে।

২৫ নভেম্বর বুধবার ‘কোভিড-১৯ এবং স্বাস্থ্য বিষয়ক হালনাগাদ তথ্য অবহিতকরণ সভা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মা, শিশু ও কৈশোর স্বাস্থ্য কর্মসূচির লাইন ডিরেক্টর ডা. শামসুল হক এ তথ্য জানান। এ সময় স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশিদ আলম উপস্থিত ছিলেন।

করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) ভ্যাকসিন নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এবং গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিন অ্যান্ড ইমিউনাইজেশন (জিএভিআই বা গ্যাভি- টিকা বিষয়ক আন্তর্জাতিক জোট) কাজ করছে। যখনই এই ভ্যাকসিন আসুক না কেন, সারা পৃথিবীর মানুষ যেন একসঙ্গে তা পায় সে বিষয়ে গত ৪ জুন গ্লোবাল ভ্যাকসিন সামিট অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে সিদ্ধান্ত হয় ‘কো ভ্যাক্স’ ফ্যাসিলিটির মাধ্যমে পৃথিবীর সবাই যেন সমহারে ভ্যাকসিন পায়।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশিদ আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের (সিএমএসডি) পরিচালক আবু হেনা মোর্শেদ জামান, স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) ডা. নাসিমা সুলতানা, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরাসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক বলেন, ‘নতুন বছরের শুরুতে অর্থাৎ জানুয়ারি মাসে দেশে টিকা আসার সম্ভাবনা রয়েছে। আর এসব টিকা মাঠপর্যায়ে প্রয়োগের জন্য ২৬ লাখ স্বাস্থ্য সহকারী ও সরকারের ইপিআই কার্যক্রম পরিচালনা করছে। তারা এটি বাস্তবায়ন করবে।’

ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট বাংলাদেশকে তিন কোটি ডোজ করোনা ভ্যাকসিন দেবে জানিয়ে মহাপরিচালক বলেন, ‘টিকাগুলো আনলেই হবে না, এগুলো মাঠ পর্যায়ে প্রয়োগ করতে হবে। কোল্ড চেইন মেনটেইন করে আনতে হবে। বেক্সিমকোর সঙ্গে কথা হয়েছে, তারা মাঠ পর্যায়ে পৌঁছানোর জন্য জেলায় পর্যন্ত সরবরাহ করবে।’

মহাপরিচালক আরও বলেন, ‘প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ টিকা আসবে। প্রথমে স্বাস্থ্যকর্মীদের টিকা দেয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে?। তারপর করোনায় সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি বেশি এমন ব্যক্তিদের। ৫০ বছরের বেশি বয়স্ক ও আগে থেকেই দুরারোগ্য রোগে আক্রান্তরা প্রাধান্য পাবেন। এরপর ধাপে ধাপে মিডিয়াকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষকে এ টিকার আওতায় আনা হবে।’

সারা পৃথিবীতেই এখন ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ হচ্ছে জানিয়ে ডা. শামসুল হক বলেন, ‘কিন্তু ভ্যাকসিন যেটাই আসুক আমরা যেন সেটা পেতে পারি সে লক্ষ্যেই কাজ হচ্ছে। যারা আগে জাতীয় ভ্যাকসিন বিতরণ পরিকল্পনা জমা দেবে তারাই আগে ভ্যাকসিন পাবে। গ্যাভি যখন থেকে পরিকল্পনা জমা নেয়া শুরু করবে, আশা করছি আমরা প্রথম দিনই আমাদের পরিকল্পনা জমা দিতে পারবো।’

