• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯

 

থামছে না ভেজালের দৌরাত্ম্য

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ০৯ মে ২০১৯

সংবাদ :
  • রোকন মাহমুদ
image

চট্টগ্রাম : খাদ্যে ভেজালবিরোধী অভিযান -সংবাদ

পানি, খেজুর, মিষ্টি, তেল ও অন্য খাদ্যপণ্যে সারাবছরই ভেজাল দিয়ে থাকে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী। রমজান মাস চলছে কিন্তু ভেজালের এই আগ্রাসন আরও বেড়েছে। বিভিন্ন সময়ের অভিযান আর মামলায়ও থামছে না নিত্যপণ্যের ভেজালের দৌরাত্ম্য। নিম্নমানের ভেজাল পণ্য তৈরি ও বাজারজাতকারীদের এই তালিকা থেকে বাদ যায়নি নামিদামি ব্র্যান্ডের প্রতিষ্ঠানগুলোও। বাহারি মোড়কে বাজারজাত করা এসব প্রতিষ্ঠানের বহু পণ্য গুণেমানে অত্যন্ত নিম্নমানের। নিজেদের পণ্য নিয়ে যে ঘোষণা দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানগুলো, বাজারজাত করছে ঠিক তার উল্টোটা। কোনভাবেই থামানো যাচ্ছে না ব্র্যান্ড এবং নন-ব্র্যান্ডের এসব প্রতিষ্ঠানের নিম্নমানের পণ্যের দৌরাত্ম্য। অথচ এসব প্রতিষ্ঠানের উপর ভরসা করে রোজায় বেশি দামে পণ্য কিনে খাচ্ছেন ভোক্তারা। এখন ভোক্তাদের আশঙ্কা, ঈদকে কেন্দ্র করে যেসব পণ্য বাজারে আসবে সেগুলোও ভেজাল বা নিম্নমানের হবে। তাই বাজারের কোন পণ্যেই আস্থা রাখতে পারছেন না তারা। এক্ষেত্রে তারা সন্তুষ্ট নয় নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থাগুলোর উপরও।

বিএসটিআই সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার র‌্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সরওয়ার আলমের নেতৃত্বে এবং র‌্যাবের সহযোগিতায় বাদামতলি এলাকায় একটি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। অভিযানে ২২ টন বা ২২ হাজার কেজি মেয়াদ উত্তীর্ণ খেজুর জব্দ করা হয়। এ সময় চারটি প্রতিষ্ঠানকে প্রায় ৭০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এটি শুধু একটি বাজারের চিত্র। সূত্র বলছে প্রতিদিন এমন ১০টি অভিযান পরিচালিত হচ্ছে সারা দেশে। এসব অভিযানে গড়ে ১০ থেকে ১৫টি প্রতিষ্ঠানকে ভেজাল বা নিম্নমানের পণ্য বিক্রির দায়ে মামলা ও জরিমানা করা হচ্ছে। কিন্তু তবুও থামছে না ভেজালের আগ্রাসন। এর মধ্যে নিম্নমানের ও জীবাণুযুক্ত পানি অন্যতম। প্রায় প্রতিদিনই কোন কোন অঞ্চলে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ পানির জার ধ্বংস করছে অভিযান পরিচালনাকারীরা। অথচ এসব পণ্য মানুষের কঠিন রোগ ডেকে আনতে পারে বলে জানিয়েছেন বিশ্লেষকরা। এমনকি ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকেও ঠেলে দিতে পারে ভেজাল এসব পণ্য।

এতকিছুর পরও সাধারণ মানুষকে বাধ্য হয়ে এসব পণ্যই টাকা খরচ করে কিনে খেতে হচ্ছে। রমজান সংযম আর আত্মশুদ্ধির মাস হলেও এক্ষেত্রে ভেজালকারীদের কোন ভ্রুক্ষেপ নেই। তাদের কাছে অতিরিক্ত অর্থ আয় করাই যেন প্রথম লক্ষ্য। তাই রোজার মাসে পণ্যে অতিরিক্ত চাহিদার সুযোগে ভেজাল আরও বেড়েছে।

ভোক্তারা বলছেন, তারা উপায়হীন। কেননা যাদের উপর ভরসা করে বেশি দামে পণ্য কিনছেন সেই নামিদামি ব্র্যান্ডগুলো নিম্নমানের পণ্য তৈরি করছে। ভেজালের এই আগ্রাসন প্রতিরোধ বা বন্ধ করার দায়িত্ব যাদের তারাও ব্যর্থ হচ্ছে। সুতরাং ভোক্তাদের সামনে বিকল্প কোন পথ নেই। বাজারে যা পাওয়া যায় তাই খেতে হবে। দেশের বাইরে থেকে পণ্য কিনে খাওয়ার সামর্থ এ দেশের কয়জনের আছে।

বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) সম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে বলেছে, নির্ধারিত মান (বিডিএস) বজায় রেখে পণ্য বাজারজাত করার কথা থাকলেও অনেক নামিদামি প্রতিষ্ঠান তার তোয়াক্কা করছে না। নিম্নমানের পণ্য বাজারজাত করে গ্রাহকের সঙ্গে করছে প্রতারণা করছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়ে সম্প্রতি এর প্রমাণ পেয়েছে বিএসটিআই।

রমজান সামনে রেখে বিএসটিআই বাজার থেকে ২৭ ধরনের খাদ্যপণ্যের ৪০৬টি নমুনা সংগ্রহ করে। এর মধ্যে ৩১৩টি পণ্যের নমুনার প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এর মধ্যে ৫২টি প্রতিষ্ঠানের পণ্যের নমুনা বিএসটিআইয়ের পরীক্ষায় নিম্নমানের বলে প্রমাণ হয়েছে। এসব পণ্যের মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের সরিষার তেল, পানি, সেমাই, নুডলস, সফট ড্রিংক, পাউডার, হলুদের গুঁড়া, ধনিয়ার গুঁড়া, কারি পাউডার, ঘি, মরিচের গুঁড়া, লাচ্ছা সেমাই, আয়োডিনযুক্ত লবণ, ময়দা, ফারমেন্টেড মিল্ক, চানাচুর, বিস্কুট, সুজি, মধু, চিপসসহ আরও কয়েকটি পণ্য। ৫২টি প্রতিষ্ঠানের যেসব পণ্য পরীক্ষায় নিম্নমান হিসেবে প্রমাণ মিলেছে তাদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে বিএসটিআই। এই প্রতিবেদনের উপর ভিত্তি করে এসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। সম্প্রতি শিল্প মন্ত্রণালয়ে ‘পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যপণ্যের মান নিয়ন্ত্রণে বিএসটিআই গৃহীত কার্যক্রম’-শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে শিল্পমন্ত্রী এই ঘোষণা দেন।

নিম্নমানের পণ্য বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- সরিষার তেল বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সিটি অয়েল মিলের (ইউনিট এক) তীর ব্র্যান্ড, গ্রিন ব্লিসিং ভেজিটেবল অয়েল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের জিবি, শবনম ভেজিটেবল অয়েলের পুষ্টি, বাংলাদেশ এডিবল অয়েল লিমিটেডের রূপচাঁদা সরিষার তেল নিম্নমানের বলে প্রমাণ মিলেছে।

লাচ্ছা সেমাইয়ের মধ্যে প্রাণ অ্যাগ্রো লিমিটেডের প্রাণ লাচ্ছা সেমাই, মিষ্টিমেলা ফুড প্রোডাক্টসের মিষ্টিমেলা, মধুবন ব্রেড অ্যান্ড বিস্কুটের মধুবন, মিঠাই সুইটস অ্যান্ড বেকারির মিঠাই, ওয়েল ফুড অ্যান্ড বেভারেজের ওয়েল ফুড, কিরণ লাচ্ছা সেমাই, মেসার্স মধুবন অ্যান্ড প্রডাক্টসের লাচ্ছা, জেদ্দা ফুড ইন্ডাস্ট্রিজের জেদ্দা এবং অমৃত ফুড প্রডাক্টসের অমৃত লাচ্ছা সেমাই নিম্নমানের বলে প্রমাণ মিলেছে। আয়োডিনযুক্ত লবণের ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে এসিআই, মোল্লা সল্ট, মধুমতি, দাদা সুপার, তিন তীর, মদিনা, স্টারশিপ, তাজ ও নূর স্পেশাল লবণগুলো নিম্নমানের। এ ছাড়া আরা, আল সাফি, মিজান, মর্ন ভিউ, আর আর ডিউ, দিঘি ড্রিংকিং ওয়াটার ব্র্যান্ড এবং ডানকান ন্যাচারাল মিনারেল ওয়াটার মানসম্পন্ন নয়। নিম্নমানের দুটি ঘি’র ব্র্যান্ড হলো বনলতা ও বাঘাবাড়ির স্পেশাল ঘি। ড্যানিস ও প্রাণের কারি পাউডার, সান চিপস, নিউজিল্যান্ড ডেইরির ডুডলি নুডলস নিম্নমানের।

ফ্রেশ, প্রাণ, ড্যানিশ, সান, ডলফিন ও মঞ্জিল ফুড অ্যান্ড প্রডাক্টসের হলুদের গুঁড়া মানহীন বলে প্রমাণ মিলেছে। সূর্য, ডলফিন এবং পিওর হাটহাজারী ব্র্যান্ডের মরিচের গুঁড়ায় সমস্যা পাওয়া গেছে। এছাড়া এসিআই পিওর ধনিয়া গুঁড়াও পরীক্ষায় নিম্নমানের বলে প্রমাণ মিলেছে। এর বাইরে কিং ময়দা, রূপসা দই, মক্কা চানাচুর, মেহেদি বিস্কুট, নিশিতা ফুডসের সুজি, শান্ত ফুড এবং জাহাঙ্গীর ফুড প্রোডাক্টের সফট ড্রিংক ও গ্রিনলেন ব্র্যান্ডের মধু নিম্নমানের।