গত জুলাই মাসের শুরুর দিকে বাংলাদেশ কোভ্যাক্সে আবেদন করে উল্লেখ করে শামসুল হক বলেন, ‘গ্যাভি সেটি গ্রহণ করে গত ১৪ জুলাই। বাংলাদেশ গ্যাভির কাছ থেকে ৬৮ মিলিয়ন বা ছয় কোটি ৮০ লাখ ভ্যাকসিন পাবে (দুই ডোজ) ২০ শতাংশ জনগোষ্ঠীর জন্য। সে হিসাবে প্রথমে ৩৪ মিলিয়ন বা তিন কোটি ৪০ লাখ মানুষের জন্য প্রথম ধাপে করোনার ভ্যাকসিন পাবে বাংলাদেশ।’

তবে গ্যাভি এই ভ্যাকসিন বিনা পয়সায় দেবে না জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এজন্য কো ফিন্যান্সিং-এ যেতে হবে সরকারকে। এটা এক দশমিক ছয় থেকে দুই ডলারের মধ্যে কিনতে পারবো। আর বাংলাদেশ এ নিয়ে কাজ করছে। তবে ভ্যাকসিন আসার আগে জরুরি হচ্ছে ন্যাশনাল ভ্যাকসিন ডেপ্লয়মেন্ট প্ল্যান। এটা নিয়ে কাজ হচ্ছে এবং তা একেবারেই শেষ পর্যায়ে।’

গ্যাভি ভ্যাকসিন ছাড়াও বাংলাদেশ সরকার সরাসরি ভ্যাকসিন কেনার জন্য প্রস্তুতি নিয়েছে জানিয়ে ডা. শামসুল হক বলেন, ‘সরকার ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট ও বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের মধ্যে একটি ত্রিপক্ষীয় চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। এর মধ্যে বাংলাদেশ অক্সফোর্ডের অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন কিনতে পারবে চার ডলারের বিনিময়ে, উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান থেকে পরিবহন খরচ সব মিলিয়ে এর সঙ্গে পরে যোগ হবে আরও এক ডলার। সেখান থেকে বাংলাদেশ কিনতে পারবে ৩০ মিলিয়ন ডোজ। এজন্য অর্থ বিভাগ থেকে প্রায় ৭৩৫ কোটি টাকা বিনিয়োগ করা হয়েছে।

তবে এই ভ্যাকসিন অবশ্যই বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা ও ইউরোপিয়ান কমিশনের প্রি-কোয়ালিফায়েড হতে হবে’-মন্তব্য করে স্বাস্থ্য অধিদফতরের লাইন ডিরেক্টর আরও বলেন, ‘উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ও বাংলাদেশের ওষুধ প্রশাসন কর্তৃপক্ষের অনুমোদন থাকতে হবে। জনগণের সেফটির (নিরাপত্তা) কথা চিন্তা করে সবকিছু করা হবে যদিও চুক্তি করা হয়েছে। এ দুটি ভ্যাকসিনের সোর্স ছাড়াও সিনোভ্যাকের সঙ্গে যোগাযোগ চলছে, রাশিয়ার স্পুৎনিক এগিয়ে আসছে, তাদের সঙ্গেও আমাদের যোগাযোগ রয়েছে।’

এছাড়াও জেএসকের সেনোফি এবং ফাইজারের সঙ্গেও যোগাযোগ রাখা হচ্ছে জানিয়ে ডা. শামসুল হক বলেন, ‘যদি সেরকম ‘আর্জেন্সি’ হয় তাহলে কিভাবে তাদের ভ্যাকসিন পাওয়া যেতে পারে সে নিয়েও কথা হচ্ছে। তবে কোন কোন ভ্যাকসিন আমাদের দেশের আবহাওয়ার সঙ্গে খুবই ‘কোয়েশ্চেনেবল’ এবং পৃথিবীর অনেক দেশেই এত ‘লো টেম্পারেচার’ এর ব্যবস্থা না থাকায় তারাও এ নিয়ে চিন্তিত। এসব ভ্যাকসিন বিষয়ে কাজ করতে কোভিড ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট কমিটি গঠন করেছে সরকার। এছাড়াও বাংলাদেশ ওয়ার্কিং গ্রুপ অব ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট কাজ করছে। রয়েছে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রিপায়ের্ডনেস অ্যান্ড ডেপ্লয়মেন্ট কোর কমিটি।’