এসব পণ্যের নির্ধারিত মান বজায় রাখার নির্দেশনা আছে। যা বিএসটিআইয়ের বিডিএস নামে পরিচিত। কিন্তু প্রতিষ্ঠানগুলো ওই মান বজায় না রেখে নিম্নমানের পণ্য বাজারজাত করছে। প্রাথমিক পর্যায়ে তাদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে বিএসটিআই।

সংবাদ সম্মেলনে শিল্পমন্ত্রী বলেন, রমজান মাসের পবিত্রতা রক্ষায় অসাধু ব্যবসায়ী ও বিক্রেতারা যাতে ভেজাল, নিম্নমানের খাদ্যপণ্য ও পানীয় প্রস্তুত এবং বাজারজাত থেকে বিরত থাকে সে লক্ষ্যে বিশেষ অভিযান জোরদার করা হবে। এর মধ্যে ঢাকা মহানগরীতে বিএসটিআই ও জেলা প্রশাসন যৌথভাবে প্রতিদিন তিনটি, ঢাকার পার্শ্ববর্তী উপজেলা ও জেলা শহরে প্রতিদিন কমপক্ষে দুটি, বিএসটিআইয়ের ১০টি আঞ্চলিক/বিভাগীয়/জেলা অফিসের মাধ্যমে প্রতিদিন একটি করে মোট ১০টি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে। এছাড়া র‌্যাবের সঙ্গে যৌথভাবে প্রতিদিন এক বা একাধিক মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় অংশ নেবেন বিএসটিআই প্রতিনিধি।

নবীনগরে ড্রেজারে বালি উত্তোলন ঝুঁকিতে বেড়িবাঁধসহ কয়েক গ্রাম

প্রতিনিধি, নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া)

image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার শ্যামগ্রাম ইউনিয়নে লোড ড্রেজারের বালু উত্তোলনের ফলে বেড়িবাঁধসহ কয়েকটি গ্রাম মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ

ফেঁসে যাচ্ছেন শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের অসাধু কর্মকর্তারা এবং নিয়োগ ও ভর্তি বানিজ্যের সিন্ডিকেট

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নিয়োগসহ বিভিন্ন ইস্যুতে জারি করা বিতর্কিত আদেশে ফেঁসে যাচ্ছেন শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের অসাধু কর্মকর্তারা। ওই

বধ্যভূমি থেকে শহীদদের নামফলক উধাও

প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার ধর্মতীর্থ এলাকার বধ্যভূমি থেকে শহীদদের নামফলক কে বা কারা নিয়ে গেছে। এ ঘটনায় স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের

sangbad ad

মানুষ মানুষের জন্য : আব্দুল্লাহর হৃৎপিণ্ডের ফুটো সারবে হাত বাড়ালে সবাই

প্রতিনিধি, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)

image

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে আড়াই বছরের শিশু আব্দুল্লাহকে বাঁচাতে সহযোগিতার

সাত গ্রামের ভরসা ভাঙা কাঠের পুল

গনেশ পাল, মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট)

image

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে জিউধরা ইউনিয়নের কুরুপের ধাইড় ডেউয়াতলা পদ্মপুকুর পাড়ের খালের সংযোগের পারাপারের ভাঙ্গা কাঠের পুলটি

কিশোরগঞ্জে একাধিক সর. কার্যালয় জলাবদ্ধ

জেলা বার্তা পরিবেশক, কিশোরগঞ্জ

image

কিশোরগঞ্জ জেলা শহরের বিভিন্ন এলাকায় কয়েকদিনের বৃষ্টিতে ভয়াবহ জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। পুরাতন কালেক্টরেট এলাকার কয়েকটি

ডিজিটাল বাংলাদেশের গ্রামীণ চিত্র : বাগেরহাটের সাইনবোর্ড-কচুয়া সড়ক চষাক্ষেত! ভোগান্তি

আজাদুল হক, বাগেরহাট

image

সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্তব্য কাজে উদাসীনতার কারণে বাগেরহাটের সাইনবোর্ড-কচুয়া উপজেলা সদরের আঞ্চলিক মহাসড়কটি

৬ ব্যাংক ও ২ আর্থিক প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ সমন্বিত লিখিত পরীক্ষা বাতিল

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

বাংলাদেশ ব্যাংকের তত্ত্বাবধায়নে ৬টি ব্যাংক ও ২টি আর্থিক প্রতিষ্ঠানে এক হাজার ২২৯ জন সিনিয়র অফিসার নিয়োগে অনুষ্ঠিত সমন্বিত

নভোথিয়েটারে মাসব্যাপী উন্মুক্ত আলোকচিত্র প্রদর্শনী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

রাশিয়ার ফটোগ্রাফার দিবস উদযাপন উপলক্ষে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভোথিয়েটারে ‘মানুষ, প্রকৃতি, প্রযুক্তি’ শীর্ষক

sangbad ad