কোন টিকা কতো কার্যকর

যুক্তরাষ্ট্রের ফাইজার ফার্মাসিউটিক্যালস এবং জার্মানির বায়োনটেকের উদ্ভাবিত কোভিড-১৯ টিকাকে যথেষ্ট নিরাপদ দাবি করে বলেছে, এই টিকা মানবদেহে ব্যবহারের পর যথেষ্ট অর্থাৎ ৯০ ভাগ ?সুরক্ষা দেয়ার পর্যাপ্ত প্রমাণ পাওয়া গেছে। এই দাবির ভিত্তিতে ফাইজার টিকাটি যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ প্রশাসন (এফডিএ) থেকে জরুরি ব্যবহারের অনুমোদনের জন্য আবেদন করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

ফাইজার ও বায়োনটেক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে টিকা সরবরাহে এরই মধ্যে ১৬ হাজার কোটি টাকারও বেশি অর্থের চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন, যুক্তরাজ্য, কানাডা, জাপানের সঙ্গেও চুক্তি সই হয়েছে। এই টিকার উৎপাদন শুরু হয়ে গেছে। ২০২০ সালেই প্রতিষ্ঠান দুটি পাঁচ কোটি ডোজ টিকা উৎপাদন করতে চায়। প্রতিষ্ঠান দুটি আশা করছে, এ বছরের শেষ নাগাদ ৫ কোটি ডোজ সরবরাহ করতে সক্ষম হবে তারা। ২০২১ সালের শেষ নাগাদ সরবরাহ করা যাবে প্রায় ১৩০ কোটি ডোজ।

রাশিয়ার তৈরি করোনা প্রতিষেধক স্পুটনিক-ভি ৯৫ শতাংশ কার্যকর বলে দাবি করেছে রুশ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। যুক্তরাষ্ট্রের অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির প্রস্তুত করা অ্যাস্ট্র্যাজেনাক প্রতিষেধক ৭০ শতাংশ কার্যকর বলে ইতোমধ্যে জানানো হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের আরেক ওষুধ কোম্পানি মডার্না গত ১৬ নভেম্বর তাদের করোনা টিকার তৃতীয় ধাপের প্রাথমিক ফল প্রকাশ করে দাবি করেছে, তাদের টিকা পরীক্ষার প্রাথমিক ফলে ৯৪ দশমিক ৫ শতাংশ কার্যকারিতা দেখা গেছে।

চিনা সংস্থা সাইনোভ্যাক বায়োটেক দাবি করেছে, তাদের তৈরি কোভিড-১৯ টিকা ‘করোনাভ্যাক’ নিরাপদ এবং অ্যান্টিবডি তৈরিতে ভালো সাড়া দিয়েছে। সাইনোভ্যাক-এর এই গবেষণা প্রকাশিত হয়েছে ‘দ্য ল্যানসেট ইনফেকশাস ডিজিস’ জার্নালে। চীন, ব্রাজিল ও তুরস্কসহ কয়েকটি দেশে প্রায় দশ লাখ মানুষকে করোনাভ্যাক টিকা দেয়া হয়েছে দাবি করে সাইনোভ্যাক বায়োটেক কর্তৃপক্ষ বলেছে, টিকা নেয়া কারোর মধ্যেই করোনা সংক্রমণের প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে ভ্যাকসিন উদ্ভাবনের লক্ষ্যে বিশ্বজুড়ে ১৪০টিরও বেশি গবেষণার কাজ চলমান রয়েছে। ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের ভ্যাকসিন চূড়ান্ত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ অর্থাৎ করোনা প্রতিরোধে কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে।

চীনে গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর প্রথম করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়। এরপর খুব দ্রুতসময়ের মধ্যে তা সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। এখন পর্যন্ত বিশ্বের ২১৭টি দেশ ও অঞ্চলে করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে।

বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত বিশ্বে ছয় কোটি দুই লাখ ৪২ হাজার ৬৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এই সময়ে বিশে^ করোনায় ১৪ লাখ ১৭ হাজার ৮৯৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর বাংলাদেশে ৮ মার্চ প্রথম করোনা শনাক্ত হয়। বুধবার পর্যন্ত দেশে চার লাখ ৫৪ হাজার ১৪৬ জনের করোনা শনাক্ত এবং ছয় ৪৮৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বিএনপির ৩৪ প্রার্থী ২৩৮ মামলার ভারে জর্জরিত

চট্টগ্রাম ব্যুরো

আসন্ন চসিক নির্বাচনে মামলার ভারে জর্জরিত বিএনপির ৩৪ প্রার্থী। এসব প্রার্থীরা ২৩৮ মামলা কাঁধে নিয়ে ভোটের মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন।

নির্বাচনে উত্তাপ থাকে, উত্তাপ যেন আত্মঘাতী না হয় : চট্টগ্রাম প্রশাসক

চট্টগ্রাম ব্যুরো

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন বলেছেন, নির্বাচন আসলে উত্তাপ থাকে।

অবৈধ দখলের ভিড়ে বৈধরাও সংকুচিত হয়ে যাচ্ছে পুনরায় দখল রোধে ড্রোন ক্যামেরায় তদারকি হবে : ঢাকা উত্তরের মেয়র

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

রাজধানীতে অবৈধ দখলের ভিড়ে বৈধরাও সংকুচিত হয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ঢাকা শহরে যাই ধরি, সেটাই অবৈধ।

sangbad ad

নতুন করে বাড়ছে নিত্যপণ্যের দাম

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

দীর্ঘদিন ধরে বাড়তি দামে নাভিশ্বাস উঠেছে ভোক্তাদের। এর মধ্যেই নতুন করে বাড়ছে আরও কিছু নিত্যপণ্যের দাম।

গৃহহীন মানুষের নতুন ঠিকানা আশ্রয়ণ প্রকল্প উদ্বোধন

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

ভিটেমাটিহীন মানুষের নতুন ঠিকানা হবে আশ্রয়ণ প্রকল্প। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী আজ সারাদেশে প্রায় ৭০ হাজার গৃহহীন, ভূমিহীন পরিবারকে দুই শতক জমিসহ সত্তর হাজার বাড়ি উপহার হিসেবে (বিনামূল্যে) প্রদান করবে সরকার।

উপার্জনহীন আলাল মিয়ার এখন মুখভরা হাসি

ফয়েজ আহমেদ তুষার

image

‘ফেন খাই, পানি খাই, অহন মাথা গোজনের ঠাঁই তো অইছে। অহন আর দুঃখ নাই।

’মায়ানমার রোহিঙ্গাদের দ্রুত প্রত্যাবাসনে অঙ্গীকারবদ্ধ‘

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

মায়ানমারের আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বিষয়কমন্ত্রী কাইয়া টিন জানিয়েছেন, ২০১৭ সালে বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তিরভিত্তিতে তার দেশ রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন শুরু করতে অঙ্গীকারবদ্ধ।

দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে বেসরকারি সংস্থার অংশীদারিত্ব বাড়াতে হবে : ব্র্যাক

সংবাদ অনলাইন ডেস্ক

স্থানীয় পর্যায়ে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন ও কার্যক্রম বাস্তবায়নে গতিশীলতা বৃদ্ধিতে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাসমূহের (এনজিও) অংশীদারিত্ব বাড়ানো জরুরি।

সিলেটে তরুণী ধর্ষণে সহায়তার অভিযােগে আটক ১

প্রতিনিধি, সিলেট

image

সিলেটে মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠেছে।